ইংরেজ বাজারে প্রাক্তম কাউন্সিলরের হেনস্থার স্বীকার তরুণী। উচ্ছেদের হুমকিতে আতঙ্কে তরুণীর পরিবার - Newsbazar24
মালদা

ইংরেজ বাজারে প্রাক্তম কাউন্সিলরের হেনস্থার স্বীকার তরুণী। উচ্ছেদের হুমকিতে আতঙ্কে তরুণীর পরিবার

ইংরেজ বাজারে প্রাক্তম কাউন্সিলরের হেনস্থার স্বীকার তরুণী। উচ্ছেদের হুমকিতে আতঙ্কে তরুণীর পরিবার

News bazar24: মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানারজীর কাজের প্রতি মুগ্ধ হয়ে বামফ্রন্টের নীতি আদর্শ ত্যাগ করে আসা জনপ্রতিনিধি তথা ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিজের মেয়ের বয়সী যুবতীর সাথে করলো চরম হেনস্থা। রাস্তায় প্রকাশ্যে পা ধরে ক্ষমা চাওয়ানো থেকে শুরু করে প্রাণ নাশের হুমকি পর্যন্ত সেই তরুণীকে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। আর এই মহৎ কাজটি করেছেন ৩ নম্বর ওয়ার্ডের একদা বামফ্রন্টএর তথা বর্তমানে তৃনমূলের বিশিষ্ট শিক্ষিত, পরউপকারি, বিশিষ্ট সমাজ সেবী পরিতোষ পরিতোষ চৌধুরী।  যদিও তিনি এই সব অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করছেন। তাঁকে বদনাম করানোর জন্য এগুলি নাকি চক্রান্ত্র ।

 

কাউন্সিলর পরিতোষ বাবুর কাছে কয়েকটি প্রশ্ন ?

আপনারা তো সবাই মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় কাজ করেন। যা কিছু করেন টা মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরনায় অনুপ্রেনিত হয়ে করেন। তবে বলবেন কি-

১)  ওয়ার্ডে এত জল জমে আছে কি করে ?

 

২) মুখ্য মন্ত্রী ও আপনার প্রশাসক বারবার জমাজল পরিষ্কার করতে বলছেন। এই সময় ডেঙ্গু বাড়লে রাজ্যের অবস্থা আরও খারাপ হয়ে যাবে। ওয়ার্ডটিকে সুইমিং পুল বানিয়ে রেখেছেন কেন ?

৩) মুখ্যমন্ত্রী ২০১১ সাল থেকে পরিবেষের ভারসম্য বজায় রাখার জন্য ‘জল ধরো জল ভরো ‘ কর্মসূচি নিয়েছেন। বিজ্ঞাপনে প্রচুর খরচও করেছেন মানুষকে অবগত করার জন্য । তবে একবারে পুকুর চুরির মত এত বড় বিল টি কোথায় গেলো ?

 

৪) যে বিল শহর কে বাঁচিয়ে রাখত বর্ষার সময় বিপুল পরিমান অতিরক্ত জল পরিবহণ করে এই ,এই বিলটি মাত্র কয়েক বছরে ভ্যনিস কি করে হয়ে গেলো। এরকম মহৎ ভ্যানিস কিন্তু পি সরকার বেঁচে থাকলেও করতে পারতেন না। আপনার ওয়ার্ডে এ হয়েছে। বন্যা বা ১৯৯৫ এর মত ভারি বৃষ্টি হলে কি করে এই এলাকার লোক বাঁচবেন ? শহরের লোক কোথায় যাবেন। আমাদের শোনা কথা, আপনার ক্ষেত্রে নাও হতে পারে। অধিকাংশ কাউন্সিলর দের কলকাতায় এখন ফ্ল্যাট কেনা আছে। মালদা ডুবলে আপনরা চলে যাবেন। সাধারণ মানুষ কোথায় যাবেন ?

 

আমরা সহ অনেক সংবাদ মাধ্যমে কয়েকদিন আগে খবর করেছিলো ইংরেজ বাজারের ৩ নম্বর ওয়ার্ডে বদ্ধ জলে নাজেহাল মানুষ। ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ জলাভূমি এবং পুকুর ভরাটের কারণে জলমগ্ন হয়ে পড়ে সমস্ত এলাকা জমে যায় ড্রেনের ময়লা।

পচা জলে প্রতিদিন পারাপার হতে সমস্যা হয় এলাকাবাসীদের, এবং ঘরে ঘরে সাপ পোকামাকড়ের উপদ্রব বেড়ে চলেছে বলে অভিযোগ। আর সেই কথাই পাড়ার লোকের উপস্থিতিতে সেই যুবতী কে হেনস্থা করে এবং সবার সম্মুখে পা ধরে ক্ষমা চাইতে বাধ্য করে।

সেখানেই থেমে থাকেনি সেই যুবতীর পরিবারকে সেখান থেকে উচ্ছেদের হুমকি দেয় প্রাক্তন কাউন্সিলরসহ ও তার দলবল বলে অভিযোগ। যদিও সেই যুবতী জনসমক্ষে ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে নেয়। তাতেও ক্ষান্ত হয় না কাউন্সিলর পরিতোষ চৌধুরী। বিগত দিনে একাধিকবার জলাশয় ভরাটের অভিযোগ দায়ের হয় সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে। অসহায় অবস্থায় সেই যুবতী লিখিত অভিযোগ করে ইংরেজবাজার থানায়। ইংরেজবাজার থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করে। আতঙ্কে দিন কাটছে সেই পরিবারটির বলে অভিযোগ।

চুক্তি ভিত্তিক মাসিক ১৫ হাজার টাকায় নিয়োগ স্বাস্থ্য দপ্তরে। দেখুন ভিডিও



:

NewsDesk - 2

aappublication@gmail.com

Newsbazar24 Reporter

Post your comments about this news