লন্ডনের মত কোলকাতায় চালু হল ওয়াটার ট্যাক্সি। নৌবিহারের মনোরম অভিজ্ঞতা,আজই টিকিট বুক করতে পারেন - Newsbazar24
কলকাতা

লন্ডনের মত কোলকাতায় চালু হল ওয়াটার ট্যাক্সি। নৌবিহারের মনোরম অভিজ্ঞতা,আজই টিকিট বুক করতে পারেন

লন্ডনের মত কোলকাতায় চালু হল ওয়াটার ট্যাক্সি। নৌবিহারের মনোরম অভিজ্ঞতা,আজই টিকিট বুক করতে পারেন

news bazar24: কোলকাতাতেই আজ বুধবার থেকে চালু হল ওয়াটার ট্যাক্সি।ভেনিস বা লন্ডনের মত কোলকাতায় জুরলো প্রশংসার পালক। আর এই সময় লোকাল ট্রেন বন্ধ, বেসরকারি বাস চলাচলও অনিয়মিত, তাই জলপথই এখন ভরসা যাত্রীদের। আপনি হুগলির চন্দননগরে গঙ্গার ফেরিঘাট থেকে ওয়াটার ট্যাক্সিতে অল্প সময়েপৌঁছে দেবে কলকাতার মিলেমিনিয়াম জেটিতে। বাড়তি পাওনা বলতে ট্রাফিক জ্যামহীন যাত্রাপথ, আর গঙ্গায় অন্যরকম নৌবিহারের মনোরম অভিজ্ঞতা তো আছেই। সম্পূর্ণ যাত্রাপথ ১ ঘণ্টা ৪৫ মিনিটের। মাঝে শুধু শেওড়াফুলির নিমাইতার্থ ঘাটে স্টপেজ। এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন যাত্রীরা।আর আবেক প্রবনের লোকেরা তো স্বর্গ পেলেন বলে দাবি করছেন।

বলা বাহুল্য, আজ বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে ওয়াটার ট্যাক্সির যাত্রা শুরু করান চন্দননগর কর্পোরেশনের পুর কমিশনার। আপাতত শেওড়াফুলির নিমাই তীর্থ ঘাট হয়ে সোজা কলকাতার মিলেনিয়াম ঘাট পর্যন্ত যাবে এই ওয়াটার ট্যাক্সি। জানা গিয়েছে, পরবর্তীতে যাত্রাপথে আরও নানা ঘাটে স্টপেজ দেবে এই ট্যাক্সি। সেক্ষেত্রে যাত্রীরাও ওঠানামা করবেন। এখন একদিকের ভাড়া ৩২০ টাকা হলেও পরে ৫০০ টাকার মধ্যে যাতায়াত করার ব্যবস্থা করা হবে । টিকিট মিলছে অনলাইনে। এই জলযান শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। যাত্রী নিরাপত্তার জন্য লাইফ জ্য়াকেট সহ  আধুনিক সরঞ্জাম থাকছে।

 চন্দন নগরের বাসিন্দা অর্পিতা গুপ্তর অভিমত, আনলক চালু হলেও লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু হয়নি। গাড়ি ভাড়া করে কলকাতা যাওয়া একদিকে ব্যয়সাধ্য, পাশাপাশি সময়ও লাগছিল। এর ফলে সুবিধা হবে। কম সময়ে আরামদায়কভাবে যাতায়ত করা । গাড়ি বুক করতে গেলে ১৭০০ থেকে ১৮০০ টাকা লাগত। এটাতে তার থেকে কম খরচে যাতায়াত করতে পারছি। গতকাল রাত ১২টায় অনলাইনে টিকিট বুক করেছি। অনেকে গাড়ি ভাড়া করে কলকাতা যাতায়াত করছেন। তাদের এতে সুবিধা হবে।যাত্রীরা এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।ভেসেল কর্তৃপক্ষের আশা বেশ ভালই সাড়া ফেলবে এই পরিষেবা। এখানে এরপর আরও এরকম ৬টি ভেসেল চলবে।

এই জলযানের ছাড়া ও আসার সময় সূচি কি?

এই জলযান ৫০ কিলোমিটার গতিবেগে ছুটতে পারে। আমরা নিয়ে যাচ্ছি ২০ কিলোমিটার গতিবেগে। সকাল ৮টায় চন্দননগর থেকে ছাড়া হবে, আর ৯টা ৪৫ মিনিটে কলকাতা পৌঁছে যাব। শেওড়াফুলিতে সাড়ে আটটায় স্টপেজ। চুঁচুড়া, শ্রীরামপুর, ব্যারাকপুরের যাত্রীরাও অনায়াসে দুই জায়গা থেকেই উঠতে পারবেন। কলকাতার মিলেনিয়াম ঘাট থেকে বিকাল ৪টেয় ছাড়বে, আবার পৌনে ৬টায় পৌঁছে যাব চন্দননগর। অনেকে বলছেন পাঁচটায় ছাড়লে ভাল হয়।

মালদা শহরে টোটো বিস্ফোরণ, চালকের মাথা উরে গিয়ে মানুষের বাড়ির ছাদে

NewsDesk - 3

aappublication@gmail.com

Newsbazar24 Reporter

Post your comments about this news