কলকাতা

মা দুর্গার এবার কৈলাসে ফেরার পালা , ফের শুরু হল এক দীর্ঘ 365 দিনের প্রতীক্ষা।

মা দুর্গার এবার কৈলাসে ফেরার পালা , ফের শুরু হল এক দীর্ঘ 365 দিনের প্রতীক্ষা।

মা দুর্গার এবার কৈলাসে ফেরার পালা , ফের শুরু হল এক দীর্ঘ 365 দিনের প্রতীক্ষা।

News bazar24 : পুজো শেষের মুখে। আকাশ বাতাসে দশমীর সুর। চারপাশে বিসর্জনের আবহ। মা দুর্গার এবার কৈলাসে ফেরার পালা। বাঙালির সংস্কৃতিতে মা দুর্গা ঘরেরই মেয়ে। আর ঘরের মেয়ে ঘরে ফিরলে যেমন আনন্দ, ফেরার সময় তেমনই সবার চোখ ছলছল। বিজয়া দশমী সেই ভেজা চোখে বিদায়ের দিন। হিন্দু পুরাণ মতে নবমীর দিন দেবী দুর্গা মহিষাসুরকে বধ করেছিলেন। নবমীকেই পুজোর শেষ দিন হিসেবে ধরা হয়। দশমীতে বরণের পরেই প্রতিমা বিসর্জন। বিসর্জন শুনলেই কেমন মন খারাপ ঘিরে ধরে আমাদের। একটা ফাঁকা ফাঁকা ভাব, একটা বুক হু-হু করা কষ্ট।

তবে অশুভ শক্তিকে বিনাশ করে যুদ্ধে জয়লাভের আনন্দও কম না। তাই এই বিজায়ায় পরস্পরের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় এবং আলিঙ্গন, বাঙালি পরম্পরার অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। এবারের বিজয়ায় প্রিয়জনদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিদায়ের এই করুণ সুরের সঙ্গে সঙ্গত দেয় বাংলার মাঠ ঘাট চরাচর। আশ্বিনের শেষে ছোট হতে থাকা বিকেল বলে দেয় আমাদের প্রত্যেকের মনের গভীরে পুষে রাখা যে ঘর, সেখানে ফেরার জন্য ব্যাকুল আমরা। হেমন্তের ঝুপ করে সন্ধে নামা যেন গৌরীর ফিরতে না চাওয়ার গল্প বলে যায়।এদিন থেকেই ফের শুরু হল এক দীর্ঘ প্রতীক্ষা। একটা গোটা বছর পেরিয়ে চারটে দিনের জন্য জড়ো করে রাখা সব আনন্দ আয়োজন। ক্ষণিকের ভালো থাকা, এবং ভুলে থাকা। তবু ওটুকুর জন্যই বেঁচে নেওয়া যায় একটা গোটা জীবন।

বিজয়া দশমীর শুভেচ্ছা রইল। ভাল ও সুস্থ থাকুন সব্বাই । মা’’ সব্বাইকে ভালো রেখো, আর তুমিও ভালো থেকো কৈলাসে ।

 

Shankar Chakraborty

aappublication@gmail.com

Editor of AAP publicaltions

Post your comments about this news