কৃষকদের বর্ষার হাত থেকে সবজি বাঁচাবার পরামর্শ জেলা উদ্যান পালন দফতরের আধিকারিকের

Newsbazar24:মালদহ জেলায় আবহাওয়া দপ্তরের হিসাব অনুযায়ী শুক্রবার পর্যন্ত বৃষ্টিপাতের পরিমাণ স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের চেয়ে প্রায় ৩০০ মিলিমিটার বেশি। সাম্প্রতিক অবিরাম বর্ষণে শীতকালীন সবজি চাষে ক্ষতির সম্মুখীন চাষীরা। এবারে শীতকালীন সবজির দাম আকাশছোঁয়া হতে পারে বলে আশঙ্কা সাধারণ মানুষের। দুই সপ্তাহ ধরে মালদা সহ গোটা উত্তরবঙ্গে লাগাতার দফায় দফায় ভারি বৃষ্টিপাত হয়েছে। এই বৃষ্টিতেই শীতকালীন সবজি চাষে ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা। কারণ শীতকালীন সবজির বীজতলা তৈরির সময় এখন। মূলত ফুলকপি, বাঁধাকপি, টমেটো, বেগুন সহ বিভিন্ন শীতকালীন সবজি গুলির বীজতলা এখন তৈরি করছেন কৃষকেরা। কিন্তু লাগাতার বৃষ্টিতে বীজতলায় ছোট ছোট চারা গাছ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ভারি বৃষ্টির ফলে বীজতলার সঠিক পরিচর্যা করতে পারছেন না কৃষকেরা। সাদা পলেথিন দিয়ে বীজতলা ঢাকা দিয়েও রক্ষা হচ্ছেনা। অতিরিক্ত বৃষ্টির ফলে পচে নষ্ট হচ্ছে চারা। কি ভাবে কৃষকেরা বর্ষার হাত থেকে সবজির বাঁচাবেন তার পরামর্শ দিয়েছেন মালদা জেলা উদ্যান পালন দফতরের আধিকারিক সামন্ত লায়েক।

তিনি বলেন, কৃষকদের জমি থেকে বীজতলা কিছুটা উঁচু করতে হবে। এতে সহজে জল দাঁড়াতে পারবেনা। বীজতলার মাটি ও বীজগুলি ছত্রাক ও ব্যাকটেরিয়া নাশক দিয়ে জীবাণু মুক্ত করতে হবে। এতে গাছের ভাল হয়, অপরদিকে ফলন ভাল হবে। উঁচু জমিতে সবজি চাষ করতে হবে। কোনভাবেই জল জমতে দেওয়া যাবেনা সবজি জমিতেও। জল জমে থাকলে সবজি গাছ পচে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। বিশেষ করে টমেটো, ফুলকপি ও বাঁধাকপি নরম প্রকৃতির গাছ। এই সবজি গাছগুলি দ্রুত পচে যায়। তাই দ্রুত ছত্রাক নাশক প্রয়োগ করতে হবে।
অপরদিকে এই বিষয়ে জেলা ব্যবসায়ী নেতা উজ্জ্বল সাহা জানান অকাল বর্ষণে, শীতকালীন যে সমস্ত বীজ রোপণের ক্ষেত্রে ক্ষতির মুখে পড়েছেন কৃষকেরা। তবে রাজ্য সরকার এবং জেলা উদ্যান পালন দপ্তরের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা হচ্ছে কৃষকদের।

এরকম আরো খবর পেতে সাবস্ক্রাইব করুন