খেলা


  • এ বারের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে রেকর্ড পুরুস্কার মুল্য, মোট ১০ মিলিয়ন ডলারের পুরস্কার মূল্য

    ডেস্ক, ১৭ ই মেঃ এ বারের  বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বেশ কিছু নূতনত্ব থাকছে । এই বারই  প্রথম গ্রুপে ভাগ করে  খেলা হচ্ছে না বিশ্বকাপ। সবাইকে খেলতে হবে সব দলের বিরুদ্ধে। সেরা চার দল খেলবে সেমিফাইনালে।  এতে যেমন  সুবিধে রয়েছে তেমন কঠিনও। কিন্তু তার মধ্যেই শুক্রবার আইসিসির একটি  চমকপ্রদ ঘোষণা  করল । এ দিন পুরস্কার মূল্য ঘোষণা করেছে আইসিসি। জয়ী দল পাবে চার মিলিয়ন ডলার। মোট ১০ মিলিয়ন ডলারের পুরস্কার মূল্য দেওয়া হবে।  ৩০ মে থেকে ইংল্যান্ড ওয়েলসে শুরু হবে এ বারের বিশ্বকাপ। চলবে ৪৬ দিন।   বিশ্বকাপের ইতিইহাসে এই প্রথম ১০ দলকেই খেলতে হবে একে অপরের বিরুদ্ধে। আগামী ১৪ জুলাই লন্ডনের লর্ডসের ফাইনাল। ইংল্যান্ড ও ওয়েলস জুড়ে ১১টি ভেন্যুতে হবে খেলা। সিঙ্গল লিগ ফর্ম্যাটের সেরা চার দল ৪৫টি ম্যাচ শেষে সেমিফাইনালে পৌঁছবে। সেমিফাইনাল খেলা হবে ম্যানেচেস্টারের ওল্ডট্রাফোর্ড ও বার্মিহ্যামের এজবাস্টনে। ৯ ও ১১ জুলাই হবে দুটো সেমিফাইনাল। ১৪ জুলাই লর্ডসে হবে ফাইনাল। এর আগে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে ১৯৭৫, ১৯৭৯, ১৯৮৩ ও ১৯৯৯তে বিশ্বকাপ হয়েছে। বিশ্বকাপের ইতিহাসে সব থেকে সফল দল অস্ট্রেলিয়া। ১৯৮৭, ১৯৯৯, ২০০৩, ২০০৭ ও ২০১৫তে বিশ্বকাপ জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। ১৯৭৫ ও ১৯৭৯তে প্রথম দুটো বিশ্বকাপ জিতেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ভারত বিশ্বকাপ জেতে ১৯৮৩ ও ২০১১তে। এ ছাড়া পাকিস্তান ১৯৯২ ও শ্রীলঙ্কা ১৯৯৬-এ বিশ্বকাপ জিতেছিল।

  • আইপিএলের ফাইনালে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে ১ রানে চেন্নাইকে হারিয়ে আইপিএল জয় মুম্বইয়ের

    Newsbazar 24, ডেস্ক, হায়দরাবাদের রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম বা উপ্পলে আইপিএলের মেগা ফাইনালে টসে হেরে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ৮ উইকেটে  মাত্র ১৪৯ রান করে   অসাধার বল করলেন চেন্নাইয়ের দীপক ছাহার তিনি পেয়েছেন ৩ টি ও , শার্দুল ঠাকুর, ইমরান তাহির ২টি করে উইকেট নিয়েছেন ।  মুম্বইয়ের হয়ে সর্বোচ্চ ২৫ বলে ৪১ রান করেছেন কাইরন পোলার্ড। জবাবে রান তাড়া করতে নেমে শেষ বলে শার্দুল ঠাকুরকে এলবিডব্লিউ করলেন লাসিথ মালিঙ্গা। ১ রানে ফের আইপিএল জিতল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। বিস্তারিত খবর আগামীকাল দেওয়া হবে।

  • দিল্লী ক্যাপিটালসকে ৬ উইকেটে হারিয়ে সহজেই আই পি এলের ফাইনালে চেন্নাই

    ডেস্ক, ১১ মেঃ দিল্লী ক্যাপিট্যালসকে এবারের মত আই পি এলের চূড়ান্ত পর্ব থেকে বিদায় নিতে হল। যে  চেন্নাই মুম্বইয়ের কাছে প্রথম কোয়ালিফায়ারে ৬ উইকেটে হেরে মুখ থুবড়ে পড়েছিল তার আবার স্ব মহিমায় ফিরে এল আই পি এল ২০১৯-র চূড়ান্ত পর্বএ। চেন্নাইয়ের অভিজ্ঞতার কাছে হার মানল  দিল্লি। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ফাইনালের লক্ষ্যে লড়াই ছিল অভিজ্ঞতা বনাম উদ্যমের। যেখানে জয় হল অভিজ্ঞতার। গতকাল টস জিতে  প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল চেন্নাই সুপার কিংস। প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে দিল্লি করেছিল ৯ উইকেটে ১৪৭। জবাবে ব্যাট করতে নেমে এক ওভার বাকি থাকতেই ৬ উইকেটে ম্যাচ জিতে নিল চেন্নাই সুপার কিংস। ১৯তম ওভারের শেষ বলে বলে লেগবাই বাউন্ডারি থেকে তাদের রান হল ১৫১-৪। এইবারই  প্রথম আই পি এলের নক-আউট পর্বে জয় পেয়েছিল দিল্লি ক্যাপিট্যালস।  গত বুধবার  বিশাখাপত্তনমে টানটান উত্তেজনার ম্যাচে হায়দ্রাবাদকে ২ উইকেটে হারিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারের যোগ্যতা অর্জন করে নিয়েছিল  তারা। তবে  সেই জয়ের ধারা ধরে রাখতে ব্যর্থ। প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে দিল্লি ক্যাপিটালস করেছিল ১৪৭- ৯ উইকেটের  বিনিময়ে। পৃথ্বী শ ৫,  শিখর ধাওয়ান ১৮, কলিন মুনরো ২৭, শ্রেয়াস আয়ার ১৩, ঋষভ পন্থ ৩৮, অক্ষর প্যাটেল ৩, শেরাফেন রাদারফোর্ড ১০, কেমো পল ৩, ট্রেন্ট বোল্ট ৬ রান করে আউট হন। চেন্নাইয়ের হয়ে দুটো করে উইকেট নেন  দীপক চাহার, হরভজন সিং, রবীন্দ্র জাডেজা ও ডোয়েন ব্রাভো দুটো করে উইকেট নেন। একটি উইকেট নেন ইমরান তাহির। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনারের ব্যাট থেকেই আসে হাফ সেঞ্চুরি। ৩৯ বলে ৫০ রান করতে ফাফ দু প্লেসি সাতটি বাউন্ডারি ও একটি ওভার বাউন্ডারি হাঁকান। ৩২ বলে ৫০ রান করে আউট হন শেন ওয়াটসন। তিনটি বাউন্ডারি ও চারটি ওভার বাউন্ডারি হাঁকান তিনি। ১১ রান করে ফেরেন সুরেশ রায়না। এমএস ধোনি আউট হন ৯ রানে। অম্বাতি ২০ বলে ২০ রান করে অপরাজিত থাকলেন। দিল্লির হয়ে একটি করে উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট, অক্ষর প্যাটেল ও অমিত মিশ্রা। চেন্নাই  সুপার কিংস: ফাফ দু প্লেসি, শেন ওয়াটসন, সুরেশ রায়না, অম্বাতি রায়ডু, এমএস ধোনি, ডোয়েন ব্র্যাভো, রবীন্দ্র জাডেজা, হরভজন সিং, দীপক চাহার, শার্দূল ঠাকুর, ইমরান তাহির। দিল্লি ক্যাপিটালস: পার্থিব প্যাটেল, শিখৱ ধাওয়ান, শ্রেয়াস আয়ার, ঋষভ পন্থ, কলিন মুনরো, অক্ষর প্যাটেল, শেরফানে রাদারফোর্ড, কেমো পল, অমিত মিশ্রা, ট্রেন্ট বোল্ট, ইশান্ত শর্মা।

  • আই পি এল 2019-র এলিমিনেটরের নাটকীয় ম্যাচে দুরন্ত জয় দিল্লির

    Newsbazar 24 ডেস্ক, ৯ মেঃ গতকাল ছিল আই পি এলের  এলিমিনেটরে  লড়াই হারলেই এ বারের মতো বিদায়। এই অবস্থায় বিশাখাপত্তনমে মুখোমুখি হয়েছিল  সানরাইজ হায়দ্রাবাদ  ও দিল্লী ক্যাপিটালস।  টস জিতে প্রথমে হায়দ্রাবাদকেই ব্যাট করতে পাঠিয়েছিল দিল্লি । প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে আট উইকেট হারিয়ে ১৬২ রান করে  হায়দ্রাবাদ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে একটা সময় লড়াইটা কঠিন করে ফেলেছিল দিল্লি। সেখান থেকেই ঋষভ পন্থের ব্যাটে ম্যাচে ফেরে তারা । ওপেন করতে নেমে পৃথ্বী শ-র ৫৬ রানের পর চার নম্বরে নামা পন্থ বাকি কাজ করে দেন। তাঁর ব্যাটেই আবার ম্যাচে ফেরে দিল্লি। শেষ ওভারে ম্যাচ পৌঁছয় টানটান উত্তেজনায়। দুই বলে দুই রান থেকে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে এক বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতিয়ে দেন কেমো পল। দুই উইকেটে ম্যাচ জিতে দ্বিতীয় কোয়ালিফাইংয়ে চেন্নাইয়ের মুখোমুখি দিল্লি। লিগ পর্বে দিল্লি ক্যাপিটালস তাদের ১৪ ম্যাচের মধ্যে ন'টি জিতে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে প্লে-অফের যোগ্যতা অর্জন করেছিল। অন্যদিকে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ ছ'টি জয় ও আটটি হার নিয়ে ১২ পয়েন্টে থেকেই প্লে-অফে পৌঁছেছিল ভাগ্যের জোড়ে। পয়েন্ট টেবলে দিল্লি ক্যাপিটালস তিন নম্বরে ছিল। যদিও মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ও চেন্নাই সুপার কিংসের সঙ্গে তাদের পয়েন্ট একই ছিল । কিন্তু রান রেটের জন্য তিন নম্বরে নেমে যেতে হয়েছিল। একইভাবে ১২ পয়েন্টে শেষ করেছে কলকাতা নাইট  ও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। কিন্তু রান রেটের বিচারে চার নম্বরে শেষ করে  প্লে-অফে পৌঁছে গিয়েছিল হায়দ্রাবাদ। এ দিন প্রথমে ব্যাট করে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের ব্যাটসম্যানরা বড় কিছু করতে পারেননি। দুই ওপেনার ঋদ্ধিমান সাহা ৮ ও মার্টিন গাপ্তিল ৩৬ রানে আউট হয়ে যান। তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৩০ রানের ইনিংস খেলেন মনীশ পাণ্ড্যে। এর পর অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ২৮, বিজয় শঙ্কর ২৫, মহম্মদ নবি ২০, দীপক হুদা ৪ ও রশিদ খান রানের খাতাই খুলতে পারেননি। ২০ ওভারে আট উইকেট হারিয়ে ১৬২ রান তোলে  হায়দ্রাবাদ। দিল্লির হয়ে তিনটি উইকেট নেন কেমো পল। দুই উইকেট ইশান্ত শর্মার। একটি করে উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট ও অমিত মিশ্রা। ১৬৩ রানের লক্ষ্যে দিল্লি ক্যাপিটালসের শুরুটা খুব খারাপ হয়নি। কিন্তু ক্রমশ পরিস্থিতি কঠিন হয়েছে তাদের জন্য। ২০১২-র পর আর প্লে-অফেও পৌঁছয়নি দিল্লি। কোনওদিন প্লে-অফের গণ্ডিও পেরতে পারেনি দিল্লি দল। ওপেনার পৃথ্বী শ ৩৮ বলে ৫৬ রানের ইনিংস খেলে শুরুতে ভরসা দিয়ে যান। কিন্তু তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দেওয়ার মতো কেউ ছিলেন না। আর এক ওপেনার শিখর ধাওয়ান আজ দলকে ডোবালেন। ১৬ বলে ১৭ রান করে আউট হয়ে যান তিনি। অধিনায়ক শ্রেয়াসও আজ ব্যর্থ।  ১০ বলে আট রান করেই ফিরে যান তিনি। এখান থেকে দিল্লি ব্যাটিংয়ের হাল ধরেন ঋষভ পন্থ। কিন্তু পৃথ্বীর সাথে কেউ ছিল না  সঙ্গ দেওয়ার । কলিন মুনরো ১৪, অক্ষর প্যাটেল কোনও রান না করেই আউট হয়ে যান।  একটা সময় ২৪ বলে ৪২ রানের লক্ষ্য এসে দাঁড়ায় দিল্লির সামনে। কিন্তু সেখান থেকে দুরন্ত ব্যাটিংয়ে পন্থ রান কমিয়ে নিয়ে আসেন ১২ বলে ১২ রানে। ২১ বলে ৪৯ রান করে আউট হন তিনি।পাঁচটি ছক্কা হাঁকান তিনি। ৯ রান করে আউট হন শেরফানে রাদারফোর্ড। তিন বলে দু'রান বাকি থাকতে রান আউট হয়ে যান অমিত মিশ্রা। দুই বলে দুই রান থেকে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে এক বল বাকি থাকতেই জয় তুলে নেন কেমো পল। হায়দ্রাবাদের হয়ে দু'টি করে উইকেট নেন খলিল আহমেদ, ভুবনেশ্বর কুমার ও রশিদ খান। একটি উইকেট দীপক হুদার। শুক্রবার আইপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে মুখোমুখি হবে চেন্নাই সুপার কিংস ও দিল্লি ক্যাপিটালস। এলিমিনেটরে সানরাইজার্স হায়দাবাদকে নাটকীয় ভাবে হারিয়ে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে রয়েছে শ্রেয়স আইয়ার ব্রিগেড। অন্যদিকে, প্রথম কোয়ালিফারে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের কাছে হেরে  মহেন্দ্র সিং ধোনির ব্রিগেড ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া।  তুল্যমূল্য টক্করের আশায় আইপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ঘিরে উন্মাদনা তুঙ্গে।  

  • ২০১৯ এর আই পি এলের ফাইনালে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স , চেন্নাই সুপার কিংসকে ৬ উইকেটে হারিয়ে সরাসরি ফাইনালে ।

    ডেস্ক, ৭ মেঃ আজ চেন্নাইয়ের চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে প্রথম কোয়ালিফায়ারে মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল, চেন্নাই সুপার কিংস ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স । মঙ্গলবার প্রথম কোয়ালিফায়ারে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল চেন্নাই সুপার কিংস। অম্বাতি রায়ডু আর এমএস ধোনি ছাড়া আর কেউ ব্যাট হাতে দাড়াতে পারেন নি  । ওপেন করতে নামা ফাফ দু প্লেসি ৬ ও শেন ওয়াটসন ১০ রান করে ফিরে যান। তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৫ রান করে ফেরেন সুরেশ রায়না। ২৬ বলে ২৬ রান করে কিছুটা মুখ রক্ষা করেন  মুরলী বিজয়। ৬৫ রানে  ৪ উইকেট পড়ে যায়। সেখান থেকে  অম্বাতি রায়ডু (৪২) ও এমএস ধোনি (৩৭) দলকে নিয়ে যান ২০ ওভারে ১৩১-৪-এ। অপরাজিত থাকেন দু'জনেই। মুম্বইয়ের হয়ে দুই উইকেট নেন রাহুল চাহার। একটি করে উইকেট নেন ক্রুনাল পাণ্ড্যে ও জয়ন্ত যাদব। ১৩২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। মুম্বইয়ের দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ৪ ও কুইন্টন ডে কক ৮ রান করে আউট হয়ে যান।  কিন্তু তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে দলের হাল ধরেন সূর্যকুমার যাদব। ৭১ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। তাঁকে কিছু সঙ্গ দেন ইশান কিষান। তিনি আউট হন ২৮ রানে। ক্রুনাল পাণ্ড্যে পাঁচ নম্বরে ব্যাট করে নেমে কোনও রান না করেই ফিরে যান। এর পর বাকি কাজটি করে দেন হার্দিক পাণ্ড্যে। ১৩ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। চেন্নাইয়ের হয়ে দুই উইকেট নেন ইমরান তাহির। একটি করে উইকেট দীপক চাহার ও হরভজন সিং। ১৮.৩ ওভারে চেন্নাইকে ছয় উইকেটে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলল মুম্বই। ধোনিদের খেলতে হবে দিল্লি অথবা হায়দ্রাবাদের বিরুদ্ধে। জিতলে তবেই ফাইনাল। আজ যারা দুই দলে খেলেছেন তারা হলেন।   মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সঃ  কুইন্টন ডে কক, রোহিত শর্মা, সূর্যকুমার যাদব, ইশান কিষান, হার্দিক পাণ্ড্যে, ক্রুনাল পাণ্ড্যে, কেরন পোলার্ড, যয়ন্ত যাদব, রাহুল চাহার, যশপ্রীত বুমরা, লাসিথ মালিঙ্গা। চেন্নাই সুপার কিংসঃ শেন ওয়াটসন, ফাফ দু প্লেসি, সুরেশ রায়না, মুরলী বিজয়, এমএস ধোনি, অম্বাতি রায়ডু, ডোয়েন ব্র্যাও, রবীন্দ্র জাডেজা, হরভজন সিং, দীপক চাহার, ইমরান তাহির।  

  • মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে ৩৪ রানে হারিয়ে প্লে অফের দৌড়ে টিকে থাকল কলকাতা নাইট রাইডার্স

    Newsbazar 24, ডেস্ক,২৮ এপ্রিলঃ ইডেন গার্ডেন্সে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে মরণ-বাঁচন ম্যাচে খেলতে নেমে  কলকাতা নাইট রাইডার্স মুম্বই ইন্ডিয়ান্স কে  ৩৪ রানে হারিয়ে প্লে অফের দৌড়ে টিকে থাকল  কলকাতা । পরপর ছয় ম্যাচে  হেরে  দীনেশ কার্তিকে র দল, কলকাতা নাইট রাইডার্স এই ম্যাচ জিতে নিজেদের মান কিছুটা রক্ষা করতে পারল ।  রোহিত শর্মার মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ইতিমধ্যে   ১১ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট পেয়ে ইতিমধ্যে প্লে-অফ নিশ্চিত করে ফেলেছে । কলকাতা নাইট রাইডার্স দলে তিনটি পরিবর্তন করা হয়েছে। দলে ফিরেছেন রবীন উথাপ্পা। কেকেআরের জার্সিতে আইপিএলে অভিষেক হচ্ছে সন্দীপ ওয়ারিয়ারের। অন্যদিকে মুম্বইয়ের জার্সিতে আইপিএলে প্রথমবার মাঠে নামলেন  বারিন্দর স্রনের। ইডেন গার্ডেন্সে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে টসে হেরে ব্যাট করতে নামা কলকাতা নাইট রাইডার্সের শুরুটা দুর্দান্ত হল। আইপিএলে প্রথমবার খেলতে নামা বারিন্দর স্রনের ওভারে ২টি চার ও একটি ছয় মারলেন শুভমন গিল। শেষ পর্যন্ত শুভমন গিল ৭৬ রানে আউট হন। ফের একবার বিস্ফোরক ব্যাটিং আন্দ্রে রাসেলের। আন্দ্রে রাসেল ৮০ রানে অপ্রাজিত থাকলেন কলকাতা ২০ ওভারে ২ উইকেটে করল ২৩২ রান।জবাবে ব্যাট করতে নেমে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের শুরুটা ভাল হল না। দ্বিতীয় ওভারে প্রথম উইকেটের পতন ঘটল। হার্দিক পান্ডের লড়াই কাজে আসল না। ৯১ রানে তিনি আউট হয়ে যান। শেষ ওভারে ক্রুনাল পান্ডে আউট হবার পর ৭ উইকেটে ১৯৮ রানে তাদের ইনিংস শেষ হয়।   কলকাতা নাইট রাইডার্স   ৩৪ রানে জয়লাভ করে      

  • এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ ব্যাডমিন্টন থেকে বিদায় সাইনা নেওয়াল ও পি ভি সিন্ধুর

    Newsbazar, ডেস্ক, 26 এপ্রিল : চিনের উহানে  এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ ব্যাডমিন্টন   থেকে ছিটকে গেলেন  ভারতের দুই প্রখ্যাত সাটলার সাইনা নেওয়াল  ও  পি ভি সিন্ধু । দু'জনেই বৃহস্পতিবার কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছেছিলেন।  কিন্তু শুক্রবারই হেরে ছিটকে গেলেন ভারতের দুই তারকা শাটলার। সাইনা ১৩-২১, ২৩-২১, ১৬-২১-এ হেরে গেলেন তৃতীয় বাছাই জাপানের আকানে ইয়ামাগুচির কাছে। অন্যদিকে, সিন্ধু ১৯-২১, ৯-২১-এ ছিটকে গেলেন  চিনের ১৭ নম্বর কাই ইয়ানইয়ানের কাছে ।  পুরুষ শাটলার সমীর  ভারমাকে হারের মুখ দেখতে হল । তিনি ১০-২১, ১২-২১-এ হারলেন চিনের শি ইউকির কাছে। আশা জাগিয়েও  কোয়ার্টার ফাইনালে একসঙ্গেই হারের মুখ দেখতে হল। বিশ্বের আট নম্বর তারকা কিদাম্বি শ্রীকান্ত সবাইকে চমকে প্রথম রাউন্ডেই ছিটকে গিয়েছিলেন টুর্নামেন্ট থেকে। বিশ্বের ৫১ নম্বর শাটলার ইন্দোনেশিয়ার শেসার হিরেন রুস্তাভিতোর কাছে ১৬-২১, ২০-২২-এ হারের মুখ দেখতে হয়েছিল শ্রীকান্তকে।  

  • আসন্ন বিশ্বকাপ ক্রিকেটের জন্য ঘোষিত হল ভারতীয় ক্রিকেট দল।

    Newsbazar 24 ডেস্ক, ১৫ই এপ্রিলঃ আসন্ন ক্রিকেট বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত হল ভারতীয় ক্রিকেট দল। ১৫ জন ক্রিকেটারের নাম এদিন ঘোষণা করেছে বিসিসিআই। ভারতের বিশ্বকাপ দলে রয়েছে, পাঁচজন বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান, দু’জন উইকেট কিপার, তিনজন ফাস্ট বোলার, তিনজন অল-রাউন্ডার এবং দু’জন স্পেশালিস্ট স্পিনার। ৩০ মে থেকে ইংল্যান্ড এবং ওয়েলশে বসবে বিশ্বকাপের আসর। মুম্বইয়ে নির্বাচক কমিটির সঙ্গে মিটিংয়ে উপস্থিত ছিলেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি । ছিলেন বি সি সি আই -এর ভারপ্রাপ্ত সচিব অমিতাভ চৌধুরী। এই দল ঘোষণা করেন বিসিসিআই কর্তা অমিতাভ চৌধুরী ও সঙ্গে ছিলেন প্রধান নির্বাচক এমএসকে প্রসাদ। প্রত্যাশামতোই অধিনায়ক বাছা হয়েছে বিরাট কোহলিকে। দল ঘোষণার পর এমএসকে প্রসাদ বলেন, ‘‘দ্বিতীয় উইকেট কিপার হিসাবে আমরা  অভিজ্ঞতার নিরিখে দীনেশ কার্তিককে বেছে নিয়েছি। না হলে ঋষভ পন্থও ছিল।'' তিনি আরও বলেন, ‘‘মহেন্দ্র  সিং ধোনি যদি চোট পান তবেই  দ্বিতীয় উইকেট কিপার হিসাবে দীনেশ কার্তিক তখনই খেলার সুযোগ পাবেন ।''  এছাড়া কারা সুযোগ পেলেন ভারতীয় দলে, দেখে নেওয়া যাক একনজরে। বিশ্বকাপের ভারতীয় দল একনজরে :                           বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), রোহিত শর্ম্‌  শিখর ধাওয়ান, কেএল রাহু, বিজয় শঙ্কর, মহেন্দ্র সিং ধোনি (উইকেটকিপার,   কেদার যাদব, দীনেশ কার্তি, যুজবেন্দ্র চাহাল, কুলদীপ যাদব, ভুবনেশ্বর কুমার,     জসপ্রীত বুমরাহ, হার্দিক পাণ্ডিয়া,  রবীন্দ্র জাদেজা ও মহম্মদ শামি।   (প্রথম ছবিতে ভারতীয় দলের নাম ও দ্বিতীয় ছবিতে নির্বাচক কমিটির বৈঠকের ছবি)  

  • পরপর ছয়টি ম্যাচ হারের পর জয়ের খাতা খুলল আরসিবি

    newsbazar24: পরপর ছয়টি ম্যাচ হারের পর জয়ের খাতা খুলল আরসিবি ।দলকে জয়ের সরণীতে ফেরালেন সেই দুজন যাঁরা আরসিবি-র হয়ে সবচেয়ে বেশি রান করেছেন ও ম্যাচ জিতিয়েছেন। ১৭৩ রান তাড়া করতে নেমে বিরাটরা ম্যাচ জিতলেন ৬ উইকেটে। একইসঙ্গে এই আইপিএলের প্রথম জয় এল সপ্তম ম্যাচ খেলে।ইনিংসের শুরু থেকেই মারমুখী মেজাজে শুরু করেন ক্রিস গেইল। প্রথম ৬ ওভারে ষাট রান ওঠার পরে ৭ থেকে ১৫ ওভার পর্যন্ত থমকে যায় পাঞ্জাবের ব্যাটিং। গেইলকে কিছুটা আটকে দেন মইন আলি। তিনি বল হাতে আটোসাঁটো বল করে পাঞ্জাবের রান তোলার গতি আটকে দেন। শেষদিকে গেইল চেষ্টা করলেও কিছুটা কম রানেই ইনিংস শেষ করে পাঞ্জাব। রান তাড়া করতে নেমে কোহলিরাও দারুণ শুরু করেন। পার্থিব প্যাটেল ৯ বলে ১৯ রান করে ফিরে গেলেও বিরাট কোহলি ও এবিডি জুটি খেলা ধরে নেয়। কোহলি ৫৩ বলে ৬৭ রান করে ফিরে গেলেও এবি ডিভিলিয়ার্স ৩৮ বলে ৫৯ রানে অপরাজিত থেকে ম্যাচ জিতিয়ে ফেরেন। শেষদিকে ১৬ বলে ২৮ রানে অপরাজিত থেকে তাঁকে সঙ্গ দেন মার্কাস স্টইনিস।  

  • KXIP vs RCB: পাঞ্জাবকে আট উইকেটে হারিয়ে দিল বেঙ্গালুরু

    News Bazar24: মোহালিতে টস জিতে হোম টিম Kings XI Punjab-কে ব্যাট করতে পাঠিয়েছিলেন Virat kohli। প্রথমে ব্যাট করে পাঞ্জাব থামে ১৭৩-৪-এ। ৬৪ বলে ৯৯ রান করে অপরাজিত থাকেন ক্রিস গেইল। পাঞ্জাবের আরও কোনও ব্যাটসম্যানি বড় রানের মুখ দেখতে পারেননি। গেইলের ব্যাটেই পাঞ্জাবের রান ১৭৩-এ পৌঁছয়। জবাবে ব্যাট করতে নেমে Royal Challengers Bengaluru-র ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যান বিরাট কোহলি ও এবি ডিভিলিয়ার্স। ৫৩ বলে ৬৭ রান করে আউট হন বিরাট কোহলি। এর পর বেঙ্গালুরুর ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যান এবি ডিভিলিয়ার্স। হাফ সেঞ্চুরি করেন তিনিও। বেঙ্গালুরুকে শেষ দুই ওভারে ২০ রানে নিয়ে যান তিনি। সেখান থেকে চার বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতে নেয় বেঙ্গালুরু। ৫৯ রান করে অপরাজিত থাকেন ডিভিলির্সা। আট উইকেটে পাঞ্জাবকে হারিয়ে দিল বেঙ্গালুরু। ছয় ম্যাচে শূন্য পয়েন্ট নিয়ে লিগ তালিকার সবার শেষে ছিলেন বিরাট কোহলিরা। পাঞ্জাবকে হারিয়ে প্রথম জয় তুলে নিল বেঙ্গালুরু। অন্য দিকে আট ম্যাচে চারটি জয় ও চারটি হারের মুখ দেখল পাঞ্জাব। টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমেছে কিংস একাদশ পাঞ্জাব। পাঞ্জাবের হয়ে ওপেন করতে নেমেছেন লোকেশ রাহুল ও ক্রিস গেইল। খুব দ্রুত রান না উঠলেও হাল ধরার চেষ্টায় দুই ওপেনার। আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি করেছিলেন লোকেশ রাহুল। পাঁচ ওভারের শেষে পাঞ্জাব পাঞ্জাব ৩৬-০। ১৮ রান করে আউট হলেন লোকেশ রাহুল। কিন্তু হাল ধরলেন ক্রিস গেইল। ২৮ বলে ৫০ রান করলেন তিনি।সঙ্গে রয়েছেন মায়াঙ্ক আগরওয়াল। ন'বলে ১৫ রান করে আউট হলেন মায়াঙ্ক আগরওয়াল। ১০ ওভারে পাঞ্জাব ৯০-২। ১৩ বলে ১৫ রান করে আউট সরফরাজ খান। তিন বলে এক রান করে আউট স্যাম কুরান। ১৫ ওভারে পাঞ্জাব ১২২-৪। শেষ পর্যন্ত একাই লড়লেন ক্রিস গেইল। অল্পের জন্য সেঞ্চুরিটা হল না। ৬৪ বলে ৯৯ রান করে অপরাজিত থাকলেন ক্রিস গেইল। শেষ বলে সেঞ্চুরি করতে গেইলের দরকার ছিল ছয় পাঁচ রান। কিন্তু ছক্কা এল না। বাউন্ডারি হাঁকালেন তিনি। ১৬ বলে ১৮ রান করলেন মনদীপ সিং। ২০ ওভারে পাঞ্জাব থামল ১৭৩-৪-এ। বেঙ্গালুরুকে জিততে হলে করতে হবে ১৭৪ রান। নয় বলে ১৯ রান করে আউট হন পার্থিব প্যাটেল। পাঁচ ওভারে বেঙ্গালুরু ৫৪-১। ব্যাট করছেন এবি ডিভিলিয়ার্স ও বিরাট কোহলি। ১০ ওভারে আরসিবি ৮৮-১। আর উইকেট না পড়লেও রানের গতি খুব বেশি তুলতে পারেননি বিরাটরা। ধরে খেলার চেষ্টা করছেন দুই ব্যাটসম্যান। হাফসেঞ্চুরি করে ফেললেন বিরাট কোহলি। ৩৭ বেল ৫০ রান করেন বিরাট। ১৫ ওভারে আরসিবি ১২৬-১। ৫৩ বলে ৬৭ রান করে আউট হন বিরাট কোহলি। তাঁকে ফেরান মহম্মদ শামি। ব্যাট করছেনএবি ডিভিলির্সা ও মার্কাস স্তইনিস। শেষ পর্যন্ত লড়াই করে বেঙ্গালুরুকে প্রথম জয় এনে দিলেন তাঁরা।