মালদার হবিবপুরের একসময়ের ডাকাতদের কালীপুজা এখন সার্বজনীন পূজায় পরিণত হয়েছে। - Newsbazar24
মালদা

মালদার হবিবপুরের একসময়ের ডাকাতদের কালীপুজা এখন সার্বজনীন পূজায় পরিণত হয়েছে।

মালদার হবিবপুরের একসময়ের ডাকাতদের কালীপুজা এখন সার্বজনীন পূজায় পরিণত হয়েছে।

মালদা: মালদার হবিবপুর থানার জাজল গ্রাম পঞ্চায়েতের  মানিকোড়া গ্রাম যা ৩০০ বছর আগে চেনাই যেত না৷ চারিদিকে ছিল শুধুই জঙ্গলপুনর্ভবা নদী পেরিরে বাংলাদেশ থেকে  একদল ডাকাত এই গ্রামে এসে এই পুজো প্রথম শুরু করেন ঘন জঙ্গলে মশাল জ্বালিয়ে রাতভর চলতো মায়ের পূজা অর্চনা আবার ওই রাতেই পুজো সেরে সূর্য ওঠার আগে ডাকাতের দলটি নিজেদের ডেরায় ফিরে যেত

   পরে ডাকাতদের দমন করে পুজোর দায়িত্ব নেন স্থানীয় জমিদার অবশেষে, ১০০ বছর আগে জমিদার পুজোর দায়িত্ব তুলে দেন গ্রামবাসীদের হাতেএখন  এই মা সার্বজনীন  এবং সেখানে তৈরী হয় অস্থায়ী মন্দির পরবর্তীকালে গ্রামবাসীদের প্রচেষ্টায় এখানে স্থায়ী মন্দির তৈরি হয়।

  এই পুজো কমিটির সম্পাদক সজল কুমার রায় জানান, একবার চক্ষুদানের বলির সময় মা সামনের দিকে হেলে যায়৷ সেই সময় থেকে মাকে শিকল দিয়ে বেঁধে রাখা হতো এখন শিকল দিয়ে বেঁধে না রাখলেও প্রথম বলির সময় মায়ের সামনে কাপড় দিয়ে দেওয়া হয় যাতে প্রথম বলি মা দেখতে না পায় পুজোর সময় চলে রাতভর পাঠা বলী

আরও একটি ঘটনার কথাও জানায়  এই গ্রামেই ঢেঁকি পাড়াতে আগে রাতে চিড়ে কুটতো গ্রামবাসীরা হঠাৎ সেই পাড়াতে কলেরা ছড়িয়ে পরে মারা যান কয়েকজন গ্রামবাসী এক গ্রামবাসী স্বপ্ন দেখেন যে, মা আওয়াজ পছন্দ করেন না তাই চিড়ে কোটা বন্ধ করতে হবে তা হলেই সবাই ভালো থাকবে আর সেদিন থেকেই বন্ধ করে দেন চিড়ে কোটা বন্ধ করে দেওয়া হয় গ্রামবাসীদের ব্যবসা এরপর থেকে মায়ের পুজো শুরু হয় গ্রামে

মায়ের এই পুজো উপলক্ষে গ্রামে বিশাল  মেলা বসে শুধুমাত্র এই জেলাই নয় বিভিন্ন জেলা এমনকি অন্য রাজ্য থেকেও বহু মানুষ আসে মায়ের এই পুজো দেখতে

NewsDesk - 3

aappublication@gmail.com

Newsbazar24 Reporter

Post your comments about this news