সাপ্লিমেন্ট

১ লা বৈশাখ না অক্ষয় তৃতীয়া ? কোন দিনটিতে দোকানে পুজো করার মাহাত্ম্য বেশী ?

১ লা বৈশাখ না অক্ষয় তৃতীয়া ? কোন দিনটিতে দোকানে পুজো করার মাহাত্ম্য বেশী ?

অক্ষয় তৃতীয়া হল চান্দ্র বৈশাখ মাসের শুক্লা তৃতীয়া অর্থাৎ শুক্লপক্ষের তৃতীয়া তিথি। হিন্দু ও জৈন ধর্মাবলম্বীদের কাছে একটি বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ এই তিথি। অক্ষয় শব্দের অর্থ হল যা ক্ষয়প্রাপ্ত হয় না। বৈদিক বিশ্বাসানুসারে এই পবিত্র তিথিতে কোন শুভকার্য সম্পন্ন হলে তা অনন্তকাল অক্ষয় হয়ে থাকে। মূলত এপ্রিলের শেষে ও মে মসের প্রথমে এই শুভ তিথি পালন করা হয়। ইতিহাস এই শুভদিনে জন্ম নিয়েছিলেন বিষ্ণুর ষষ্ঠ অবতার পরশুরাম। বেদব্যাস ও গনেশ এই দিনে মহাভারত রচনা আরম্ভ করেন। অক্ষয় শব্দের অর্থ হল যা ক্ষয়প্রাপ্ত হয় না। বৈদিক বিশ্বাসানুসারে এই পবিত্র তিথিতে কোন শুভকার্য সম্পন্ন হলে তা অনন্তকাল অক্ষয় হয়ে থাকে। আধুনিককালে এই তিথিতে সোনার বা রূপার গয়না কেনা হয়। মনে করা হয়, এই শুভ তিথিতে রত্ন বা জিনিসপত্র কিনলে গৃহে শুভ যোগ হবে। সুখ-শান্তি ও সম্পদ বৃদ্ধি হবে, এই আশাতেই এদিন মানুষ কিছু না কিছু কিনে থাকেন। অক্ষয় তৃতীয়ার ফর্দঃ এদিন অনেক বাড়িতেই পুজো করা হয়। অনেকেই জানেন না যে এই পুজোতে কী কী লাগবে। তাই এই পুজোর জন্য যা যা উপকরণ দরকার, তার একটি ফর্দ দেওয়া হল। যেমন- সিদুঁর, পঞ্চগুঁড়ি, পঞ্চগর্ব্য, তিল, হরিতকী, ফুল, দুর্ব্বা, তুলসি, বিল্বপত্র, ধূপ, প্রদীপ, ধূনা, মধুপর্ক বাটি ২, আসনাঙ্গুরীয় ২, দই, মধু, চিনি, ঘি, পুজোর জন্য কাপড় ১, শাটী ১, নৈবেদ্য ২,কুচো নৈবেদ্য ১, সভোজ্য জলপূর্ণ ঘট ১, বস্ত্র ১, পাখা ১, দক্ষিণা। সব শেষে এক ঝলকে জেনে নিন মাত্র ৭ টি পয়েন্টে। তাহলেই বুঝতে পারবেন, অক্ষয় তৃতীয়ার মাহাত্ম্য। ১) অক্ষয় শব্দের অর্থ তো আর নতুন করে বলার নেই। অক্ষয় মানে যার ক্ষয় নেই। বিনাশ নেই। প্রতি বৈশাখ মাসের শুক্লাপক্ষের তৃতীয়া তিথিতে পালন করা হয় এই অক্ষয় তৃতীয়া। অত্যন্ত শুভ দিন তো বটেই। ২) এই দিনটাতেই পরশুরামের জন্ম হয়। পরশুরাম ছিলেন নারায়ণের ষষ্ঠ অবতার। ৩) বেদব্যাস, গনেশের সাহায্য নিয়ে আজকের দিন থেকেই মহাভারত লেখা শুরু করেছিলেন। ভাবুন একবার। যে মহাভারত পড়ে বড় হলেন, সেই মহাকাব্যর লেখা শুরু কিনা আজকের দিন থেকেই। শুনেই কেমন রোমাঞ্চ লাগলো না? ৪) কৃষ্ণ এবং সুদামা ছিলেন অভিন্ন হৃদয় বন্ধু। কিন্তু দুজনের আর্থিক ভেদ ছিল। কৃষ্ণ রাজার সন্তান। আর সুদামা হলেন সাধারণ পরিবারের ছেলে। কৃষ্ণ রাজার হওয়ার পর এই বিশেষ দিনে সুদামা এসেছিলেন তাঁর প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে। ৫) শোনা যায় গঙ্গাও আজকের দিনেই নেমে এসেছিলেন আমাদের এই পৃথিবীতে। গঙ্গা যে আমাদের সভ্যতা। তাহলে সেই সভ্যতার শুরুও কিনা আজকের দিনেই! ৬) যে দেবী অন্নপূর্ণার পুজো করেন আপনি, সেই অন্নপূর্ণা দেবীর জন্মও হয়েছিল এই তিথিতে। ৭) ধনের দেবতা কুবের একবার বর চেয়েছিলেন মা লক্ষ্মীর কাছে। লক্ষ্মী ঠাকুর সন্তুষ্ট হয়ে আজকের দিনেই কুবেরকে অনেক ধনরত্ন উপহার দিয়েছিলেন। ১ লা বৈশাখ না অক্ষয় তৃতীয়া ? কোন দিনটিতে দোকানে পুজো করার মাহাত্ম্য বেশী

Admin

aappublication@gmail.com

The admin of Newsbazar24.com

Post your comments about this news