।। নাগপঞ্চমী ।। - Newsbazar24
ধর্ম কথা

।। নাগপঞ্চমী ।।

।। নাগপঞ্চমী ।।

 

।। নাগপঞ্চমী ।। ডঃ রাধা গোবিন্দ ঘোষ  

হিন্দু সংস্কৃতিতে দেব দেবীদের প্রাধান্য শ্রদ্ধাভরে স্বীকৃত দেব দেবীদের মধ্যে পুরুষ যেমন আছেন নারী  তেমনি আছেন বিভিন্ন মাসে বিভিন্ন দেবদেবীর পূজা বা  আরাধনা হয়ে থাকে ভয় বিপদ কিংবা অমঙ্গল থেকে রক্ষা পাবার জন্য স্মরণাতীত কাল থেকেই মানুষ বিভিন্ন পূজায় বিভিন্ন দেব দেবীর আরাধনা করে আসছে বঙ্গদেশ সর্প সঙ্কুল  বিষধর  সর্পের  দংশন থেকে মুক্তি পাবার জন্য যে দেবীর আরাধনা করা হয় তিনি মনসা মনসা পূজার শুরু আষাঢ় মাস থেকে মনসার আরাধনায় বলা হয় “ অস্তি কস্য মুনে মার্তা ভগিনী বাসুকে স্তথা। জরুৎ কারু মুনে; পত্নী মনসাদেবী ন মোহস্তুতে । কিন্তু কে এই অস্থিক ?  বাসুকি বা কে?  জরুৎ কারু মুনির পরিচয় কি  ? শাস্ত্রে মনসার কি পরিচয় পাওয়া যায় ?  আস্তিক জনৈক মুনি ইনার পিতার নাম  জরুৎ কারু । জরুৎ কারু মুনির  সঙ্গে মনসার বিবাহ হয় বিবাহের সঙ্গে কথা হয় যে মুনিবর পত্নীকে প্রতিপালন করবেন না কিন্তু পত্নী যখনই জরুৎ কারু মুনির   স্বেচ্ছাচারিতায় বাধা দিবে তখনই  মুনিবর পত্নীকে ত্যাগ করে চলে যাবেন বিবাহের পর মুনি  স্ত্রী মনসার  সঙ্গে নাগলোকে বাস করতে থাকেন।   একদিন মুনি  নিদ্রিত ছিলেন সন্ধ্যা বন্দনা সময় অতিবাহিত হয়ে যাচ্ছে দেখে স্বামীর ধর্ম লো হয়ে যাবে আশঙ্কায় মনসা জরুৎ কারু মুনিকে জাগরিত করেন তাতে মুনিবর অসন্তুষ্ট হয়ে পূর্বের অঙ্গীকার  অনুসারে তপস্যার জন্য বনে চলে যান মনসা অনেক অনুনয় বিনয় করলেন মুনি কোন  কথায় কর্ণপাত না করে যাবার সময় বললেন, “তোমার গর্ভসঞ্চার হয়েছে এই গর্ভে তোমার  লোকবিশ্রুতপুত্র জন্মগ্রহণ করবে”। যথাকালে মনসা পুত্র প্রসব করল সেই পুত্রই আস্তিক মুনি মহারাজ জনমেজয়ের   সর্পযজ্ঞে  নাকুল  নির্মূল হবার উপক্রম হলে মনসা  জনমেজয়ের কাছে পুত্রকে প্রেরন করে যজ্ঞ রহিত  করেন। জনমেজঅশ্বমেধ যজ্ঞের অনুষ্ঠান করলে আস্তিক তাকে প্রভূত সহযোগিতা করেন

 বাসুকি মনসার ভগিনী পিতা কশ্যপ মাতা  কদ্রু । সমুদ্র মন্থনের সময় বাসুকি মন্থন  দন্ডের রজ্জু হয়ে দেবতাদের সহায়তা করেছিলেন হস্য বৎসর ধরে ক্রমাগত মন্থন চলল কিছু উঠলো না বাসুকি বিষ উদ্গীরণ  করতে লাগলেন শিলা দংশন করতে শুরু করলেন ভয়ঙ্কর বিষ প্রভাবে চরাচর নষ্ট হয়ে যাবার উপক্রম হল। দেবতাদের অনুরোধ শিব সমস্ত বিষ পান করেন তিনি নীলকন্ঠ হলেন মাতৃ সাপে সর্প বংশ নির্বংশ হওয়ার আশঙ্কায় বাসুকি অত্যন্ত ম্রিয়মানভাবে  কালযাপন করতে লাগলেন দেবগন তাকে উপদেশ দিলেন যে জগতে জরুৎ কারু মুনির   সঙ্গে  তোমার ভগিনী মনসার বিবাহ দিলে সর্পগন রক্ষা পেতে পারে  তিনি তাই করলেন বাসুকি মনসা কে অনুরোধ করে আস্তিককে জনমেজয়ের  এর কাছে পাঠালে সর্পর্নিধন   যজ্ঞ  বন্ধ হল বাসুকি রাজরানী  ছিল ভোগবতী রাবণ পাতাল বিজয় কালে বাসুকির সঙ্গে তক্ষক, ন্টী এবং শঙ্খ কে বশে এনেছিলেন এবং  তক্ষক পত্নীকে হরণ করেছিলেন

 জরুকারু =  স্বনামখ্যাত প্রসিদ্ধ মুনি তপস্যা বলে ধর্ম জগতে অসাধারণ খ্যাতি লাভ করেন অধিকতর উন্নতি কামনায় অবশিষ্ট জীবন যাপন  করার সংকল্প গ্রহণ করেন এবং বহুকাল দারপরিগ্রহে বিরত থাকেন অবশেষে বংশ রক্ষার জন্য পিতৃগণের আদেশে দারপরিগ্রহ করেন নাগরাজ  বাসুকির ভগিনী মনসা দেবী কে বিবাহ করেন

 মনসা = পিতা কশ্যপ মাতা কদ্রু ।কশ্যপ  দেবতা  এবং দৈত্যদের পিতা কশ্যপের পিতা  মরিচি মাতা কুলা বরুণের গাভী হরণ করার অপরাধে ব্রহ্মার শাপে ইনি মর্তে  বাসুদেব রূপে জন্মগ্রহণ করেন। কদ্রু  দক্ষ প্রজাপতির কন্যা পতির কৃপায়  কদ্রু সহস্ত্র নাগ সন্তান জন্মে মনসামঙ্গল কাব্য মনসার বিস্তারিত বর্ণনা আছে চাঁদ সদাগর ছিলেন চম্পা নগরের বিখ্যাত  বনিক। তার পুত্রের নাম ছিল খিন্দর ইনি মনসা দেবীর অত্যন্ত বিদ্বেষ পরায়ণ ছিলেন সর্বদা তাকে অবজ্ঞা করতেন এতে মনসা অত্যন্ত ক্রুদ্ধ হন লক্ষিন্দরের সঙ্গে বেহুলার বিবাহ হয় বিবাহের রাত্রিতে খিন্দর সর্পাঘাতে মৃত্যু  কবলিত হয়। পতিপরায়ণা বেহুলা মৃত স্বামীকে কলার ভেলায় ভাসিয়ে নিয়ে গিয়ে স্বর্গে উপস্থিত হয়  এবং মনসা কে সন্তুষ্ট করে স্বামীর জীবন ফিরিয়ে পান মৃত খিন্দর কে ফিরে পেয়ে চাঁদ সদাগর মনসার সঙ্গে বিদ্বেষ পরিত্যাগ করে মনসার ভক্ত হন এবং বাম হাতে মনসার পূজা করেন তারপর থেকে মনসার পূজা ভূমন্ডলে প্রসার লাভ করে

 মনসার সঙ্গে অষ্টনাগের পুজো হয় এই অষ্টনাগ হলো অনন্ত, বাসুকি, পদ্ম, মহাপদ্ম, তক্ষক, কুলির কর্কট এবং শঙ্খ অনন্তের অপর নাম শেষ তুষ্টির সঙ্গে অনন্তের বিবাহ হয় দীর্ঘ তপস্যায় ব্রহ্মকে তুষ্ট করে ব্রহ্মার আদেশে পাতালে গিয়ে নিজের মাথার উপর পৃথিবী কে ধারণ করে আছেন

 তক্ষকের দংশনে পরীক্ষিতের মৃত্যু হয়েছিল পরীক্ষিতের পুত্র জনমেজয় তক্ষক সহ সমস্ত নাকুল কে নির্মূল করার জন্য সর্প যজ্ঞ করেন, আস্তিক মুনির অনুরোধে জনমেজয় সর্প যজ্ঞ বন্ধ করেন,ফলে তক্ষক পরিত্রাণ পায়

 মনসার পূজার মন্ত্র = “ওঁ হ্রীং মা মনসাদেব্যৈ নমঃ” আটটি মন্ত্রে অষ্টনাগকেও  ভিন্ন ভিন্ন  মন্ত্রে প্রণাম জানানো হয় মনসা পূজা উপলক্ষে মনসার গান হয়ে থাকে

NewsDesk - 3

aappublication@gmail.com

Newsbazar24 Reporter

Post your comments about this news