খোলা বাজারে সরষের তেলের দাম সহ অন্যান্য ভোজ্য তেলের দামের অস্বাভাবিক বৃদ্বি,গৃহস্থের নাভিশ্বাস - Newsbazar24
লাইফ স্টাইল

খোলা বাজারে সরষের তেলের দাম সহ অন্যান্য ভোজ্য তেলের দামের অস্বাভাবিক বৃদ্বি,গৃহস্থের নাভিশ্বাস

খোলা বাজারে সরষের তেলের দাম সহ  অন্যান্য ভোজ্য তেলের দামের অস্বাভাবিক বৃদ্বি,গৃহস্থের নাভিশ্বাস

 

newsbazar 24: খোলা বাজারে সরষের তেলের দাম অস্বাভাবিক হারে বৃদ্বি পাচ্ছে। স্বাভাবিকভাবেই এর আঁচ গৃহস্থের ঘরে পৌছেছে। নাভিশ্বাস উঠছে মধ্যবিত্ত মানুষ সহ নিম্নবিত্ত মানুষের। অথচ পরিসংখ্যান অনুযায়ী বছর গত বছরের তুলনায় সরষের ফলন অধিক তা  সত্ত্বেও সরষের  তেলের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্বি  পেয়েছে  দেশজুড়ে আর্থিক  পরিস্থিতির অবনতি  প্রত্যক্ষ পরোক্ষ প্রভাবে ভোজ্য তেলের  উপর এসে পড়েছে। এর ফলে  দাম আরও আরও বাড়তে পারে বলে অনুমান .দেশ জুড়ে  পেট্রোল-ডিজেলের দাম  সেঞ্চুরির দিকে এগোচ্ছে তার  সঙ্গে পাল্লা দিয়ে গোটা দেশে গত কয়েক মাস ধরে বেড়ে চলেছে ভোজ্য তেলের দাম  সরষের তেলের পাইকারি দাম ১২০-১৩০ থেকে  ১৬০-১৭০এ এসে পড়েছে। খুচরো বাজারে রাজ্যের সর্বত্র উত্তর থেকে দক্ষিন  দাম ১৮০-১৯০টাকা লিটার

উত্তরবঙ্গে বেশ কিছু  জেলায় সর্ষের ফলন ভাল হয়, তেলের মিলও রয়েছে।  সেখানেও বারে দাম বেড়েছে।   অধিকাংশ সাধারন মানুষ এই অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্বির জন্য এক শ্রেনীর ব্যবসায়ীর কালোবাজারি এবং মজুত করে রাখার ব্যবস্থাকে দায়ী করছেন পাশাপাশি সরকারের নিশ্চুপতাকে  দায়ী করছেন

খুচরো দোকানদারদের  দাবি, পাইকারি বাজারে  তেলের দাম বেড়ে যাওয়ায়  তাঁদেরও  দাম বাড়াতে হচ্ছে।  রাজ্যের সর্বত্র উত্তর থেকে দক্ষিন খোলা বাজারে এখন সর্ষের তেলের দাম প্রতি কেজিতে বেড়েছে  ৩০-৪০ টাকা একই রকম ভাবে বেড়েছে অন্যান্য ভোজ্য তেলের দাম  যেমন  সয়াবিন তেল, পাম তেল, সূর্যমুখী তেল ইত্যাদি উত্তরবঙ্গে স্থানীয় মিলের তেলের দাম লিটার পিছু ৯০ টাকাতে এসে দাড়িয়েছে।

 স্থানীয় মানুষের একাংশের অভিযোগ, সর্ষে মজুত করে দাম বাড়ানো হয়েছে মালদহের বাসিন্দা নীহার মজুমদার  বলেন, বছর সরষের ফলন ভাল হয়েছে তা সত্ত্বেও এই  অতিমারির সময় তেলের দাম ভাবে বাড়ার  ফলে মানুষের দুর্ভোগ বাড়ছে।তার উপর এক শ্রেনীর অসাধু ব্যবসায়ী মজুত করছে এর ফলে দাম বাড়ছে ব্যাপারে প্রশাসনের কঠোর নজরদারি দরকার  

সরষের তেল ছাড়া অন্যান্য সমস্ত ধরনের ভোজ্য তেলের অধিকাংশই  বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয় .তার উপর ওই সব তেলের উপর কেন্দ্রীয় আমদানি শুল্ক চাপে সব মিলিয়ে সূর্যমুখী, সয়াবিন, রাইস ব্রানসব ধরনের ভোজ্য তেলের দামই বেড়ে  চলেছে। পোস্তার সকল পাইকারি ব্যবসায়ীদের বক্তব্য,  ভোজ্য তেলের উপর প্রায় ৪০-৫০ শতাংশ হারে আমদানি শুল্ক  চাপানোর ফলে  প্রতি   কেজিতে ২৫-৩০ টাকা দাম বেশী পড়ছে এর উপর গোদের উপর বিষ ফোড়ার মত  হু হু করে বাড়তে থাকা করোনা সংক্রমণের জেরে ট্রেন বন্ধ হওয়ায় অতিরিক্ত পরিবহণ ব্যায় যুক্ত হতে চলেছে ভিন রাজ্য থেকে আমদানি করা ভোজ্য তেলের দামে  কোভিড সংক্রামণ বৃদ্ধির পাশাপাশি দেশজুড়ে ঊর্ধ্বমুখী পেট্রোল-ডিজেলের দাম বৃদ্বির সরাসরি প্রভাব ড়েছে  ভিন্ন রাজ্য থেকে আমদানি করা ভোজ্যতেলের পরিবহন ব্যয় এর উপর     রাজ্যে ভোজ্য তেলের চাহিদা পূরণ করে  রাজস্থান সেখান থেকে ট্রাকে করে ভোজ্য তেল বাজারে সে।  

পোস্তা বাজারের তেল ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে জানা যায় , রাজস্থান থেকে একটা ট্রাকে করে এই ভোজ্য তেল পোস্তা বাজারে পৌঁছানোর খরচ ছিল প্রায়  ৮০ হাজার টাকা এই পরিবহণ ব্যায় জুড়েই পাইকারি বাজারে তেলের দাম নির্ধারিত হয়  দেশজুড়ে ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী ডিজেলের দাম এবার সরাসরি প্রভাব ফেলতে চলেছে রাজ্য ভোজ্যতেলের দাম নির্ধারণে।  পেট্রোল-ডিজেলের দাম বাড়ার ফলে শীঘ্রই রাজস্থান থেকে একেকটা ট্রাকে ভোজ্য তেল পোস্তা বাজারে পৌঁছানোর খরচ প্রায় হাজার টাকা বাড়তে  চলেছে।

 এর ফলে বোঝা যাচ্ছে  এই রাজ্যে ভোজ্যতেলের আমদানি খরচ  যেভাবে বাড়ছে তার প্রভাব পাইকারি বাজারের পাশাপাশি খুচরা বাজারেও পড়বে।  আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই সরষের তেলের দাম খুচরা বাজারে  ২০০  টাকা তার বেশি তে গিয়ে দাঁড়াবে বলে ব্যবসায়ীদের ধারণা

NewsDesk - 3

aappublication@gmail.com

Newsbazar24 Reporter

Post your comments about this news