Share on whatsapp
Share on twitter
Share on facebook
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

Birbhum news:বিশ্বভারতীর উপাচার্যৈর ঘেরাওকে কেন্দ্র করে হাতাহাতি, রণক্ষেত্র বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

Newsbazar 24:বিশ্বভারতীতে শিক্ষার পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবিতে এবং বিভিন্ন বেনিয়মের প্রতিবাদে উপাচার্য বিদ্যুত্‍ চক্রবর্তীর পদত্যাগের দাবিতে উপাচার্যকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ পড়ুয়াদের। বুধবার গভীর রাতে নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের হাতাহাতিতে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল ক্যাম্পাস।
তালা ভেঙে ভিতরে ঢোকার অভিযোগ নিরাপত্তারক্ষীদের বিরুদ্ধে। পরবর্তীতে বোলপুরের এসডিপিও-র নেতৃত্বে বিশাল পুলিশবাহিনী প্রায় ১২ ঘণ্টা পর উপাচার্য বিদ্যুত্‍ চক্রবর্তীকে ঘেরাও-মুক্ত করে।
পড়ুয়াদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরেই বিশ্ববিদ্য়ালয়ে খোদ উপাচার্য বিদ্যুত্‍ চক্রবর্তীও নাকি বিভিন্ন বেনিয়মের সঙ্গে যুক্ত আদালতের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও পুনরায় ভর্তি নেওয়া হচ্ছে না পড়ুয়াদের। বেশ কিছু দাবি-দাওয়া নিয়ে উপাচার্যের সাথে দেখা করতে গিয়েছিলেন, তারা সেখানে প্রবল বিক্ষোভ স্লোগান দিতে থাকেন।
এরপর অভিযোগ, উপাচার্য বিক্ষোভ সামলাতে নিরাপত্তারক্ষীদের গুলি চালানোর নির্দেশ দেন। এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই পরিস্থিতি আরাও ঘোরালো হয়ে ওঠে। ব্যাপক সংখ্যায় ছাত্রছাত্রীরা এসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। ঘেরাও করে রেখে দেওয়া হয় উপাচার্য বিদ্যুত্‍ চক্রবর্তীকে।
এদিকে আন্দোলনকারী পড়ুয়াদের বিরুদ্ধে পাল্টা খারাপ ব্যবহারের অভিযোগ করেছেন উপাচার্য বিদ্যুত্‍ চক্রবর্তী। তাঁর দাবি, ‘আমি হেনস্থা হচ্ছি। বাপ-মা তুলে গালগালি করছে! গায়ে হাত দিচ্ছে! মাস্টারমশাই যুক্ত আছে। যা খুশি বলে যাচ্ছে’। উপাচার্যের আক্ষেপ, ‘আমার দুঃখ হচ্ছে, রবীন্দ্রনাথের বিশ্ববিদ্যালয়ে এই অসভ্যতা, বাপ-মা তুলে গালাগালি দেওয়া! পুলিসকে খবর দেওয়া হয়েছে। পুলিস না এলে আমি কী করতে পারি’?
অবশেষে গভীর রাতে পুলিশ এসে উপাচার্যকে ঘেরাও মুক্ত করে।

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin