Share on whatsapp
Share on twitter
Share on facebook
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক তিনটি ইউটিউব চ্যানেল নিষিদ্ধ করল,

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin

কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক ভারতের তিনটি ইউটিউব চ্যানেল নিষিদ্ধ করল ফেক খবর ছড়ানোর অভিযোগে
Newsbazar24:ভারতে ভূয়া খবর ও ভুল তথ্য ছড়ানোর অভিযোগে তিনটি ইউটিউব চ্যানেলকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক। মঙ্গলবার পিআইবি সূত্রে জানা গিয়েছে ৪০ দফা তথ্য যাচাইয়ের পর পিআইবি-র তথ্য যাচাই ইউনিট তিনটি ইউটিউব চ্যানেলকে শনাক্ত করেছে। এই চ্যানেলগুলি হলো নিউজ হেডলাইন্স, সরকারি আপডেট ও আজতক লাইভ। এইসব ইউটিউব চ্যানেলগুলির গ্রাহক সংখ্যা প্রায় ৩৩ লক্ষের কাছাকাছি। এবং মোট ভিউয়ার্সের সংখ্যা ৪১ কোটির কিছু বেশি।
পিআইবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে,
এইসব ইউটিউব চ্যানেলগুলি ভুল খবর ছড়াচ্ছে এবং ভারতের মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট, ভারতের মহামান্য প্রধান বিচারপতি, সরকারি প্রকল্প, ইলেক্ট্রনিক ভোট যন্ত্র (ইভিএম), কৃষি ঋণ মকুব নিয়ে ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছে এবং এইসব বিষয়গুলি সম্পর্কে স্পর্শকাতর দাবি প্রচার করছে। দৃষ্টান্ত স্বরূপ মিথ্যে খবরগুলি হল যেমন; সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে যে ভবিষ্যৎ নির্বাচনগুলি ব্যালট পেপারে হবে, যাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, আধার কার্ড, প্যান কার্ড রয়েছে সরকার তাদের টাকা দিচ্ছে, ইভিএম নিষিদ্ধ করা হচ্ছে ইত্যাদি। ইউটিউবে মিথ্যে তথ্য পরিবেশন করে জনগনকে বিভ্রান্ত করছে। এই তিন চ্যানেলের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গ্রাহক সরকারি আপডেটের তাদের গ্রাহক সংখ্যা ২২.৬ লক্ষ এরপর নিউজ হেডলাইন্স গ্রাহক ৯.৬৭ লক্ষ এবং আজ তাক লাইভের মাত্র ৬৫ হাজার গ্রাহক। ভিউয়ার্সের মধ্যে নিউজ হেডলাইন্সের ৩১ কোটি ৭৫ লক্ষ ৩২ হাজার ২৯০, সরকারি আপডেটের ৮ কোটি ৮৩ হাজার ৫৯৪ এবং আজ তক লাইভের ভিউয়ার্স ১ কোটি ২৫ লক্ষ ৪০ হাজার ১৭৭।
পিআইবি সূত্রে আরও জানা গিয়েছে গত এক বছরে পিআইবি-র তথ্য যাচাই ইউনিটের তুলে ধরা তথ্যের ভিত্তিতে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক ১০০রও বেশি ইউটিউব চ্যানেলকে বন্ধ করে দিয়েছে।

Share on whatsapp
Share on facebook
Share on twitter
Share on email
Share on telegram
Share on linkedin