রান্না ঘর

চাল ডাল ফুটালেই কি খিচুড়ি হয় ? জেনে নিন মজাদার কয়েক রকমের বর্ষা স্পেশাল খিচুড়ি ...।।

চাল ডাল ফুটালেই কি খিচুড়ি হয় ? জেনে নিন  মজাদার কয়েক রকমের বর্ষা স্পেশাল খিচুড়ি ...।।

                                    - হৈমন্তী সেনগুপ্ত 

বর্ষা আর খিচুড়ি একে ওপরের সমার্থক শব্দ৷বাইরে মুষলধারে বৃষ্টি আর বাড়িতে বসে মাছ ভাজার সঙ্গে জমিয়ে খিচুড়ি খাওয়ার স্বাদ যে প্রায় অমৃত সমান, তা সব বাঙালিই জানে৷ তবে বঙ্গে এখনও জাঁকিয়ে বর্ষা না এলেও তাতে মন খারাপের কিছু নেই৷ আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস বলছে  বর্ষারানী আমাদের রাজ্যে প্রবেশ করতে চলেছেন৷ তাই আগাম বর্ষার জন্য আপনাদের কথা ভেবে কয়েকরকমের খিচুড়ির রেসিপি রইল৷ সো এনজয় রেনি ডে উইথ খিচুড়ি৷

 

শাহি খিচুড়ি

 

কী কী লাগবে:

 

পোলাওয়ের চাল ( ৫০০ গ্রাম), মুগ ডাল (২৫০ গ্রাম) , আলু ২ টো ( ছোট টুকরো করে টাকা), পনির ( ১০০ গ্রাম), মটরশুঁটি (এক কাপ), ফুলকপি (১ কাপ, ছোট টুকরো করে কাটা), গাজর (১ কাপ টুকরা করা), টমেটো কুচি (১ কাপ), ঘি ২ টেবিল চামচ , কাজু বাদাম ১২-১৫টি, , কিশমিশ ২৫ গ্রাম,

আদা কুচি ১ টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ টেবিল চামচ,গরম মসলা গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, জিরা বাটা ১ টেবিল চামচ,

চিনি –লবণ স্বাদমতো, তেজপাতা ২টি, দারুচিনি/এলাচ ২টি করে, , কাঁচালঙ্কা ১০-১২টি,, ধনে পাতা কুচি ১ কাপ।

 

কীভাবে রান্না করবেন:

প্রথমে চাল ধুয়ে জল ঝরিয়ে রাখুন। এরপর একটি শুকনো কড়াইতে মুগ ডাল ভালো করে ভাজুন। ভাজা হয়ে গেলে জলে ধুয়ে জল ঝরিয়ে ফেলুন।

এবার সব সবজি চার কোনা করে কেটে নুন দিয়ে ওই ঘিতে ভেজে ফেলুন। এরপর যে পাত্রে খিচুড়ি বসাবেন তাতে ঘি দিয়ে গরম মসলাগুলো দিয়ে ভাজুন, এরপর তাতে চাল ও ডাল দিয়ে হলুদ ও মরিচ গুঁড়া, জিরা বাটা বা গুঁড়ো ও নুন দিয়ে ভাজুন। ভাজা হয়ে গেলে ফুটন্ত জলে দিয়ে সিদ্ধ হতে দিন।  চাল, ডাল ফুটে উঠলে সবজিগুলো দিয়ে তার সঙ্গে চিনি, গরম মসলার গুঁড়া, কাঁচা মরিচ, কাজু বাদাম, কিশমিশ দিয়ে কিছুক্ষণ দমে রেখে রান্না করুন। শেষে খিচুড়ির ওপর ঘি ছড়িয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন শাহি খিচুড়ি।

ভুনা খিচুড়ি

 

কী কী লাগবে:

পোলাওয়ের চাল ১ কেজি, মুগডাল হালকা ভাজা (২ কাপ) , পেঁয়াজ কুচি (১ কাপ), আদা বাটা (১ টেবিল চামচ), রসুন কুচি (১ টেবিল চামচ), শুকনো মরিচ গুঁড়ো (২ চা চামচ), হলুদ গুঁড়ো (২ চা চামচ), দারুচিনি-এলাচ ২/৩ টুকরা করে, তেজপাতা ৩/৪টি, নুন ও তেল পরিমাণ মতো(তেলের পরিবর্তে ঘি দিতে পারেন)

 

কীভাবে রান্না করবেন:

চাল ভালো করে ধুয়ে জল ঝরিয়ে রাখুন। হাঁড়িতে তেল গরম হলে পেঁয়াজ, রসুন ভাজা হলে হলুদ বাদে সব মসলা দিয়ে দিন। এরপর ভালো করে নেড়ে ডাল ধুয়ে দিয়ে দিন। হলুদ গুঁড়ো, জল, লবণ দিয়ে নেড়ে ঢেকে দিন। চাল-ডাল সেদ্ধ হলে নামিয়ে নিন। নামানোর ৫ মিনিট আগে ওপরে ঘি দিয়ে ঢেকে রাখুন। এতে সুস্বাদু হবে এবং সুন্দর ঘ্রাণ বেরোবে। সবশেষে গরম গরম পরিবেশন করুন।

 

সাবুর খিচুড়ি

 

কী কী লাগবে:

সাবু ১০০ গ্রাম, মুগডাল ৫০ গ্রাম, হলুদ ১ চা চামচ, আদাবাটা ১ টেবিল চামচ, কাঁচামরিচবাটা ২ চা চামচ, তেজপাতা ১টি, গরম মসলা গুঁড়া ১/২ চা চামচ, চিনি পরিমাণমতো, ঘি ১ টেবিল চামচ, জিরে পরিমাণমতো।

 

কীভাবে রান্না করবেন:

প্রথমে সাবু ধুয়ে জল ঝরিয়ে নিন। তারপর মুগডাল ভেজে নিন। তারপর কড়াইতে ঘি গরম করে তাতে তেজপাতা ও জিরে ফোড়ন দিয়ে সাবু এবং পরে ডাল দিন। গরম মসলা বাদে অন্যসব মসলা দিয়ে অল্প নাড়াচাড়া করুন।  অল্প ভাজা হলে জল দিয়ে আঁচ কমিয়ে দিন। ডাল ও সাবু সেদ্ধ হলে গরম মসলা দিয়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

 

সয়া-মাংস খিচুড়ি

 

কী কী লাগবে:

পাঁঠার মাংস ১ কেজি, সয়াবিন পাঁচ ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে সেদ্ধ করে নিন ১০০ গ্রাম, সয়া বড়ি ১০ মিনিট গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে ১০০ গ্রাম

পোলাওয়ের চাল (জল ঝরানো) ৫০০ গ্রাম, সেদ্ধ মুগ ডাল ১০০ গ্রাম, তেজপাতা ৩/৪টি, আদা বাটা ২ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ২ চা চামচ, দারচিনি ৩ টুকরা, এলাচ ৪/৫টি, কাঁচা মরিচ ৫/৬টি, লবঙ্গ ৮/১০টি, গোলমরিচ ৭/৮টি, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, রসুন কুচি ১ টেবিল চামচ, হলুদ গুঁড়া সামান্য

মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো তেল প্রয়োজনমতো

 

কীভাবে রান্না করবেন:

পরিমাণমতো আদা-রসুন বাটা,হলুদ-মরিচ গুঁড়া, লবণ, তেজপাতা, দারচিনি, লবঙ্গ, এলাচ, গোলমরিচ ও আধা কাপ তেল দিয়ে মাংস মেখে রাখতে হবে ২ ঘণ্টা। এরপর সসপ্যানে তেল ও পেঁয়াজ কুচি দিয়ে মাংস ঢেকে সেদ্ধ করতে হবে। অন্য একটি বড় সসপ্যানে ঘি দিয়ে তাতে পেঁয়াজ কুচি, তেজপাতা, আদা বাটা, রসুন কুচি, গরম মসলা দিয়ে একটু ভাজতে হবে। তারপর একে একে চাল, মুগ ডাল, সয়াবিন ও সয়া বড়ি দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নিতে হবে। প্রয়োজনমতো গরম জল ও নুন দিয়ে ঢেকে দিয়ে প্রথম পাঁচ মিনিট মাঝারি আঁচে তারপর পাঁচ মিনিট মৃদু আঁচে রাখতে হবে। ভালোভাবে সেদ্ধ হয়ে গেলে মাংস, কাঁচা মরিচ, গরম মসলা ও সামান্য ঘি দিয়ে পাঁচ মিনিট দমে রেখে নামিয়ে নিতে হবে।

স্যালাড দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করতে হবে।

 

নারকেলের খিচুড়ি

 

কী কী লাগবে:coconut khichuri

পোলাও চাল (১ কাপ), মুগ ডাল (১ কাপ), নারকেলের দুধ (১ কাপ), আলু কিউব করে কাটা (১ কাপ), ফুলকপি (৭ টুকরা), মটরশুঁটি (১ কাপ), টমেটো কিউব করে কাটা (আধ কাপ), আদা কুচি (১ চা চামচ), কাঁচামরিচ (৪টি), তেজপাতা (৪টি), আস্ত জিরা (১ চা চামচ), গরম মশলা গুঁড়া (১ চা চামচ), ধনেপাতা কুচি (১ চা চামচ), লবণ পরিমাণমতো, ঘি (১ টেবিল চামচ), হলুদ (আধ চা চামচ), মরিচ গুঁড়া (১ চা চামচ), চিনি (১ টেবিল চামচ), জল (৪ কাপ)

 

কীভাবে রান্না করবেন:

প্রথমে নারকেলের দুধের সঙ্গে পরিমাণমতো গরম জল মিশিয়ে নিন। এবার চাল ও ডাল আলাদা একটি পাত্রে ভেজে নারিকেলের দুধ দিয়ে আধ সিদ্ধ করে নিন। অন্য একটি পাত্রে ঘি গরম করে তাতে জিরা, তেজপাতা, কাঁচামরিচ ফোড়ন দিন। সবজিগুলো দিয়ে ভেজে চাল ও ডাল ঢেলে সাঁতলে নিন।

হলুদ, মরিচ গুঁড়া, চিনি ও নুন দিয়ে দিন। সব সিদ্ধ হয়ে মাখা মাখা হলে ওপরে ঘি, গরম মসলা ছড়িয়ে নামিয়ে ফেলুন।

 

   আপনিও আমাদের রে সে পি লিখে পাঠাতে পারেন......

Shankar Chakraborty

aappublication@gmail.com

Editor of AAP publicaltions

Post your comments about this news