���������������������


  • আপনার আজকের দিন কেমন কাটবে ? জানুন আজকের রাশিফল (বুধবার ২২ মে ২০১৯)

    newsbazar24:   মেষ  আজ আপনি নতুন কোনও গঠনমূলক কাজের সঙ্গে যুক্ত হতে পারেন। আজ সব কাজ খুব বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে করতে হবে। পারিবারিক দিকে সুখ শান্তি বজায় থাকবে। কারও প্ররোচনায় পা দেবেন না। আজ আপনার কোনও উদ্দেশ্য সিদ্ধ হতে পারে। সকালের দিকটা ভাল চললেও বিকেলটা খুব একটা ভাল নয়। সন্তানদের দিকে বিশেষ নজর প্রয়োজন। ছোটখাটো বিষয়ে মায়ের সঙ্গে মনোমালিন্য হতে পারে। ক্স লিমিটেড ইভিএম তৈরি করে এবং এগুলি সর্বোচ্চ সরকারি নিরাপত্তা প্রোটোকল মেনে তৈরি হয়। ফলে গোলমাল করার সুযোগ প্রায় নেই। অত্যন্ত নিরাপদ একটি মাধ্যম। বৃষ  সম্পত্তির ব্যপারে কোনও চাপ আসতে পারে। কর্মে অন্য দিনের তুলনায় আজ পরিশ্রম একটু বেশি হতে পারে। ভুল বোঝাবুঝির জন্য পারিবারিক বিবাদ। বাড়িতে নতুন কোনও অতিথি আসায় আনন্দ।  মাত্রাছাড়া জেদ আপনার ক্ষতি ডেকে আনতে পারে। অতিরিক্ত অর্থলাভের আশায় ঝামেলার সৃষ্টি হতে পারে। বিজ্ঞান চর্চায় অগ্রগতির সম্ভাবনা। আজ শত্রুর সঙ্গে কোনও চুক্তিতে আপনি জিততে পারেন। ছোটখাটো শারীরিক ভোগান্তি।   মিথুন  উচ্চাশার কারণে মানসিক যন্ত্রণা বৃদ্ধি। ব্যবসায় জটিলতা কাটিয়ে সঞ্চয়ের ভাবনা করাই শ্রেয়। ভ্রমণের পরিকল্পনায় বাধা  আসতে পারে। সম্পত্তির অধিকার চেয়ে ঝামেলার সন্মুখীন হতে পারেন। জলপথে বিপদ। অতিরিক্ত আবেগের জন্য কাজের ক্ষতি হতে পারে। উচ্চশিক্ষার সুযোগ  আসতে পারে। শরীরে পুরনো রোগের উৎপাত। বাড়তি কোনও খরচ চিন্তা বৃদ্ধি করবে। ব্যবসার দিকে মন্দা। কর্কট  ভ্রমণের কোনও পরিকল্পনা সফল হওয়ার জন্য মনে আনন্দ। বাড়িতে কোনও বাজে খবর আসতে পারে। দাম্পত্য কলহ অনেক দূর যাবে।  আইনি কোনও পদক্ষেপ  থেকে সাবধান থাকুন। ব্যবসার কোনও কাজের জন্য দূরে যেতে হতে পারে।  নিজের আত্মীয় শত্রুতা করতে পারে। কর্মস্থানে অনেক দিন বাদে নিজের প্রতিভার প্রকাশ করতে পারবেন। ব্যবসার দিকে কোনও বিষয় নিয়ে ঝামেলা। পেটের কোনও রোগ। সিংহ  কোনও উঁচু স্থান থেকে পড়ে যাবার সম্ভাবনা। প্রিয়জনের কাছ থেকে কোনও আঘাত। বাড়িতে   আনন্দের কোনও ঘটনা ঘটতে পারে। ব্যবসার জন্য  লাভ বৃদ্ধি। আজ পরিশ্রমের উপযুক্ত ফল পাবেন না। শিল্পীদের জন্য খুব ভাল সময়। আজ সারা দিন খুব বুঝে চলুন মামলা মোকদ্দমার যোগ আছে । গান বাজনার সঙ্গে যুক্তদের দিনটি ভাল । কোনও আত্মীয়ের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা । মিথ্যে অপবাদে ফাঁসতে পারেন।  কন্যা  সকাল থেকে মানসিক দিকটা খুব একটা ভাল থাকবে না।  গুরুদেবের প্রতি ভক্তি বৃদ্ধি। অযথা কোনও ঝামেলায় জড়িয়ে পড়তে পারেন। ব্যবসার উন্নতির জন্য কোনও চেষ্টা। আর্থিক  ভাগ্য মধ্যম। প্রেমের ব্যপারে অবসাদ আসতে পারে, সতর্ক থাকুন। আজ মনে একটু বিষণ্ণ ভাব বাড়তে পারে। নিজের মতে চলার জন্য অশান্তি বৃদ্ধি। শুভ কাজে বাধা বাড়তে পারে। বাঁকা পথে আয়। কাজে বাধা, চাকুরির স্থানে কাজের চাপে শারীরিক অসুস্থতা।  তুলা  নিজের নম্র স্বভাবের জন্য কর্মস্থলে পদন্নোতি। বাসস্থান পরিবর্তন মনের মত না হওয়াতে স্ত্রীর সঙ্গে  মতবিরোধ। পুরনো ঋণ শোধ হতে পারে। বাবার শরীর নিয়ে একটু চিন্তা থাকবে।  নিজের ভুলের জন্য নানা দিক থেকে অপব্যয় হতে পারে। বাড়তি কোনও ব্যবসার কথা না ভাবাই শ্রেয়। রাস্তার লোকের সঙ্গে হঠাৎ বিবাদ বাধতে পারে। জ্বর জ্বালায় কষ্ট। ভাই ভাই বিবাদ বৃদ্ধি।   বৃশ্চিক  ভ্রমণে কোনও কিছু হারানো নিয়ে সমস্যায় পড়তে পারেন। ভাই বোনদের সঙ্গে বিবাদ বা বিচ্ছেদও হতে পারে। শত্রুর সঙ্গে চুক্তিতে কাজ সমাধান। প্রেমে নতুন মোড় আসতে পারে। আজ যে কোনও নতুন ব্যবসার জন্য প্রচেষ্টা করতে পারেন। আজ সারা দিন বেশ উৎফুল্লতায় কাটবে। বাড়ির লোক আপনাকে বুঝবে না ও মানসিক চাপ বৃদ্ধি । কাছে কোনও ভ্রমণ হতে পারে।   ধনু  আজ সকাল থেকে খরচ বৃদ্ধি পাবে। গুরুজনদের সু উপদেশে উন্নতির সুযোগ । কর্মক্ষেত্রে নিজের দোষে প্রতিকূল পরিস্থিতির শিকার হবেন । পরোপকারে সংসারে শান্তি ভঙ্গ । সজ্জন ব্যক্তির সান্নিধ্যে সুখ। সন্তানের কাজের ফলে আনন্দ ও গর্ববোধ। বিষয় সম্পত্তি নিয়ে দুশ্চিন্তা বাড়তে পারে। উচ্চপদে চাকুরির যোগ দেখা যাচ্ছে। বাড়িতে শুভ কাজের জন্য অর্থ খরচ। সম্পত্তির ব্যপারে আইনের সাহায্য নিতে হতে পারে। মকর  বাইরে কোনও ব্যবসায় দারুণ অর্থপ্রাপ্তির যোগ আছে। নিজের ভুল সংশোধন করার ফলে সংসারে শান্তি। গুরুজনের শরীর নিয়ে চিন্তা থাকবে। জলপথে ভ্রমণ না করাই ভাল। বিশেষ উচ্চ কোনও  কাজ করায় সমাজে মর্যাদা লাভ হতে পারে। লটারিতে হঠাৎ প্রাপ্তিযোগ। চিকিৎসার কাজে সারাদিন অস্থিরতা থাকবে। ব্যবসার দিকে কোনও নতুন চিন্তাভাবনা আসতে পারে। পিতার সঙ্গে কোনও ছোট বিবাদ বাড়তে পারে । স্ত্রীর সঙ্গে  দূরে ভ্রমণের আলোচনা।   কুম্ভ  স্ত্রীর দ্বারা ব্যবসায় শুভ কিছু হতে পারে । তৃতীয় ব্যক্তির জন্য সংসারের থেকে দূরত্ব বাড়তে পারে। প্রতিবেশীর সঙ্গে  শত্রুতার সম্ভবনা । ভাল কাজের পরিপ্রেক্ষিতে হতাশা। নতুন ব্যবসায় লগ্নি করতে পারেন উন্নতির যোগ। পরিশ্রম বৃদ্ধিতে শারীরিক আসুস্থতা আসবে। কোনও  ব্যাপারে মামলায় জড়িয়ে পরতে পারেন। বুদ্ধিবলে জয়। পিতার শরীরের কোনও চিন্তা ও খরচ বাড়তে পারে।  মীন সকালের দিকে মাথার যন্ত্রণা বাড়তে পারে।  আজ সহকর্মীরা নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করায় মানসিক চাপ। প্রেমে আপনার সঙ্গে  বিশ্বাসঘাতকতা হতে পারে। স্ত্রীর স্বাধীনচেতা স্বভাবের জন্য সংসারে অশান্তি। হঠাৎ কোনও পুরনো বন্ধুর সঙ্গে  দেখা হতে পারে।  সন্তানদের কর্মের জন্য সাহায্য করতে হতে পারে। ব্যবসায় নতুন কর্মী নিযুক্ত করা ঠিক হবে না। বন্ধু সমাগমে মনে উৎফুল্লতা বৃদ্ধি। আপনার সহ্য ক্ষমতা আপনাকে বাঁচাবে। অযথা কথা খুব কম বলবেন। 

  • গীষ্মের ছুটিতে ঘুরে আসুন বক্সাদুয়ারের লেপচাখা গ্রামে

    newsbazar24: গরমের দাবদাহ থেকে কয়েক দিনের জন্য পালিয়ে যেতে চলে যাওয়া যায় বক্সাদুয়ারের লেপচাখা গ্রামে। প্রায় সাড়ে তিন হাজার ফুট উচ্চতায় অবস্থিত পাহাড়ি এই গ্রামটি। কখনও রোদ ঝলমলে দুপুরের আকাশে হঠাতই উড়ে আসা মেঘের চাদর, ক্ষণিকের জন্য ঢেকে দিয়ে যায় লেপচাখাকে।নিউ আলিপুরদুয়ার স্টেশন থেকে মাত্র ২৬ কিলোমিটার দূরত্বে রয়েছে সান্তালাবাড়ি। স্টেশন থেকেই গাড়ি পাওয়া যায়। সেখান থেকে বক্সা দুর্গ যাওয়া যায়। তবে গাড়ি ভিউ পয়েন্ট পর্যন্ত যায়। তার পরে, ৩ কিলোমিটার পাহাড়ি পথ ট্রেক করে পৌঁছে যাওয়া যায় ইতিহাসের পাতায়।দুর্গ যাওয়ার পথেই পড়ে সদর বাজার। এখানে একটু জিরিয়ে নিতে পারেন। চা-মোমো বা ঠান্ডা পানীয় দিয়ে একটু চাঙ্গা হয়ে আবারও হাঁটুন বক্সা দুর্গের উদ্দেশ্যে, যেখানে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের বন্দি করে রাখত ব্রিটিশ সরকার। বক্সা দুর্গের সামনেই রয়েছে বক্সা ডাকঘর ও বক্সা মিউজিয়াম।দুর্গের পরে এবার লেপচাখা গ্রাম। এখান থেকে মাত্র এক ঘণ্টায় পৌঁছে যাওয়া যায় লেপচাখা। ছোট্ট গ্রামটিতে রয়েছে একটি বৌদ্ধ গুম্ফা। সঙ্গে নৈসর্গিক দৃশ্য, যা মুগ্ধ করবে সকলকে।৮০০ থেকে ১২০০ টাকার মধ্যে থাকার রুম পাওয়া যায় লেপচাখা ইকো হাটে। বিদ্যুৎ থাকলেও তা বেশ অনিয়মিত। তবে, সৌরবিদ্যুৎ রয়েছে। মোবাইল পরিষেবা বলতে বিএসএনএল পাওয়া যায়। মাঝে মাঝে পাওয়া যায় আইডিয়াও।লেপচাখা থেকে ট্রেক করে যাওয়া যায় রোভার্স পয়েন্ট ও রুপম ভ্যালি।লেপচাখার ইকো হাটে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত থাকেন চামা ডুকপা, তেনজিং ডুকপাদের মতো অনেকেই।

  • জেনে নিন আপনার আজকের রাশিফল (সোমবার ২০ মে ২০১৯)

    newsbazar24:  মেষ : কর্মস্থানে আঘাত লাগতে পারে, সাবধান থাকুন। আজ সংসারে খুব শান্ত থাকতে হবে। সন্তানদের নিয়ে একটু চিন্তা থকবে। কর্মস্থানে সহকর্মীর সাহায্য পেতে পারেন। কারও থেকে হঠাৎ কোনও দামি কিছু পেতে পারেন। নতুন কোনও ব্যবসা শুরু করতে পারেন, উন্নতির যোগ আছে। প্রেমে নতুন মোড় ঘোরার আশা রাখতে পারেন। বুদ্ধিমান ব্যক্তির পরামর্শ কাজে লাগান। উপার্জন ভাল থাকলেও ব্যয়ও আছে। বৃষ  বাড়তি কোনও ব্যবসা থাকলে তার থেকে খুব ভাল লাভ পেতে পারেন। আজ কোথাও আপনি নিজের প্রতিভা দেখাতে যাবেন না। দায়িত্ব পালন নিয়ে মায়ের সঙ্গে অশান্তি। শারীরিক দুর্বলতার জন্য কাজে সমস্যা। হারানো জিনিস ফিরে পাওয়ার আশা। প্রতিবেশীরা আজ আপনাকে সাহায্য করতে পারে। কাজের জায়গায় আজ কোনও রকম চালাকি না করাই ভাল। ভ্রমণের পরিকল্পনা হাতছাড়া হতে পারে। মিথুন  উচ্চপদস্থ ব্যক্তির অনুগত থাকলে লাভ বাড়তে পারে। কোনও অভিজ্ঞ ব্যক্তির সঙ্গে ধর্ম নিয়ে আলোচনা করার সুযোগ পাবেন। প্রতিবেশীর সঙ্গে ঝামেলা আজ একটু এড়িয়ে চলুন। এই সময়ে প্রেমের দিকে না এগোনোই ভাল হবে। ত্বকে একটু সমস্যা দেখা দেবে। আপনার প্রচেষ্টা আজ সফল নাও হতে পারে। মিথ্যের সাহায্য নিলে ফাঁসতে পারেন। সম্পত্তি নিয়ে ভাই-বোনদের সঙ্গে ঝগড়া হলে সেটা আপসে মিটিয়ে নিন। কর্কট  প্রতিযোগিতামূলক কাজে বিশেষ স্থান পাওয়ার যোগ আছে। কারও চক্রান্তে ক্ষতি। বায়ুপথে ভ্রমণ হতে পারে। অজান্তে আপনি কাউকে কষ্ট দিতে পারেন। অন্যকে বাঁচাতে গিয়ে নিজের বড় ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা। আত্মীয়দের নিয়ে দুশ্চিন্তা থাকবে। পুরনো কোনও সমস্যার সমাধান হতে পারে। নিজের প্রতিভা দেখানোর বড় কোনও সুযোগ আসতে পারে। বাবা-মায়ের জন্য বাড়তি খরচ হতে পারে। সিংহ  কোনও যন্ত্র খারাপ হওয়ায় প্রচুর খরচ হতে পারে। কাজে আজ অন্যের সাহায্যের প্রয়োজন হতে পারে। কোনও দুঃস্থ ব্যক্তিকে সাহায্য করতে হতে পারে। রাস্তাঘাটে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। উচ্চবিদ্যার ভাল যোগ। সঞ্চয়ের তুলনায় ব্যয় বেশি হতে পারে। পরিচিত কেউ বাড়িতে আসতে পারে। দরকারি কাজ মেটানোর জন্য শুভ দিন। অতিরিক্ত লোভনীয় কোনও সুযোগের দিকে পা না বাড়ানোই শ্রেয়। কন্যা  ভাল কোনও সুযোগ হাতছাড়া হওয়ার জন্য ক্ষোভ বাড়তে পারে। আজ সারা দিন কোনও কারণে চিত্ত চাঞ্চল্য থাকবে। হতাশার জন্য শরীর খারাপ হওয়ার আশঙ্কা। মানুষের সেবায় শান্তি। নতুন কিছু কেনার পরিকল্পনা হতে পারে। স্ত্রীর জন্য ভাল কোথাও ভ্রমণ হতে পারে। আত্মীয়দের সঙ্গে কোনও বিষয়ে ঝামেলা হতে পারে। বন্ধুর সাহায্যে ভাল কিছু হতে পারে। তুলা  পুজোর জায়গায় অর্থ দান করে মানসিক শান্তি। আজ কাজের জন্য বাড়ির কেউ বাইরে যাওয়ায় কষ্ট। গুরুজনদের সঙ্গে মতবিরোধ হতে পারে। সঙ্গীত চর্চায় নতুন দিক দেখতে পাবেন। পরিশ্রমের ফল ভাল হবে। প্রতিবেশীর দ্বারা ব্যবসায় কোনও রকম উপকার পেতে পারেন। কারও প্ররোচনায় পা দেবেন না। পরিবারে অশান্তি মিটে যাওয়ার সঙ্কেত। অতিরিক্ত কথায় ঝামেলার সৃষ্টি হতে পারে। বৃশ্চিক  ভাল কথা বলবার জন্য সুনাম বাড়তে পারে। প্রেমের ক্ষেত্রে খুব সতর্ক থাকতে হবে, প্রতারিত হওয়ার যোগ আছে। গুরুজনদের পরামর্শ মেনে চলুন। বাড়িতে ক্ষতি হওয়ার সঙ্কেত। আজ ধর্ম আলোচনায় আপনি এগিয়ে থাকবেন। আজ কাজের জায়গায় জনপ্রিয়তা পেতে পারেন। দেহের কোনও অংশে ক্ষতের সৃষ্টি হতে পারে। কিছু কেনা বেচার জন্য খরচ। আজ সারা দিন প্রচুর পরিশ্রম হতে পারে। ধনু  পড়াশোনার জন্য খুব ভাল সুযোগ আসতে পারে। আজ বাড়িতে বা কর্মস্থানে মাথা প্রচুর ঠান্ডা রেখে চলতে হবে। আর্থিক টানাপড়েনের জন্য সংসারে অশান্তি হতে পারে। মা-বাবার সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকবে। আজ নতুন কোনও কাজের সন্ধান করতে হতে পারে। অল্প সঞ্চয় নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে অশান্তি হতে পারে। প্রতিবাদী মনোভাবে সমাজে সম্মান বৃদ্ধি পেতে পারে। সন্তানদের সঙ্গে সম্পর্ক ভাল থাকবে। মকর  কোনও ভুল করার জন্য মানসিক শান্তি পাবেন না। আজ সারাদিন ব্যবসা ভাল চলবে। কারও জিনিসের দায়িত্ব আজ নেবেন না। সম্পত্তি কেনার শুভ সময়। যানবাহন চড়ার সময় অতিরিক্ত সতর্ক থাকুন। সারা দিন সাংসারিক শান্তি বজায় থাকলেও রাতের দিকে অশুভ। অযথা কোনও ঝামেলায় জড়িয়ে পড়তে পারেন। সন্তানদের নিয়ে চিন্তা। কুম্ভ  কর্মক্ষেত্রে দায়িত্ব পালন নিয়ে ঝামেলা বাধতে পারে। শরীরে কোনও সমস্যায় বহু অর্থ ব্যয় হতে পারে। অনেক দিনের পুরনো ভ্রমণের পরিকল্পনায় বাধা আসতে পারে। প্রেমের জট ছেড়ে যাবে। ব্যয়ের দিকে আজ একটু বেশি নজর দিতে হবে বা সংযত থাকতে হবে। শরীরে নানা রোগের উপদ্রব বাড়তে পারে। স্ত্রীর সঙ্গে মতবিরোধ কেটে যাবে। সন্তানের সুবুদ্ধি ঘটতে পারে। মীন  কাজের জন্য বিদেশে যাওয়ার সুযোগ আসতে পারে। আজ কর্মক্ষেত্রে বিরোধী মনোভাব ত্যাগ করাই ভাল। মামলায় জড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা আছে। স্নেহভাজন কারও সঙ্গে ঝামেলা বাধতে পারে। প্রেমে নতুন মোড় ঘুরতে পারে। ব্যবসায় জটিলতা কাটিয়ে ওঠার ভাল সময় এসেছে। বাড়িতে অতিথি আগমনের যোগ দেখা যাচ্ছে। গঠনমূলক কোনও কাজের চিন্তা ভাবনা হতে পারে। ঋণ পরিশোধ করার জন্য সঞ্চয়ে ব্যাঘাত।

  • আজকের রাশিফলঃ (শুক্রবার ১৭ মে ২০১৯)

    newsbazar24:  মেষঃ নিজের ক্ষমতায় ব্যবসায় অগ্রগতির আভাস। আজ কোনও কাজেই মন বসাতে পারবেন না। পুরনো পাওনা পেতে বেগ পেতে হবে। কাজের জায়গায় হিসাব নিয়ে গণ্ডগোল। আজ সারা দিন ব্যবসায়িক উদ্বেগ খুব বেশি থাকবে এবং তাতে সফল হবেন। নিজের অভিজ্ঞতার বিকাশ আজ বেশি না দেখানোই ভাল। পড়াশোনার দিক থেকে দিনটি উপযুক্ত। স্ত্রীর খারাপ ব্যবহারের জন্য মানসিক কষ্ট। বৃষঃ সকালের দিকে স্ত্রীর কারণে মানসিক চাপ বাড়তে পারে। ব্যবসার জন্য খরচ বৃদ্ধি। নিজের চালাকির দ্বারা বিপদ থেকে উদ্ধার। প্রেমের জন্য আনন্দ বাড়তে পারে। মহিলাদের থেকে সাবধান থাকুন। চিকিৎসার খরচ বাড়তে পারে। শরীরের কোনও ক্ষত থেকে রোগ বাড়তে পারে। যাঁরা বিদেশে থাকেন, তাঁদের জন্য ভাল সুযোগ আসতে পারে। পাওনা আদায়ে অশান্তি হতে পারে। আর্থিক  ভাগ্য একটু ভাল থাকবে। মিথুনঃ সকাল থেকে আইনি কোনও কাজে খরচ বাড়তে পারে। পরিবারে কারও কাছ থেকে কিছু উপহার পেতে পারেন। আপনার থেকে বয়সে ছোট কারও সঙ্গে তর্ক বাঁধতে পারে। মনের মতো মানুষের দেখা পাবেন। আজ বাড়ি বা কর্মস্থানে মাথা ঠান্ডা রেখে চলতে হবে, পরিস্থিতি বিরুদ্ধে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। অতিরিক্ত কথার  জন্য সংসারে অশান্তি হতে পারে। মা-বাবার সঙ্গে  সুসম্পর্ক থাকবে। কর্কটঃ আর্থিক ব্যাপারে কারও কাছে অপমানিত হতে পারেন। আপনার কোনও প্রতিভার জন্য জনপ্রিয়তা লাভ করতে পারেন। বন্ধুকে অতি বিশ্বাস করার খেসারত দিতে হতে পারে। কোনও ছোট্ট অশান্তি আদালত পর্যন্ত গড়াতে পারে। চলাফেরায় বাড়তি সতর্কতার প্রয়োজন। আজ সারা দিন পড়াশোনায় উদ্বেগ খুব বেশি থাকবে এবং তাতে সফল হবেন। বাড়তি কোনও ব্যবসার দিক থেকে দিনটি উপযুক্ত। সিংহঃ আজ কোনও খারাপ পরিস্থিতির জন্য চাপে পড়তে পারেন। আজ পরিবারে কারও ব্যবহারে আপনার ক্ষোভ সৃষ্টি হতে পারে। সারা দিন ব্যয়ের পরিমাণ বেশি থাকবে। শত্রুরা চক্রান্তে জিততে পারবে না। সন্তানের ভবিষ্যৎ নিয়ে গভীর আলোচনা। আজ কর্মচারীর জন্য ব্যবসা বাড়ানোর সুযোগ আসতে পারে। অতিরিক্ত হঠকারিতার জন্য শরীরে কোথাও আঘাত লাগতে পারে। পারিবারিক সম্পত্তি নিয়ে অশান্তি হতে পারে। কন্যাঃ বাইরের কোনও অশান্তি আজ বাড়িতে আসার আশঙ্কা। ব্যবসায় লাভের আশা রাখলে মহাজনের কথা মেনে চলতে হবে। আজ সারা দিন অন্য দিনের তুলনায় পরিশ্রম বেশি হতে পারে। যুক্তিপূর্ণ আলোচনায় সম্মান প্রাপ্তি। কর্মস্থানে আজ আপনাকে কারও কথামতো চলতে হতে পারে। আজ কোনও আত্মীয়ের কাছ থেকে আপনি ভাল সাহায্য পাবেন। বেশি অর্থ অপচয়ের জন্য সংসারে বিবাদ। সন্তানদের সঙ্গে বিশেষ আলোচনা। তুলাঃ গাড়ি চালকদের আজ একটু বিপদ হতে পারে। নীতির দিক দিয়ে কোনও ভুল হওয়ার জন্য অশান্তি। ব্যবসায় একটু চাপ বাড়তে পারে। প্রিয় জনের থেকে ভালবাসা পেতে পারেন। চিকিৎসার জন্য ব্যয় বৃদ্ধি। আগুন থেকে সাবধান থাকুন। কোনও আঘাতের জন্য নিরানন্দ হতে পারে। কর্মস্থানে কোনও বাধা নিয়ে চিন্তা। উন্নতির জন্য চেষ্টা থাকবে আজ। চাকরির জায়গায় কাজের চাপ বাড়তে পারে। মায়ের শরীর নিয়ে চিন্তা। বৃশ্চিকঃ চাকরির জায়গায় দলগত বিবাদ হতে পারে। দাঁতের যন্ত্রণা বাড়তে পারে। ঠাকুরের কাজের জন্য দান করে আনন্দ। প্রিয় ব্যক্তির সঙ্গে তর্ক বাধার জন্য মানসিক কষ্ট। ব্যবসায় মহাজনের সঙ্গে বিবাদ হলেও বাড়তি লাভ হতে পারে। বন্ধুর জন্য কোনও কারণে রাগ হতে পারে। স্ত্রীর সঙ্গে বিবাদে ক্ষতি হতে পারে। কোনও আশা পূরণের জন্য আনন্দ। বাবার শরীরের ব্যাপারে খরচ বাড়তে পারে। ধনুঃ পরিবারের সকলের সঙ্গে কোনও কারণে কলহ বাধতে পারে। সকালের দিকে বাইরের কারও সঙ্গে বিবাদ নিয়ে দুশ্চিন্তা। ব্যবসায় অতিরিক্ত লোভের কারণে বিপদ। দুপুরের পরে কাজের জন্য অতিরিক্ত ব্যস্ত হতে হবে। বিবাহের বিষয়ে আলোচনা। ছোট রক্তপাতের আশঙ্কা। ব্যবসায় বাড়তি কোনও বিষয় আলোচনা। বাবার জন্য চিন্তা বাড়তে পারে। চাকরির জায়গায় কারও সঙ্গে তর্ক। আর্থিক চাপ বাড়তে পারে। মকরঃ আজ একটু সাবধানে থাকুন, কোনও ভাবে বদনাম হতে পারে। আর্থিক ব্যাপারে একটু সুবিধা আসতে পারে। পাওনা আদায়ের জন্য মাথা গরম হওয়ার যোগ। ভাল সঙ্গে থাকার জন্য উন্নতিলাভ। ভাই-বোন কোনও বিবাদ বাড়তে পারে। ব্যবসা নিয়ে চিন্তা থাকবে। ব্যবসায় চুরি থেকে সাবধান থাকুন। প্রেমের জন্য কোনও যোগাযোগ আসতে পারে। সম্পত্তির ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা। বাইরের অশান্তি ঘরে আসতে পারে। কুম্ভঃ আজ মাথায় কোনও খারাপ বুদ্ধি আসতে পারে। মন একটু চঞ্চল থাকবে আজ। সামাজিক কারণে সুনাম বাড়তে পারে। পড়াশোনার জন্য কোনও ভাল যোগাযোগ আসবে আজ। গবেষণায় আজ সাফল্য মিলতে পারে। ব্যবসায় ভাল সুযোগ আসতে পারে। চাকরির জায়গায় আজ তর্ক বেশি না করাই ভাল হবে। ভুল কাজের জন্য অনুশোচনা হতে পারে। মীনঃ শরীরের কোনও ক্ষত বিপদ ডেকে আনতে পারে। উচ্চপদস্থ ব্যক্তির সঙ্গে বচসা হতে পারে। ভাল কাজের পুরস্কার পেতে পারেন। প্রেমের জন্য গুরুজনের সঙ্গে অশান্তি। জলপথে বিপদ আসতে পারে। ব্যবসায় সাফল্য আসতে পারে। প্রিয় ব্যক্তির সঙ্গে থাকায় আনন্দ বৃদ্ধি। আজ কিছু চুরি হতে পারে। ব্যয় বৃদ্ধি হওয়ার জন্য সঞ্চয় ঠিক থাকবে না।

  • এই গ্রীষ্মে ঘুরে আসুন ধার্মিক দেশ ভুটানে

    newsbazar24: ভুটান দেশটিতে প্রকৃতি উজাড় করে দিয়েছে সৌন্দর্য। ভারতের পড়শি দেশ ভুটান, পশ্চিমবাংলা থেকে ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে৷ তাই এই গরমে ঘুরে আসুন ভুটান।ধার্মিক দেশ ভুটান, বৌদ্ধ মনাস্ট্রি ও গুম্ফার দেশ ভুটান ।  অনেক বৌদ্ধ গুম্ফা ও জং ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে সারা দেশ জুড়ে৷আছে ভুটানের প্রান চু নদী। যে যেন শাখাপ্রশাখা ছড়িয়ে সারা ভুটানকে পরম আবেগে  আলিঙ্গন করে রেখেছে। ভুটান পাহাড়ি দেশ তাই প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের খনি।পৃথিবীর একমাত্র কার্বন নেগেটিভ দেশ ভুটান। যত পরিমাণ কার্বন উৎপন্ন করে তার চেয়ে বেশি শোষণ করে ভুটান। ফুন্টসোলিংঃ কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসে হাসিমারা স্টেশনে নেমে অটো বা ভাড়া গাড়িতে ১৮ কিমি দূরে জয়গাঁও পৌঁছন। জয়গাঁওতে ভুটানের প্রবেশদ্বার সুদৃশ্য ভুটান গেট পেরিয়ে ভুটানের  ফুন্টসোলিং আসুন। সম্ভব হলে দেখে নিন ১৯৬৭ সালে তৈরি আপার মনাস্ট্রি। শান্ত সমাহিত পরিবেশ আপনাকে মুগ্ধ করবে। ফুন্টসোলিং থেকে ভাড়া গাড়িতে বা বাসে করে চলুন ১৭২ কিমি দূরে ভুটানের রাজধানী থিম্পুতে৷ থিম্পু ভুটানের রাজধানী৷ থিম্পুতে এসে মতিজং এর সংস্কৃতি দপ্তরের অফিস থেকে ভুটানের জং বা দুর্গ গুলি ও সেরা সেরা মনাস্ট্রিগুলি দেখার অনুমতি পত্র নিয়ে নেবেন। থিম্পু ঃ পাহাড়ের ছিমছাম শহর থিম্পুতে দেখে নিন সিমতোখা জং,  চিড়িয়াখানা,  টিভি টাওয়ার ভিউ পয়েন্ট, নরজিন ল্যম,, থিম্পু গুম্ফা, হস্তশিল্পকেন্দ্র এবং সিমডেখাং-এর এক টিলার ওপরে  সিমতোখা  জং। জং-য়ের ফ্রেসকো চিত্রগুলি অসাধারণ।  এখানে লামাতন্ত্রের মহাবিদ্যালয় রয়েছে।  সিমতোখা  জংয়ে সূর্যাস্তের সময়    লামা ও দ্রাপাদের সুরেলা মন্ত্রোচ্চারণ ও গ্রন্থপাঠ এবং বিভিন্ন তিব্বতী বাদ্যযন্ত্রের গম্ভীর শব্দ  শিহরণ জাগাবে।  থিম্পু শহরের কেন্দ্রস্থলে রয়েছে মেমোরিয়াল চোর্তেন। এই চোর্তেনটি হলো আধুনিক ভুটানের জনক রাজা জিগমে দোরজি ওয়াংচুর স্মৃতিমন্দির ৷ ওয়াংচু নদীর ধারে রয়েছে দেশের প্রধান জং তাশি-চো জং উল্টোদিকেই রয়েছে সার্ক বিল্ডিং৷থিম্পু শহরে এরপর দেখুন  নতুন তৈরী হাওয়া  বৌদ্ধমন্দিরটি।  পৃথিবীর সর্ববৃহৎ বুদ্ধমূর্তিটি এখানে রয়েছে। নানা জায়গা থেকে ও অনেক দূর থেকে এই নয়নাভিরাম বুদ্ধমূর্তিটি দেখা যায়। পুনাখাঃ থিম্পু থেকে চলুন পুনাখা৷ পথেই পড়বে  দোচুলা পাস৷ দোচুলা পাসের ওপরে রয়েছে  শতাধিক চোর্তেন ও বৌদ্ধমন্দির৷ রোদ ঝলমলে দিনে এই দোচুলা পাসের ওপর থেকে হিমালয়ের তুষারাচ্ছাদিত শৃঙ্গগুলি চমৎকার দেখা যায়। ঝলমলে রোদ থাকলে পরিষ্কার দেখা যায় শৃঙ্গগুলি৷ এই পাসের বৌদ্ধমন্দিরটি থেকে ভুটানের পাহাড়ি প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ এক অপূর্ব অভিজ্ঞতা।  ফো-চু আর মো-চু অর্থাৎ পুরুষ ও প্রকৃতি এই দুই নদীর সঙ্গমে অবস্থিত পুনাখা । নদী দিয়ে ঘেরা কাঠ ও পাথরের তৈরী সাত তলা পুনাখা জং । থিম্পু থেকে পুনাখার দূরত্ব প্রায় ৮৬ কিমি, যেতে সময় লাগে প্রায় তিন ঘণ্টা। পুনাখা জং। ভুটানের অন্যতম পবিত্র জং৷  এখানে অবশ্যই  দেখুন  মধ্যে নামগিয়াল চোর্তেন৷ ওয়াংদি-ফোড্রনঃ পুনাখা থেকেই দেখে নিন ২৩ কিমি দূরের ওয়াংদি-ফোদ্রন। ভুটানের সুইজারল্যান্ড নামে খ্যাত এই জায়গাটি। দেখুন ওয়াংদি-ফোদ্রন জংটি। কথিত আছে ওযাংদি নামে এক কিশোর বালি, মাটি , পাথর দিয়ে একটি খেলনার জং  তৈরী করে। কিন্তু হঠাৎই সে মারা যায়। সেই মডেলেই  গড়ে ওঠে এই ওয়াংদি-ফোদ্রন জংটি। এটি কিন্তু বেশ প্রাচীন জং৷ এখানকার ফ্রেসকো গুলিও দেখার মতো। এই জংটির মধ্যে একটা গা ছমছম করা ব্যাপার আছে। কাছেই আছে রাডাক নাকসাং মন্দির। এর মধ্যে রয়েছে তারাদেবী, শাক্যমুনি ও গুরু রিম্পোচের মূর্তি। পারোঃ দ্বিতীয় পর্যায়ে থিম্পু থেকে চলুন সোনালীরঙা পারো উপত্যকায়৷ থিম্পু থেকে দূরত্ব ৫১ কিলোমিটার, সময় লাগে  ঘণ্টা দেড়েক। যাবার পথেই পড়বে  পারো বিমানবন্দর৷ পারো উপত্যকাটি যেন   জলরঙে আঁকা  শিল্পীর কোনও ক্যানভাস। পাহাড়ের গায়েই রয়েছে সিটি ভিউ পয়েন্ট, এখান থেকে পারোর সান্ধ্যকালীন অবিস্মরনীয় রূপ উপভোগ করুন।   পাহাড়ে ঘেরা পারো  উপত্যকার প্রধান জং হলো রিনপুং জং৷রিন পুং জং৷ জংয়ের গঠনশৈলী অনবদ্য।  জংয়ের দেওয়ালের  চিত্রকলা ও ভিতরের বৌদ্ধমন্দিরটির সৌন্দর্যে মোহিত হবেন৷ রিংপুং জংয়ের  পিছন দিক থেকে  পাহাড়ি উপত্যকা ও নদীর দৃশ্য আপনাকে পাগল করে দেবে। যদি ট্রেকিং করার ইচ্ছে ও শারীরিক ক্ষমতা থাকে। তাহলে  পারো থেকে সারাদিন ট্রেক করে দেখে নিন উঁচু এবং  খাড়া পাহাড়ের গায়ে আশ্চর্যজনক ভাবে অবস্থিত ও নির্মিত তাকসাং মনাস্ট্রি । যাকে বিশ্ব চেনে টাইগার নেস্ট নামে।    সাত কিলোমিটার তিন-চার ঘণ্টায় ট্রেক করে পারো থেকে টাইগার নেস্ট পৌঁছে যান। এই গুম্ফা থেকে উপত্যকার সৌন্দর্য আমৃত্যু মনে থাকবে। চেলে-লাঃ পারো থেকে পাহাড় পেঁচিয়ে পেঁচিয়ে ওঠা পথ ঘণ্টা দুয়েকে পেরিয়ে উঠে আসুন চেলে-লা (পাস)ভুটানের সবচেয়ে সুন্দর অথচ সবচেয়ে কম বিখ্যাত জায়গা। এটি প্রায় ৪৫০০ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত এবং এটি ভুটানের সর্বোচ্চ রোড-পাস। এর অবস্থান পারো উপত্যকা ও হা উপত্যকার ঠিক মাঝখানে। প্রচণ্ড ঠান্ডা, প্রচণ্ড হাওয়া। খাবার কিছুই পাবেন না।পুরু জ্যাকেট নিয়ে যাবেন। তবে পৌঁছতে পারলে নবকুমার হয়ে যাবেন,’যা দেখিলাম, জন্মজন্মান্তরেও ভুলিবনা’ ভুটানে থাকবেন কোথায়? প্রচুর হোটেল ভুটানে। সব ট্যুরিস্ট স্পটেই। প্রথমেই বলে দিই,  ভুটান কিন্তু দার্জিলিং বা সিকিমের মতো সস্তা নয়। অত্যন্ত পরিস্কার পরিচ্ছন্ন দেশ ভুটানের বিভিন্ন হোটেল, রেস্তোরাঁ, দোকান, গাড়ি ঝাঁ চকচকে। কারণ বিদেশীরাই বেশি আসেন পর্যটক হিসেবে। তাই পরিচ্ছন্নতাও যেমন দামও তেমন। থিম্পু, পারো,  ফুন্টসোলিং-সহ সব জায়গার হোটেল ভাড়া ভারতীয় টাকায় ১৫০০ – ২০০০ টাকা থেকে শুরু। ভুটানের সর্বত্র ভারতীয় টাকা চলে। হোটেল আগে থেকে বুক করে নেবেন অনলাইনে। সব হোটেলে এখন ফ্রি ওয়াইফাই আছে। পরিষেবা ভালোই। খাওয়া থাকা গাড়ী ভাড়া বাবদ দিনপ্রতি কম বেশী ২০০০ টাকায় ভুটান ঘুরে আসা যায়। ভুটানের টাকা হলো ন্যুলট্রাম। বর্তমানে ভুটানের ৫০০ ন্যুলট্রাম সমান আমাদের ভারতীয় টাকায় ৪৯৯ টাকা ২০ পয়সা।

  • জানেন কি বাড়িতে অশান্তি ডেকে আনতে পারে মাকড়সার জাল

    newsbazar24: বাড়িতে অশান্তি ডেকে আনতে পারে মাকড়সার জাল,বাস্তুশাস্ত্র নিয়ে অনেক আলোচনা আমরা আগেও করেছি। বাস্তু নিয়মে বাড়িঘর তৈরি করার কথাও বলা হয়েছে। কিন্তু কখনও দেখা যায়, নিয়ম মেনে বাড়িঘর করার পরও বাড়িতে নানা সমস্যা থেকেই যায়। রোগভোগ, দাম্পত্য কলহ, কাজ নিয়ে সমস্যা, প্রভৃতি নানা সমস্যায় জর্জরিত হয়ে পড়তে হয়।এই রকম সময়ে মনে হতেই পারে, সব কিছু মেনে চলার পরেও কেন সমস্যা মিটছে না? অশান্তি কেন পিছু ছাড়ছে না। বাস্তুর সাহায্য নেওয়া সত্বেও কেন জীবন এত অসহায় হয়ে উঠছে।এর প্রধান কারণ– আমরা দৈনন্দিন জীবনে নিজেদের অজান্তেই এমন কিছু বাস্তুদোষ ঘটিয়ে ফেলি, যার ফলে জীবনে সমস্যা অনেক বেড়ে যায়। দেখে নেওয়া যাক বাস্তু মানা সত্ত্বেও কেন এত অশান্তি ভোগ করতে হয়। প্রথমত, বাড়িতে কখনও মাকড়সার জাল হতে দেওয়া যাবে না। মাকড়সার জাল যত বেশি হবে, তত বেশি বাড়িতে রাহুর প্রকোপ বাড়বে। রাহুর দৃষ্টি থেকে কিছুটা হলেও মুক্তি পেতে হলে বাড়িতে মাকড়সার জাল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পরিষ্কার করে ফেলতে হবে। এতে অনেক সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। দ্বিতীয়ত, বাড়িতে একই ঠাকুরের মূর্তি কখনও দুটো রাখা যাবে না। যেমন শিব ঠাকুরের মূর্তিও রয়েছে, আবার ফটোও রেখেছেন, এরকম করা যাবে না। বিশেষ করে মুখোমুখি তো একদমই নয়। এতে বাড়িতে প্রচুর পরিমাণে অশুভ শক্তি বাসা বাঁধে। তৃতীয়ত, ঘরের মাঝখানে যদি কোনও বিম থাকে, তা হলে তার নীচে কখনও শোওয়ার ব্যবস্থা করতে নেই। এতেও বাড়ির সদস্যদের মধ্যে অশান্তি সৃষ্টি হয়।

  • ১ লা বৈশাখ না অক্ষয় তৃতীয়া ? কোন দিনটিতে দোকানে পুজো করার মাহাত্ম্য বেশী ?

    শুক্লা চুতুর্বেদী : অক্ষয় তৃতীয়া হল চান্দ্র বৈশাখ মাসের শুক্লা তৃতীয়া অর্থাৎ শুক্লপক্ষের তৃতীয়া তিথি। হিন্দু ও জৈন ধর্মাবলম্বীদের কাছে একটি বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ এই তিথি। অক্ষয় শব্দের অর্থ হল যা ক্ষয়প্রাপ্ত হয় না। বৈদিক বিশ্বাসানুসারে এই পবিত্র তিথিতে কোন শুভকার্য সম্পন্ন হলে তা অনন্তকাল অক্ষয় হয়ে থাকে। মূলত এপ্রিলের শেষে ও মে মসের প্রথমে এই শুভ তিথি পালন করা হয়। ইতিহাস এই শুভদিনে জন্ম নিয়েছিলেন বিষ্ণুর ষষ্ঠ অবতার পরশুরাম। বেদব্যাস ও গনেশ এই দিনে মহাভারত রচনা আরম্ভ করেন। অক্ষয় শব্দের অর্থ হল যা ক্ষয়প্রাপ্ত হয় না। বৈদিক বিশ্বাসানুসারে এই পবিত্র তিথিতে কোন শুভকার্য সম্পন্ন হলে তা অনন্তকাল অক্ষয় হয়ে থাকে। আধুনিককালে এই তিথিতে সোনার বা রূপার গয়না কেনা হয়। মনে করা হয়, এই শুভ তিথিতে রত্ন বা জিনিসপত্র কিনলে গৃহে শুভ যোগ হবে। সুখ-শান্তি ও সম্পদ বৃদ্ধি হবে, এই আশাতেই এদিন মানুষ কিছু না কিছু কিনে থাকেন। অক্ষয় তৃতীয়ার ফর্দঃ এদিন অনেক বাড়িতেই পুজো করা হয়। অনেকেই জানেন না যে এই পুজোতে কী কী লাগবে। তাই এই পুজোর জন্য যা যা উপকরণ দরকার, তার একটি ফর্দ দেওয়া হল। যেমন- সিদুঁর, পঞ্চগুঁড়ি, পঞ্চগর্ব্য, তিল, হরিতকী, ফুল, দুর্ব্বা, তুলসি, বিল্বপত্র, ধূপ, প্রদীপ, ধূনা, মধুপর্ক বাটি ২, আসনাঙ্গুরীয় ২, দই, মধু, চিনি, ঘি, পুজোর জন্য কাপড় ১, শাটী ১, নৈবেদ্য ২,কুচো নৈবেদ্য ১, সভোজ্য জলপূর্ণ ঘট ১, বস্ত্র ১, পাখা ১, দক্ষিণা। সব শেষে এক ঝলকে জেনে নিন মাত্র ৭ টি পয়েন্টে। তাহলেই বুঝতে পারবেন, অক্ষয় তৃতীয়ার মাহাত্ম্য। ১) অক্ষয় শব্দের অর্থ তো আর নতুন করে বলার নেই। অক্ষয় মানে যার ক্ষয় নেই। বিনাশ নেই। প্রতি বৈশাখ মাসের শুক্লাপক্ষের তৃতীয়া তিথিতে পালন করা হয় এই অক্ষয় তৃতীয়া। অত্যন্ত শুভ দিন তো বটেই। ২) এই দিনটাতেই পরশুরামের জন্ম হয়। পরশুরাম ছিলেন নারায়ণের ষষ্ঠ অবতার। ৩) বেদব্যাস, গনেশের সাহায্য নিয়ে আজকের দিন থেকেই মহাভারত লেখা শুরু করেছিলেন। ভাবুন একবার। যে মহাভারত পড়ে বড় হলেন, সেই মহাকাব্যর লেখা শুরু কিনা আজকের দিন থেকেই। শুনেই কেমন রোমাঞ্চ লাগলো না? ৪) কৃষ্ণ এবং সুদামা ছিলেন অভিন্ন হৃদয় বন্ধু। কিন্তু দুজনের আর্থিক ভেদ ছিল। কৃষ্ণ রাজার সন্তান। আর সুদামা হলেন সাধারণ পরিবারের ছেলে। কৃষ্ণ রাজার হওয়ার পর এই বিশেষ দিনে সুদামা এসেছিলেন তাঁর প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে। ৫) শোনা যায় গঙ্গাও আজকের দিনেই নেমে এসেছিলেন আমাদের এই পৃথিবীতে। গঙ্গা যে আমাদের সভ্যতা। তাহলে সেই সভ্যতার শুরুও কিনা আজকের দিনেই! ৬) যে দেবী অন্নপূর্ণার পুজো করেন আপনি, সেই অন্নপূর্ণা দেবীর জন্মও হয়েছিল এই তিথিতে। ৭) ধনের দেবতা কুবের একবার বর চেয়েছিলেন মা লক্ষ্মীর কাছে। লক্ষ্মী ঠাকুর সন্তুষ্ট হয়ে আজকের দিনেই কুবেরকে অনেক ধনরত্ন উপহার দিয়েছিলেন। ১ লা বৈশাখ না অক্ষয় তৃতীয়া ? কোন দিনটিতে দোকানে পুজো করার মাহাত্ম্য বেশী

  • আজকের দিন কেমন কাটবে জানুন রাশিফল

    newsbazar24: আজকের রাশিফল: ৭ মে ২০১৯ মঙ্গলবার,‌,মেষ রাশি (২১ মার্চ – ২০ এপ্রিল): মেষ রাশির জাতক জাতিকার আজ দিনটি শুভ সম্ভাবনাময়। বকেয়া টাকা আদায়ের চেষ্টা জোরদার করুন। খুচরা ও পাইকারী ব্যবসায় ভালো আয় হবে। বাড়িতে আত্মীয় কুটম্বর আগমন হতে পারে। হোটেল ও রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীদের আয় রোজগার বৃদ্ধি পাবে। জাতিকাদের সঞ্চয়ের প্রচেষ্টায় অগ্রগতি আশা করা যায়। ক্ষুদ্র বিনিয়োগে লাভবান হবেন। বৃষ রাশি (২১ এপ্রিল – ২০ মে): বৃষ রাশির জাতক জাতিকার দিনটি মিশ্র যাবে। আজ শুভ চন্দ্রের প্রভাবে আপনার ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গবেষকদের সম্মানিত হওয়ার দিন। অসুস্থদের শারীরিক অবস্থার উন্নতি আশা করা যায়। ব্যবসা বাণিজ্যে ভালো কোন সংবাদ পেতে পারেন। জীবন সাথীর সাথে রোমান্টিক সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে। মিথুন রাশি (২১ মে – ২০ জুন): মিথুন রাশির জাতক জাতিকার দিনটি ব্যয় বহুল থাকবে। সাংসারিক ক্ষেত্রে ইফতারী ব্যয় তুলনামূলক বাড়তে পারে। হঠাৎ করে দূরে কোথাও যাওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। প্রবাসীদের শরীর স্বাস্থ্য সম্পর্কে সতর্ক হতে হবে। দুর্ঘটনা বা রক্তপাতের সম্মূখীন হতে পারেন। বিদেশে বিনিয়োগে বা আমদানী রপ্তাণী বাণিজ্যে ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। কর্কট রাশি (২১ জুন – ২০ জুলাই): কর্কট রাশির জাতক জাতিকার দিনটি শুভ সম্ভাবনাময়। ব্যবসায়ীক ক্ষেত্রে বন্ধু বা বড় ভাই বোনের সাহায্য পেতে পারেন। শ্রমজীবীদের আয় রোজগারে বাধা বিপত্তি দেখা দেবে। ঠিকাদারী কাজে অহেতুক ব্যয় বৃদ্ধির যোগ। কোন সামাজিক বা রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার সম্ভাবনা। সম্মান ও মর্যাদা বৃদ্ধি পাবে। সিংহ রাশি (২১জুলাই- ২১ আগষ্ট): সিংহ রাশির জাতক জাতিকার কর্মস্থলে সাফল্য লাভের যোগ প্রবল। বেকারদের কর্মলাভের স্বপ্ন পূরণ হতে পারে। চাকরি সংক্রান্ত তদবিরে আশাতীত সাফল্য পেতে পারেন। প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তির সাহায্য লাভের যোগ রয়েছে। রাজনৈতিক কাজে দায়িত্ব ও ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। সরকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের ব্যস্ততা কমে আসবে। কন্যা রাশি (২২ আগষ্ট – ২২ সেপ্টেম্বর): কন্যা রাশির জাতক জাতিকার দিনটি ভালো যাবে। কোন শিক্ষকের দ্বারা ভাগ্য উন্নতির সুযোগ পেতে পারেন। উচ্চ শিক্ষার জন্য বিদেশ যাত্রার যোগ বলবান। কর্মস্থলে পিতার সাহায্য পেতে পারেন। বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীরা কোন প্রতিযোগীতামূলক পরীক্ষায় সফল হবেন। ধর্মীয় ও আধ্যাত্মীক কাজে বিদেশ যাত্রার যোগ। তুলা রাশি (২৩ সেপ্টেম্বর – ২১ অক্টোবর): তুলা রাশির জাতক জাতিকার দিনটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। কাজ কর্মে কিছু জটিলতা দেখা দেবে। ব্যক্তি ঋণ বা মাল্টিপারপাসের কিস্তির টাকা পরিশোধের চাপ বৃদ্ধি পাবে। রাস্তাঘাটে সাবধানে চলাফেরা করুন। শেয়ার বাজারে বিনিয়োগে সামান্ন আয়ের সুযোগ রয়েছে। চিকিৎসা ও রাসায়নিক দ্রব্যের ব্যবসায় লাভের সম্ভাবনা। ধারালো অস্ত্রর ব্যবহারে সতর্ক হতে হবে। বৃশ্চিক রাশি (২২ অক্টোবর – ২০ নভেম্বর): বৃশ্চিক রাশির জাতক জাতিকার দিনটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। অবিবাহিতদের বিয়েতে বাধা বিপত্তির আশঙ্কা প্রবল। খাদ্য ও ফল-মুলের ব্যবসায় কোনো প্রকার ভ্রাম্যমান ম্যাজিস্ট্রেটের জটিলতা দেখা দেবে। সাংসারিক ও কর্মস্থলে চলতে থাকা সংকটের মূহুর্তে জীবন সাথী বা অংশিদারদের সাহায্য পেতে পারেন। ধনু রাশি (২১ নভেম্বর – ২০ ডিসেম্বর): ধনু রাশির জাতক জাতিকার শরীর স্বাস্থ্য ভালো যাবে না। কাজের লোকের উপর কিছুটা বিরক্ত হতে পারেন। অনৈতিক সম্পর্কের কারণে দাম্পত্য অশান্তি দেখা দেবে। পারিবারিক ক্ষেত্রে আত্মীয়র দ্বারা গোপন শত্রুতার শিকার হতে পারেন। আপনার কোন মূল্যবান দ্রব্য হারিয়ে ফেলার আশঙ্কা প্রবল। মকর রাশি (২১ ডিসেম্বর – ২০ জানুয়ারি): মকর রাশির জাতক জাতিকার দিনটি শুভ সম্ভাবনাময়। সন্তানের সাথে সময় কেটে যাবে। সৃজনশীল কাজে আপনার সুনাম ও সম্মান বৃদ্ধি পাবে। কোন বন্ধুর সাহায্য পেতে পারেন। রোমান্টিক সম্পর্কে টানাপোড়ন শুরু হতে পারে। আজ নিঃসন্তানদের সন্তান লাভের যোগ বলবান। সাধারন জ্ঞাণ এর কোন প্রতিযোগীতায় বিজয়ী হবার সম্ভাবনা। কুম্ভ রাশি (২১ জানুয়ারি -১৮ ফেব্রুয়ারি): কুম্ভের জাতক জাতিকার দিনটি প্রত্যাশা পূরণের। সাংসারিক কোনো বিষয়ে মায়ের পরামর্শে উপকৃত হতে পারেন। পারিবারিক ভূ-সম্পত্তি বিষয়ে আত্মীয়দের সাহায্য লাভের যোগ। যানবাহন ক্রয়ের সুযোগ আসতে পারে। গৃহস্থালী কোন আসবাব পত্র বানানোর অর্ডার করতে পারেন। জমি ও ভূমি ক্রয় বিক্রয়ে সফল হবেন।

  • জানেন কি দেশে ও বিদেশে ঘুরে কি কি উপকার পাওয়া যায় ?

    newsbazar24: ঘোরাঘুরি বা ভ্রমন, আমাদের দৈনন্দিন জীবনের শত ব্যস্ততার মাঝেও কার না ভালো লাগে একটু ঘুরে বেড়াতে? আমরা কেন ভ্রমণ করি? ঘুরে বেড়াতে ইচ্ছা হয় বলেই। শরীর এবং মনের প্রফুল্লতা অর্জনের জন্যও। যেহেতু রোমাঞ্চকর স্থানে সময় কাটানো বা বেড়াতে যাওয়া ভালোলাগার বিষয় যা মনে স্বস্তিও আনে। আর এই ভ্রমণেও আছে নানান রকমের উপকারিতা। সেটা স্বাস্থ্যের জন্যও। আসুন জেনে নেই ভ্রমণের উপকারিতা গুলো- মানসিক চাপ হ্রাস ভ্রমণ মানসিক চাপ কমানো এবং নিজেকে পুনরুজ্জীবিত করার জন্য ভালো উপায়। ছুটির সময়টা বাড়ির বাইরে গিয়ে কাটান। দেখবেন আপনি দৈনন্দিন ঝামেলা থেকে দূরে থাকবেন। ছুটি শেষে যখন ঘরে ফিরবেন; তখন একটা সতেজ বোধ এবং অনুপ্রেরণা ও আগ্রহ কাজ করবে। সামাজিক দক্ষতা বৃদ্ধি  ভ্রমণে বিভিন্ন ধরনের মানুষের সঙ্গে মেশার সুযোগ হয়। আপনার পাশে বসা মানুষটির সঙ্গে আলাপ হতে পারে। এতে আপনার সামাজিক দক্ষতা বাড়বে। অনেকেই আবার নতুন পরিবেশে উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠেন। এমন সমস্যায় ভ্রমণ হতে পারে ভালো সমাধান। ধৈর্যশীলতা বৃদ্ধি- ঘোরাঘুরি করতে গেলে আপনাকে আরো বেশি ধৈর্যশীল হতে হবে। চাওয়া মাত্রই সব হয়তো হাতের কাছে চলে আসবে না। কেননা বের হলেই দেখবেন, কোনো কিছুর জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে। খাবারের জন্য রেস্টুরেন্টে অপেক্ষা করতে হচ্ছে। এসব পরিস্থিতি আপনাকে সামাল দিতে হবে। এতে আপনার ধৈর্যশীলতা বাড়বে । আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়ায় ভ্রমন । বেড়াতে গেলে নিজের প্রতি আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়ে। আপনাকে লক্ষ্য অর্জনেও সাহায্য করবে ভ্রমন । মনে করুন, পাহাড়ে ওঠার লক্ষ্য অর্জন করলে আপনি হয়তো আবার একটি লক্ষ্য ঠিক করে নিবেন। এভাবে লক্ষ্য অর্জন আপনাকে দিতে পারে আত্মবিশ্বাস এবং সফলতা। ইতিবাচক মানসিকতা ভ্রমণ করলে আপনি কিছুটা ইতিবাচক চিন্তার অধিকারী হবেন। খারাপ আবহাওয়ায় তারিখ পরিবর্তন হতে পারে। তখন নতুন কোনো সিদ্ধান্ত নিতে হয়। এসবই আপনাকে অনেক নমনীয় করে তুলবে। আরো বেশি মুক্তমন তৈরি করে দেবে। এসবই আপনার দৈনন্দিন জীবনে কাজে লাগবে।

  • সঠিক পদ্ধতি মেনে রেশম চাষ করে আয় বাড়াতে পারেন চাষীরা,বিস্তারিত জেনে নিন

    newsbazar24: ঝাড়খণ্ড, বিহার, বাংলার প্রত্যন্ত জঙ্গলময় এলাকার গরীব আদিবাসী মানুষের জীবন জীবিকা নির্বাহের একটি পথ তসর পালন। সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক ভাবে এখানে বহু বছর আগে শুরু হয়েছিল এই  চাষ‌। সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে এই সব প্রত্যন্ত অঞ্চলের আদিবাসী জনগোষ্ঠী নিজস্ব প্রযুক্তিতে তসরের চাষাবাদ করে আসছে। আমাদের দেশে চার ধরনের রেশমের চাষ করা হয়, ভারতই একমাত্র দেশ যেখানে তুঁত, গ্রীষ্মমণ্ডলীয় তসর, , এরি এবং মুগা চার রকমের বাণিজ্যিক রেশমই উৎপাদিত হয়। এগুলির মধ্যে সোনালি হলুদ উজ্জ্বলতার জন্য মুগার চাহিদা বেশি। কর্নাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, তামিলনাডু ও জম্মু ও কাশ্মীর-এই পাঁচটি রাজ্যে দেশের মোট তুঁত উৎপাদনের ৯৭ শতাংশ উৎপাদিত হয়। ভারত পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম রেশম উৎপাদনকারী দেশ। ২০১৩-১৪ অর্থ বর্ষে ভারতে মোট কাঁচা রেশম উৎপাদন হয় ২৬৪৮০ মেট্রিক টন, এর মধ্যে ১৯৪৭৬ মেট্রিক টন তুঁত সিল্ক, ২৬১৯ মেট্রিক টন তসর সিল্ক, ৪২৩৭ মেট্রিক টন এরি সিল্ক এবং ১৪৮ মেট্রিক টন মুগা সিল্ক। তসর- একটি বন্য রেশম প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে বছরের পর বছর চাষাবাদ হলেও ফলন অত্যন্ত কম, বর্তমানে ভারতে উৎপাদিত সমগ্র তসর চাষের ৮১ শতাংশ অবদান আছে ঝাড়খণ্ড রাজ্যের। তসরের পোকা আসান, শাল ও অর্জুন পাতা খেয়ে তসর মথ-এ পরিণত হয়। তসর মত এর আগের দশা হলো কোকুন দশা বা সাধারণ কথায় গুটি দশা, যার থেকে সুতো বার করা হয়। চক্রটি সম্পূর্ণ হতে সময় লাগবে ৪০-৭০ দিন। অর্থাৎ, বছরে তিনটি চাষ সম্ভব। যদি বিজ্ঞান সম্মত পদ্ধতিতে চাষাবাদ করা হয়  তাহলে চাষীরা কয়েক গুণ বেশি লাভবান হবেন। তা ছাড়া, বন্য  জমিতে বিজ্ঞানসম্মত ভাবে গাছ লাগানোয় এক দিকে বনসৃজন হবে আর বাড়বে তসর উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা, অন্য দিকে স্থানীয় মানুষের জ্বালানি কাঠের জোগানও মেটাবে পুরানো অর্জুন গাছগুলিই। আবার তসর চাষের প্রতি ধাপে পেশাদারিত্ব সহজ প্রযুক্ত থাকবে বলেও তিনি জানান। তসর-গুটি চাষের সঙ্গে যুক্ত চাষীরা জানিয়েছেন, ২০০ টাকায় এক গ্রাম ডিম কিনতে হয় মহাজনদের কাছ থেকে। তার পর তা অর্জুন গাছে ছেড়ে দিলে ডিম ফুটে বাচ্চা বেরিয়ে পোকা ও পরে ধীরে ধীরে গুটি তৈরি হয়। গোপীবল্লভপুরের পায়রাশুলি গ্রামের কারুরাম মান্ডির কথায়, “এখন আমরা বছরে একবার কোকুন চাষ করি। অক্টোবরের মাঝামাঝি থেকে ডিসেম্বর— ৪৫ দিনেই গুটি পাই। ২২০০ টাকা কাহন (চার গুটিতে এক গণ্ডা, ২০ গণ্ডায় ১ পণ, ২০ পণে ১ কাহন) দামে গুটি বিক্রি করি মহাজনদের কাছেই। তাতে প্রায় ৫ হাজার টাকা লাভ থাকে।”  লাভজনক হলে সারা বছর চাষ হয় না কেন? (১)দালাল দের মাধ্যমে বেশিরভাগ তসর গুটি বিক্রি করেন স্থানীয় চাষীরা, দালাল দেয় নামমাত্র মূল্যে। (২) বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে চাষাবাদ না করার ফলে চাষীদের নানান জটিলতা সাথে লড়তে হয় যেমন (রোগ মুক্ত ডিম উৎপাদন , নানান প্রতিকূল পরিবেশে থেকে ও রোগ পোকা হাত থেকে রক্ষা) দেখা গেছে বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতিতে চাষাবাদ না করে পরম্পরা গত পদ্ধতিতে চাষাবাদ করলে ৮০-৯০% ফলন ক্ষতি হতে পারে। (3)আরো একটি অন্যতম দিক হলো এই চাষিরা সংগঠিত নয় , বিভিন্ন স্থানে ছরিয়ে ছিটিয়ে আছেন বা এক সঙ্গে কাজ না করবার জন্য অনেক ধরনের সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত থাকেন। (4) চাষীদের অর্থনৈতিক অবস্থা অত্যন্ত খারাপ এবং শিক্ষার মান উন্নত না থাকার জন্য অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। (5) রেশম চাষী শুধু গুটি বিক্রি জন্য চাষাবাদ করেন কিন্তু তারা যদি , মেশিনে গুটি থেকে সুতো বের করেন তাহলে লাভের পরিমাণ বাড়বে কয়েকগুণ বেশি।