আবারও পঞ্চায়েতে তৃণমূলের প্রার্থী বাছাই ঘিরে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে রক্তারক্তি, এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা

News bazar24:চাচোলর পর এবার মানিকচকে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রার্থী বাছাইকে ঘিরে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে তুমুল উত্তেজনা। মারামারি রক্তারক্তি কিছুই বাদ গেল না। বৈঠক চলাকালীন তৃণমূলের একাংশ কর্মীদের নিজেদের মধ্যেই হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে বলে অভিযোগ। সেই হাতাহাতি থেকে শুরু হয় তুমুল সংঘর্ষ। আর তাতেই জখম হয় দলেরই চারজন। মঙ্গলবার দুপুরে এই সংঘর্ষের খবর পেয়ে নুরপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বরমপুর এলাকার তৃণমূল কার্যালয় পৌঁছায় বিশাল পুলিশ বাহিনী। পরে পুলিশি হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। আহতদের চিকিৎসার জন্য ভর্তি করানো হয়েছে মালিকচক গ্রামীণ হাসপাতালে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন নুরপুরে তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ে ধরমপুর বুথের প্রার্থী নিয়ে আলোচনা বৈঠক হয়।সেখান চারজনের নাম ঠিক করা হয়। সেই নামকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ শুরু হয়। আহতরা বর্তমানে মানিকচক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আহতদের নাম লাটু শেখ (৪৫), রজিম শেখ(৩৫), রবিউল শেখ (৪২) এবং অতিউল শেখ (৩৮)। এই ঘটনায় মারধরের অভিযোগ উঠেছে এলাকার তৃণমূল নেতা সাবির শেখ এবং জাবির শেখের বিরুদ্ধে। পুরো বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে মানিকচক থানার পুলিশ। বিষয়টি নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি বিরোধীরা। বিজেপি নেতা গৌড় চন্দ্র মন্ডল বলেন তুলামুল পার্টি নিজেদের মধ্যে প্রার্থী নিয়ে রক্তারক্তিতে জড়িয়ে পড়ে। কে আবাস যোজনা ১০০ দিনের কাজের টাকার ভাগ হবে এটাই নিয়ে এদের মধ্যে তুমুল মারামারি। এই ভাবেই এরা পঞ্চায়েত ভোটে