কুষ্ঠিতে উপস্থিত শনির দুর্বল প্রভাব থেকে কি ভাবে মুক্তি পাবেন ?

news bazar24 : শনি হিন্দু ধর্মের একজন দেবতা, যিনি সূর্যদেব ও তার পত্নী ছায়াদেবীর পুত্র। এ জন্য তাকে ছায়া পুত্রও বলা হয়। এ দেবতা ভালোর জন্য ভালো আর খারাপের জন্য খারাপ। তিনি খুব ধৈর্যশীল ও বুদ্ধিমান। মধ্যযুগীয় গ্রন্থ মতে শনিদেবতা হলেন দুর্ভাগ্যের অশুভ বাহক। প্রতি শনিবারই এই দেবতার পূজা বিশেষভাবে করা হয়। তবে চলতি বছরের মে মাসে ২২ তারিখ শনি জয়ন্তী পালিত হবে। শোনা যায় এই শনি জয়ন্তীর দিন শনিদেবের পুজো, অভিষেক, মন্ত্র জপ করলে সমস্ত কষ্ট থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। জেনে নিন শনিদেবকে তুষ্ট করার জন্য কি কি ভাবে তার পুজো করবেন।

নিয়ম:-

এ দিন উপোস করতে হয়। সকালে উঠে নিত্যকর্ম সেরে স্নান করে শুদ্ধ বস্ত্র পরিধান করতে হবে। এরপর কাঠের পুজোবেদির ওপর পরিষ্কার নীল রংয়ের কাপড় বিছিয়ে তার ওপর শনি দেবতার মূর্তি বা চিত্র স্থাপন করুন। যদি মূর্তি বা চিত্র না-থাকে, তা হলে একটি সুপুরির দুই পিঠে শুদ্ধ ঘি ও তেলের প্রদীপ জ্বালান।
এর পর ধুপ জ্বালিয়ে শনিদেবের স্বরূপকে পঞ্চামৃত, আতর ইত্যাদি দিয়ে স্নান করান। সিঁদুর, কুমকুম, কাজল, আবির ইত্যাদির সঙ্গে নীল ফুল অর্পণ করুন। অমৃতি এবং তেল দিয়ে তৈরি বস্তু অর্পণ করা উচিত। নারকেলের সঙ্গে অন্যান্য ফলও দিতে পারেন। এর পর একমালা শনিমন্ত্র জপ করুন। শনির পাঁচালি পাঠের পরে আরতি করে পুজো সম্পন্ন করুন। এছাড়াও
* শনি মন্দিরে তেলাভিষেক করুন।
* শনি শান্তি পুজো ও শনি যজ্ঞ করান।
* ভিখিরি, দুস্থ, গরিবদের ভোজন করান।
* এদিন নিজে বা কোনও পুরোহিতের মাধ্যমে শনি মন্ত্র ২৩,০০০ বার জপ করান।
* শনি জয়ন্তীর দিন কালো ঘোড়ার নাল দিয়ে তৈরি আংটি ধারণ করুন।
* তেল, লোহার পেরেক, কালো তিল, কালো কাপড়, কালো বিউলির ডাল শনিদেবের প্রতিমায় অর্পণ করুন।
* এ দিন নবগ্রহ শান্তি পুজো কুষ্ঠির সমস্ত দোষ নিবারণে সার্থক।
* এ দিন শনি যন্ত্র স্থাপন করুন।
* পরিবারের কোনও সদস্য যদি দীর্ঘ সময় ধরে অসুস্থ থাকেন, তা হলে শনি পুজোর পাশাপাশি তাঁকে মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র জপ করান।
* ওম স্বহা শনিশ্চরায় নমঃ, এই মন্ত্র জপ করুন।

শনি পুজোর লাভ:

* শনির আশীর্বাদে সমস্ত দোষ এবং কুষ্ঠিতে উপস্থিত শনির দুর্বল প্রভাব থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
* কাজে বাধার অবসান ঘটে। *ব্যবসায় উন্নতি ও চাকরিতে পদোন্নতি হয়।
* বার বার বাহন দুর্ঘটনা, অসুস্থতা থেকে শনি শান্তিপুজো ব্যক্তিকে রক্ষা করে।
* শনি পূজার মাধ্যমে শত্রুদেরও শান্ত করা যায়।