Share on whatsapp
Share on twitter
Share on facebook
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

মকর সংক্রান্তিতে তিল খেতে হয় কেন ? শাস্ত্র ও বিজ্ঞান কি বলছে এই দিনটির বিষয়ে

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

সংক্ষেপে-

আজকের দিনেই সূর্য মকর রাশিতে প্রবেশ করে। তাই তো এই উৎসবের নাম মকর সংক্রান্তি ।

তিল শনিদেবের খুব প্রিয়। এই দিন তিল দান করলে বা খেলে শনি দেব প্রসন্ন হয়ে থাকেন।

আজকের দিনে সূর্যের অবস্থানের কারণে দিন ও রাতের পরিধি বেড়ে যায় ।

এই মহাতিথিতেই  পিতামহ ভীষ্ম শরশয্যায় ইচ্ছামৃত্যু গ্রহণ করেছিলেন ।

উত্তরায়ণে সময় মাষের মধ্যে কোন মানুষের মৃত্যু হলে তাঁর মুক্তি প্রাপ্তি হয় । 

 

 

news bazar24 : কয়েক যুগ থেকেই পবিত্র উৎসব হিসেবে চলে আসছে পৌষ সংক্রান্তি বা মকরসংক্রান্তি উৎসব। তবে কবে থেকে এই তিথিকে উৎসব ও পুজা হিসেবে পালান করা হয়ে আসছে তার কোন তথ্য এখন পর্যন্ত নেই। অনেকের মতে  এটা হাজার বছরের পুরানো উৎসব কারন অনেক পুরাণেও এর উল্লেখ আছে।

পুরাণ অনুযায়ী, শ্রী কৃষ্ণের যুগে   মকর সংক্রান্তির এই মহাতিথিতেই মহাভারতের পিতামহ ভীষ্ম শরশয্যায় ইচ্ছামৃত্যু গ্রহণ করেছিলেন। আবার শিব পুরান মতে , এই দিনই দেবতাদের সঙ্গে অসুরদের যুদ্ধ শেষ হয়েছিল, সেই কারনে এই দিনটিকে বিশেষ ধর্মীয় দিন হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে।

 বিষ্ণু পুরাণ মতে,এই মকরসংক্রান্তির দিন বিষ্ণুদেব অসুরদের বধ করে তাঁদের কাটা মুন্ডু মন্দিরা পর্বতে পুঁতে দিয়েছিলেন, তাই মনে করা হয় এই  দিনই সমস্ত অশুভ শক্তির বিনাস হয়ে শুভ শক্তি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। সেই কারনে    আজও মানা হয়ে থাকে মকরসংক্রান্তির দিন একটি পবিত্র দিন।

আবার অন্য মতে, সূর্য এ দিন নিজের ছেলে মকর রাশির অধিপতি শনি দেবের বাড়ি এক মাসের জন্য ঘুরতে গিয়েছিলেন। তাই এই দিনটিকে বাবা ছেলের সম্পর্কের একটি বিশেষ দিন হিসাবেও ধরা হয়।

আবার জ্যোতিষ বিজ্ঞান অনুযায়ী, সূর্যের গতি দুই প্রকারের হয় , উত্তরায়ণ এবং দক্ষিণায়ণ। ২১ ডিসেম্বর সূর্য উত্তরায়ন থেকে দক্ষিণায়নে প্রবেশ করে। এ দিন রাত সবথেকে বড় হয় আর দিন সবথেকে ছোট হয়। এর পর থেকে দিন বড় আর রাত ছোট হতে শুরু করে।

মাঘ থেকে আষাঢ় পর্যন্ত ছয় মাস উত্তরায়ণ। আবার শ্রাবণ থেকে পৌষ মাস পর্যন্ত ছয় মাস দক্ষিণায়ণ। পৌষ মাসের সংক্রান্তিকেই বলা হয় উত্তর সংক্রান্তি বা মকর সংক্রান্তি।

হিন্দু শাস্ত্র মতে উত্তরায়ণে সময় মাষের মধ্যে কোন মানুষের মৃত্যু হলে তাঁর মুক্তি প্রাপ্তি হয় এবং একই ভাবে  দক্ষিণায়ণের মধ্যে মৃত্যু হলে তাঁর পুনরাবৃত্তি হয় অর্থাৎ তাঁকে আবার বিশ্ব সংসারে ফিরে আসতে হয়। সূর্য এ দিনই ধনু রাশি থেকে মকর রাশিতে প্রবেশ করে। এর থেকেই মকর সংক্রান্তির উৎপত্তি।

এক নজরে-

এই দিনটিকেই কেন  মকর সংক্রান্তি বলা হয় ?

শাস্ত্র মতে  আজকের দিনেই সূর্য মকর রাশিতে প্রবেশ করে। তাই তো এই উৎসবের নাম মকর সংক্রান্তি।

দিন রাত  অনুষ্ঠান হয় কেন ?

বিজ্ঞানানুসারে আজকের দিনে সূর্যের অবস্থানের কারণে দিন ও রাতের পরিধি বেড়ে যায়। সেই কারণই মকর সংক্রান্তির দিন  বহু জায়গাতে দীবারাত্র উৎসব চলতে থাকে।

কি কি নামে ডাকা হয় এই উৎসবকে ?

আমাদের দেশের পশ্চিম ও দক্ষিন দিকের জনপ্রিয় উৎসব ।  দক্ষিণে যা পাঙ্গাল নামে পরিচিত, উত্তর ভারতে তাই লোড়ি নামে বিখ্য়াত।  মকর সংক্রান্তির দিনটিকে অনেক জায়গায় উত্তরায়ন বলেও ডাকা হয়ে থাকে।

আজকের দিনে তিল খেতে হয় কেন?

কিছু খাবার আছে যা আজকের দিন খেতেই হয়। তার মধ্য়ে একটি হল তিলের নাড়ু, খাজা, তিলুয়া । এই তিল শনিদেবের খুব প্রিয়। এই দিন তিল দান করলে বা খেলে শনি দেব প্রসন্ন হয়ে থাকেন। সেই কারনেই  এই খাবারটি ছাড়া মকর সংক্রান্তি উৎসব সম্পুর্ণই হয় না। তাই তো অনেক জায়গায় এই উৎসব তিলগুল নামেও পরিচিত।  

 

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin