���������


  • দুই দিন ধরে জেরার পরেও রাজীব কুমার মুক্তি পেলেন না ,আগামীকাল আবার জেরা করা হবে।

    ডেস্ক, ১০ই ফেব্রিয়ারীঃ আগামীকাল সোমবার আবার  রাজীব কুমারকে সিবি আইয়ের জেরার মখোমুখি হতে হবে বলে জানা গেছে।  পাশাপাশি  তৃণমূলের প্রাক্তন সাংসদ কুণাল ঘোষকেও জেরার জন্য হাজির থাকতে বলা হয়েছে। আগামীকাল ও  দুজনকে মুখোমুখি বসিয়ে  জেরার সম্ভাবনা রয়েছে । আরও জানা গেছে আজ সন্ধ্যা  থেকে রাজীব ও কুণালকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হয়। দীর্ঘ প্রায় ৪ ঘণ্টা ধরে জেরা চলে। আজ রাজীব কুমারকে দফায় দফায় প্রায় ১০ ঘন্টা জেরা করা হয়।    প্রসঙ্গত রাজীব কুমারকে শনিবার থেকেই জেরা করা হচ্ছিল। এদিন সকাল থেকে শিলংয়ে জেরা শুরু করা হয় কুণাল ঘোষকে। রাজীব কুমারকেও এদিন দীর্ঘ জেরা করেন সিবিআই আধিকারিকরা। শেষে দুজনকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করেই তথ্য বের করে আনার চেষ্টা চালান সিবিআইয়ের তদন্তকারী আধিকারিকরা। সূত্রের খবর রাজীব কুমার ও কুণাল ঘোষকে ফের একসঙ্গে জেরা করার সম্ভাবনা যেমন রয়েছে, তেমনই রোজভ্যালি-কাণ্ডেও আলাদা করে জেরা করা হতে পারে রাজীব কুমারকে। ইতিমধ্যে রোজভ্যালি তদন্তের দায়িত্বপ্রাপ্ত সিবিআই আধিকারিক সুজুম শেরফা  শিলংয়ে হাজির হয়েছেন । তিনি সোমবার জেরা করতে পারেন রাজীবকে। অর্থাৎ  আজও  রাজীবকুমারের মুক্তি হল না  জেরা থেকে। সারদা চিটফান্ড কাণ্ড সামনে আসার পর ইডিকে দীর্ঘ এক চিঠি দিয়েছিলেন কুণাল।  সেই চিঠিতে চিটফান্ড কাণ্ডের তদন্তে রাজীব কুমারের ভূমিকা নিয়ে কিছু তথ্য ছিল বলে জানা গেছে ।  সূত্রের খবর, আজ জেরায় কুণালের চিঠির বয়ান তুলে ধরে রাজীব কুমারকে প্রশ্ন করেছে সিবি আই ।  

  • কাশ্মীর উপত্যকার কুলগাঁও-এ সেনাবাহিনী ও জঙ্গি সংঘর্ষে মৃত্যু হল ৫ জঙ্গির।

    ডেস্ক, ১০ফেব্রুয়ারীঃ কাশ্মীর উপত্যকায় জঙ্গি  দমনে বড়সড় সাফল্য সেনাবাহিনী।  আজ কুলগাঁও-এ  নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে জঙ্গি দের সংঘর্ষে  মৃত্যু হল ৫ জঙ্গির। ভোর থেকে শুরু হয় এই সংঘর্ষ। দীর্ঘ প্রায়  ছয় ঘন্টা ধরে সংঘর্ষ চলে। উদ্ধার হয়েছে প্রচুর গোলাবারুদ এবং অস্ত্র । সূত্র মারফত খবর পেয়ে খুব ভোরে শ্রীনগরের দক্ষিণে প্রায় ১০০ কিমি দূরে কুলগাঁও-এ পুলিশ, রাষ্ট্রীয় রাইফেলস, সিআরপিএফ-এর মিলিত বাহিনী  তল্লাশি অভিযান শুরু করে। জঙ্গিরা বুঝতে পারে যে  নিরাপত্তা বাহিনী এলাকা ঘিরে ফেলেছে। তারা  গুলি চালাতে শুরু করে । শুধু হয়ে যায় দুই পক্ষের সংঘর্ষ। যা দীর্ঘ প্রায় ৬ ঘণ্টা ধরে এই সংঘর্ষ স্থায়ী হয়। ঘটনাস্থল থেকে ৫ জঙ্গির দেহ উদ্ধার করা হয়। সেনাবাহিনী সূত্রে জানানো হয় , সংঘর্ষে ৫ জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে। মৃত জঙ্গিদের হেফাজত থেকে প্রচুর অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। জঙ্গিরা স্থানীয় বলে জানানো হয়েছে সেনা ও পুলিশের তরফ থেকে।  সংঘর্ষের সময় স্থানীয় কিছু যুবক  নিরাপত্তা বেষ্টনি ভেঙে এগোতে চেষ্টা করলেও সংঘর্ষ বেধে যায়।

  • পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের জেরার দিন স্থির হয়েছে আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি শিলং-এ।

    ডেস্ক,৭ই ফেব্রুয়ারীঃ সংবাদসংস্থা পিটিআই সূত্রে জানা যায় যে আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি শিলং-এ সিবিআই আধিকারিকরা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে জেরা করবেন। সেদিন রাজীব কুমারকে   শিলং এ হাজির হতে হবে। এখানে উল্লেখ্য যে সারদা কেলেঙ্কারির তদন্তে রাজ্য সরকার যে সিট গঠন করেছিল তার প্রধান ছিলেন রাজীব কুমার। পরে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ চিটফান্ড কেলেঙ্কারির তদন্তভার  সিবিআই-র হাতে ন্যাস্ত হয় । সিবিআইয়ের অভিযোগ, সিটের দায়িত্বে থাকাকালীন সারদা চিটফান্ড সংক্রান্ত একাধিক নথি নষ্ট করেছেন কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার। সে নিয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।বেশ কয়েকবার তাঁকে নোটিশও পাঠানো হলেও, তিনি হাজির বা কোনও উত্তর দেন নি বলে অভিযোগ। সূত্রের খবর রাজীব কুমারকে জেরা করার জন্য সিবি আইএর প্রস্তুতি তুঙ্গে। ১০ জন পুলিশ অফিসারের বিশেষ দল গঠন করা হয়েছে। সেই  ১০ জনের দলে রয়েছে  ৩ জন পুলিশ সুপার পদমর্যাদার অফিসার, ৪ জন সহকারী পুলিশ-সুপার অফিসার পদমর্যাদার অফিসার থাকছেন।বাদবাকী অন্যান্য পুলিশ আধিকারিকরা রয়েছেন। এর মধ্যে বেশ কয়েকজন কিছু অফিসার আছেন  যারা সারদা চিটফান্ড কেলেঙ্কারির তদন্তে ওতপ্রোতভাবে জড়়িত ছিলেন। আরও খবর তাতে রাজীব কুমারকে জেরা করার জন্য বেশ কিছু  প্রশ্ন তৈরি করা হচ্ছে। যার মধ্যে রয়েছে  সারদা চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে উদ্ধার হওয়া ল্যাপটপ, পেন ড্রাইভ, হার্ড  ডিস্কগুলো কোথায় ?  ফরেনসিক রিপোর্ট নেই?- এ ছাড়াও  চিটফান্ডের এমন কিছু অভিযুক্তের সামনে বসিয়ে রাজীব কুমারকে জেরা করার চিন্তা ভাবনা  রয়েছে। সিবিআই সূত্রে খবর সারদা চিটফান্ডে কুণাল ঘোষ-সহ পাঁচ অভিযুক্তকেও শিলঙে ডেকে পাঠানো হচ্ছে। সেখান তাঁদেরর সামনে রাজীব কুমারকে বসিয়ে জেরা করা হতে পারে বলে  খবর।  

  • মধ্যপ্রদেশ ক্যাডারের আইপিএস ঋষিকুমার শুক্লাকে সিবিআই-এর নতুন অধিকর্তা হিসাবে নিয়োগ করা হল।

    ডেস্ক, ২ ফেব্রুয়ারীঃ  অনেক টাল বাহানার পর নতুন সিবিআই ডিরেক্টর নিয়োগ করা হল । নতুন সিবিআই প্রধান হিসাবে দায়িত্ব দেওয়া হল ঋষি কুমার শুক্লাকে । আগামী দুই বছরের জন্য তিনিই দায়িত্বভার সামলাবেন। শনিবার সরকারের পক্ষ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই কথা জানানো হয়। মধ্যপ্রদেশ ক্যাডারের  ১৯৮৩ সালের ব্যাচের আইপিএস অফিসার  ঋষি কুমার শুক্লা। এর আগে তিনি মধ্যপ্রদেশের  ডিজি পদে ছিলেন। শুক্রবার সিবিআই অধিকর্তা  বাছা নিয়ে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার বৈঠকে বসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে তিন সদস্যের হাই পাওয়ার কমিটি। আগের বারের মত এবারের বৈঠকেও কোন   সিদ্বান্ত হয়নি। গতবারে ৭০ জনের নাম পেশ হয়েছিল। এবারে বাছাই হল ৩০ জনের নাম। তাও  কারও নাম চূড়ান্ত হয়নি। এই বৈঠকে নরেন্দ্র মোদী ছাড়াও সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ও লোকসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খারগে উপস্থিত ছিলেন। প্রসঙ্গত  সিবিআই ডিরেক্টর পদ থেকে অলোক বর্মাকে সরিয়ে অন্তর্বর্তীকালীন ডিরেক্টর করা  হয়েছিল এম নাগেশ্বর রাওকে। নতুন ডিরেক্টর নিয়ে দ্বিতীয় বৈঠক ভেস্তে যাওয়ার পর শুক্রবার,  সুপ্রিম কোর্ট তীব্র ভৎসনা করে বলেছিল  এত গুরুত্বপূর্ণ একটি পদের ক্ষেত্রে বেশিদিন অস্থায়ীভাবে কাউকে রাখাটা একেবারেই ঠিক নয়। তারপরই তড়িঘড়ি সিদ্ধান্ত নিয়ে একপ্রকার কংগ্রেসের মত অগ্রাহ্য করেই এদিন দেরি না করে কেন্দ্র সিবিআই ডিরেক্টর পদে ঋষি কুমার শুক্লাকে নিয়োগ করল বলে সূত্রের খবর ।  

  • এনডিএ সরকারের অন্তর্বর্তীকালীন বাজেট,কি কি আছে বাজেটে এক নজরে দেখে নিন।

    ডেস্ক,১ ফেব্রুয়ারী  কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি অসুস্থ হওয়ায়  আজ এনডিএ সরকারের অন্তর্বর্তীকালীন বাজেট পেশ করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল । এনডিএ সরকারের এটাই ছিল শেষ বাজেট। নির্বাচনকে মাথায় রেখে পর তার থেকে শুরু করে কৃষকদের সাহায্যের কথা ঘোষণা করল মোদী সরকার। এক নজরে ২০১৯-২০ সালের জন্য অন্তর্বর্তীকালীন বাজেটের কিছু চিত্র নীচে দেওয়া হল।  **এই বাজেটে প্রত্যাশামতোই আয় কর ছাড়ের ঊর্ধ্বসীমা বাড়ানো হয়েছে। এখন থেকে পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত আয় করে ছাড় মিলবে। এই ঘোষণায় উপকৃত হবেন  তিন কোটি মধ্যবিত্ত। বছরে সাড়ে ছয় লক্ষ টাকা পর্যন্ত রোজগার করেন এমন কোনও মানুষ বিনিয়োগ করলে তাতে কর লাগবে না,সাড়ে তিন কোটি মধ্যবিত্তকে 18 হাজার 500 কোটি টাকা কর ছাড়ে সুবিধা।   **আগামী দু'বছরের মধ্যে আয়কর জমা দেওয়ার সমস্ত কাজ অনলাইনে হবে বলে জানালেন মন্ত্রী।  তিনি বলেন প্রত্যক্ষ কর আদায়ের পরিমাণ 2013-14 সালের ছিল ৬ কোটি ৩৮ লক্ষ সেটা  এখন বেড়ে  হয়েছে ১২ কোটিরও বেশি। **প্রধানমন্ত্রী  কিষাণ সম্মান নিধি প্রকল্পে কৃষকদের বছরে ৬০০০ টাকা দেওয়ার ঘোষণা।  যাঁদের দুই হেক্টরের কম জমি রয়েছে তাঁদের জন্য এই বিশেষ প্রকল্প। এই প্রকল্পে তিন ধাপে কৃষকদের টাকা দেওয়া হবে। এই টাকা সরাসরি কৃষকদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করা হবে। **পশুপালন ও মৎস্যচাষিদের জন্য কিষাণ ক্রেডিট কার্ডে ২ শতাংশ ছাড় দেওয়া হল। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সুদে ২ শতাংশ ছাড় দেওয়া হল।   **রাষ্ট্রীয় গোকুল যোজনায় চলতি অর্থবর্ষে ৭৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ করার কথা ঘোষণা করা হল। এর ফলে লাভবান হবেন ১২ কোটি কৃষক। মৎস্যচাষিদের জন্য পৃথক দপ্তরের ঘোষণা করা হল।  **অসংগঠিত ক্ষেত্রে কর্মরতদের প্রধানমন্ত্রী শ্রমযোগী মন্ধন (PMSYM) স্কিমে মাসে ৩ হাজার টাকা দেওয়া হবে। এরজন্য মাসে ১০০ টাকা করে দিতে হবে। শ্রমিকদের বয়স ৬০ পেরিয়ে গেলে ওই ৩ হাজার টাকা  করে দেওয়া হবে।অসংগঠিত ক্ষেত্রের ১0 কোটি শ্রমিককে সাহায্য করবে নতুন পেনশন স্কিম। ** সীমান্তে আমাদের দেশকে সুরক্ষিত করেন জওয়ানরা। তাঁরা আমাদের গর্ব।আমাদের সীমান্ত সুরক্ষিত রাখতে এবারের বাজেটে আমরা ৩  লাখ কোটিরও বেশী বরাদ্দ করলাম, যা এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশী।প্রয়োজনে আরও বরাদ্দ করা হবে”। ** OROP অর্থাৎ ওয়ান র‍্যাঙ্ক ওয়ান পেনশন। এই দাবিকে স্বৃকিতি দেয়  মোদি সরকার। তিনি বললেন   সেনা রা আমাদের গর্ব। ৪০ বছর ধরে এই দাবি পূরণ হয়নি। আমরা তা পূরণ করেছি। ইতিমধ্য জওয়ানদের জন্য ৩৫ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে।" **ছোটো ও মাঝারি শিল্পোদ্যোগীদের কাছে এই বাজেট বিশেষ সুবিধা মাত্র ৫৯ মিনিটে ১ কোটি ঋণ অনেক সহজে নিতে পারবেন উদ্যোগপতিরা। ** হাইওয়ে তৈরিতে বিশ্বে এইমুহূর্তে সবার আগে ভারত। প্রতিদিন ২৭ কিমি হাইওয়ে তৈরি হয়। **প্রধানমন্ত্রী মুদ্রা যোজনায় লাভবান হয়েছেন ৭৫ শতাংশ মহিলা।  প্রধানমন্ত্রী মাতৃত্ব যোজনায় ২৬ সপ্তাহ ছুটি পান অন্তঃসত্ত্বা মহিলারা। মহিলাদের ক্ষমতায়নের জন্য এই সিদ্ধান্ত । **আগামী ৫ বছরে ভারতের অর্থনীতি ৫ ট্রিলিয়ন ডলারে পৌঁছাবে। আর ৮ বছরে তা পৌঁছাবে ১০  ট্রিলিয়ন ডলারে। ** তপশিলি জাতি উন্নয়নে ব্যয় বরাদ্দ বৃদ্ধি ৩৫ শতাংশ ** অধিকাংশ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের উপর GST শূন্য থেকে ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব, জানুয়ারিতে GST আদায় ১ লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা, GST-র অধীনে প্রত্যেক মাসে গড়ে ৯৭ হাজার কোটি টাকা কর আদায় হয়েছে,  GST-র ফলে লাভবান হয়েছেন ক্ষুদ্র ও ছোটো ব্যবসায়ীরা। **  যারা বাড়ি কিনবে তাদের উপর GST-র বোঝা কী ভাবে কমানো যায় সেটা সরকার দেখবে ** গতবছর কোনও স্ক্রুটিনি ছাড়াই প্রায় ৯৯.৫৪ শতাংশ IT রিটার্ন সঙ্গে সঙ্গে গ্রহণ করা হয়েছে।  ** পাঁচ বছরে ৩৪ কোটি জনধন অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে ** পাঁচ বছরে এক লাখ ডিডিটাল গ্রাম বানানোর লক্ষ্য ** রেলের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। কোনও রক্ষীবিহীন লেভেল ক্রসিং নেই দেশে  ** গ্রাচুইটি র উরধসীমা  10 লাখ থেকে 3০ লাখ করার প্রস্তাব। ** ২০১৪ সালেও দেশের আড়াই কোটি মানুষ অন্ধকারে দিন কাটাতেন। আমরা সমস্ত গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছি,, ২০১৯-র  মার্চ মাসের মধ্যে দেশের সমস্ত বাড়িতে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে। ** গোটা পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বড় স্বাস্থ্য প্রকল্প শুরু হয়েছে ভারতে।  ** উচ্চবর্ণের আর্থিক ভাবে পিছিয়ে পড়া মানুষদের জন্য 10 শতাংশ সংরক্ষণ করা হয়েছে। ** দেশের আর্থিক ঘাটতিকে জিডিপির ৩. ৪ শতাংশ করা সম্ভব হয়েছে।   ** এই সরকার গরিবদের জন্য 1.53 লক্ষ আবাসনের ব্যবস্থা করেছে,আমরা আরবিআই কে বলেছি প্রতিটি ব্যাঙ্কের আর্থিক পরিস্থিতি তুলে ধরতে,২০২২ সালের মধ্যে ভারতকে অর্থনীতির পেক্ষাপটে নতুন উচ্চতায় পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে:।   **সিনেমার টিকিটের উপর এখন থেকে 12 শতাংশ জিএসটি লাগবে। ** গোটা দেশে পরিশুদ্ধ পানীয় জল পৌঁছে দিতে কেন্দ্রীয় সরকার দায়বদ্ধ বলে জানালেন পীযূষ গোয়েল, **কালো টাকার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রীয়  সরকার দায়বদ্ধ **রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগের জন্য ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে দরকার পড়লে বিনিয়োগ বাড়ানো হবে; **গোটা পৃথিবীর মধ্যে সম্ভবত ভারতেই সবচেয়ে কম পয়সায় মোবাইলে কথা বলা যায়।  সবচেয়ে কম পয়সায় ইন্টারনেট ব্যবহার করা যায় ।    ** ভারতে 100 টি এয়ারপোর্ট সচল আছে ।এ থেকেই বোঝা যায় উন্নয়ন কোন জায়গায় উঠেছে।

  • তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ কে ডি সিং-এর ২৩৮ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হল।

    ডেস্ক, ২২৮ জানুয়ারি:  এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ কে ডি সিং-এর ২৩৮ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করল । এই বাজেয়াপ্তের তালিকায় রয়েছে কুফরির একটি রিসর্ট, চণ্ডীগড়ের একটি শোরুম, পাঁচকুলা, হরিয়ানার সম্পত্তি ও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ।   ২০১৫ সালে  কে ডি সিং ও তাঁর ফার্ম অ্যালকেমিস্ট ইনফ্রা রিয়েলটি সাধারণ মানুষের কাছ থেকে প্রায় ১, ৯১৬ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছিল।কিন্তু  যেহেতু সেবি-র  অনুমতি ছাড়াই এই প্রকল্প চালু করেছিল  তাই ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে কে ডি সিং ও তাঁর ফার্ম অ্যালকেমিস্ট ইনফ্রা রিয়েলটির বিরুদ্ধে প্রিভেনশন অব মানি লন্ডারিং) আইনে মামলা দায়ের করে ED। অভিযোগ, এই সংস্থা একটি অবৈধ যৌথ বিনিয়োগ প্রকল্প চালু করেছিল।

  • এই বছর মোট ৮জন ক্রীড়াবিদকে পদ্মশ্রী সম্মানে সন্মানিত করা হচ্ছে।

    ডেস্ক ,২৬শে জানুয়ারীঃ – এবারে ক্রীড়া ক্ষেত্রে মোট ৮জন ক্রীড়াবিদকে পদ্মশ্রী সম্মানে সন্মানিত করা হচ্ছে। এদের মধ্যে রয়েছেন ক্রিকেটে প্রাক্তন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর ,ফুটবলে বর্তমান ভারতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী, ফ্রিস্টাইল কুস্তিগীর বজরং পুনিয়া,   বাস্কেটবল খেলোয়াড় প্রশান্তি সিং, টেবল টেনিসের শরথ কমল, দাবার হরিকা দ্রোনাভল্লি, তিরন্দাজির বোম্বাইলা দেবী ও কবাডির অজয় ঠাকুর।  এ ছাড়াও পদ্মভূষণ পাচ্ছেন  পর্বতারোহী বাচেন্দ্রী পাল। এ ছাড়াও রয়েছে ভারতরত্ন, পদ্ম বিভূষণ। এই সন্মানের ক্ষেত্র গুলোকে ক্রমান্বয়ে সাজালে প্রথমে আসে ভারতরত্ন, পদ্ম বিভূষণ ও পদ্ম ভূষণ ও তারপর পদ্মস্রী। সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রের  কৃতিদের এই পুরস্কারে সন্মানিত করা  হয়। তার মধ্যে রয়েছে আর্ট, সোশ্যাল ওয়ার্ক, পাবলিক অ্যাফেয়ার্স, বিজ্ঞান ও ইঞ্জিনিয়ারিং, ট্রেড এবং ইনডাস্ট্রি,  মেডিসিন, লিটারেচার ও এডুকেশন, স্পোর্টস, সিভিল সার্ভিস। এই বছর  এই সব ক্ষেত্রের জন্য মোট ১১২ জনকে পুরুস্কৃত করা  হচ্ছে।   তার মধ্যে  চারজন  পাচ্ছেন পদ্ম বিভূষণ, ১৪জন পদ্ম ভূষণ ও ৯৪ জন পদ্মশ্রী। এই ১১২ জনের মধ্যে রয়েছেন ২১ জন মহিলা ও ১১ জন ভারতীয় বংশোদ্ভুত। তিনজন পাচ্ছেন মরনোত্তর এবং একজন ট্রান্সজেন্ডার।      

  • কাশ্মীরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে জঙ্গি আইইডি বিশেষজ্ঞ সহ আর এক জঙ্গির মৃত্যু হল।

    ডেস্ক ১৩ জানুয়ারীঃ  শনিবার সন্ধ্যার দিকে দক্ষিণ কাশ্মীরে কুলগাম জেলার কাটোপরা এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে জঙ্গীদের সংঘর্ষে দুই জঙ্গির মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে একজনের নাম জিনাত-উল-ইসলাম । জানা গেছে সে একজন আইইডি বিশেষজ্ঞ ।সেখানে বেশ কিছু অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।  সূত্রে জানা যায় নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে গোপন সূত্রে খবর আসে যে কাশ্মীরে কুলগাম জেলার কাটোপরা এলাকায় কয়েকজন জঙ্গি লুকিয়ে রয়েছে। খবর পেয়ে বাহিনীর জওয়ানরা সেখানে পৌঁছে গোটা এলাকা ঘিরে ফেলেন। পালাবার পথ না পেয়ে জঙ্গিরা প্রাণ ভয়ে গুলি চালাতে শুরু করে। নিরাপত্তা বাহিনী পাল্টা জবাব দেয়। তাতেই মৃত্যু হয় দুজনের। জানা গেছে এই ঘটনায় গ্রামবাসী বা নিরাপত্তা বাহিনীর কেঊ আহত হননি। মৃত দুই জঙ্গীর মধ্যে জিনাত-উল-ইসলাম  নামে এক জঙ্গীকে সনাক্ত করা গেছে। সে আল বাবরের আগে সে ইন্ডিয়ান মুজাহিদিনের সঙ্গে যুক্ত ছিল। সে সময়ও একাধিক নাশকতার ঘটনায় তার নাম জড়িয়েছিল। ইতিমধ্যে দুই জঙ্গির কাছ  থেকে বেশ কিছু অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। সেগুলি নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে  বাহিনী।

  • দায়িত্ব নেওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ফের অপসারিত সিবিআই প্রধান অলোক বর্মা,

    নিউ দিল্লি: অপসারিত সিবিআই প্রধান অলোক বর্মা সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে তার  পদটি ফিরে পেয়েছিলেন ৪৮ ঘণ্টা আগে। কিন্তু আবার আজ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের স্থির করে দেওয়া কমিটি তাকে পদ থেকে সরিয়ে  দিল। প্রসঙ্গত উচ্চ ন্যায়ালয় অলোক বর্মাকে  তার পদ ফিরিয়ে দেওয়ার সময় বলেছিল তাঁর পরবর্তী ভাগ্য নির্ধারণের ক্ষমতা দেওয়া হল  প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে নির্বাচনী প্যানেলকে। এদিন সেই  প্যানেলের বৈঠকেই স্থির হয়েছে যে অলোক বর্মাকে সিবিআই প্রধান পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে ।  অর্থাৎ  ক্ষমতা ফিরে পাওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ফের ক্ষমতাচ্যুত হলেন অলোক বর্মা। তাঁর  জায়গায় আবার অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান হলেন   এম নাগেশ্বর রাও। এখানে উল্লেখ্য গত ২৪ ঘণ্টায় অলোক বর্মা বদলির নির্দেশ পাওয়া ১০ অফিসারকে সরিয়ে দেন। একইসঙ্গে ৫ জন অফিসারের বদলির নির্দেশ কার্যকর করেন। গত বছরের অক্টোবর মাসে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় অলোক বর্মাকে রাতারাতি সরিয়ে দেওয়া হয়। পরে সুপ্রিম কোর্ট তাঁকে দায়িত্ব ফিরিয়ে দিলেও কোনও নীতিগত সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেয়। একইসঙ্গে আগামী ৩১ জানুয়ারি অবসর নিতে চলা অলোক বর্মা সিবিআই ডিরেক্টর পদে থাকতে পারবেন কিনা সেটা নির্বাচনী কমিটির হাতে ছেড়ে দেয়। এই কমিটিতে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীস সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ও লোকসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খারগে। শেষ মুহূর্তে বিচারপতি গগৈ সরে দাঁড়ান। তাঁর জায়গায় দায়িত্ব দেন বিচারপতি একে সিকরিকে। আজ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাসভবনে সন্ধ্যার বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, অলোক বর্মাকে সরিয়ে দেওয়া হবে পদ থেকে। সূত্রের খবর, বৈঠকে উপস্থিত কংগ্রেসের মল্লিকার্জুন খারগে এই সিদ্ধান্তের তুমুল বিরোধিতা করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ২-১এ  অলোক বর্মার অপসারণে সীলমোহর পড়ে।  

  • তৃনমূলের ডাকা ব্রিগেডের মহাসভায় বামপন্থী দলগুলি উপস্থিত থাকবে না

    ডেস্ক, ৯ই জানুয়ারীঃ  আজ হায়দ্রাবাদে সংবাদসংস্থা পিটিআইকে সিপিআইয়ের সাধারণ সম্পাদক এস সুধাকর রেড্ডি  জানিয়েছেন  ১৯ জানুয়ারি  তৃনমূলের ডাকা  ব্রিগেডের মহাসভায় উপস্থিত থাকছে না বামপন্থী দলগুলি।  ১৯ জানুয়ারি  তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপি-বিরোধীদের নিয়ে একজোট করে ফেডারেল ফ্রন্ট গঠনের উদ্দেশ্যে একটি বিরাট মহাসভার আয়োজন করা হয়েছে তৃণমূল সুপ্রিমো ম্মতা বন্ধোপাধ্যায়-র উদ্যোগে, এবং সেই  মহাসভায় উপস্থিত থাকার কথা বহু উল্লেখযোগ্য বিরোধী দলনেতা ও নেত্রীর। সুধাকর রেড্ডি বলেন, "আমাদের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ-এ  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পর্ক অত্যন্ত তিক্ত। তাই বামপন্থী দলগুলি কোনওভাবেই ওই সভায় যোগ দিতে পারে না। তবে, অন্যান্য দল যদি ওই মহাসভায় যোগ দেয়, তা নিয়ে আমাদের কিছু বলার নেই। তবে, আমরা ঠিক  করেছি, জাতীয় স্তরে বিরোধী দলগুলি একসঙ্গে মিলে একটি ফেডারেল ফ্রন্ট গড়ব। যদিও, এই রাজ্যে কী হবে, তা নিয়ে আমরা নিঃসংশয়। এই রাজ্যে আমরা এই জোটে সামিল হতে  পারব না"।