রাজ্য

মালদা দক্ষিনের কংগ্রেসের সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী ইডির জেরার মুখে।

মালদা দক্ষিনের কংগ্রেসের সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী ইডির জেরার মুখে।

ডেস্ক, ৫ নভেম্বরঃ  মালদা দক্ষিনের কংগ্রেসের সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরীকে আজ রোজভ্যালিকাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করল ইডি৷ জিঞ্জাসাবাদ পর্ব চলে প্রায় ৫ ঘণ্টা।   

  এর আগে রোজভ্যালিকাণ্ডে হাজিরা দিতে বলা  হয়েছিল কংগ্রেস সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরীকে৷ মঙ্গলবার সকাল ১১টা নাগাদ তিনি সল্টলেক সিজিও কমপ্লেক্সের সিবিআই দফতরে আসেন৷ এবং বিকেল সাড়ে তিনটা নাগাদ বেরিয়ে যান৷ এদিন প্রায় ঘন্টা জিঞ্জাসাবাদ পর্ব চলে।    সিবিআই দফতর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময়, এই বিষয় তাকে প্রশ্ন করা হলে, তিনি কোন কিছু জানাতে অস্বীকার করেন

  সূত্রের খবর, রোজভ্যালির বিরুদ্ধে ২০১০ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংকে একটি চিঠি লিখেছিলেন আবু হাসেম খান চৌধুরী৷ কিন্তু তার কয়েক মাস পরে তিনি ওই চিঠি প্রত্যাহার করে নেন৷ এই নিয়ে পরে প্রশ্ন উঠে, রোজভ্যালির বিরুদ্ধে চিঠি দিয়েও কেন তা প্রত্যাহার করে নেন৷ এর পিছনে কি কারণ রয়েছে৷ তা জানতেই মঙ্গলবার তাকে ইডি জিঞ্জাসাবাদ করে৷

    অন্যদিকে  রোজভ্যালি-কাণ্ডে আইপিএস দময়ন্তী সেনকে তার বাড়িতে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই সিবিআই সূত্রের খবর, দিন তাঁর পার্ক স্ট্রিটের বাড়িতে যান তদন্তকারীরা সেখানে গিয়ে তার বয়ান রেকর্ড করা হয়

    উল্লেখ্য, গত সোমবার সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে সিবিআই দফতরে হাজিরা দেন আই পি এস ওয়াকার রাজা কিন্তু সময়সীমা পার হয়ে যাওয়ার পরেও দময়ন্তী  যাননি, যে কারণে তাঁর বাড়িতে গিয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়  ২০১০ সালে কলকাতা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার (অপরাধ দমন) পদে ছিলেন দময়ন্তী সেন সে সময়ই রোজভ্যালি সম্পর্কে একাধিক অভিযোগ জমা পড়ে তাঁর কাছে সেই অভিযোগের তদন্তও করেন তিনি জানা গিয়েছে, রোজভ্যালি সংস্থা সম্পর্কে তদন্তে নেমে তৎকালীন গোয়েন্দাপ্রধান দময়ন্তী সেবিকে রিপোর্ট দিয়েছিলেন তাঁর কাছ থেকে এই মামলার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সংগ্রহেই তাঁর বয়ান রেকর্ড করে সিবিআই

NewsDesk - 3

aappublication@gmail.com

Newsbazar24 Reporter

Post your comments about this news