Share on whatsapp
Share on twitter
Share on facebook
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

বেনারস থেকে বাংলাদেশ হয়ে আসাম পর্যন্ত বিশ্বের দীর্ঘতম জলপথে নৌবিহার চালু করছে ভারত সরকার

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

news bazar24:    যারা জলপথে ভ্রমণ করতে ভালোবাসেন তাদের জন্য সুখবর। ভারত সরকারের উদ্যোগে বিশ্বের দীর্ঘতম জলপথ বিলাসবহুল এক জলপথ নির্মাণ হতে চলেছে। উত্তর প্রদেশ থেকে আসাম পর্যন্ত এই জলপথের বেশ কিছু অংশ থাকছে বাংলাদেশেও। বিলাসবহুল এই নৌবিহারটি তার যাত্রাপথে প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া বিভিন্ন নদী অতিক্রম করবে।
সব ঠিক থাকলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আগামী ১৩ জানুয়ারি এই নৌবিহারের উদ্বোধন করবেন বলে সংবাদ সূত্রে জানা গেছে।

উদ্বোধনের দিন দেশি বিদেশি পর্যটকদের নিয়ে এই নৌবিহারে প্রায় ৩ হাজার ২০০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করবে বলে জানা গেছে। এই রোমাঞ্চকর যাত্রাপথের মধ্যে বাংলাদেশেই রয়েছে প্রায় ১ হাজার ১০০ কিলোমিটার। যেখান থেকে উপভোগ করা যাবে পদ্মা নদীর অপরূপ দৃশ্য।
বাংলা দেশের যাত্রাপথে ক্রুজটি সবমিলিয়ে ২৭টি নদীর ওপর দিয়ে যাবে। এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত ম্যাপ অনুযায়ী, এই যাত্রা পথের নৌ বিহার শুরু হবে উত্তর প্রদেশের বারানসি থেকে।
এরপর সেটি জলপথে বিহারের পাটনা, পশ্চিমবঙ্গের কলকাতাসহ বিভিন্ন ধর্মীয় ও পর্যটন স্থান ছুঁয়ে বাংলাদেশে পদ্মা নদী হয়ে প্রবেশ করবে।
এই বিলাসবহুল নৌবিহারের যাত্রাপথে বাংলাদেশের মোংলা বন্দর, সুন্দরবনের কটকা সমুদ্রসৈকত, হারবাড়িয়া, বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ, বরিশাল, মেঘনা ঘাট, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ, মানিকগঞ্জের আরিচা ঘাট, টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ ও কুড়িগ্রামের চিলমারী পড়বে।
 এরপর ব্রম্ভপুত্র নদ দিয়ে নৌবিহারটি আবার ভারতে প্রবেশ করে শেষ হবে আসামের ডিব্রুগড় শহরে ।
নৌবিহারে অংশ নেওয়া পর্যটকরা ৫০ দিনে ৫০টি পর্যটনকেন্দ্র ঘুরে দেখার সুযোগ পাবেন। এর মধ্যে রয়েছে বারানসির গঙ্গা আরতি, কাজিরাঙা জাতীয় উদ্যান ও সুন্দরবনের মতো পর্যটনকেন্দ্রগুলো।

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin