ফুলহারের প্রবল জলের তোড়ে রতুয়া ১ ব্লকের সূর্যাপুর অস্থায়ী রিং বাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত - Newsbazar24
মালদা

ফুলহারের প্রবল জলের তোড়ে রতুয়া ১ ব্লকের সূর্যাপুর অস্থায়ী রিং বাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত

ফুলহারের প্রবল জলের তোড়ে রতুয়া ১ ব্লকের সূর্যাপুর অস্থায়ী রিং বাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত

মালদা, ২৬ সেপ্টেম্বর : বাঁধ ভাঙল ফুলহারের৷ আজ ভোর ৩টে নাগাদ ফুলহারের প্রবল জলের তোড়ে ভেসে গেছে রতুয়া ১ ব্লকের সূর্যাপুর অস্থায়ী রিং বাঁধ৷ নদীর জল ঢুকে পড়েছে রতুয়া ১ ব্লকের ৫টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়৷ ইতিমধ্যে জলের তলে চলে গেছে প্রায় ২৫০টি গ্রাম৷ জল ঢুকতে পারে মোট ৭০০ গ্রামে৷ গত কয়েকদিন ধরেই জল বাড়ছিল গঙ্গা, ফুলহর ও মহানন্দায়৷ ক'দিন আগে জলের তলায় চলে যায় রতুয়া ১ ব্লকের মহানন্দটোলা ও বিলাইমারি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা৷ আজ ভোরে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়৷ রতুয়া ১ ব্লকের কাহালা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার সূর্যাপুর অস্থায়ী রিং বাঁধের প্রায় ১০০ মিটার এলাকা আজ ফুলহরের প্রবল জলের তোড়ে ভেসে গেছে৷ ইতিমধ্যে জল ঢুকেছে ওই ব্লকের রতুয়া, কাহালা, দেবীপুর, বাহারাল ও ভাদো গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় ২৫০টি গ্রামে৷ জলে ডুবতে চলেছে রতুয়া ১ ও চাঁচল ২ ব্লকের প্রায় ৭০০ গ্রাম৷ ব্লক প্রশাসসনের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এই মুহূর্তে তাদের হাতে পর্যাপ্ত ত্রাণসামগ্রী নেই৷ তবে ওই এলাকার তিনটি স্কুলে ত্রাণ শিবির খোলা হচ্ছে৷ এর ফলে পুজার মুখে অনেক পরিবার সর্বস্বান্ত। স্থানীয় এক বাসিন্দাদের অভিযোগ, আজ সকালে ফুলহরের বাঁধ ভেঙে গেছে৷ সূর্যাপুর-কাহালায় সকাল থেকেই ফুলহরের জল ঢুকতে শুরু করেছে৷ কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত কেউ এলাকা পরিদর্শনে আসেনি৷ বর্ষার শুরুতেই যদি বাঁধ মেরামত করা হত তবে এই অবস্থা হত না৷ দেবীপুর-সূর্যাপুরের বাঁধের দীর্ঘদিন ধরে খারাপ অবস্থা৷ প্রশাসন বর্ষার আগে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিলে আজ এই অবস্থা হত না৷ প্রশাসন আগেই যদি এখানে একটা ক্যানেল করে দিত তবে বাঁধ ভাঙত না৷ এখন মাটির বস্তা দিয়ে রিং বাঁধ করে কতক্ষণ নদীর জল আটকানো যাবে? কনট্রাক্টররা জরুরি অবস্থার জন্য কাজ করছে না৷ জল যেভাবে এলাকায় ঢুকছে আমরা আতঙ্কিত৷ বাঁধ ভেঙে এলাকার কৃষকদের শেষ করে দিল৷ গোটা ঘটনার জন্য প্রশাসন দায়ী৷ ঘটনাস্থলে উপস্থিত রতুয়া ১ ব্লকের বিডিও সারওয়ার আলি বলেন, সুর্যাপুর এলাকায় ফুলহরের বাঁধ ভেঙে গেছে৷ ব্লক থেকে দুর্গত এলাকায় টিম পাঠানো হয়েছে৷ আমরা সতর্ক রয়েছি৷ এখনও কোনো বাড়িতে নদীর জল ঢোকেনি৷ স্কুলে ক্যাম্প করার কাজ শুরু হয়েছে৷ ত্রাণ মজুত করা হচ্ছে৷ এলাকাবাসীর আতঙ্ক দূর করতে মাইকিং করা হচ্ছে৷ (রতুয়া ১ ব্লকের বিডিও সারওয়ার আলি কি বলছেন শুনুন)

(পাশাপাশি রতুয়ার দেবীপুরের প্রধান কি কি বলছেন শুনুন )

NewsDesk - 3

aappublication@gmail.com

Newsbazar24 Reporter

Post your comments about this news