Share on whatsapp
Share on twitter
Share on facebook
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

কঙ্গনা কে যৌন কর্মী বলে আইনি বিপাকে কংগ্রেস নেতা

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

news bazarer : বিজেপি প্রার্থী নাকি যৌন কর্মী। এমনই মন্তব্য কংগ্রেস নেত্রীর। জানাগেছে, বলিউড অভিনেত্রী তথা বিজেপি প্রার্থী কঙ্গনা রানাউতকে যৌনকর্মীর সঙ্গে তুলনা করে ভয়ানক বিপাকে পড়লেন কংগ্রেস নেত্রী সুপ্রিয়া শ্রীনেত। এই বক্তব্য প্রকাশে আসতেই জাতীয় মহিলা কমিশনের তরফে সুপ্রিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে নির্বাচন কমিশনে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে কঙ্গনা ও বিজেপির মহিলা সেলের পক্ষ থেকে। জাতীয় মহিলা কমিশনের অধ্যক্ষ রেখা শর্মা বলেন, ‘আমি বিষয়টি নিয়ে নির্বাচন কমিশনে চিঠি লিখেছি। সুপ্রিয়া শ্রীনেত ছাড়াও গুজরাটের কিষাণ কংগ্রেস নেতা এইচ এস অহীরও কঙ্গনা রানাউত সম্পর্কে অশালীন কটুক্তি করেছেন।’ গতকালই ভারতের জাতীয় মহিলা কমিশনের তরফে এক্স হ্যান্ডেল বলা হয়েছে, সুপ্রিয়া শ্রীনেত ও এইচ এস অহীরের মন্তব্য শালীনতার মাত্রা ছাড়িয়ে গিয়েছে। এইচ এস অহীর মাণ্ডি এবং কঙ্গনা রানাউত সম্পর্কে অত্যন্ত অসম্মানজনক মন্তব্য করেছেন। যা মহিলাদের অসম্মান করা হয়েছে। এই ধরণের ব্যবহার অনুচিত। এগুলি মহিলাদের মর্যাদাহানি করছে। নির্বাচন কমিশনে চিঠি লিখে রেখা শর্মা দু’জনের বিরুদ্ধে অবিলম্বে পদক্ষেপ নেওয়ার আর্জি জানিয়েছেন।এবং কঠোরতম শাস্তির সুপারিশ প্রদান করা হয়েছে। কঙ্গনা রানাওয়াত এবার বিজেপির হয়ে হিমাচল প্রদেশের মান্ডি থেকে লোকসভা নির্বাচনে লড়াই করবেন। আর সেই কথা প্রকাশ্যে আসতেই তাঁকে কটাক্ষ করেছেন কংগ্রেস নেত্রী সুপ্রিয়া শ্রীনাথ। সাদা রঙের বিকিনি পরা কঙ্গনার একটি ছবি পোস্ট করে তিনি লেখেন, ‘মান্ডিতে কী দাম চলছে এখন একটু বলবেন?’ তিনি তাঁর পোস্টে স্পষ্টতই কঙ্গনা রানাওয়াতকে যৌনকর্মীর সঙ্গে তুলনা করেছেন। আর তারপরই অভিনেত্রী সেই পোস্টের জবাব দিলেন। কঙ্গনা সুপ্রিয়া শ্রীনেতের পোস্টের একটি স্ক্রিনশট এক্স হ্যান্ডেলে পোস্ট করে লেখেন, ‘সম্মানীয় সুপ্রিয়া দেবী, আমার গত ২০ বছরের কেরিয়ারে আমি বিভিন্ন ধরনের মহিলাদের চরিত্রে অভিনয় করেছি। কুইনে সাধারণ গ্রাম্য মেয়ে থেকে ধকড়ে দুর্দান্ত দেখতে চর, মণিকর্নিকায় ইশ্বর থেকে চন্দ্রমুখীতে ভূতের চরিত্রে অভিনয় করেছি। রাজ্জোতে বেশ্যার চরিত্রে অভিনয় করেছি, আবার থালাইভিতে নেত্রীর চরিত্রে। মহিলাদের শরীরের বিভিন্ন অংশের বিষয়ে অকারণ কৌতূহলের বাইরে যাওয়া উচিত আমাদের। সব থেকে বড় কথা গালিগালাজ করার জন্য যৌনকর্মীদের কথা না টানাই ভালো। প্রতিটা নারীর মর্যাদা প্রাপ্য।’ এবং যৌন কর্মীরা পেশার টানেই সেই পেশায় কাজ করে। কোন পোশাকেই ছোট করে তাকে গলিতে পরিণত করা উচিত নয়।

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

Latest News

সম্পর্কিত খবর