খেলা


  • মোহনবাগানের সুপার কাপ অভিযান শেষ

    ডেস্ক, ১৭ই এপ্রিলঃ বেঙ্গালুরু এফসির বিরুদ্ধে ৪-২ গোলে হেরে সুপার কাপ থেকে বিদায় নিল মোহনবাগান। আজকের সেমিফাইনালে প্রথমার্ধে ১ গোলে এগিয়ে থেকেও জয় ধরে রাখতে পারল না । বেঙ্গালুরু এফসি ১০ জনে খেলে জয় ছিনিয়ে নিয়ে গেল। মঙ্গলবার সুপার কাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে পুরনো প্রতিপক্ষ বেঙ্গালুরু এফসির বিরুদ্ধে মাঠে নামে মোহনবাগান। আমরা দেখেছি অতীতে যখনই এই দু'টি দল মুখোমুখি হয়েছে তখনই উত্তেজনাপূর্ণ  ম্যাচ হয়েছে। এদিনও দেখা যায় একই ছবি। কিন্তু চেনা পরিচত মোহন ফুটবলারদের মেজাজটারই আজ বড় অভাব ছিল ম্যাচের শুরু থেকে। শেষ পর্যন্ত হারতে হলেও ম্যাচের শুরুটা কিন্তু ভালই করেছিল সবুজ মেরুন ব্রিগেডের। আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতেই ম্যাচটি শুরু করেছিল শঙ্করলাল চক্রবর্তীর ছেলেরা। প্রথমার্ধে দাপটও ছিল মোহনবাগানের। ম্যাচের ৪১ মিনিটে আক্রম মোগরাভির পাস থেকে গোল করে বাগানকে ১-০ গোলে এগিয়ে দেন ক্যামরুনের স্ট্রাইকার ডিপান্ডা ডিকা। এক গোলের লিড নিয়ে প্রথমার্ধে মাঠ ছাড়ে সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। আশা করা হয়েছিল প্রথমার্ধের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল তুলে নিয়ে জয় নিশ্চিত করতে ঝাঁপাবে মোহনবাগান। সুবিধাও পেয়ে গিয়েছিল বাগান ব্রিগেড। দ্বিতীয়ার্ধ শুরুর পাঁচ মিনিটের মধ্যেই লাল-কার্ড দেখেন বেঙ্গালুরুর নিশু কুমার। মনে করা হয়েছিল ১০ জনের বেঙ্গালুরু আর হয়তো ঘুরে দাঁড়াতে পারবে না বেঙ্গালুরু বিরুদ্ধে। বাগান সমর্থকরা যখন ধরে নিয়েছেন ম্যাচ হাসতে হাসতে জিতবে তাঁদের প্রিয় দল, তখনই বেঙ্গালুরুর ত্রাতা হয়ে অবতীর্ণ হন মিকু। ৬১ মিনিটে উদান্ত সিংহের পাস ধরে গোল করে বেঙ্গালুরুকে খেলায় ফিরিয়ে আনেন ভেনিজুয়েলার এই স্ট্রাইকার। প্রথম গোলের রেশা কাটতে না কাটেই ফের মিকু ম্যাজিক। টনির বাড়ানো পাস থেকে গোল করে যান তিনি। ম্যাচের ৮৮ মিনিটে বক্সের নিজেদের বক্সের মধ্যে উদান্ত সিংহকে মোহন ডিফেন্ডার রানা ঘড়ামি ফাউল করলে পেনাল্টি পায় অ্যালবার্তো রোকার দল। পেনাল্টি থেকে গোল করতে ভুল করেননি মিকু। পাশাপাশি করে যান নিজের হ্যাট্রিকও। ৮৯ মিনিটি মোহনবাগানের কফিনে শেষ পেরেকটি পোঁতেন সুনীল ছেত্রী। প্রিয় দলের হার নিশ্চিত জেনে যখন মোহন সমর্থকেরা ধীরে ধীরে মাঠ ছাড়তে শুরু করেছেন সেই সময় দ্বিতীয় গোল করে ব্যবধান কমান ডিকা।  

  • মালদা জেলা মহিলা কাবাডি প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন দোহিল হাই স্কুল

    ডেস্ক, ১৬ই এপ্রিলঃ মালদা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার পরিচালনায় ও মালদা স্পোর্টস ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশনের সহযোগিতায় মালদা অনীক সংঘের ময়দানে মালদা জেলা মহিলা কাবাডি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।চ্যাম্পিয়ন হয় দোহিল হাই স্কুল,রানার্স হয় গাজোল ব্লক ক্রীড়া সংস্থা।ফাইনালে খেলার ফল 24-12 পয়েন্ট।চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স দল গুলিকে ট্রফি ও নগদ আর্থিক পুরস্কার এবং প্রত্যেক খেলোয়াড় কে পুরস্কৃত করা হয়।অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর সুমালা আগরওয়ালা,গায়ত্রী ঘোষ,শিপ্রা রায়,অণ্জ্ঞু তেওয়ারি, এবং  নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি ও গোবিন্দ বসাক মহাশয়।

  • কমনওয়েলথ গেমসের শেষ দিনেও পদক,তৃতীয় স্থানে ভারত।

    ডেস্ক ১৫ই এপ্রিল: রবিবার গোল্ড কোস্টে শেষ হল ২১তম কমনওয়েলথ  গেমস। ২৬ টি সোনা, ২০টি রুপো এবং ২০টি ব্রোঞ্জ পদক নিয়ে পদক তালিকায় তৃতীয় স্থানে  ভারত।  মোট পদক এসেছে ৬৬টি। শেষদিন এল সাতটি পদক। মহিলাদের ব্যাডমিন্টনের সিঙ্গলসের ফাইনালে পিভি সিন্ধুকে হারিয়ে সোনা পেলেন সাইনা নেহওয়াল। ২০১০ সালে নয়াদিল্লি কমনওয়েলথ গেমসের পর  আবার এই প্রতিযোগিতায় সোনা পেলেন সাইনা।  আজ এই একটিই সোনা পেল ভারত। রুপো অবশ্য এসেছে চারটি এবং দু’টি ব্রোঞ্জ। ২০১৪ সালে গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসে মোট ৬৪টি পদক জিতেছিল ভারত। যার মধ্যে ১৫টি সোনা, ৩০টি রুপো এবং ১৯টি ব্রোঞ্জ জিতেছিল ভারত। পদক তালিকায় ভারত ছিল ৫ নম্বর স্থানে। ২০১৮ সালে গোল্ড কোস্টে সেখানে ভারতের মোট পদক সংখ্যা ৬৬, যেখানে ২৬টি সোনা জিতেছেন ভারতীয় অ্যাথলিটরা। পদক তালিকায় তিন নম্বর স্থানে শেষ করেছে ভারত। গ্লাসগোতে বক্সিংয়ে ৪টি রুপো ও একটি ব্রোঞ্জ নিয়ে মোট ৫টি পদক জিতেছিল ভারত। এবার গোল্ড কোস্টে বক্সিংয়ে মোট ৯টি পদক জিতেছে ভারত, ৩টি করে সোনা,রুপো এবং ব্রোঞ্জ।  সবমিলিয়ে পারফরম্যান্সের নিরিখে এবং পদকের নিরিখেও গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসকে টেক্কা দিল গোল্ড কোস্ট।

  • কমনওয়েলথের নবম দিনেও ভারতের পদক সংখ্যা ৩৫ , সোনা পেলেন তেজস্বিনী, অনীশ,

    ডেস্ক, ১৩ই এপ্রিলঃ কমনওয়েলথের নবম দিনে সোনা জিতলেন তেজস্বিনী সাওয়ন্ত। এদিন ৫০ মিটার রাইফেল ইভেন্টে সোনা জিতেছেন তিনি। এছাড়া অঞ্জুম মোডগিল রুপো জিতেছেন। এদিন শ্যুটিংয়ে আরও একটি সোনা জিতেছে ভারত। পুরুষদের ২৫ মিটার রাপিড ফায়ার পিস্তল ইভেন্টে দেশের হয়ে ১৬-তম সোনা এনে দিলেন অনীশ। এর পাশাপাশি এদিন ভারতের আরও  পদক জেতার সম্ভবনা উজ্জল হয়েছে। টেবল টেনিসে মনিকা বাতরা, ব্যাডমিন্টনে অশ্বিনী পোন্নাপ্পা, বক্সিংয়ে বজরং পুনিয়া, কুস্তিতে মৌসম খাত্রি, টেবল টেনিসে মৌমা দাস, স্কোয়াশে দীপিকা পাল্লিকাল, ৪০০ মিটার রিলে রেসে ভারতীয় পুরুষ দলের   পদক জয়ের কাছাকাছি রয়েছে। এদিন ভারতের হয়ে ২৫ মিটার রাপিড ফায়ার পিস্তল ইভেন্টে ইতিহাস তৈরি করে ১৫ বছর বয়সী অনীশ ভানওয়ালা সোনা জেতেন। এত কমবয়সে কেউ ভারতের হয়ে সোনা জেতেননি। বক্সিংয়ে ভারতের অমিত পাংগাল ৪৬-৪৯ কেজি বিভাগে উগান্ডার জুমা মিরোকে হারিয়ে পদক জয়ের দোড়গোড়ায় রয়েছেন। কিদাম্বী শ্রীকান্ত পুরুষদের সিঙ্গলসকে ব্যাডমিন্টনের সেমিফাইনালে পৌঁছেছেন। এছাড়া ব্যাডমিন্টনে সাইনা নেহওয়ালও মহিলাদের সিঙ্গলসে সেমিফাইনালে পৌঁছেছেন। ফলে এদিন ভারত আরও পদক জিতবে বলে আশা করাই যায়।   মহিলাদের ৫০এম রাইফেল শ্যুটিং প্রতিযোগিতায় স্বর্ণ পদক জয়ী তেজস্বিনী সাওয়ান্তকে এবং রৌপ্য পদক জয়ী  আঞ্জুম মৌদগিলকে   অভিনন্দিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী।  তাঁদের  এই সাফল্যে অভিনন্দন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছেন“দু’দিনে পর পর দুটি পদক! মহিলাদের ৫০এম রাইফেল শ্যুটিং প্রতিযোগিতায় সোনা জিতে নেওয়ার জন্য অভিনন্দন জানাই তেজস্বিনী সাওয়ান্তকেএবং “মহিলাদের ৫০এম রাইফেল শ্যুটিং প্রতিযোগিতায় রৌপ্য পদক জয়ী আঞ্জুম মৌদগিলের জন্য আমরা গর্বিত।” পাশাপাশি ২৫ মিটার রাপিড ফায়ার পিস্তল ইভেন্টে স্বর্ণ পদক জয়ী ১৫ বছর বয়সী অনীশ ভানওয়ালাকেও অভিনন্দন জানিয়েছেন।  

  • কমনওয়েলথে শুটিংএ এক বঙ্গতনয়ার পদক লাভ এবং ব্যাডমিন্টনের মিক্সড টিম প্রথমবার সোনা পেল

                ডেস্ক, ৯ এপ্রিল : ভারত আবার শুটিংয়ে  পদক জয় করল   এক বঙ্গতনয়ার হাত  ধরে।  কলকাতার মেহুলি ঘোষ ১০ হাজার মিটার এয়ার রাইফেলে রূপো জিতলেন তিনি। এই ইভেন্টে ব্রোঞ্জও এসেছে ভারতের ঝোলায়। জিতেছেন অপূর্বী চান্দেলা। ২৩৩.৫ স্কোর নিয়ে সোনা জিতে নেন অস্ট্রেলিয়ার কেরি বেল। সোনা জয়ের একদম কাছে পৌঁছনোর পরেও কার্যত টাইব্রেকারে বাজি মেরে যান অস্ট্রেলিয় শুটার।একটা সময় দুজনেই কমনওয়েলথ রেকর্ড ২৪৭.2 পয়েন্টে টাই  ছিলেন। এরপর মেহুলি ৯.৯ স্কোর করেন। অন্যদিকে  মার্টিনা ১০.৩ স্কোর করেন।২২৫.৩ স্কোর করে ব্রোঞ্জ পান অপূর্বী।  অন্য দিকে ব্যাডমিন্টনের মিক্সড টিম কমনওয়েলথে প্রথমবার সোনা এনে দিল ভারতকে।   ভারতের ব্যাডমিন্টন দল যৌথ প্রচেষ্টায় কমনওয়েলথের পঞ্চম দিনে ব্যাডমিন্টনের মিক্সড টিম   সোনা এনে দিল ভারতকে। এই প্রথমবার সাইনা নেহওয়াল, কিদম্বী শ্রীকান্তরা সোনা ঘরে তুললেন। অস্ট্রেলিয়ার গোল্ড কোস্টে অশ্বিনী পোন্নাপ্পা, সাত্ত্বিক রঙ্কিরেড্ডি, কিদম্বী শ্রীকান্ত ও সাইনা নেহওয়ালরা একসঙ্গে অসাধারণ খেলে ৩-১ ব্যবধানে জিতে সোনা নিশ্চিত করলেন।শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, স্কটল্যান্ড মরিশাস ও সিঙ্গাপুরকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে ভারত।  

  • কমনওয়েলথ গেমসে টেবল টেনিসে বিশ্বকাপের মত সেরা ভারত

    ডেস্ক, ৮ই এপ্রিলঃ  কমনওয়েলথ গেমসে রবিবারই সকালে পরপর  সোনা পায় ভারত। এয়ার পিস্তল ও ৬৯ কেজি ভারোত্তোলনে থেকে সোনাপ্রাপ্তির পর এবার টেবিল টেনিসে সোনা আনলেন মৌমা দাসরা। ভারতের সপ্তম সোনা এল টেবিল টেনিস থেকে।  মহিলাদের দলগত টেবল টেনিসে সিঙ্গাপুরকে ৩-১ ব্যবধানে হারিয়ে সোনা জিতল ভারত। বিশ্ব মিটের পর কমনওয়েলথেও টেবিল টেনিসে সেরা হল ভারতের মেয়েরা। আর এই জয়ে বাংলার মুখ উজ্জ্বল করলেন মৌমা দাস। এদিন সকালে ১০ মিটার এয়ার পিস্তলে রুপো জিতেছেন হিনা সিধু। তার আগে ভারোত্তোলনের ৬৯ কেজি বিভাগে সোনা জেতেন পুনম যাদব। বেনারসের দাদপুর গ্রাম থেকে উঠে আসা পুনমের বাবা পেশায় একজন কৃষক। মেয়ের খেলার জন্য চারটি মহিষ বিক্রি করে দেন তিনি। বাবাকে হতাশ করেননি পুনম। হতাশ করেননি দেশকেও। কমনওয়েলথে সোনার মেয়ে হলেন পুনম।  ভারত সাতটি সোনা, দুটি রূপো ও দুটি ব্রোঞ্জ পদক জিতে এখন পর্যন্ত পদক তালিকায় তিন নম্বরে উঠে এসেছে। । এদিন তিনটি সোনার পদক আনার পাশাপাশি ৯৪ কেজি ভরোত্তোলনে ব্রোঞ্জ জেতেন বিকাশ ঠাকুর। তিনি মোট ৩৫১ কেজি ওজন তুলেছেন। এদিন ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে ব্রোঞ্জ জেতেন রবি কুমার। এদিকে ব্যাডমিন্টনে মিক্সড ইভেন্টেও ফাইনালে উঠেছে ভারত। সাইনা-শ্রীকান্তের দারুন পারফরম্যান্সে ভর করে ভারত পৌঁছে গিয়েছে ফাইনালে। এর পাশাপাশি বক্সিংয়েও পদক নিশ্চিত করেছেন মেরি কম। তিনি ৪৮ কেজি বিভাগে সেমিফাইনালে উঠেছেন।  

  • আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংস এর রুদ্বশ্বাস জয়।

    ডেস্ক, ৭ই এপ্রিলঃ আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংস এর  রুদ্বশ্বাস জয়। ওয়াংখেড়েতে জেতা ম্যাচ  হেরে  ফিরতে হল রোহিত শর্মাদের। এই অসম্ভবকে সম্ভব করলেন যিনি তিনি হলেন ডোয়ান ব্র্যাভো। ৩০ বলে ৬৮ রানের এক  দুধ্বর্ষ   ইনিংস খেলে ২ বছরের নির্বাসন কাটিয়ে ফেরা চেন্নাই-এর জন্য জয় এনে দিলেন ব্র্যাভো। ওয়াংখেড়ে-তে আইপিএল-এর প্রথম ম্যাচে টসে জিতে ফ্লিডিং-এর সিদ্ধান্ত নেয় চেন্নাই। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক মেজাজে ছিলেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। কিন্তু, ছয় মারার চক্করে খুব জলদি প্যাভিলিয়নে ফিরে যান রোহিত। আর এক ওপেনার লুইসও রোহিতের আগে তৃতীয় ওভারের মাথাতেই আউট হয়ে গিয়েছিলেন। সঞ্জু স্যামসন ও ইশান কৃষণ-এর জুটিতে ভর করে ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ায় মুম্বই। অনুর্ধ্ব ঊনিশ বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য ইশান কৃষণ ২৯ বলে ৪০ রান করেন। অন্যদিকে সঞ্জু স্যামসন ২৯ বলে ৪৩ রান করেন। হার্দিক পাণ্ডিয়া দ্রুত ২২ রান করলেও হ্যামস্ট্রিং-এ টান ধরে মাঠ থেকে বেরিয়ে যান। কুণাল পাণ্ডিয়া ২২ বলে ৪১ রান করেন। চেন্নাই-এর পক্ষে শ্য়েন ওয়াটসন ২ উইকেট নেন। চেন্নাইয়ের সামনে জয়ের জন্য ১৬৬ রানের টার্গেট রাখল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। ২ বছর পর আইপিএল-এ ফিরে এসে প্রথম ম্যাচেই যে চেন্নাই হারছে তা তখন এক প্রকার নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। চেন্নাই-এর অধিনায়ক এম এস ধোনিও  একপ্রকার ধরে নিয়েছেন যে এই ম্যাচে চেন্নাই-এর হার  নিশ্চিত। ম্যাচে তখন ১৭ ওভার হয়েছে। জিততে হলে চেন্নাই-এর দরকার ছিল ১৮ বলে ৪৭ রান। টি-২০-র ময়দানে অসম্ভব কিছু নয়। কিন্তু চেন্নাই ততক্ষণে ১১৯ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে বসে আছে। উইকেটের একপ্রান্তে ব্র্যাভো, অন্যপ্রান্তে কেদার যাদব। ব্র্যাভোকে দেখে মনে হচ্ছিল না যে তিনি ম্যাচ জেতাতে পারবেন। কারণ, শেষ তিনওভারে মাত্র ১২ রান সংগ্রহ করতে পেরেছিলেন ব্র্য়াভো। এমন পরিস্থিতিতে বল করতে আসেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের ম্যাকলাঘান। এই ওভারে ২টো বিশাল ছক্কা হাকিয়ে ব্র্যাভো  প্রায় একপেশে হয়ে যাওয়া ম্যাচে  আচমকাই যেন প্রাণের সঞ্চার করে দিলেন।  

  • স্টার স্পোর্টস বিসিসিআই(BCCI) এর টেলিভিশন ও ডিজিটাল সম্প্রচার সত্ত্ব রেকর্ড দামে কিনল৬১৩৮.১ কোটি টাকায়।

    ডেস্ক, ৫ এপ্রিল : স্টার স্পোর্টস আগামী ৫ বছরের জন্য অর্থাৎ ২০১৮ থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত বিসিসিআই-এর দুই দেশের সিরিজের টেলিভিশন সম্প্রচার ও ডিজিটাল সম্প্রচার সত্ত্ব কিনে নিল  ৬১৩৮.১ কোটি টাকার বিনিময়ে। সম্প্রচার সত্ত্ব  নিয়ে গত তিন দিন ধরে লাগাতার লড়াই চলছিল । প্রতিটি মুহূর্তে উত্তেজনা ছিল চরমে। কারণ, সম্প্রচার সত্ত্ব পাওয়ার  ই-অকশন লড়াইয়ে ছিলেন  সোনি এবং রিলায়েন্স জিও। এরা সকলেই টেলিভিশন ও  ডিজিটাল সত্ত্ব পাওয়াল লড়াই চালাচ্ছিল। শুধুমাত্র ডিজিটাল সত্ত্বের জন্য লড়াইয়ে নেমেছিল গুগুল ও ফেসবুক। কিন্তু, যোগ্যতা মান না পার করতে পারায় তারা প্রাথমিক স্তরেই বাদ পড়ে যায়। বিসিসিআই এবারই প্রথম  ই-অকশন-এর সত্ত্ব বিক্রির প্রক্রিয়া চালু করল।  এর আগে বিগত ৫ বছর (২০১২ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত)  দুই দেশের ম্যাচের সম্প্রচার বাবদ স্টার স্পোর্টস ৩৮৫১ কোটি টাকা দিয়েছিল বিসিসিআই-কে। এবার সেই তুলনায় এবার দ্বিগুণ অর্থ দিচ্ছে স্টার স্পোর্টস। এই সত্ত্ব পাওয়ার সঙ্গে এই মুহূর্তে বিশ্বে ক্রিকেট ম্যাচ সম্প্রচারে একচ্ছ্বত্র অধিপতি হল স্টার স্পোর্টস। ইতিমধ্যেই স্টার স্পোর্টস-এর হাতে রয়েছে ১৬,৩৪৭ কোটি টাকা মূল্যের সম্প্রচার সত্ত্ব। আইসিসি আয়োজিত সমস্ত ক্রিকেট ম্যাচের সত্ত্ব পেয়েছে স্টার স্পোর্টস। এরমধ্যে রয়েছে পুরুষ ও মহিলাদের ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ ক্রিকেট ও টি-২০ বিশ্বকাপ। বিসিসিআই-এর সম্প্রচার সত্ত্ব বিক্রি হওয়া নিয়ে প্রথম দিনের ই-অকশন-এর শেষ দর উঠেছিল ৪৪৪২ কোটি টাকা। বুধবার তা ৬০০০ কোটি টাকা-তে পৌঁছয়। গুগল ও ফেসবুক-সহ ৬টি সংস্থা ২০১৮-র মার্চ থেকে ২০২৩ পর্যন্ত ১০২টি ম্যাচের সম্প্রচার সত্ত্বের জন্য় লড়াই করছিল। তবে,  শেষ পর্যন্ত যাবতীয় শর্ত পূরনে  স্টার স্পোর্টস, জিও, সোনি নেটওয়ার্কস-কে অনলাইন ফিনান্সিয়াল নিলামের জন্য যোগ্য বলে নির্বাচিত করা হয়েছিল। স্টার স্পোর্টস বুঝিয়ে দিল ক্রীড়াক্ষেত্রে এখনও তারা এক নম্বর  ব্রডকস্টার সংস্থা।  

  • ২১তম কমনওয়েলথ গেমসের প্রথম দিনেই ভারতের সোনা ও রূপোর পদক।

    ডেস্ক, ৫ এপ্রিল : ২১তম কমনওয়েলথ গেমসের প্রথম দিনেই সোনার পদক পেয়ে ভারতকে গর্বিত করলেন  চানু মীরাবাঈ। ওয়েট লিফটিং এ মহিলাদের ৪৮ কেজি বিভাগে এদিন লড়ে সোনা লাভ করেন  তিনি। ছয়টি লিফ্টে ছয়বার রেকর্ড করে শেষপর্যন্ত সোনা পেয়েছেন তিনি। এই নিয়ে দ্বিতীয়বার কমনওয়েলথ গেমসে পদক পেলেন চানু। চারবছর আগে গ্লাসগোতে রুপো পেয়েছিলেন তিনি। দারুণ পারফরম্যান্সের ফলে নাইজেরিয়ার অগাস্তিনা ওয়াকোলোকেও পিছনে ফেলে দিলেন চানু। ২০১০ কমনওয়েলথ গেমসে নাইজেরিয়ার ভারোত্তোলক অগাস্তিনা ১৭৫ কেজি ওজন তুলে রেকর্ড গড়েছিলেন। আট বছর বাদে ভারতের হয়ে চানু সোনা জিতে ছাপিয়ে গেলেন সকলকে। চানুর সোনা জয়ের পাশাপাশি পুরুষ বিভাগে রুপো জিতলেন গুরুরাজা। চানুর সোনা জেতার আগেই পুরুষদের ৫৬ কেজি বিভাগে রুপো জিতেছিলেন তিনি। গুরুরাজার হাত ধরেই এবার কমনওয়েলথ গেমসে পায় প্রথম পদক। তবে চানুর পারফরম্যান্স সবকিছুকে ছাপিয়ে গেল। এদিন ভারতীয় এই ভারোত্তলোক মোট ২৪৯ কেজি তোলেন। এই ইভেন্টে সোনা গেছে মালয়শিয়ার ঝোলায়। আর ব্রোঞ্জ জেতেন শ্রীলঙ্কার অ্যাথলিট। মালয়শিয়ার ভারোত্তলক মোট ২৬১ কেজি তুলে সোনা জিতে নেন। এদিকে মহিলাদের মিক্সড টিম ইভেন্টে শ্রীলঙ্কাকে ব্যাডমিন্টনে ৫-০ হারিয়ে দিলেন ভারতীয় শাটলাররা। অন্যদিকে টেবল টেনিসেও শ্রীলঙ্কাকে ৩-০ হারাল ভারতীয় দল। যদিও ভারতীয় মহিলা টেবল টেনিস দল নিজেদের ওপেনিং ম্যাচে ওয়েলসের কাছে হেরে যান।

  • কমনওয়েলথ গেমস ভিলেজে বাবার নাম বাদ নিয়ে ক্ষুব্ধ সাইনা নেওয়াল।

    ডেস্ক, ৩রা এপ্রিল : কমনওয়েলথ গেমসএ অংশগ্রহণ করার জন্য গোল্ড কোস্টে পৌঁছে ভারতীয় ব্যাডমিন্টন তারকা সাইনা নেহওয়াল জানতে পারেন যে  কমনওয়েলথ গেমস ভিলেজে সরকারি কর্তাদের তালিকা থেকে  তার বাবা  হরবীর সিংয়ের নাম বাদ দেওয়া হয়েছে।   এই নিয়ে  রীতিমত ক্ষুব্ধ ভারতীয় ব্যাডমিন্টন তারকা একের পর এক টুইট করে নিজের ক্ষোভ উগড়ে দেন। এবার সাইনার সব দাবি এক টুইটেই উড়িয়ে দিল আইওএ। সোমবারই সাইনা টুইট করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন, "যখন কমনওয়েলথ গেমসের জন্য আমরা রওনা হলাম, তখন আমার বাবাকে অন্যতম সরকারি কর্তা হিসেবে দলের সঙ্গে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়। তার জন্য পুরো টাকা আমি দিয়েছিলাম। কিন্তু যখন আমরা গেমস ভিলেজে পৌঁছে দেখলাম, বাবার নাম কেটে দেওয়া হয়েছে। বাবা আমার সঙ্গে থাকতে পারবেন না। গোটা ঘটনায় আমি অবাক।" সাইনার আরও অভিযোগ ছিল, " তিনি (বাবা) খেলা দেখতে পারবেন না। গেমস ভিলেজে ঢুকতে পারবেন না, এমনকী তাঁর সঙ্গে দেখাও করতে পারবেন না। এ কী ধরণের সমর্থন?"সাইনা নেহওয়াল এবার আর নিজের ক্ষোভ নিজের মধ্যে রাখলেন না। এবারের টুইটে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করলেন। ইন্ডিয়ান অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের তরফে টুইট করে সাইনাকে জানানো হয়, হরভীর সিং-র নাম অতিরিক্ত কর্মকর্তা হিসেবে নথিভুক্ত আছে। কিন্তু যে পরিমান পারিশ্রমিক দেওয়া আছে তাতে গেমস ভিলেজে থাকার জন্য বরাদ্দ নয়।  টুইটের সঙ্গে গোল্ড কোস্ট গেমস ভিলেজের 'এক্সট্রা অফিসিয়াল'দের জন্য নিয়ম নীতিও জুড়ে দিয়েছে আইওএ। সাইনা লিখেছেন, ভারত থেকে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার সময় তাঁর বাবা দলীয় আধিকারিক হিসেবে তাঁদের সঙ্গে ছিলেন। বাবার পুরো খরচও দেন তিনি। এরপরেও গোল্ড কোস্ট গেমস ভিলেজে আসার পর দেখা গেল আধিকারিক তালিকায় তাঁর বাবার নাম নেই। সাইনার সঙ্গে তিনি থাকতেও পারবেন না।  

  • বাংলা দল নাটকীয় ভাবে ম্যাচে ফিরেও সন্তোষ ট্রফি ঘরে তুলতে পারল না।

    ডেস্ক, ১লা এপ্রিলঃ :  যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে সন্তোষ ট্রফির ফাইনালে টাইব্রেকারে বাংলাকে ৪-২ গোলে হারিয়ে  কেরল ষষ্ঠবার সন্তোষ ট্রফি চ্যাম্পিয়ন হল । নাটকের পর নাটক। তবু বাংলার ভাগ্যে সন্তোষ ট্রফি এল না। দুটি পেনাল্টি বাঁচিয়ে সন্তোষ ফাইনালে কেরল গোলরক্ষক  নায়ক।রঞ্জন চৌধুরীর ছেলেদের রানার্স হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হল এবারও। অথচ নিশ্চিত হারের মুখ থেকে ম্যাচে ফিরে এসেছিল। প্রথমার্ধের ২৬ মিনিটে গোল করে কেরলকে এগিয়ে দিয়েছিলেন জিথিন এমএস। তারপর দ্বিতীয়ার্ধের ৬৮ মিনিটে গোল শোষ দরে একবার বাংলাকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন জিতেন মুর্মু।  নির্ধারিত সময়ে ম্যাচের ফল ছিল ১-১। এক্সট্রা টাইমের পর ফল হয় ২-২। এক্সট্রা টাইমের দ্বিতীয়ার্ধে লালকার্ড দেখেন বাংলার রাজন বর্মন। ফলে বাকি সময়টা ১০ জনে খেলতে হয় বাংলাকে। ১১৭ মিনিটে গোল খেয়ে পিছিয়ে পড়েও, শেষমুহূর্তে ফ্রি-কিক থেকে তীর্থঙ্কর সরকারের গোলে দুর্দান্তভাবে ম্যাচে ফেরে বাংলা। বাংলার অঙ্কিত মুখোপাধ্যায় ও নবি হুসেইন খানের  দুটি শটই বাঁচিয়ে দিয়ে ম্যাচর নায়ক বনে গেলেন কেরল গোলরক্ষক। বাংলা ৩৩-তম সন্তোষ ট্রফি জিততে পারল না।

  • বাংলাকে সন্তোষ ট্রফির ফাইনালে তুলল বাংলার প্রতিশ্রুতিবান তরুণ ফুটবলাররা।

    ডেস্ক, ৩১শে মারচঃ সন্তোষ ট্রফির ফাইনালে বাংলার রঞ্জন চৌধুরীর ছেলেরা। সেমিফাইনালে কর্ণাটককে তারা হারাল ২-০ গোলে। তীব্র গরমে  ম্যাচের শুরু থেকেই ভালই শুরু করেছিল, কিন্তু কিছুক্ষনের মধ্যে খেলা ধরে নেয় কর্ণাটক। তাদের এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ হয়েছিল। কিন্তু বাংলার দুই স্টপার সৌরভ ও প্রসেনজিত পালের জন্য তদের এই উদ্যোগ বিফলে যায়।  প্রথমার্ধে গোলের মুখ খুলতে পারেনি  বাংলা দল। তবে দ্বিতীয়ার্ধে নামার পর আক্রমনাত্মক ফুটবল শুরু করে বাংলা দল। কিছুক্ষনের মধ্যে গোলের মুখ খোলে । ৫৭ মিনিটে গোল করেন জিতেন মূর্মু। এক গোলে পিছিয়ে গিয়েও কর্ণাটক আর  ফিরে আসতে পারেনি।  খেলার শেষ দিকে  আরও একটা গোল করেন বাংলার  তীর্থঙ্কর সরকার। এদিকে অন্য ম্যাচে মিজোরামকে কেরল ১-০ গোলে হারিয়ে বাংলার প্রতিপক্ষ। তাদেরকে হারাতে পারলেই ৩২ বারের চ্যাম্পিয়ন বাংলা আরও একবার সন্তোষ ট্রফি ঘরে তুলবে।  

  • ডান পায়ে চোট পাওয়ায় আইপিএল থেকে এবারও ছিটকে গেলেন স্টার্ক

    ডেস্কঃ(I.D). ৩০ মার্চ ২০১৮ঃ- ডান পায়ে চোট পাওয়ায় জোহানেসবার্গে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে শেষ টেস্ট না খেলেই দেশে ফিরছেন মিচেল স্টার্ক।আইপিএল থেকে কার্যত ছিটকে গেলেন অস্ট্রেলিয় পেসার মিচেল স্টার্ক,ধাক্কা খেল কলকাতা। আগামী ৮ এপ্রিল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্সের বিরুদ্ধে ঘরের মাটিতে নামতে চলেছে দীনেশ কার্তিকের নাইট রাইডার্স। সেই দলে এই অস্ট্রেলিয় পেসার না থাকায় অনেকটাই চাপে থাকবে কলকাতা এমনটাই মত ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের, কলকাতার বোলিং লাইনআপে স্টার্ক ছিলেন অন্যতম। এবারের নিলামে ৯.৪০ কোটি টাকায় মিচেল স্টার্ককে কেনে কলকাতা নাইটরাইডার্স। স্টার্কের ক্রিকেট জীবনে আইপিএল অনেকটা 'বিষ ফোঁড়ার' মতোই হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত বার আইপিএলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্সে সুযোগ পেয়েও দেশের ক্রিকেটের জন্য খেলতে পারেননি। এমনকী, চোটের কারণে ২০১৬ সালেও ব্রাত্য ছিলেন স্টার্ক।

  • অস্ট্রেলিয় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে কাঁদতে কাঁদতে কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন ড্যারেন লেহম্যান

    ডেস্ক, ২৯ শে মার্চঃ  অজি ক্রিকেটে পর পর  ঘটনা ঘটেই  চলছে। এর আগেই খবর পাওয়া গিয়েছিল  অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ডের কাছে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন  অজি দলের কোচ ড্যারেন লেহম্যান। তারপর অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ড অবশ্য জানিয়ে দিয়েছিল বল বিকৃতি বিতর্কে কোনও দায় নেই অজি কোচের। লেহম্যান জানিয়েছেন, 'আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত, আমরা জানি আমরা আপনাদের বহু মানুষকে সম্মানহানি ঘটিয়েছি। আমরা পুরো বিষয়টির জন্য অন্তর থেকে ক্ষমাপ্রার্থী।' আসলে স্টিভ স্মিথ যখন সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলছিলেন, ঠিক তখনই প্রচন্ড আবেগপ্রবণ হয়ে গিয়েছিলেন ড্যারেন লেহম্যান। এদিন অনেকটা তারই জেরে পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্তে ফের ফিরে যান তিনি। এদিকে ডেভিড ওয়ার্নারও স্ত্রী ক্যানডাইসের সঙ্গে সিডনি ফেরেন। সেখানে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ভেঙে পড়েন তাঁরাও।  এদিকে ড্যারেন লেহম্যান অস্ট্রেলিয়া বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচে শেষবারের জন্য কোচিং সারবেন। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে লেহম্যান জানিয়েছেন, 'তিনি ও তাঁর পরিবার গত এক সপ্তাহে একের পর এক অভিযোগ শুনেছেন। আমি আমার কাছের মানুষদের সঙ্গে কথা বলেছি। তাঁদের সঙ্গে কথা বলে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এটাই সঠিক সময়।    

  • সিডনিতে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে কান্নায় ভেঙে পড়ে সব দায় নিজে স্বীকার করে নেন স্টিভ স্মিথ

    ডেস্ক, ২৯ শে মার্চঃ  পেশাদারিত্বের খোলস থেকে বেরিয়ে এসে নিজেকে আর  ধরে রাখতে পারলেন না স্টিভ স্মিথ। ভেঙে পড়লেন কান্নায়। বল বিকৃতি কাণ্ডের জেরে সিডনি ফিরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন কলঙ্কিত স্মিথ। সেখানেই সব দায় নিজে স্বীকার করে নেন তিনি। নিজের এই ভুলকে 'বিগ মিসটেক' বা বড় ভুল বলেছেন। তিনি আরও বলেছেন, 'এই ঘটনা থেকে যদি কারোর কোনও উপকার হয় তাহল কোনওভাবে তাদের মধ্যে বদল করা। আমি আমার পুরো জীবন ধরে এই ঘটনার জন্য অনুতাপ করব। আমি পুরোপুরি ভেঙে পড়েছি। আশা করে যায় সময়ের সঙ্গে আমার সম্মান ও ক্ষমা ফেরত পাব। ' তিনি আরও বলেছেন 'ক্রিকেট পৃথিবীর সেরা খেলা। আমার জীবনে সেটা আবার আসবে আশা করি। আমি দুঃখিত আমি পুরোপুরি ভেঙে পড়েছি। স্টিভ স্মিথ অস্ট্রেলিয়ার সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চেয়ে আরও বলেন, 'আমি পুরো বিষয়টির জন্য আমি কাউকে দোষী করছি না। আমি অস্ট্রেলিয়া দলের অধিনায়ক এটা আমার দেখা উচিত ছিল। আমি গত শনিবার যা হয়েছে তার পুরো দায়িত্ব গ্রহণ করছি।' এদিকে এদিন যখন স্টিভ স্মিথ যখন দেশে ফেরেন  বিমান বন্দরেও তাঁকে ধিক্কার শুনতে হয়। বিশ্বাসঘাতকতার অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে। সেই সময়েও তাঁকে বড় করুণ দেখতে লাগছিল। একটা সময়ে স্টিভ স্মিথের উত্থান দেখে ক্রিকেট মহল তাঁকে ডন ব্র্যাডম্যানের উত্তরসূরী হিসেবে ভাবা হয়েছিল। এখন কৃতক্রমের জন্য তাঁকে সারা বিশ্বের লাঞ্ছনা -গঞ্জনা সহ্য করতে হচ্ছে। এদিন স্টিভ স্মিথকে ঘিরে ছিলেন নিরাপত্তারক্ষীদের একটা বলয়।  

  • কোচের পদ ছাড়লেন লেম্যান

    ডেস্কঃ (I.D).২৮ মার্চ ২০১৮ঃ-অস্ট্রেলিয়া কোচের পদ ছাড়লেন লেম্যান,লেম্যান জানিয়ে দেন, "এটাই তাঁর শেষ টেস্ট। কারণ এই টেস্টের পর আমি কোচের পদ ছাড়ছি।" শেষ পর্যন্ত পদত্যাগ করলেন অস্ট্রেলিয়া দলের হেড কোচ ড্যারেন লেম্যান। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে জোহানেসবার্গে চতুর্থ টেস্টের পরই অস্ট্রেলিয়া দলের কোচের দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন লেম্যান।কেপ টাউনে বল বিকৃতি-কাণ্ডে নির্বাসিত ক্রিকেটাররা বৃহস্পতিবারই দেশে ফিরে গেছেন। সিডনি বিমান বন্দরে সাংবাদিক সম্মেলনে স্টিভ স্মিথ কান্নায় ভেঙে পড়েন। তার কিছুক্ষণ পরেই জোহানেসবার্গে লেম্যান জানিয়ে দেন, "এটাই তাঁর শেষ টেস্ট। কারণ এই টেস্টের পর আমি কোচের পদ ছাড়ছি।" স্যান্ডপেপার গেটে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার তদন্তে নির্দোষ প্রমাণিত হন ৪৮ বছর বয়সী লেম্যান। সিএ-র প্রধান জেমস সাদারল্যান্ডও মঙ্গলবার জানিয়ে দেন, অজি দলের কোচ হিসেবেই লেম্যান কাজ করে যাবেন। বুধবার স্মিথ-ওয়ার্নারদের শাস্তি ঘোষনার পরেই বল বিকৃতি-কাণ্ডে প্রথম মুখ খোলেন অস্ট্রেলিয় কোচ।বৃহস্পতিবার আবেগপ্রবন লেম্যান জানিয়ে দিলেন তাঁর পদত্যাগের কথা। তিনি জানান, "এই ঘরে যাঁরা বসে আছেন তারা জানেন যে, জীবনের রাস্তায় প্রেমিকের থেকে অনেক দূরে থাকার মানে কী? আমি আমার পরিবারের সাথে কথা বলার পরেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এটাই সরে দাঁড়ানোর সঠিক সময়।"তিনি বলেন, "গত কয়েকদিন ধরে যা ঘটে চলেছে তারপরেও আপনি মনে করতে পারেন, যে আপনি চালিয়ে যেতে পারবেন। কিন্তু আর পারলাম না। এটা সম্পূর্ণ আমার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। আমি গত কয়েক দিন ধরে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কর্তাদের সঙ্গে কথাও বলেছি।" সেই সঙ্গে লেম্যান জানান,"খেলোয়াড়দের গুডবাই বলা সবচেয়ে কঠিন কাজ, আর আমি সেই কাজটাই করেছি।" 

  • ২০১৪ র বিশ্বকাপ সেমি ফাইনালের মধুর প্রতিশোধ ব্রাজিলের জার্মানিকে হারিয়ে।

    ডেস্ক, ২৮শে মার্চ : মঙ্গলবার বার্লিনের অলিম্পিক স্টেডিয়ামে ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচে জার্মানিকে ১-০ গোলে হারাল ব্রাজিল। চার বছর আগে এই জার্মানির কাছে বিশ্বকাপ সেমি ফাইনালে ৭-১ গোলে পর্যুদস্ত  হওয়ার পর  কিছুটা হলেও সেই  দুঃস্বপ্নকে ভুলতে পারল ব্রাজিল সমর্থকরা।   বেল হরাইজন্তে থেকে বার্লিন। চার বছরের ব্যবধানে আবার মুখোমুখি লড়াইয়ে ব্রাজিল-জার্মানি। আক্রমণ, প্রতি-আক্রমণে জমজমাট ম্যাচ উপভোগ করলেন বার্লিনের অলিম্পিক স্টেডিয়ামের  প্রায় ৭৫হাজার  দর্শকের সঙ্গে গোটা ফুটবল বিশ্ব। ম্যাচের ৩৭ মিনিটে উইলিয়ানের ক্রস থেকে গ্যাব্রিয়েল জেসুসের গোলে এগিয়ে যায় সেলেকাওরা। পিছিয়ে পরেও সমতা ফেরানোর আপ্রান চেষ্টা চালিয়ে যায় জার্মানরা। কিন্তু শেষরক্ষা হয় নি। বার্লিনে বদলার ম্যাচে জার্মানিকে ১-০ গোলে হারাল ব্রাজিল। অস্ত্রোপচারের জন্য নেইমার ছিলেন না কিন্তু কুটিনহো, পাওলিনহো, মার্সেলোরা গোটা ম্যাচ জুড়ে রাজত্ব করলেন। জার্মানিকে বদলার ম্যাচে হারিয়ে টানা ৯টি ম্যাচ অপরাজিত থাকল  তিতের ব্রাজিল। অন্যদিকে ২০১৬ সালে ইউরো কাপের সেমিফাইনালে হারার পর আবার হারের মুখ দেখল বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি। বার্লিনে, দেশের মাটিতেই টানা ২২ ম্যাচে জয়ের দৌড় থামল জার্মানদের।

  • সহ-অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়ান ওয়ার্নার নিজেই

    ডেস্কঃ(I.D). ২৬ মার্চ ২০১৮ ঃ- রবিবার সহ-অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়ান ওয়ার্নার নিজেই। কেপ টাউনে বল বিকৃতিকাণ্ডে স্টিভ স্মিথ, ক্যামেরন ব্যানক্রাফ্টের সঙ্গে 'লিডারশিপ গ্রুপে'র সদস্য হিসেবে নাম জড়িয়েছে সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারের।কিন্তু তাঁকে নিয়ে কী সিদ্ধান্ত নিল হায়দরাবাদ ফ্র্যাঞ্চাইজি?রাজস্থান রয়্যালসের অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন স্টিভ স্মিথ। কিন্তু ডেভিড ওয়ার্নার নিয়ে আপাতত ধীরে চলো নীতি নিয়েছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সিদ্ধান্তের দিকেই তাকিয়ে রয়েছে হায়দরাবাদ ফ্র্যাঞ্চাইজি।সানরাইজার্সের মেন্টর ভিভিএস লক্ষ্ণণ সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন, "কেপ টাউন টেস্টে যা হয়েছে সেটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। গোটা বিষয়টি নিয়ে সানরাইজার্সও উদ্বিগ্ন। তবে সবেমাত্র ঘটনাটি সামনে এসেছে, তাই দ্রুত কোনও সিদ্ধান্ত নয়। অস্ট্রেলিয় ক্রিকেট বোর্ড কি পদক্ষেপ করে তার জন্য আমরা অপেক্ষা করব। তারপর নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।"৩০ মার্চ থেকে একাদশ আইপিএলের চূড়ান্ত প্রস্তুতি শুরু করবে ২০১৬ সালের আইপিএল চ্যাম্পিয়ন সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

  • পথ দুর্ঘটনায় আহত মহম্মদ শামি

    ডেস্কঃ(I.D). ২৫ মার্চ ২০১৮ঃ-পথ দুর্ঘটনায় আহত মহম্মদ শামি। দেরাদুন থেকে দিল্লি যাওয়ার পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়েছেন তিনি। তাঁর মাথায় চোট লেগেছে বলে জানা গেছে। দুর্ঘটনার জেরে তাঁর  মাথায় সেলাই পড়েছে ,বিবাহ বর্হিভূত একাধিক সম্পর্কে জাড়িত রয়েছেন বলে শামির বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে তাঁর স্ত্রী হাসিন জাহান।এই নিয়ে শামির বিরুদ্ধে কলকাতার লালবাজারে অভিযোগও দায়ের করেছেন তিনি।বর্তমানে তিনি দেরাদুনেই বিশ্রাম নিচ্ছেন। তবে তাঁর চোট গুরুতর নয় বলেই জানা গেছে। বিবাহ বর্হিভূত একাধিক সম্পর্কে জাড়িত রয়েছেন বলে, শামির বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে তাঁর স্ত্রী হাসিন জাহান। শুধু তাই নয়, তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণ, খুনের চেষ্টা, অত্যাচার সহ একাধিক অভিযোগ এনেছে হাসিন। এই নিয়ে শামির বিরুদ্ধে লালবাজারে অভিযোগও দায়ের করেছেন তিনি। পাশাপাশি ম্যাচ গড়াপেটার সঙ্গে শামি জড়িত রয়েছেন বলেও অভিযোগ ওঠে। যদিও, বোর্ডের তদন্তে তিনি পরে ক্লিনচিট পান।গত কয়েকদিন ধরে পারিবারিক বিবাদের জেরবার শামি আসন্ন আইপিএল-এর জন্য বর্তমানে প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আর তার জন্যই দেরাদুনে অভিমণ্যু ক্রিকেট অ্যাকাডেমিতে রয়েছেন তিনি। সেখান থেকে দিল্লি ফেরার পথে এই দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। 

  • সন্তোষ ট্রফি ফুটবলে জয় দিয়ে শুরু করল বাংলা।

    ডেস্ক, ২০  মার্চ সন্তোষ ট্রফি -র গ্রুপ লিগের প্রথম খেলায়  জয় দিয়ে  শুরু করল বাংলা। সোমবার মনিপুরের বিরুদ্ধে ৩-০ গোলে জিতল বাংলার  ছেলেরা। হাওড়া মিউনিসিপ্যাল স্পোর্টস কমপ্লেক্সে প্রথম ম্যাচ ছিল বাংলার। এদিন খেলার ৭ মিনিটেই গোল করে বাংলাকে এগিয়ে দেন উইঙ্গার সুমিত দাস। আবার ১৫ মিনিটে তিনি ফের গোল করেন। প্রথমার্ধের খেলা শেষ হয় ২-০ গোলে। খেলার ৮২ মিনিটে বিদ্যাসাগর সিং য়ের গোলে স্কোরলাইন ৩-০ করে নেয় বাংলা। মনিপুরের দল একেবারেই কোনও প্রতিরোধ গড়তে পারেনি বাংলার বিরুদ্ধে। ম্যাচের শুরু থেকেই দারুণ আক্রমণাত্মক ছিল বাংলার ছেলেরা । প্রথমেই বেশ কয়েকটি সুযোগ  মিস করলেও পরে আক্রমণাত্মক হয়ে উঠে রঞ্জন চৌধুরীর ছেলেরা। সন্তোষ ট্রফির ম্যাচে বাংলার  পরের প্রতিপক্ষ মহারাষ্ট্র। ২১ তারিখ হবে সেই ম্যাচ। রঞ্জন চৌধুরী প্রথম ম্যাচের আগে দলের প্রস্তুতি নিয়ে সন্তুষ্ট না হলেও প্রথম ম্যাচে ছেলেরা জয় পাওয়ায় খুশি কোচ। কলকাতার এত গরমে খেলা খুবই অসুবিধা। খেলোয়াড়দের দেখে বোঝা যাচ্ছিল তারা ক্লান্ত হয়ে পড়ছেন। জল বিরতি না দিলে আরও কষ্ট হত। এদিন গ্রুপের অন্য খেলায় কেরালা ৫-১ এ পরাজিত করে চন্ডীগড়কে।  

  • আইসিসি ওয়েমেন্স চ্যাম্পিয়নশিপের একদিনের সিরিজে ভারতকে দুরমুশ করল অস্ট্রেলিয়া।

    ডেস্ক, ১৮ ই মার্চঃ: : ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দল  দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়ে সিরিজ জয় করে  ইতিহাস গড়লেও দেশের মাটিতে অস্ট্রেলিয়ার কাছে দুরমুশ হয়ে গেল  । আইসিসি ওয়েমেন্স চ্যাম্পিয়নশিপে তিন ম্যাচের একদিনের সিরিজে ভারতকে হোয়াইটওয়াশ করল অজিরা। রবিবার সিরিজের শেষ একদিনের ম্যাচে ৯৭ রানে হারল মিতালিরা।  প্রথমে ব্যাট করে ৭ উইকেট হারিয়ে ৩৩২ রান তোলে অস্ট্রেলিয়া। এলিয়াসা হিলি ১৩৩ রান করেন। সঙ্গে এলিস পেরি ৩২, হেইনেস ৪৩, গার্ডনার ৩৫ এবং বেথ মুনি  ৩৪ রানে অপরাজিত থাকেন।  ৩৩৩ রানের টার্গেট নিয়ে ব্যাট করতে নেমে ৪৪.৪ ওভারে ২৩৫ রানে অল আউট হয়ে যায় ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দল।  ভারতের হয়ে স্মৃতি মন্ধনা ৫২ এবং জেমাইমা রডরিগেজ ৪২ রান করেন। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে গার্ডনার ৪০ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন।

  • অল ইংল্যান্ড বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে থেকে বিদায় ভারতীয় শাটলার পিভি সিন্ধুর ।

    ডেস্ক, ১৮ ই মার্চঃ:  অল ইংল্যান্ড বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে হেরে  টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিলেন ভারতীয় শাটলার পিভি সিন্ধু । শনিবার রাতে, বার্মিংহামে রুদ্ধশ্বাস সেমিফাইনাল ম্যাচে ২১-১৯, ১৯-২১ ও ১৮-২১ গেমে বিশ্বের ২ নম্বর জাপানের আকানে ইয়ামাগুচির কাছে হেরে যান সিন্ধু। ম্যাচটি প্রায় দেড়  ঘণ্টা  ধরে চলে। খেলার পর সিন্ধু বলেন, আজ আমার দিন ছিল না। আমি আজ খেলায় ১০০ শতাংশ উজাড় করে দিয়েছিলাম। কিন্তু ভাগ্য আমার সাথ দেয়নি।  জীবনে চড়াই উতরাই  আছে। কেউ জিতলে  কেউ হারে। এক-একটি পয়েন্টের জন্য দীর্ঘ র‍্যালি চলেছে । আকানে আজ  ভাল খেলেছে। সিন্ধু আরও বলেন  , তিনটি গেমেই টাই-ব্রেক সোজা কথা নয়। স্রেফ ২-৩ পয়েন্ট গোটা পার্থক্য গড়ে দিল। শেষের দিকে ম্যাচ যে কেউ জিততে পারত। প্রতিযোগিতা ভাল কেটেছে। ভবিষ্যতে, আরও শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে ফিরব এই আশা রাখি।

  • নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে বাংলাদেশকে ৪ উইকেটে হারিয়ে রুদ্ধশ্বাস জয় ভারতের

    ডেস্ক, ১৮ই মার্চঃ কলম্বোয় ভারত-বাংলাদেশ নিদাহাস ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের ফাইনালে বাংলাদেশকে ৪ উইকেটে হারিয়ে  সিরিজ জিতল ভারত । এদিন টসে জিতে  প্রেমদাসা স্টেডিয়ামে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেন ভারত । শুরু থেকেই স্পিনার দিয়ে আক্রমণ শুরু করে ভারত। ওপেনার তামিম ইকবাল (১৫ রান) ও লিটন দাসকে (১১ রান) তুলে নেন যুজবেন্দ্র চাহাল ও ওয়াশিংটন সুন্দর।  এরপর সৌম্য সরকার ১ রান করে চাহালের বলে ফিরে যান । ৩৩ রানের মধ্যে ৩ উইকেট পড়ে যায়। এরপর  তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামা সাব্বির রহমান মাত্র ৫০ বলে অনবদ্য ৭৭ রান করেন। অন্যদিকে মুশফিকুর রহমান (৯ রান), মাহমুদুল্লাহ (২১ রান), শাকিব আল হাসান (৭ রান) কেউ বড় ইনিংস খেলতে পারেননি। শেষদিকে মেহদি হাসান ৭ বলে ১৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। নির্ধারিত ২০ ওভারে বাংলাদেশ ১৬৬ রান করে ৮ উইকেট ।  জবাবে  ব্যাট করতে নেমে রোহিত শর্মা  ভালই শুরু করেন,  তবে তৃতীয় ওভারেই উইকেটের অন্য প্রান্ত থেকে শিখর ধাওয়ান (১০ রান) ফিরে যান। তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামা সুরেশ রায়না শূন্য রানে ফেরেন। রোহিত তৃতীয় উইকেটে কেএল রাহুলকে সঙ্গে নিয়ে এগোতে থাকেন। রাহুল আক্রমণাত্মক শুরু করেও ২১ রান করে ফেরেন। এরপরে নামেন মনীশ পাণ্ডে। তবে তিনি শুরুটা ধীর গতিতে করায় রোহিত রান রেট বাড়াতে গিয়ে লং অনে নাজমুল ইসলামের বলে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। তারপরই চাপে পড়ে যায় ভারত। মনীশ ধীরগতির খেলা থেকে বেরিয়ে আসতে পারেননি। যার ফলে আস্কিং রেট বাড়তে থাকে। রোহিতের আউট হওয়ার পর নামানো হয় এই প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে নামা বিজয় শঙ্করকে, অভিজ্ঞ দীনেশ কার্তিকের আগে।১৮তম ওভারে মুস্তাফিজুর রহমানের অনবদ্য বোলিংয়ে ম্যাচের রাশ বাংলাদেশের দিকে ঢলে পড়ে । বিজয় শঙ্করক ৫টি ডট বল খেলেন  শেষ বলে মনীশ পাণ্ডেকে (২৮ রান) আউট করেন মুস্তাফিজুর। ইনিংসের ১৯তম ওভারে নামেন দীনেশ কার্তিক। শেষ দুই ওভারে জিততে গেলে প্রয়োজন ছিল ৩৫ রান। সেখান থেকেই ম্যাচ বদলে যায়। প্রথম বলে ছয় মেরে শুরু করেন কার্তিক। রুবেল হুসেনের ওভারে শেষপর্যন্ত ২২ রান নেন। শেষ ওভারে সেটা গিয়ে দাঁড়ায় ১৩ রানে। তবে অন্যপ্রান্তে ব্যাট করা বিজয় শঙ্কর খুব বেশি এগোতে পারেননি। তিনি শেষ অবধি ১৯ বলে ১৭ রান করে ফেরেন শঙ্কর। শেষবলে ৫ রান প্রয়োজন ছিল ভারতের। দীনেশ কার্তিক শেষ বলে ছক্কা মেরে জিতিয়ে দেন। শেষপর্যন্ত ৮ বলে ২৯ রান করে অপরাজিত থাকলেন কার্তিক। বাংলাদেশকে পরাজিত করে  নিদাহাস ট্রফি জিতল ভারত।

  • ফিফা র‍্যার্ঙ্কিংয়ে আবার ১০০ র মধ্যে ভারতীয় ফুটবল দল।

    ডেস্কঃ ১৬ই মার্চঃ :  ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে আবার ১০০ র মধ্যে  ভারতীয় ফুটবল দল।  বৃহস্পতিবার ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ের প্রকাশিত তালিকায় লিবিয়ার সঙ্গে যৌথ ভাবে ৯৯ নম্বরে রয়েছে সুনীলরা। সম্প্রতি কোনও আন্তর্জাতিক ম্যাচ না খেলা  সত্ত্বেও তাঁদের তিনধাপ উন্নতি হল। এখন ভারতের পয়েন্ট ৩৩৯। বছরের শেষে ভারতের র‍্যাঙ্কিং ছিল ১০৫। ফেব্রুয়ারিতে ৬ রেটিং পয়েন্ট বাড়িয়ে ১০২ থেকে তিন ধাপ ওপরে ৯৯ নম্বরে রয়েছে ভারতীয় দল। এশিয়ার দেশগুলির মধ্যে ভারত এখন ১৩ নম্বরে।  গতবছরের নভেম্বরে শেষ ম্যাচ খেলেছিল ভারত। এএফসি এশিয়ান কাপের যোগ্যতা নির্নায়ক ম্যাচে মায়ানমারের সঙ্গে ২-২ ড্র করে ভারত। ২০১৯ এএফসি এশিয়ান কাপে কিরঘিস্থানের বিরুদ্ধে ভারত নামবে ২৭ মার্চ,২০১৮।     স্টিফেন কনস্টানটাইনের কোচিংয়ে ভারতীয় ফুটবলে সাফল্যের ধারা আব্যাহত। প্রসঙ্গতঃ গতবছর জুলাইয়ে ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে ৯৬ নম্বরে জায়গা করে নিয়েছিল ভারতীয়  ব্রিগেড।  

  • ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের ফাইনালে ভারতের সামনে বাংলাদেশ।

    ডেস্কঃ ১৬ই মার্চঃ : ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের ফাইনালে ভারতের সামনে বাংলাদেশ।  এর আগে ভারতীয় দল  ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছিল। আজ শ্রীলঙ্কাকে ২ উইকেটে হারিয়ে বাংলাদেশও ফাইনালে পৌঁছে গেল। রবিবার ফাইনালে দুই প্রতিবেশী দেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা আগামী রবিবার এই ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের ফাইনালে  জমজমাট লড়াই দেখার অপেক্ষায় । আজকের ম্যাচ কার্যত সেমিফাইনালে পরিণত হয়েছিল। এই ম্যাচে টসে জিতে শ্রীলঙ্কাকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠান বাংলাদেশের অধিনায়ক শাকিব আল হাসান। ৪১ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে গেলেও, কুশল পেরেরার ৬১ ও থিসারা পেরেরার ৫৮ রানের সুবাদে ৭ উইকেটে ১৫৯ রান করে শ্রীলঙ্কা। এই রান তুলতে বাংলাদেশের বিশেষ সমস্যা হয়নি। ওপেনার তামিম ইকবাল ৫০ ও মাহমুদুল্লাহ অপরাজিত ৪৩ রানের দৌলতে ৮ উইকেট হারিয়ে এক বল বাকি থাকতেই ছয়  মেরে জয় এনে দেন  মাহমুদুল্লাহ। ২ উইকেটে  জয়ী হয়  বাংলাদেশ।