Share on whatsapp
Share on twitter
Share on facebook
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

টাওয়ার না মোবাইল,কার রেডিয়েশন বেশি ক্ষতিকারক ? কি করে বুঝবেন আপনার সেটের রেডিয়েশন কত ?

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

শঙ্কর চক্রবর্তী, সাংবাদিক ও ইলেক্ট্রনিক্স  বিশেষজ্ঞ  ( news bazar24) ঃ

মোবাইল টাওয়ারের যে ক্ষতিকারক রেডিয়েশন (radiation)  আছে তার উপর সরকারের কোন খেয়াল নেই। যে রেডিয়েশন (radiation)   আপনার শরীরের জন্য কোনো বিষ থেকে কম নয় বললেই চলে। আজ এই প্রতিবেদনে আমরা আপনার মোবাইল টাওয়ার শরীরের  উপর কতটা প্রভাব ফেলে তার একটি পরীক্ষা করার পদ্ধতি সম্পর্কে জানাবো-

বিস্তারিত

স্মার্ট ফোন আজকাল মানুষের জীবনের জন্য এক বড় এবং গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হয়ে গেছে যে লোক খাবার না খেয়েও কিছুদিন থাকতে পারবে কিন্তু মোবাইলের ডেটা শেষ হয়ে গেলে বা ব্যাটারি শেষ হয়ে গেলে সাথে সাথেই জীবন অচল হয়ে যাবে।  তবে একটা কথা সত্য, স্মার্টফোনের অনেক ক্ষতি করলেও অনেক উপকারও হয়। কিন্তু দামি কথা এই সুবিধার বদলে ফোন থেকে লোকের বেশি ক্ষতি হয়।

এর থেকে বড় কথা  মোবাইল টাওয়ারের রেডিয়েশন থেকে মানুষের শরীরে যে  বিষ ঢুকছে সেই দিকে কেও নজর দিচ্ছে না।  আজকে এই প্রতিবেদনে আমরা আপনার মোবাইল রেডিইয়েশন এবং টাওয়ার রেডিয়েশনের মানব শরীরের উপর প্রভাব ফেলে এবং তার পরীক্ষা করার পদ্ধতি সম্পর্কে জানাচ্ছি-

মোবাইল টাওয়ার রেডিয়েশন কি?

যেকোনও ডিভাইসকে একে অপরের সাথে সংযুক্ত করার জন্য একটি নেটওয়ার্কের প্রয়োজন হয়। মোবাইল ফোনের সাথে সংযোগের মাধ্যম হচ্ছে  এটি। টেলিকম নেটওয়ার্কের জন্য টেলিকম কোম্পানি আলাদা-আলাদা মোবাইল সংযোগের প্রয়োজনে টাওয়ার স্থাপন করে। নেটওয়ার্কের ক্ষেত্রে রেডিয়েশন দুই রকম হয়। প্রথম টাওয়ার থেকে বের হওয়া এবং দ্বিতীয় মোবাইলের নিজস্ব রেডিয়েশন। টাওয়ারের রেডিয়েশন আপনি নিজে থেকে চেক করতে না পারলেও কিন্তু আপনার ফোনের রেডিয়েশন নিজের থেকেই চেক করতে পারেন। টাওয়ার সরাসরি আমাদের সংস্পর্শে না থাকার জন্য  এর প্রভাব শরীরে খুব কম পড়বে কিন্তু ফোন 24 ঘন্টা আমাদের সাথে থাকার জন্য এর রেডিয়েশন প্রভাব অনেক বেশি ফেলবে এমন ধারনা ভুল। রেডিয়েশন যার প্রান আছে তার উপরেরই প্রভাব ফেলবে।তবে মোবাইল একটু বেশি ফেলে তাই মোবাইল কেনার আগে তার রেডিয়েশন সম্পকে সচেতন হতে হবে। প্রয়োজন ছাড়া ফোন দূরে রাখতে হবে।

আমরা যে মোবাইল ফোন ব্যবহার করি , সেগুলি থেকে  বিশেষ ধরনের কি তরঙ্গের বিকিরণ (ইলেক্ট্রম্যাগনেটিক বন্ধন) বের হয়। আমাদের জনজীবনের জন্য এই তরঙ্গ ক্ষতিকর মানা হয়।

মোবাইল রেডিয়েশন থেকে মানসিক অবসাদ, নার্ভের সমস্যা, যৌন সমস্যা সহ অনেক বিপদের আশঙ্কা থাকে। যদি আপনি আপনার মোবাইল ফোনের রেডেশন চেক করতে চান, তাহলে তার জন্য মোবাইল থেকে *#07# ডায়াল করতে হবে। এই নম্বর ডায়াল করলে মোবাইল স্ক্রিনের রেডিয়েশন সম্পর্কিত তথ্য দেখায়।

 এখানে  দুই ধরনের রেডিয়েশনের স্তর দেখায়। একটি ‘হেড’ এবং দ্বিতীয় ‘বডি’। হেড অর্থাৎ ফোনে কথোপকথন করার সময় মোবাইল রেডিয়েশনের লেভেল কি থাকে ? এবং বডি অর্থাৎ ফোনে গেম খেলছেন,মুভি দেখছেন বা পকেটে ভরে রাখছেন ্সেই সময় আপনার ফোনের রেডিয়েশনের লেভেল কি থাকে ? আইফোনে এই ভ্যালু চেক করার জন্য  জেনারল-এর পরে লিগল-এ গিয়ে আরএফ এক্সপোজার চেক করুন।

মোবাইল রেডিয়েশন থেকে কি কি ক্ষতি হতে পারে ?

মোবাইল রেডিয়েশন থেকে মস্তিষ্কের ক্যানসার, একগ্রতা সমস্যা , চোখের সমস্যা, মানসিক চাপ বৃদ্ধি, জন্ম দেওয়ার ক্খেত্র ঝুঁকি, নিউরোডেগেনেরেট ডিভিস অর্ডার, হৃদয়ের ঝুঁকি, প্রজনন ক্ষমতা ধরনের সমস্যা হতে পারে। এমস এবং ইন্ডিয়ান কাউন্সিল মেডিকেল অফ মেডিকেল রিসার্চ (আইসিএমআর) দ্বারা একটি গবেষণা পেপারে দাবি করেছে যে মোবাইল রেডিয়েশনের কারণে মানুষ  বহরা হতে পারে এবং নপুনশুক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, যদিও কোনো প্রমান এখনও সামনে আসেনি।

আপনার জন্য কত হওয়া উচিত মোবাইল এর রেডিয়েশন ?

সঞ্চার ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের ‘স্পেসিফিক অ্যাবজর্পশন রেট’ (সার) এর মতে যে কোন  স্মার্টফোন, অথবা অন্য স্মার্ট ডিভাইসের রেডেশন 1.6 ওয়াট কিগ্রাম থেকে  বেশি না হওয়া উচিত। শরীর থেকে ডিভাইসের 10 মিলিমিটার দূরত্বেও এটি একই প্রভাব ফেলবে। যদি ফোনে ভিডিও দেখা হয় বা পকেটে রাখা হয় সে ক্ষেত্রেও,। যদি আপনার ডিভাইস রেডিয়েশন এই সীমাকে অতিক্রম করে, তাহলে এটি আপনার স্বাস্থ্যের জন্য বিপজ্জনক। যদি ফোনের সার ভ্যালু 1.6 ওয়াট প্রতি কিগ্রা (1.6 ওয়াট/কেজি) থেকে আরও বেশি হয় তাহলে সম্পূর্ণরূপে আপনার ফোন পরিবর্তন করুন।

প্রতিরোধের পদ্ধতি কি?

টেকনোলজি এমন ভাবে তৈরি করা হয়েছে, যে এই ডিভাইসটি রেডিয়েশন থেকে একদম মুক্ত হতে পারে না । কিন্তু কিছু সময় রেডিয়েশন থেকে অবশ্যই বাঁচা অবশ্যই যেতে পারে। ফোন চার্জ লাগানো অবস্থায় কখনো কথা না বলবেন না । এই সময় মোবাইল রেডেশন 10 গুনা পর্যন্ত বৃদ্ধি পায়। সিগন্যাল দুর্বল থাকা( ফুল টাওয়ার না থাকা )  বা ব্যাটারির চার্জ ২০% এর নিচে থকার সময়  রেডিয়েশন লেভেল বেড়ে যায়। খুব দরকার হলে ইয়ারফোন বা হেডফোন ব্যবহার করুন। এতে ব্রেনে রেডিয়েশন ইফেক্ট কম পড়ে।-

Mobile Radiation
Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

Latest News