আদালত নয় ! সালিশি সভার বিঁধান না মানতে পেরে রতুয়ায় আত্মঘাতী পরিয়ারি শ্রমিক - Newsbazar24
মালদা

আদালত নয় ! সালিশি সভার বিঁধান না মানতে পেরে রতুয়ায় আত্মঘাতী পরিয়ারি শ্রমিক

আদালত নয় ! সালিশি সভার বিঁধান না মানতে পেরে রতুয়ায় আত্মঘাতী পরিয়ারি শ্রমিক

news bazar24, রতুয়া, ০৪, জুলাই : ভিন রাজ্য ফেরত যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় চাঞ্চল্য রতুয়ায়। শুক্রবার ওই যুবকের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে রতুয়া-১ ব্লকের ফরিদপুর গ্রামে।

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে ওই যুবকের বোনের সঙ্গে প্রতিবেশী যুবকের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু এই প্রেমের সম্পর্ক গ্রামবাসীরা মানতে নারাজ। এর ফলে দিন কয়েক আগে গ্রামের মাতব্বররা সালিশি সভা করে। সালিশি সভায় দুই পরিবারের জরিমানা করা হয়। এরপর থেকে বোনের কীর্তি কান্ডর ফলে পরিবারের মাথা হেড হয়। শুক্রবার বাড়ির লোকের  অবর্তমানে তিনি নিজের শোয়ার ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন এমনটাই জানান পরিবারের লোকজনেরা। পরিবারের লোকেরা জানান বাড়ি ফিরে এসেই তারা ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান।যুবক ভিন রাজ্য শ্রমিকের কাজ করতেন।ঘটনার খবর পৌঁছায় রতুয়া থানায়। খবর শুনে ছুটে আসে রতুয়া থানার পুলিশ। রতুয়া থানার ওসি কুনাল কান্তি দাস জানান মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। আপাতত একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করা হয়েছে। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য নজরুল ইসলাম জানান মৃত ওই যুবকটি পেশায় ভিন রাজ্য শ্রমিক। লকডাউনের আগে ভিন রাজ্য থেকে বাড়ি ফিরেছে। তারা চার ভাই বোন। এছাড়াও বাড়িতে রয়েছে বাবা-মা স্ত্রী এবং একটি ১০ মাসের পুত্রসন্তান।পরিবারের সবচেয়ে বড় ছিল ওই যুবকটি। এই ঘটনার পর শোকের ছায়া রেন এমনটাই জানান পরিবারের লোকজনেরা। পরিবারের লোকেরা জানান বাড়ি ফিরে এসেই তারা ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান।যুবক ভিন রাজ্য শ্রমিকের কাজ করতেন।ঘটনার খবর পৌঁছায় রতুয়া থানায়। খবর শুনে ছুটে আসে রতুয়া থানার পুলিশ। রতুয়া থানার ওসি কুনাল কান্তি দাস জানান মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। আপাতত একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করা হয়েছে।

স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য নজরুল ইসলাম জানান মৃত ওই যুবকটি পেশায় ভিন রাজ্য শ্রমিক। লকডাউনের আগে ভিন রাজ্য থেকে বাড়ি ফিরেছে। তারা চার ভাই বোন। এছাড়াও বাড়িতে রয়েছে বাবা-মা স্ত্রী এবং একটি ১০ মাসের পুত্রসন্তান।পরিবারের সবচেয়ে বড় ছিল ওই যুবকটি। এই ঘটনার পর শোকের ছায়া নেমে আসে এলাকাজুড়ে।

মালদায় গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী রতুয়ার স্কুল কর্মী

NewsDesk - 2

aappublication@gmail.com

Newsbazar24 Reporter

Post your comments about this news