রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধডোপ্টোড়আজ সিবিআই দপ্তরে, কিন্তু কেন ? - Newsbazar24
রাজ্য

রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধডোপ্টোড়আজ সিবিআই দপ্তরে, কিন্তু কেন ?

রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধডোপ্টোড়আজ সিবিআই দপ্তরে, কিন্তু কেন ?

NEWS BAZAR 24:  তৃণমূল নেতা রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে শুক্রবার ১০,০০০ কোটি টাকার সারদা রোজভ্যালি চিট ফান্ড কেলেঙ্কারির ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠিয়েছে সিবিআই এদিন দুপুরে তাঁরা দু'জনেই সংস্থার সল্ট লেকের অফিসে গিয়েছেন বলে এক বর্ষীয়ান আধিকারিক জানিয়েছেন তিনি সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানান, ‘‘হ্যাঁ, পার্থবাবু রাজীববাবু সিবিআই অফিসে পৌঁছে গিয়েছেন দু'টি লাদা মামলার তদন্তকারী আধিকারিকরা তাঁদের সঙ্গে কথা বলবেন''

এপ্রসঙ্গে পার্থকে সংবাদমাধ্যম প্রশ্ন করলে তিনি কোনও উত্তর দিতে চা‌‌ননি রাজীব কুমারকে এর আগে সারদা মামলায় জেরা করেছে সিবিআই কিন্তু শুক্রবার তাঁকে ডেকে পাঠানো হয়েছে রোজভ্যালি কেলেঙ্কারির ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এর আগে সারদা কাণ্ডে সিবিআই যাতে তাঁকে গ্রেফতার করতে না পারে সে ব্যাপারে কলকাতা হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন রাজীব রোজভ্যালি কাণ্ডেও সেরকমই পদক্ষেপ করেছেন তিনি তবে সেই আবেদনের শুনানি এখনও হয়নি সারদা চিট ফান্ড মামলা ,৫০০ কোটি টাকার ইডির হিসেব অনুযায়ী, রোজ ভ্যালি মামলা এর প্রায় পাঁচগুণ টাকার!

সব মিলিয়ে রোজভ্যালি কাণ্ডে প্রায় ১৫,০০০ কোটি টাকার কেলেঙ্কারি হয়েছে বলে দাবি ইডির

আর এক তৃণমূল সাংসদ ডেরেক 'ব্রায়েনকে ডেকে পাঠানোর কয়েকদিনের মধ্যেই পার্থকে ডেকে পাঠাল সিবিআই। সংস্থার বিধাননগরের অফিসে প্রায় ঘণ্টাতিনেক জেরা করা হয় ডেরেককে। সিবিআই তদন্ত করছে সারদা চিট ফান্ডের সঙ্গে তৃণমূলের সংবাদপত্রজাগো বাংলা' যোগসূত্র বিষয়ে। পার্থ চট্টোপাধ্যায় কাজটির সম্পাদক এবং ডেরেক প্রকাশক। গত আগস্ট ডেরেককে জেরার সময়ই এই তদন্তে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাম উঠে আসে এর আগে সারদা কাণ্ডে তদন্তের জন্য যে তৃণমূল নেতাদের ডাকা হয়েছে তাঁরা হলেন সুব্রত বক্সী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়

ডেরেক 'ব্রায়েনের অভিযোগ, সারদা মামলায় রাজনৈতিক রং এনেছে বিজেপির কেন্দ্রীয় সরকার। তিনি এবছরের শুরুর দিকে বলেছিলেন, ‘‘দুর্নীতি কখনও দিদির সাদা শাড়িতে লাগবে না।''

গত মাসে ইডি 'জনকে সমন পাঠায়। তাঁদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন তৃণমূলের সাংসদ শতাব্দী রায়, প্রাক্তন দলীয় সদস্য কুণাল ঘোষ। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁদের ডেকে পাঠানো হয়। প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারও এই মামলায় অভিযুক্ত

NewsDesk - 2

aappublication@gmail.com

Newsbazar24 Reporter

Post your comments about this news