ব্যান্ডেল রেলস্টেশন সংলগ্ন এলাকায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু তৃণমূল নেতার। - Newsbazar24
হাওড়া - হুগলী

ব্যান্ডেল রেলস্টেশন সংলগ্ন এলাকায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু তৃণমূল নেতার।

ব্যান্ডেল রেলস্টেশন সংলগ্ন  এলাকায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু তৃণমূল নেতার।

ডেস্ক,২৯ জুনঃ ব্যান্ডেল রেলস্টেশন সংলগ্ন  এলাকায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু তৃণমূল নেতার। পুলিশ  সূত্রে জানা যায়  হুগলির ব্যান্ডেল রেলস্টেশন সংলগ্ন লাইনের ওপরেই তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি করা হয়। ঘটনার প্রতিবাদে রবিবার চুঁচুড়ায় ১২ ঘন্টার বনধ ডেকেছে তৃণমূল কংগ্রেস।গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত তৃণমূলনেতা  নাম দিলীপ রাম,(৪০) রেলের কর্মী ছিলেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে চুঁচুড়ার ইমামবাড়া  হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, সেখান থেকে কলকাতায় স্থানান্তরিত করা হলে রাস্তাতেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানান চন্দননগর কমিশনারেটের কমিশনার অখিলেশ চতুর্বেদী। তিনি জানিয়েছেন, রবিবার অফিস যাওয়ার জন্য নৈহাটি স্টেশনে ট্রেন ধরতে যাচ্ছিলেন দিলীপ রাম, সেই সময় তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি করা হয়

    ইতিমধ্যেই খুনের অভিযোগ দায়ের হয়েছে এবং ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার অখিলেশ চতুর্বেদী। দলের নেতার মৃত্যুর ঘটনায় বিজেপির বিরুদ্ধেই আঙুল তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। যদিও বিষয়টিকেকাট মানিএবং গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বলে মন্তব্য করেছেন সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় এবং রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ

   দিলীপ রাম এবং তাঁর স্ত্রী রিতু দলের অন্যতম সংগঠক ছিলেন বলে দাবি করেছেন চুঁচুড়ার তৃণমূল বিধায়ক অসিত মজুমদার। মৃত দিলীপ রামের স্ত্রী রিতু ব্যান্ডেলের একটি গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান। লোকসভা নির্বাচনের ফলপ্রকাশের দিন থেকে দিলীপ রাম হুমকি ফোন পাচ্ছিলেন বলে দাবি করেছেন তিনি

অসিত মজুমদার বলেন, “হুগলি লোকসভায় জেতায় এখানে ভাটপাড়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি করতে চাইছে বিজেপি। তারমধ্যে রয়েছে হুমকি ফোনও রয়েছে।  আমরা চন্দননগর পুলিশ কমিশনার এবং চুঁচুড়ার ইন্সপেক্টরকে জানিয়েছি বেশ কয়েকবার, কিন্তু কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি

 অভিযোগ নস্যাৎ করে  বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন  ঘটনার পিছনে তৃণমূলের  গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব  দায়ী

 

NewsDesk - 3

aappublication@gmail.com

Newsbazar24 Reporter

Post your comments about this news