ফুটবল

মোহনবাগানকে ২-১ গোলে হারিয়ে ডুরান্ড কাপ চ্যাম্পিয়ন হল গোকুলাম কেরালা।

মোহনবাগানকে ২-১ গোলে হারিয়ে ডুরান্ড কাপ চ্যাম্পিয়ন হল গোকুলাম কেরালা।

ডেস্ক, ২৪ আগষ্টঃ মার্কাস জোসেফের জোড়া গোলে  ডুরান্ড কাপ চ্যাম্পিয়ন হল গোকুলাম কেরালা শনিবার যুবভারতীতে ফাইনালে তারা -  গোলে হারাল মোহনবাগানকে

১২৯তম ডুরান্ড কাপকে নতুন  মোড়কে   বার কলকাতায় আয়োজন করা হয়েছিল কিন্তু কলকাতার কোনও দল চ্যাম্পিয়ন হতে পারল না মোহনবাগান - গোলে পিছিয়ে পরলেও এক গোল দিয়ে ব্যবধান কমায় তার পরও অনেকটা সময় ছিল হাতে কিন্তু তা কাজে লাগাতে পারল না মোহনবাগানের  হয়ে এক গোল শোধ করেন সালভা চামরো ৮৬ মিনিটে গোকুলামের দুটি হলুদ  কার্ড দেখে লাল কার্ড দেখেন জাস্টিন জর্জ ইনজুরি সময় মিলিয়ে  বাকী ১০ মিনিট ১০ জনের গোকুলামকে  বাকি এক গোল শোধ করতে পারেনি  সবুজমেরুনের  ছেলেরা তবে নিশ্চিত পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত হয় মোহনবাগান গঞ্জালেসের সেন্টার হাতে এসে লাগে মহম্মদ ইরশাদের। পেনাল্টির দাবি ওঠে বাগান শিবিরে। কিন্তু রেফারি সেই দাবি মানেননি।

এর প্রতিবাদ করতে গিয়ে লাল কার্ড দেখেন মোহনবাগানের ফার্ন মোরান্তেপ্রথমার্ধেরই - গোলে এগিয়ে যায় গোকুলাম কেরালা বিরতির ঠিক আগে পেনাল্টি থেকে গোল করেন গোকুলামের বিদেশি অধিনায়ক মার্কাস জোসেফ এই নিয়ে পাঁচ ম্যাচে ১১ গোল করেন ত্রিনিদাদের এই স্ট্রাইকার

প্রথমার্ধে ঠিক শেষ মুহূর্তে পেনাল্টি পেয়ে যায় গোকুলাম কেরালা। হলুদ কার্ডদেখেন মোহনবাগান গোলকিপার দেবজিৎ মজুমদার। পেনাল্টি থেকে গোল করতে ভুল করেননি মার্কাস জোসেফ। প্রথমার্ধ - গোলে পিছিয়ে থেকেই শেষ করে মোহনবাগান গোকুলামকে অবশ্য পেনাল্টি এনে দেন মোহনবাগানের প্রাক্তন বিদেশি হেনরি কিসেকা।

৫২ মিনিটে ফের গোল করেন গোকুলামের মার্কাস জোসেফ কাউন্টার আ্যটাকে সুরাবুদ্দিনের মিস পাস ধরে সতীর্থ সঙ্গে খেলে নিয়ে ২০ গজের দৌড়ে বক্সে ঢুকে দেবজিতের পাস থেকে বল জালে রাখেন মার্কাস টুর্নামেন্টে ১১ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে গোল্ডেন বুট পান প্লাজার এই বন্ধু

৬৪ মিনিটে মোহনবাগানের গোল পরিশোধ করেন সালভা চামরো। বেতিয়ার ফ্রিক থেকে হেডে গোল করেন তিনি। এক্ষেত্রে বল গ্রিপ করতে ব্যর্থ হন গোকুলামের গোলরক্ষক উবেদ।

৮৬ মিনিটে জোড়া হলুদ কার্ড দেখে লাল কার্ড দেখেন মাঠ ছাড়েন জাস্টিন জর্জ। ১০ জন হয়ে যায় গোকুলাম। অতিরিক্ত মিনিট দেওয়া হয়। সব মিলিয়ে ১০ জনের গোকুলামকে ১০ মিনিট পায় মোহনবাগান। এই সময় একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে সবুজ মেরুন ব্রিগেড। বক্সের মধ্যে গোকুলামের মোহাম্মদ ইরসাদের বল হাতে লাগে। মোহনবাগানের ফুটবলারা পেনাল্টির আবেদন করেন। কিন্তু রেফারি দেননি। বরং রিজার্ভ বেঞ্চে বসে থাকা মোরান্তেকে লাল কার্ড দেখান রেফারি। শেষ মুহূর্তে সালভা চামরোর হেড একটুর জন্য পোস্ট উঁচিয়ে চলে যায়

সেমিফাইনালে ইস্টবেঙ্গল ফাইনালে মোহনবাগানকে হারিয়ে যোগ্য দল হিসেবে শেষ পর্যন্ত ডুরান্ড কাপে সেরা কেরালার ক্লাবটিই

টুর্নামেন্টের সেরা ফুটবলার  হন মার্কাস জোসেবা (গোকুলাম ) টুর্নামেন্টের সেরা গোলদাতামার্কাস জোসেবা (গোকুলাম) তিনি পেলেন গোল্ডেন বুট টুর্নামেন্টের সেরা গোলকিপারউবেদ সিকে।

Kartik Pal

aappublication@gmail.com

english bazar Reporter

Post your comments about this news