দেশ

অর্থমন্ত্রী ভারতীয় অর্থনীতিতে নারীর অবদানকে স্বীকৃতি দিয়ে “নারী নারায়ণী” বলে অভিহিত করলেন

অর্থমন্ত্রী ভারতীয় অর্থনীতিতে নারীর অবদানকে স্বীকৃতি দিয়ে “নারী নারায়ণী” বলে অভিহিত  করলেন

ডেস্ক, জুলাইঃ শুক্রবার সংসদে প্রথম মহিলা অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামান ২০১৯-২০   অর্থবর্ষের বাজেট  পেশের সময় ভারতীয় অর্থনীতিতে নারীর অবদানকে স্বীকৃতি দিয়ে  গ্রামীণ খাতে তাঁদের ভূমিকাকে  "মিষ্টি গল্প" বলে অভিহিত করলেন

    এই বছর অর্থমন্ত্রী ২৯,০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছেন মহিলা শিশু উন্নয়ন মন্ত্রকের জন্য পাশাপাশি  কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করেন এবার থেকে প্রত্যেক স্বনির্ভরগোষ্ঠীর একজন করে মহিলা কেন্দ্রীয় সরকারের মুদ্রা প্রকল্পের অধীনে লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোন পাবেন"আমি দেশের প্রত্যেক নারীর মনোযোগ আকর্ষণ করে বলছি,'নারী তু নারায়ণী' অর্থাৎনারীই নারায়ণী' এই সরকার বিশ্বাস করে যে দেশে আরও বেশি নারীদের অংশগ্রহণের সঙ্গে সঙ্গে আমরা অগ্রগতি অর্জন করতে পারি ভারতের সমৃদ্ধির গল্পে, বিশেষ করে গ্রামীণ অর্থনীতিতে, নারীর ভূমিকা খুব মিষ্টি”,

        "এই সরকার  দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে যে বিশেষত গত দশকে, ভারতের নারীর ভূমিকা একেবারে আলাদা ছিল সাম্প্রতিক নির্বাচনগুলোতেও পুরুষ ভোটারদের তুলনায় নারী ভোটারদের অংশগ্রহণ বেশি করে দেখা গেছে  পাশাপাশি আমাদের দেশের সংসদেও বর্তমানে ৭৮ জন মহিলা সাংসদ রয়েছেন যা একটি রেকর্ডনারীর নেতৃত্বে উদ্যোগ আন্দোলন গড়ে তোলার ক্ষেত্রে নারী-কেন্দ্রিক নীতিনির্ধারনের ক্ষেত্রে এই বিষয়গুলি আমাদেরকে আরও শক্তিশালী করে তোলে”, বলেন অর্থমন্ত্রী

এই প্রসঙ্গে তিনি স্বামী বিবেকানন্দের উক্তিও তুলে ধরেন বিবেকানন্দ বলেছিলেন, ‘‘বিশ্বের কল্যাণ হওয়া সম্ভব নয় ততদিন যতদিন না মহিলাদের পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে পাখি কখনও এক ডানায় উড়তে পারবে না'

" মুদ্রা প্রকল্প, স্টার্টআপ ভারত এবং স্ব-নির্ভর গোষ্ঠীগুলির সহায়তার বিভিন্ন প্রকল্পগুলির মাধ্যমে নারী উদ্যোক্তাকে উৎসাহিত করছে মোদি সরকার নারী উদ্যোগগুলিকে আরো উৎসাহিত করার জন্য আমি ভারতের সব জেলায় নারী এসএইচজি সুদ সাবভেনশন প্রোগ্রামের সম্প্রসারণের প্রস্তাব করছি”,বলেন তিনি

"প্রত্যেক যাচাইকৃত এসএইচজি সদস্য, যার একটি জন ধন ব্যাংক অ্যাকাউন্ট আছে তাঁদের প্রত্যেকের জন্যে ৫০০০ টাকার ওভারড্রাফ্ট অনুমোদিত হবে প্রতিটি এসএইচজির একজন করে মহিলাকে কেন্দ্রীয় সরকারের মুদ্রা প্রকল্পের অধীনে লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণের জন্য যোগ্য মনে করা হবে", বাজেট ঘোষণার সময় জানান অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন

নির্মলা সীতারামন তাঁর বাজেট পেশ করা শুরু করেন প্রয়াত উর্দু কবি মঞ্জুর হাশমির কবিতার পঙক্তি তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘‘ইয়েকিন হো তো কোই রাস্তা নিকলতা হ্যায়, হাওয়া কি ওট ভি লে কর চারাগ জ্বলতা হ্যায় (বিশ্বাস থাকলে কোনও না কোনও রাস্তা ঠিক পাওয়া যায়, হাওয়ার সাহায্যে প্রদীপ জ্বলে ওঠে )''

Kartik Pal

aappublication@gmail.com

english bazar Reporter

Post your comments about this news