দেশ


  • লোকসভায় ভাষন শেষে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আলিঙ্গন করে সংসদ মাত করে দিলেন রাহুল গান্ধী।

    Newsbazar24,ডেস্ক, ২০ জুলাইঃ  আজ সংসদে নিজের ভাষন শেষে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আলিঙ্গন করে সংসদ মাত করে দিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। রাহুলের এই চালে প্রধানমন্ত্রী মোদীও অবাক হয়ে  যান। রাহুল গান্ধী তার ভাষনে  নরেন্দ্র মোদীকে  আক্রমণের পর আক্রমণ করে গেলেন তারপর  ভাষণ শেষে মোদীকে আলিঙ্গন করে সংসদ মাত করে দিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তিনি তাঁর ভাষণের শেষ পর্যায়ে বলেন, আপনারা আমাকে ঘৃণা করতে পারেন। আমাকে না ভালোবাসতে পারেন। কিন্তু আমি আপনাদের ভালোবাসব। সবাইকে সেই ভালোবাসা দিয়েই জয় করে নেব। এরপরই বিজেপি সাংসদ হারসিমরাত কউর বাদল  রাহুলকে নতুন নামে বিভূষিত করলেন। রাহুলকে এবার মুন্নাভাইয়ের সঙ্গে তুলনা করে বসলেন সাংসদ । তিনি বলেন, এটা সংসদ, এটা মুন্নাভাইয়ের পাপ্পি-ঝাপ্পির জায়গা নয়। তারপরই  রাহুলের সমালোচনা শুরু করে দেন সাংসদ। তখনই লোকসভার স্পিকার সুমিত্রা মহাজন বলে ওঠেন, আপনি তো হাসছিলেন রাহুল গান্ধীর বক্তব্য চলার সময়। তিনি চুপ করিয়ে দেন সাসংদকে। শুধু হারসিমরাত কউর বাদলই নন, রাহুলের সমালোচনা করেন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী স্মৃতি ইরানিও। স্মৃতি ইরানি বলেন, রাহুল গান্ধী এদিন লোকসভায় মিথ্যা ভাষন দিয়ে গেলেন। পাশাপাশি    লোকসভা নির্বাচনের প্রচার চালালেন  সংসদে। তাঁর হাতে কোনও প্রমাণ ছিল না, শুধু রাজনৈতিক নেতিবাচক বক্তব্য প্রকাশ করেছেন। কেন্দ্রীয়মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি বলেন, তিনি নিজেই যে প্রতিটি নির্বাচনে লড়াই করেছেন তার প্রতি তার মূল্য রয়েছে। সেকথা ভুলে গেলে চলবে না। উল্লেখ্য, এদিন রাহুল তাঁর ভাষণে প্রধানমন্ত্রী ও বিজেপি সরকারকে চাঁছাছোলা ভাষায় আক্রমণ করেন। রাহুল  আজ সংসদে অভিযোগ করেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ রাফালে চুক্তি নিয়ে মিথ্যে বলেছেন। রাহুল দাবি করেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী ফ্রান্সের সঙ্গে ভারতের রাফালে বিমানের দাম গোপন রাখার বিষয়ে চুক্তি থাকার কথা বললেও ফরাসী প্রেসিডেন্টের ম্যাক্রঁ রাঁর কাছে এরকম কোনও চুক্তির কথা অস্বীকার করেছিলেন। জবাবি ভাষণে রাফালে চুক্তি নিয়ে লোকসভায় রাহুল গান্ধীর অভিযোগ সঠিক নয় বলে জানালেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। রাহুল তাঁর অভিযোগের সপক্ষে কোনও প্রমাণ দিতে না পারলেও, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী কিন্তু ফরাসী প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রঁর সাক্ষাতকার তুলে দেখিয়ে দিলেন তা রাহুলের কথার পরিপন্থী।

  • আগামী অগাস্ট বা সেপ্টেম্বরের মধ্যেই নতুন ১০০টাকার নোট বাজারে আসতে চলেছে

    Newsbazar 24,ডেস্ক।১৯ জুলাইঃ ভারতের রিজার্ভ ব্যাঙ্ক  নতুন ১০০ টাকার নোট  খুব শিঘ্রই বাজারে  আনতে চলেছে । জানা গেছে নতুন এই নোটের রঙ ল্যাভেন্ডার কিংবা হালকা বেগুনি রঙের মতো হবে। এর আগে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক ২০০ টাকা, ২০০০ টাকা , ৫০০ টাকা, ৫০ টাকা , ১০ টাকা ও ২ টাকার  পর এবার  নতুন ১০০ টাকার নোট বাজারে আনছে।  আগামী অগাস্ট বা সেপ্টেম্বরের মধ্যেই এই নোট বাজারে আনতে চলেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক সূত্রে জানা গেছে। তবে নতুন নোট আসায় পুরনো ১০০  টাকার নোট বাতিল হচ্ছে না। নতুন নোট থাকছে মাইক্রো স্ক্রুটিনি ফিচার। বিশেষ বৈশিষ্ট হিসাবে থাকবে গুজরাতের ঐতিহাসিক 'রানি কী ভাও'-এর ছবি পিছনে । সামনের দিকে থাকছে গান্ধীজীর ছবি এবং রিজার্ভ ব্যাঙ্ক-র গভর্নর উরিজিত প্যাটেলের সই।   আগের ১০০ টাকার নোটের থেকে নতুন ১০০ টাকার নোটগুলি আকারে ছোট হবে বলে জানা গিয়েছে। তবে এগুলি ১০ টাকার নোটের থেকে বড় হবে। নতুন নোট বিভিন্ন এটিএম -এ পাঠিয়ে দেওয়া হবে। উল্লেখ্য, নোটবাতিলের পর  ২০০০ টাকার ও ৫০০ টাকার নতুন নোট বাজারে আনে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। পরবর্তী পর্যায়ে ২০০, ৫০, ১০ টাকার নোটও নতুনভাবে আসে বাজারে। এবার আসতে চলেছে নয়া ১০০ টাকার নোট।    

  • ছত্তিসগড়ের বস্তারে মাওবাদীদের সাথে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ৮ মাওবাদী নিহত

    Newsbaza24, ডেস্ক, ১৯শে জুলাই; আজ সকালে ছত্তিসগড়ের বস্তারে বিজাপুর ও দান্তেওয়াড়া জেলার সীমান্তে  মাওবাদীদের সাথে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে মারা গিয়েছে আট মাওবাদী।  এলাকা থেকে দুটি ইনসাস রাইফেল উদ্ধার করা হয়েছে বলে  খবর পাওয়া গেছে। সূত্রে জানা যায় মাওবাদীরা প্রচুর পরিমাণ গোলাবারুদ এবং বিস্ফোরক নিয়ে এলাকায় জমায়েত করেছিল। সূত্র থেকে আরও জানা যায় যে নিরাপত্তা বাহিনী বিশ্বস্ত সূত্রে খবর পায় যে মাওবাদীদের একটি দল বিজাপুর ও দান্তেওয়াড়া জেলার সীমান্তে প্রচুর পরিমাণ গোলাবারুদ এবং বিস্ফোরক নিয়ে এলাকায় জমায়েত করেছিল। নিরাপত্তা বাহিনী ভোরবেলা এলাকায় তল্লাশি অভিযান শুরু করে। অভিযানে ছিল  দান্তেওয়াড়া ডিআরজি এবং এসটিএফ। গাঙ্গালুর এবং বিজাপুরে মাওবাদীদের সঙ্গে গুলি বিনিময় হয়। তবে তিমেনার এলাকা ঘিরে ফেলতেই মাওবাদীদের দিক থেকে ব্যাপকভাবে গুলি বর্ষণ শুরু করা হয়। পাল্টা গুলি চালায় নিরাপত্তা বাহিনী। তাতে আট জন মাওবাদী নিহত হন। মাওবাদী  অপারেশনের ডিআইজি পি সুন্দর রাজ সাংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার  সকাল ছটা নাগাদ গোলাগুলি শুরু হয়। বিজাপুর ও দান্তেওয়াড়া জেলার সীমান্তে তিমেনার এবং পুষানারের মধ্যে দান্তেওয়াড়া ডিস্ট্রিক্ট রিজার্ভ গার্ড এবং স্পেশাল টাস্কফোর্সের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষ-এ আট জন মাওবাদী নিহত হন। ঘটনাস্থল থেকে দুটি ইনসাস রাইফেল, একটি বারো বোরের রাইফেল-সহ আরও বেশ কিছু অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। ডিআইজি আরও জানিয়েছেন, ৮টি দেহের মধ্যে ৪ জন পুরুষ এবং ৪ জন মহিলার। এখানে উল্লেখযোগ্য যে গতমাসের শেষ সপ্তাহে লাতেহারের বুড়া পাহাড়ে মাওবাদীদের ল্যান্ডমাইন বিস্ফোরণে নিরাপত্তা বাহিনীর এক সদস্যের মৃত্যু হয়।  

  • বিরোধীদের হই হট্টগোলের মধ্যেই আজ বুধবার শুরু হল সংসদের বাদল অধিবেশন।

    Newsbazar24, ডেস্ক,১৮ইজুলাইঃ বিরোধীদের হই হট্টগোলের মধ্যেই আজ বুধবার শুরু হল  সংসদের বাদল অধিবেশন। এনডিএ-এর প্রাক্তন শরিক টিডিপি প্রথম দিনই লোকসভায়  সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনল । যদিও অধিবেশন শুরু হতেই স্পিকার সুমিত্রা মহাজনের আবেদনের কর্ণপাত করেননি বিরোধী সাংসদরা। শুরু থেকেই টিডিপি সদস্যরা হট্টগোল চালিয়ে যেতে থাকেন। গণপিটুনি নিয়ে আলোচনার দাবি জানাতে থাকে তৃণমূল কংগ্রেসও। বিক্ষোভ দেখায় আরজেডিও। এনডিএ-র প্রাক্তন শরিক টিডিপির তরফে মঙ্গলবার অনাস্থার নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এই অনাস্থা প্রস্তাবে ১২ টি দল সামিল হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। স্পিকার এই প্রস্তাব গ্রহণ করেছেন। দু-তিন দিনের মধ্যে বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে। প্রসঙ্গত গত মার্চেই এনডিএ-ত্যাগ করেছে  চন্দ্রবাবু নাইডুর দল। এদিন লোকসভার জিরো আওয়ারে টিডিপি সাংসদ  শ্রীনিবাস অনাস্থা প্রস্তাবটি দাখিল করেন। এই নিয়ে সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী অনন্ত কুমার জানান যে কোনও অনাস্থা প্রস্তাবের মোকাবিলা করতে তৈরি সরকার, কারন  লোকসভার দুই তৃতীয়াংশ সংখ্যা গরিষ্ঠতা আছে মোদী সরকারের। মুখে এই কথা বললেও বাদল অধিবেশনের প্রথম দিনই পুরনো সঙ্গীর কাছ থেকে এই ধাক্কা খেয়ে অস্বস্তিতে পড়ল মোদী সরকার। এর আগে লোকসভার বাজেট অধিবেশন চলাকালীনও এনডিএ-এর বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব এনেছিল টিডিপি। কিন্তু সেসময় সেই প্রস্থাব গ্রহন করেননি স্পিকার। অনেক সাংসদ সেই সময় ওয়েলে নেমে প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন। তাই ওই প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করার উপযুক্ত পরিবেশ নেই এই যুক্তিতে সেসময় টিডিপির প্রস্তাব খারিজ হয়ে যায়। এই অধিবেশনে ৪৬ টি বিল পেশ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  সংসদে বাদল অধিবেশন শুরুর আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিরোধীদের কাছে অধিবেশন সুষ্ঠুভাবে চালানোর আবেদন জানান। সরকার সব ধরনের আলোচনায় তৈরি বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী। রাজ্যসভায় এদিন অধিবেশনের শুরুতেই শপথ নেন নতুন মনোনীত সদস্যরা। তাঁদের মধ্যে  রয়েছেন, নৃত্যশিল্পী সোনাল মান সিং, লেখক রাকেশ সিনহা, শিল্পী রঘুনাথ মহাপাত্র।  

  • ভারতে আয়করহানায় সর্বপ্রথম বিপুল পরিমানে কালো টাকা ও সোনা উদ্বার।

    Newsbazar24, ডেস্ক, ১৭ জুলাইঃ আয়কর দপ্তরের তল্লাসিতে তামিলনাডুতে এক গাড়ির ভিতর থেকে উদ্বার হল কোটি কোটি নগদ টাকা এবং সোনার বাঁট। সূত্রে জানা যায় আয়কর দপ্তরের হানায় তামিলনাড়ুর এসপিকে ও কো এক্সপ্রেসওয়ে প্রাইভেট লিমিটেড সংস্থার এমডি নাগারাজন সেয়াদুরাই-র কাছ থেকে মোট ১৬৩ কোটি টাকা এবং ১০০ কেজি সোনা উদ্ধার করেছে আয়কর বিভাগ।  তামিলনাডুর বিরোধী ডিএমকে দলের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে এসপিকে ও কো এক্সপ্রেসওয়ে মুখ্যমন্ত্রী পলানিস্বামীর বেনামী সংস্থা । দীর্ঘদিন ধরেই এমডি নাগারাজন সেয়াদুরাইর বিরুদ্ধে আর্থিক নয়ছয় করার অভিযোগ ছিল । সোমবার সেই অভিযোগের তদন্তেই তাঁর বাড়ি ও আরও কয়েকটি জায়গায় তল্লাশি চালায় আয়কর বিভাগ। তাঁর বাড়ি থেকে  মাত্র ২৪ লক্ষ টাকা পাওয়া গিয়েছিল। এরপর আয়কর বিভাগের কর্তারা গোপন সূত্রে জানতে পারেন  নাগারাজন তার বেশ কয়েকটি গাড়ি সংস্থার বিভিন্ন কর্মী ও তাঁর পরিচিতদের বাড়িতে রেখেছেন। এই তথ্য পাওয়ার পরই সেইসব বাড়িতে হানা দেয় আয়কর বিভাগের তদন্তকারীরা।  সালেম নামে এক ব্যাক্তির  বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় তাঁর বাড়ির গ্যারাজে নাগরাজনের একটি বিএমডব্লু গাড়ি রাখা আছে। কিন্তু ওই ব্যক্তির কাছে সেই গাড়ির চাবি ছিল না। ডেকে আনা হয় গাড়ির চালককে। চালক গাড়িটি খুলতেই তার ভেতর থেকে পাওয়া যায় একটি বিশাল ব্যাগ। তার মধ্যে ছিল ২০ কোটি নগদ টাকা। সেই টাকা উদ্ধারের পরই বাকি নাগরাজনের বাকি গাড়িগুলিতেও তল্লাশি চালানো হয়। এক এক করে বের হয় বিপুল নগদ ও সোনার বাঁট। আয়কর বিভাগের এক কর্তা জানিয়েছেন, 'মোট ১০ টি ঝায়গায় হানা দিয়ে মোচ ১৬৩ কোটি টাকার নগদ ও ১০০ কেজির সোনার বাঁট বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এছাড়া বিসেব বহির্ভূত সম্পত্তির সঙ্গে জড়িত বেশ কয়েকটি দলিলপত্র, ডায়েরি, নথি এবং হার্ড ডিস্ক আটক করা হয়।' আয়কর বিভাগ সূত্রে আরও জানা যায় যে  আরও সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার লক্ষে আগামী কয়েকদিন তল্লাশি চলবে । আয়কর কর্তারা আশা করছেন তাতে আরও এরকম সম্পত্তি মিলবে।  আরও জানা যায় যে ভারতে এর আগে আর কখনও এত বেশি পরিমাণে কালো টাকা হিসেবের বাইরে থাকা সোনাদানা বাজেয়াপ্ত হয়নি । বিভাগের কর্তাদের মতে  ২০১৬ সালে নোট বাতিলের পর চেন্নাইয়ের এক খনি মালিকের কাছ থেকে মিলেছিল ১১০ কোটির কালো টাকা। সেটিই এতদিন সর্বোচ্ছ ছিল। নোট বাতিলের সময় সরকার দাবি করেছিল  কালো টাকার কারবার বন্ধ হবে কিন্তু  এদিনের আয়কর হানায় কিন্তু সেই দাবি ভুল প্রমাণিত হল। তবে  এই ঘটনায় শাসক এআইএডিএমকে শিবিরে ব্যাপক অস্বস্থি ছড়িয়ে পড়েছে । নাগরাজনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা রয়েছে অনেক এআইএডিএমকে নেতারই এবং যে বাড়ীতে  বিএমডব্লু গাড়িটিতে টাকা সোনাদানা পাওয়া গিয়েছে সেটি দলেরই  এক নেতার আত্মীয়ের বাড়ি । ঘটনার  ফায়দা তুলতে আসরে নেমে পড়েছে বিরোধী ডিএমকে। তাদের অভিযোগ এর আগে নাগরাজনের  বিরুদ্বে আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ উঠা সত্ত্বেও কোন এক অজানা কারনে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। ।    

  • নিজের বিরুদ্ধেই এফআইআর দায়ের ইউপির পুলিস রাজেন্দ্র ত্যাগীর

    news bazar24: এলাকায় গরুপাচার রুখতে বার্থ হয়ে নিজের বিরুদ্ধে একটি এফআইআর দায়ের করলেন রাজেন্দ্র ত্যাগী। তিনি নিজে ইউপির পুলিস আধিকারিক।ডিপার্টমেন্টের আরও কয়েকজনের বিরুদ্ধেও এফআইআর করেছেন।এলাকার ছাতারি গ্রামে একটি গো হত্যার খবর পান রাজেন্দ্র। সঙ্গে সঙ্গে তিনি তাঁর বাহিনী নিয়ে গ্রামে চলে ‌যান। অভি‌যুক্তদের সঙ্গে পুলিসের সংঘর্ষ হলেও তারা নাগাল এড়িয়ে পালিয়ে ‌যায়। কিন্তু জানায় ‌যায় বিট কনস্টেবল ও গোহত্যার খবর সময়মতো রিপোর্ট না করায় অভি‌যুক্তরা পুলিসের হাত ফসকে পালিয়ে ‌যায়।গো হত্যার ঘটনায় ৬ পুলিস কনস্টেবলের বিরুদ্ধে এফআইআর করেছেন।ঘুষ নেওয়ার অভি‌যোগ ১৯ জনের বিরুদ্ধেও এফআইআর করেছেন।রাজেন্দ্রর কথায়, আমি জানতাম কোনও অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে দায়ি হবেন সংশ্লিষ্ট পুলিস আধিকারিক।ঘটনার দায়িত্ব নিয়ে নিজের বিরুদ্ধেই এফআইআর করে ফেলেন রাজেন্দ্র।

  • আজ জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা। গোটা পুরী জুড়ে শুধুই উত্সবের মেজাজ।

    news bazar24: গোটা পুরী জুড়ে শুধুই উত্সবের মেজাজ। জগন্নাথদেবের রথযাত্রা পদ্মপুরাণ মতে, রথযাত্রায় শ্রীবিষ্ণুর মূর্তিকে রথারোহণ করানোর কথা বলা হয়েছে। আর পুরীর জগন্নাথদেবের মূর্তি যে শ্রীকৃষ্ণ তথা শ্রীবিষ্ণুররই আরেকটি রূপ তা সকলেই স্বীকার করেন। তবে স্কন্দপুরাণে কিন্তু প্রায় সরাসরিভাবে জগন্নাথদেবের রথযাত্রার কথা রয়েছে। ওড়িশার প্রাচীন পুঁথিতে জগন্নাথদেবের রথযাত্রার ইতিহাস প্রসঙ্গে বলা হয়েছে যে এই রথযাত্রার প্রচলন হয়েছিল প্রায় সত্যযুগে। সে সময় আজকের ওড়িশার নাম ছিল মালবদেশ। সেই মালবদেশের অবন্তীনগরী রাজ্যে ইন্দ্রদ্যুম্ন নামে সূর্যবংশীয় এক পরম বিষ্ণুভক্ত রাজা ছিলেন, যিনি ভগবান বিষ্ণুর এই জগন্নাথরূপী মূর্তির রথযাত্রা শুরু করার স্বপ্নাদেশ পেয়েছিলেন। পরবর্তিকালে রাজা ইন্দ্রদ্যুম্ন পুরীর এই জগন্নাথ মন্দির নির্মাণ ও রথযাত্রার প্রচলন করেন। সেই থেকে রাজপরিবারের নিয়ম অনুসারে যিনি রাজা উপাধি প্রাপ্ত হন, তিনি  জগন্নাথ, বলভদ্র ও সুভদ্রাদেবীর রথের সামনে এসে পুষ্পাঞ্জলি দেন এবং সোনার ঝাড়ু দিয়ে রথের সামনে ঝাঁট দেওয়ার পরই পুরীর রথের রশিতে টান পড়ে। শুরু হয় জগন্নাথদেবের রথযাত্রা। পুরীর রথযাত্রা উত্সব হচ্ছে বড় ভাই বলরাম বা বলভদ্র ও বোন সুভদ্রাকে সঙ্গে নিয়ে শ্রীকৃষ্ণের বৃন্দাবন যাত্রার স্মারক। তিন জনের জন্য আলাদা আলাদা তিনটি রথ। রথযাত্রা উত্সবের মূল দর্শনীয় হল এই রথ তিনটি। প্রথমে যাত্রা শুরু করে বড় ভাই বলভদ্রের রথ। এই রথের নাম তালধ্বজ। রথটির ১৪টি চাকা। উচ্চতা ৪৪ ফুট। রথের আবরণের রঙ নীল। তারপর যাত্রা করে সুভদ্রার রথ। রথের নাম দর্পদলন। উচ্চতা প্রায় ৪৩ ফুট। এই রথের মোট ১২টি চাকা। যেহেতু রথটির ধ্বজা বা পতাকায় পদ্মচিহ্ন আঁকা রয়েছে তাই রথটিকে পদ্মধ্বজও বলা হয়ে থাকে। রথের আবরণের রঙ লাল। সবশেষে থাকে জগন্নাথদেবের রথ। রথটির নাম নন্দীঘোষ। পতাকায় কপিরাজ হনুমানের মূর্তি আঁকা রয়েছে তাই এই রথের আর একটি নাম কপিধ্বজ। রথটির উচ্চতা ৪৫ ফুট। এতে ১৬টি চাকা আছে। প্রতিটি চাকার ব্যাস ৭ ফুট। রথটির আবরণের রঙ হলুদ। তিনটি রথের আবরণীর রঙ আলাদা হলেও প্রতিটি রথের উপরিভাগের রঙ লাল।

  • কাশ্মীরে জঙ্গি হামলার শিকার সিআরপিএফ জওয়ানরা : এলাকাজুড়ে শুরু হয়েছে জোর তল্লাশি।

    news bazar24: কাশ্মীরে জঙ্গি হামলার শিকার সিআরপিএফ জওয়ানরা। শুক্রবার সকালের এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে দুই জওয়ানের। জানা গেছে, এদিন সকালে অনন্তনাগের শিরপুরা এলাকায় নজরদারী চালাচ্ছিল সিআরপিএফ-এর একটি দল। সেই সময় তাদের ওপর অতর্কিতে হামলা চালায় জঙ্গিরা। পাল্টা জবাব দেন জওয়ানরাও। জঙ্গি ও সেনাবাহিনীর মধ্যে দীর্ঘক্ষণ গুলির লড়াই চলার পর আহত জওয়ানদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাদের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে এই ঘটনার পর গোটা এলাকাজুড়ে শুরু হয়েছে জোর তল্লাশি।  গত এক সপ্তাহে জম্মু ও কাশ্মীরে সিআরপিএফ জওয়ানদের ওপর এই নিয়ে তৃতীয় হামলার ঘটনা ঘটল। এর আগে পুলওয়ামা ও হায়দরপোরা সেক্টরেও একই ভাবে হামলার ঘটনা ঘটেছে। প্রসঙ্গত, দক্ষিণ কাশ্মীরের কুলগামে গত শনিবার তল্লাশি অভিযান চালানোর সময় সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে পাথরবাজদের। একটা সময় প্রায় পাঁচশো জন যুবক তাদের ঘিরে ধরে হামলা চালায়। ঘটনায় জখম হন বেশ কয়েকজন জওয়ান। সেনার গুলিতে মৃত্যু হয় ৩ পাথরবাজের। প্রাণ হারায় ২২ বছরের শাকির আহমেদ, ২০ বছরের ইরশাদ মজিদ ও নাবালক অন্দলিব। জখম হন আরও অনেকে। হাসপাতালে তাদের চিকিত্সা চলছে। সেনা বিবৃতি দিয়েছে জানিয়েছে, প্রাণহানি নিঃসন্দেহে দুঃখজনক ঘটনা। শুক্রবার সেনাকে লক্ষ্য করে পাথর নিয়ে ব্যাপক হামলা চালানো হয়েছিল। ৪০০-৫০০ জন আগ্রাসী লোক জওয়ানদের কাছাকাছি চলে এসেছিল। তাদের নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি চালাতে বাধ্য হয় সেনা। 

  • হাসপাতাল গাড়ী দিতে অস্বীকার করায় মায়ের মৃতদেহকে মোটরসাইকেলে চাপিয়ে হাসপাতালের পথে।

    Newsbazar24, ডেস্ক,১১ই জুলাইঃ পাশের চিত্রটিতে দেখুন এক যুবক হাসপাতালের গাড়ী না  পেয়ে নিজের মায়ের মৃতদেহকে মোটরসাইকেলে চাপিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে নিয়ে যেতে বাধ্য হলেন। ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের টিকামগড়ে।    স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে আমরা ২০১৮ সালে কোন ভারতবর্ষে বাস করছি, এটা কি  একবিংশ শতাব্দীর ভারতবর্ষ? যেখানে ফের একবার চিকিৎসার সুযোগ না পাওয়ার চিত্র সামনে এল।    ঘটনার বিবরণে জানা যায় সোমবার মধ্যপ্রদেশের টিকামগড় গ্রামে সাপের কামড়ে মৃত্যু হয়েছে কুনওয়ার বাই নামে এক মহিলার। তার পরিবারের পক্ষ থেকে কাছের  মোহনগড়ের জেলা হাসপাতালে দেহ ময়নাতদন্তের জন্য আবেদন করা হয়। অভিযোগ, হাসপাতালের তরফে বাড়িতে মৃতদেহ বহনকারী ভ্যান পাঠাতে অস্বীকার করা হয়। এরপর কুনওয়ার বাই-এর ছেলে এবং পরিবারের সদস্যরা মোটর সাইকেলে করে দেহ নিয়ে যান হাসপাতালে, ময়নাতদন্তের জন্য। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। খবর ছড়িয়ে পড়তেই জেলা প্রশাসনের তরফে ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  অভিযুক্তকে শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন, জেলার প্রশাসনিক আধিকারিক। এই ঘটনায় দেশে যে চিকিৎসার সুবিধার অপ্রতুলতার চিত্র আরও প্রকট হয়ে উঠল।    এবছরের মে মাসে  উত্তর প্রদেশের বদায়ুনে একই ঘটনা ঘটেছিল । মৃতদেহ বহনকারী গাড়ি না পাওয়ায় স্ত্রীর দেহ কাধে করে নিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছিলেন এক ব্যক্তি। তারও আগে উত্তর প্রদেশের সম্ভলে হাসপাতালে যাওয়ার জন্য অ্যাম্বুলেন্স না পাওয়ায় পরিবারের তরফে দেহ নিয়ে যাওয়া হয়েছিল মোটরসাইকেলে। যদিও উভয় ক্ষেত্রেই তাদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।  

  • সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশান বেঞ্চ নির্ভয়া কাণ্ডে দোষীদের ফাঁসির সাজা বহাল রাখল

    Newsbazar24 , ডেস্ক, ৯ই জুলাইঃ সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশান বেঞ্চ  নির্ভয়া কাণ্ডে দোষীদের ফাঁসির সাজা বহাল রাখল । বহাল রইল ৩ ধর্ষকের মৃত্যুদণ্ড।  দোষীদের ফাঁসির সাজা মকুবের আবেদন এদিন খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। ২০১২-র ১৬ ডিসেম্বর রাতে দক্ষিণ দিল্লিতে বাসের মধ্যে ছয়জন মিলে ধর্ষণ করে এক প্যারা মেডিকেল ছাত্রীকে । তারপর তার ওপর নৃশংস অত্যাচার করা হয়েছিল পরবর্তীকালে তাকে উন্নততর  চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে  নিয়ে যাওয়া হয়েছিল কিন্তু ২০১২-র ২৯ ডিসেম্বর সে মারা যায়।       দিল্লি হাইকোর্ট এবং ট্রায়াল কোর্টে এই নির্ভয়া কাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছিল  ছয়জনকে, এবং মৃত্যুদণ্ড-র সাজা ঘোষনা করেছিল, পরবর্তীকালে ২০১৭-তে সুপ্রিম কোর্ট একই সাজা বহাল রাখে। এর মধ্যে রাম সিং তিহার জেলেই আত্মহ্ত্যা করে। এক নাবালক অপরাধী তিনবছর পর ছাড়া পায়। বাকি চারজনের  মৃত্যুদণ্ড দিয়েছিল আদালত। এরমধ্যে ৩ জন ফাঁসির আদেশের বিরুদ্ধে আবেদন করেছিল। তবে প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র এবং বিচারপতি আর বানুমতি এবং বিচারপতির অশোক ভূষণের ডিভিশন বেঞ্চ দোষী মুকেশ(২৯), পবন গুপ্ত(২২) এবং বিনয় শর্মার(২৩) ফাঁসির সাজা বহাল রেখেছে। বিচারপতিরা বলেছেন, এদের ফাঁসির আদেশ  যদি মকুব করা হয় তাহলে সমাজের কাছে ভুল বার্তা যাবে। তাই কোনওভাবেই এদের ফাঁসির আদেশ  পরিবর্তন করা সম্ভব নয়। চতুর্থ দোষী অক্ষয় কুমার সিং ৫ মে, ২০১৭-র সর্বোচ্চ আদালতের আদেশের বিরুদ্ধে রিভিউ পিটিশন দাখিল করেনি। এখন দোযীদের সামনে দুটি উপায় রয়েছে। সুপ্রিম কোর্টে আরোগ্যক্ষম আবেদন। যদি সর্বোচ্চ আদালত তাও  খারিজ করে দেয়, তাহলে আবেদন জানানোর  শেষ উপায় রাষ্ট্রপতি।  

  • কংগ্রেস ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বহুল আলোচিত বিজেপি বিরোধী ফ্রন্টে ভাঙন

    Newsbazar24, ডেস্ক, ৮ জুলাইঃ একইসাথে লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচনের জন্য প্রস্তাবকে কেন্দ্র করে অবিজেপি বিরোধী  ফ্রন্টে ভাঙন দেখা দিল । যদিও সেই অর্থে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অবিজেপি বিরোধী  ফ্রন্ট  গড়ে উঠেনি, একমাত্র দেশের সাম্প্রতিক কিছু উপনির্বাচনে জোট করতে দেখা গেছে। লোকসভা নির্বাচনের সঙ্গে বিধানসভাগুলির নির্বাচন হওয়া উচিত কিনা, সেই প্রশ্নেই দেখা দিয়েছে বিরোধ।  একদিকে সমাজবাদী পার্টি, টিআরএস যখন এই প্রস্তাবকে  সমর্থন করছে, ঠিক তখন বিরোধিতা করছে  তৃণমূল, ডিএমকে, এআইএমআইএম, এআইইউডিএফ এর মত আঞ্চলিক দলগুলি। এপ্রিলে ল-কমিশন জানিয়েছিল, ২০১৯-এ দুটি দফায় লোকসভা এবং রাজ্য বিধানসভাগুলির নির্বাচন সম্পন্ন করা যেতে পারে যদি বেশিরভাগ রাজ্য সংবিধানের দুটি ধারা সংশোধনে মত দেয়।সেই মোতাবেক শনিবার দিল্লীতে ল-কমিশন দেশের উল্লেখযোগ্য রাজনৈতিক দলগুলিকে দুদিনের বৈঠকে ডেকেছিল । সেখানে লোকসভা নির্বাচনের সঙ্গেই বিধানসভাগুলির নির্বাচন করার সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা হয়। অখিলেশ যাদবের নেতৃত্বাধীন সমাজবাদী পার্টি এবং কে চন্দ্রশেখর রাও-এর নেতৃত্বাধীন তেলেঙ্গানা রাষ্ট্রীয় সমিতি ল-কমিশনের লোকসভা ও বিধানসভাগুলির নির্বাচন একসঙ্গে করার প্রস্তাবে মত দিয়েছে। অন্যদিকে. ডিএমকে-র কার্যকরী সভাপতি এমকে স্ট্যালিন এই প্রস্তাবের  বিপক্ষে মত দিয়েছেন।  সমাজবাদী পার্টি নেতা রামগোপাল যাদব বলেছেন, তারা একইসঙ্গে নির্বাচনের পক্ষে। তবে তা শুরু হওয়া উচিত ২০১৯ থেকে। তবে যদি নির্বাচিত প্রতিনিধিরা যদি দল পরিবর্তন করেন কিংবা ঘোড়া কেনাবেচায় যুক্ত থাকেন, তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার পক্ষে রামগোপাল যাদব। এসপি-র মতকে সমর্থন করেছে টিআরএস। এদিকে , ডিএমকে এবিষয়ে দ্বিমত পোষণ করেছে। ডিএমকে-র কার্যকরী সভাপতি এর আগে  ল-কমিশনকে দেওয়া চিঠিতে বলেছেন, লোকসভা ও বিধানসভাগুলির নির্বাচন একসঙ্গে করার ডাক সংবিধানের মৌলিক তত্ত্বের পরিপন্থী।ডিএমকে ছাড়াও, এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করেছে, তৃণমূল কংগ্রেস, হায়দরাবাদের এআইএমআইএম, অসমের অল ইন্ডিয়া ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট এবং গোয়া ফরোয়ার্ড পার্টি।   এনডিএ-র শরিক শিরোমনি অকালি দল এবং এআইএডিএমকে দুই ভোট একসঙ্গে করার পক্ষে। আর অনেক আগে থেকেই বিজেপির তরফে লোকসভা ও বিধানসভাগুলির নির্বাচন একসঙ্গে করা নিয় ল-কমিশনের প্রস্তাবের পক্ষে মত দেওয়া হয়েছে।  

  • ‘এখন থেকে রাজ্যের ইচ্ছামত ডিজি কিংবা পুলিশ কমিশনার পদে নিয়োগ করা যাবে না’-সুপ্রীম কোর্ট

    Newsbazar24,ডেস্ক,৩ জুলাইঃ  সুপ্রীম কোর্টে  দেশে পুলিশ ব্যবস্থার সংস্থার নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের এক  আবেদনের প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিল এখন থেকে রাজ্য সরকারগুলি নিজের ইচ্ছামত ডিজি কিংবা পুলিশ কমিশনার পদে নিয়োগ করতে পারবে না। এবং কোনও ভারপ্রাপ্ত ডিজিপি নিয়োগ করতে পারবে না রাজ্যগুলি।  আরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে  বর্তমান ডিজিপির অবসর গ্রহণের অন্তত তিনমাস আগে থেকে বিষয়টি সম্পর্কে জানাতে হবে ইউপিএসসিকে। ইউপিএসসি থেকে তিনজনের নাম পাঠানো হবে। সেই নাম থেকে রাজ্যের পুলিশ প্রধানকে বেছে নিতে পারবে সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারগুলি। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র ও অপর দুই বিচারপতি  এএম খানউইলকর এবং ডিওয়াই চন্দ্রচূড়ের  ডিভিশন বেঞ্চ রাজ্যগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে, ডিজি কিংবা পুলিশ কমিশনার পদের জন্য একাধিক সিনিয়র পুলিশ অফিসারের নাম ইউপিএসসি পাঠাতে হবে। বদলে ইউপিএসসি তিনজনের নাম বেছে রাজ্যকে পাঠাবে। সেই তালিকা থেকে যে কাউকে রাজ্য নিয়োগ করতে পারবে বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। সুপ্রিম কোর্টের তরফে আরও বলা হয়েছে, এমন কাউকে ডিজিপি পদের জন্য বেছে নিতে হবে, যিনি কাজের জন্য উপযুক্ত সময় পাবেন।  সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, ডিজিপি নিয়োগ নিয়ে রাজ্যের আলাদা কোনও আইন থাকলে, এই আদেশের পর থেকে তা স্থগিত থাকবে। তবে সুপ্রিম কোর্টের এই আদেশের বিরুদ্ধে আবেদন জানানোর জায়গাও খোলা রাখা হয়েছে। এর আগে ২০০৬ সালে পুলিশ ব্যবস্থার সংস্থার নিয়ে  একবার তাদের রায় জানিয়েছিল সুপ্রিম কোর্টে।  সেই রায়ের বিরুদ্ধে পুনরায়  আবেদন জানিয়েছিল কেন্দ্র। এই রায় রাজ্যগুলির পুলিশ  প্রশাসনের  ক্ষেত্রে বড় ধাক্কা বলে মনে করছে প্রশাসনিক মহল ।  

  • পশ্চিমবঙ্গের সন্ত্রাসের চেহারা দেশবাসীর কাছে তুলে ধরার জন্য রাজধানীতে রাজ্য বিজেপির ধরনা

    Newsbazar24, ডেস্ক,২ জুলাইঃ : রাজ্যে  তৃনমূলের সন্ত্রাসের প্রতিবাদে এবার দিল্লির রাজঘাটে ধরনায় বসেছে  রাজ্য বিজেপি। রাজ্যে গনতান্ত্রিক ব্যাবস্থা ফিরিয়ে আনতে কেন্দ্রের  দ্বারস্থ রাজ্য  বিজেপি নেতৃত্ব। নির্বাচনোত্তর পর্বে সন্ত্রাসের শিকার হয়েছে ত্রিলোচন মাহাতো-দুলাল কুমাররা। তাঁদের পরিবারকে নিয়েই এদিন দিল্লিতে ধরনা শুরু করছে বিজেপি নেতৃত্ব। রাজ্যের বিরুদ্ধে আন্দোলন এবার রাজ্য থেকে কেন্দ্রের দরবারে নিয়ে গেল বিজেপি। দিল্লীতে এদিন বিজেপির তরফে দাবি করা হয়,  তাদের বহু কর্মী-সমর্থক পঞ্চায়েত ভোটের মনোনয়ন পর্ব থেকেই ঘরছাড়া।  তাঁদের ঘরে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে এই ধরনায় সামিল হয়েছেন রাজ্য বিজেপির একাধিক নেতা, কেন্দ্রীয় বিজেপির সাধারণ সম্পাদক শিবপ্রকাশ ও কেন্দ্রীয় নেতা সুরেশ পূজারি প্রমুখ। বিজেপির অভিযোগ, তাদের  ৩৩ শতাংশ আসনে প্রার্থী দিতে দেওয়া হয়নি। ফলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। নির্বাচন প্রক্রিয়া চলাকালীন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ২৫ জন কর্মী-সমর্থন খুন হয়েছেন। ভোট শেষ হওয়ার পরও 'শাস্তি'র বিধান চলছে বিভিন্ন এলাকায়। তাঁদের দাবি, বিজেপি করার অপরাধে খুন করা হয়েছে ত্রিলোচন মাহাতো, দুলাল কুমারদের। তাঁদেরকে মেরে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। তারপর এই মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ। রাজ্যের শাসক দলের এই চেহারাই তাঁরা তুলে ধরতে চান সারা দেশের মানুষের কাছে। সেই কারণেই ধরনার মঞ্চ সাজানো হয়েছে রাজধানী দিল্লিতে। এদিন রাজ্যের সন্ত্রাসের প্রতিবাদে বিজেপি সম্পাদক সায়ন্তন বসু সরব হন।

  • লোকপাল নিয়োগ বিল নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার সুপ্রিম কোর্ট-র তোপের মুখে।

    Newsbazar24, ডেস্ক,২ জুলাইঃ লোকপাল নিয়োগ বিল নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার সুপ্রিম কোর্ট-র তোপের মুখে। লোকপাল নিয়োগ  বিল নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে চরম সময়সীমা বেঁধে দিল সুপ্রিম কোর্ট। কত দিনের মধ্যে লোকপাল নিয়োগ করা হবে তা কেন্দ্রকে জানাতে দশ দিন সময় দিল সর্বোচ্চ আদালত। আজ সুপ্রিম কোর্ট-র দুই বিচারপতির ডিভিশান বেঞ্চ হলফনামা দিয়ে কেন্দ্রকে তাদের সিদ্ধান্ত জানানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এই ডিভিশান বেঞ্চে বিচারপতি হিসাবে রয়েছেন বিচারপতি রঞ্জন গগৈ এবং বিচারপতি আর বানুমথি। এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে ১৭ জুলাই। প্রসঙ্গত গত বছরের ২৭ এপ্রিল সর্বোচ্চ আদালত নির্দেশ দেওয়া সত্ত্বেও লোকপাল নিয়োগ না হওয়ায়  মামলা দায়ের করেন 'কমন কজ' নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।  কেন্দ্রের তরফে এই  মামলায় সওয়াল করেন অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে বেনুগোপাল। সুপ্রিম কোর্ট গতবছরে কেন্দ্রকে    জানিয়েছিল  পরবর্তী আইন সংশোধন না হাওয়া পর্যন্ত লোকপাল আইন লাগু না করার কেন্দ্রীয়  সিদ্ধান্ত বেয়াইনি। ১৫ মে কেন্দ্রীয় সরকার সুপ্রিম কোর্টেকে জানিয়েছিল, লোকপাল বাছাইয়ে যে  কমিটি গঠন করা হয়েছে, তাতে রাখা হয়েছে প্রবীণ আইনজীবী মুকুল রোহতগিকে। তবে এই ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্ট-র সময়সীমা বেঁধে দেওয়া নজিরবিহীন। এর মধ্য দিয়ে  দুর্নীতির বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের কড়া বার্তাআরও স্পষ্ট হয়ে উঠল।  

  • দিল্লি-সহ উত্তর ভারতের কিছু অংশে মৃদু ভূকম্পন

    Newsbazr 24:  ডেস্ক, ১লা জুলাইঃ দিল্লি, হরিয়ানায় মৃদু ভূমিকম্প। ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে পশ্চিম উত্তর প্রদেশেও। রবিবার দুপুর ৩.৩৭ নাগাদ এই ভূমিকম্প অনুভূত হয়। ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল হরিয়ানায় বলে জানা গিয়েছে। রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৪। ভূমিকম্পে প্রাণহানি কিংবা সম্পত্তি হানির কোনও খবর পাওয়া যায়নি। মে মাসের প্রথমের দিকে উত্তর আফগানিস্থানে প্রবল ভূমিকম্প হয়েছিল। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৬.২। পাকিস্তান এবং উত্তর ভারতেও সেই সময় ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছিল। আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজধানী ছাড়াও, হাল্কা ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে পাঞ্জাব, হরিয়ানা এবং জম্মু ও কাশ্মীরেও।      

  • উত্তরাখণ্ডে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনা,বাস খাদে পড়ে মৃত্যু ৪৫ জনের

    Newsbazr 24: ডেস্ক, ১লা জুলাইঃ উত্তরাখণ্ডে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনা। একটি যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে যাওয়ায় কমপক্ষে ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর। দুর্ঘটনায় ৮ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে খবর, সকাল ৮.৪৫ নাগাদ উত্তরাখণ্ডের পৌরি গারোয়ালে  দুর্ঘটনাটি ঘটে। রামনগর যাওয়ার  পথে  বাসটি কোটদ্বারে বাঁক নিয়ে গিয়ে উত্তরাখণ্ডের  বাসটি খাদে পড়ে যায়। রাস্তা থেকে  200  মিটার নিচে খাদে গিয়ে পড়ে বাসটি।  খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ ও উদ্ধারকারী দল। আহতদের উদ্ধারে দেরাদুন থেকে হেলিকপ্টার পাঠানো হয়। তবে উদ্ধার কাজে প্রথমেই হাত লাগান স্থানীয়রা। জেলা পুলিশের তরফে ৪৫ জনের মৃত্যুর খবর জানানো হয়েছে।  কিভাবে দুর্ঘটনাটি ঘটল তা এখনও সঠিকভাবে জানা যায়নি। সূত্রে জানা যায় যে ২৮ সিট যুক্ত বাসটিতে প্রায় ৫০ জন ভ্রমণ করছিলেন এবং দুর্ঘটনাটি ঘটে গ্বীন গ্রামের কাছে। উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত এই ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করে বলেছেন নিহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাই এবং নিহতদের পরিবারবর্গকে দুই লক্ষ টাকা ও আহতদের ৫০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ ঘোষনা করেছেন, আরও বলেছেন প্রয়োজনে আহতদের দেরাদুনে হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ এক টুইট বার্তায় নিহতদের পরিবারকে গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।         

  • বর্তমানে সততার সাথে কাজ হচ্ছে দেখে মানুষ দেশ গঠনে এগিয়ে আসছেন- প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

    Newsbazar24, ডেস্ক, ৩০শে জুন; শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী  নয়াদিল্লীতে এইমসএ প্রবীন নাগরিকদের জন্য ন্যাশনাল সেন্টার ফর এজিং-এর ভিত্তিপ্রস্তর  স্থাপন করেন।এখানে প্রবীণ নাগরিকদের জন্য ২০০ বেড রাখা হবে এবং তাদের  মাল্টি-স্পেশালিটি স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হবে। এ ছাড়াও সাফদারজং হাসপাতালে ৫৫৫ বেডের  সুপার স্প্যেশালিটি ব্লকের উদ্বোধন  করেন। এর পাশাপাশি তিনি সাফদারজং হাসপাতালে  ৫০০ টি  নিউ ইমার্জেন্সি ব্লক এবং এইমস-এ ৩০০ বেডের পাওয়ার  গ্রিড বিশ্রাম সদন সাধারন মানুষের জন্য  উৎসর্গ করেন।  প্রধানমন্ত্রী আজ এইমস ,আনসারী নগর ও ট্রমা সেন্টারের  মধ্যে যাতাযাতের  জন্য একটি টানেল পথের উদ্বোধন করেন। এই টানেল পথটি ট্রমা কেন্দ্রে  পৌঁছানোর দূরত্ব কমিয়ে দেবে এবং মূমুর্ষ রোগীকে হাসপাতাল থেকে ট্রমা সেন্টারে,স্থানান্তরিত করা যাবে মাত্র পাঁচ মিনিটের মধ্যে যা আগে লাগত ৩০মিনিটের মত। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী  বলেন  গত ৯ মাসে দেশের ৪২  লক্ষ প্রবীন নাগরিক স্বেচ্ছায় রেলের ভাড়ার প্রবীণ নাগরিকদের কনসেসান  নেননি। ২০১৫ সালের পর থেকে ১.২৫ কোটি পরিবার তাদের গ্যাসের ভর্তুকি ছেড়ে দিয়েছে। ২০১৬ থেকে ১.২৫ কোটি গর্ভবতী নারী বিনামূল্যে চিকিৎসা পেয়েছেন। আসলে বর্তমানে  সততার সাথে  কাজ হচ্ছে দেখে মানুষ দেশ গঠনে এগিয়ে আসছেন। তিনি বলেন 'মানুষ বুঝতে  পারছে, তাদের দেওয়া করের প্রতিটি পয়সা উন্নয়নে খরচ করা হচ্ছে।' তিনি বলেন ২০১৫-য় তিনি সক্ষম পরিবারগুলিকে গ্যাসের ভর্তুকি ছাড়ার জন্য অনুরোধ করেন। ২০১৬-য় ডাক্তারদের আহ্বান জানান মাসে অন্তত একদিন করে বিনা খরচায় গর্ভবতীদের চিকিফসার জন্যয দুই ডাকেই অভাবনীয় সাড়া মিলেছে। প্রবীনদের ক্ষেত্রে তিনি কিছুই আবেদন করেননি, তাঁরা নিজেরাই এগিয়ে এসে  রেলের টিকিটে ছাড় নেননি। তার সরকারের সততা দেখেই তারা দেশ গঠনে সাহায্য করতে উদ্যোগী হয়েছেন বলে তিনি দাবি করেন। নতুন হাসপাতাল গড়া বা আধুনিক চিকিৎসার সুবিধা দেওয়ার মধ্যেই তাঁর সরকারের চিকিৎসা ভাবনা সীমাবদ্ধ নয় বলেও জানান তিনি। বলেন, সরকারের লক্ষ্য অতি কম খরচে দেশএর প্রতিটি নাগরিকের চিকিৎসা সুনিশ্চিত করা। আর তার জন্যই সরকার একটি বিস্তারিত চিকিৎসা নীতি গ্রহণ করেছে। যে নীতির ফলে গরীব ও প্রান্তিক মানুষেরা সবচেয়ে উপকৃত হচ্ছেন।  

  • জম্মু ও কাশ্মীরে সেনাবাহিনী ও জঙ্গী সংঘর্ষ অব্যাহত।নিহত ৪ জঙ্গী আহত ৩ জওয়ান

    Newsbazar24, ডেস্ক, ৩০শে জুন; জম্মু ও কাশ্মীরে সেনাবাহিনী ও জঙ্গী সংঘর্ষ অব্যাহত। ইতিমধ্যে গতকাল ও আজ মিলিয়ে  তিনটি পৃথক ঘটনায় চার জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে। মারা গিয়েছেন একজন কিশোর। আহত নিরাপত্তা বাহিনীর তিন জওয়ান । দক্ষিণ কাশ্মীরের পুরওয়ামায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে গুলি যুদ্ধে তিন জঙ্গি এবং বিক্ষোভরত এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। উত্তর কাশ্মীরের কুপওয়ারায় কাচামা ফরেস্টের ওপরের অংশে টহলরত নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে  জঙ্গীদের সংঘর্ষএ মারা গিয়েছে এক জঙ্গি। পরে নিরাপত্তা বাহিনীয় এলাকায় তল্লাশি অভিযান শুরু করে। সেখান থেকে এক জঙ্গির দেহ সহ  একে সিরিজের একটি রাইফেলও উদ্ধার করা হয়েছে। দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপিয়ানে সেনাবাহিনীর টহলদারি ভ্যানের ওপর জঙ্গিরা গ্রেনেড ছুঁড়লে তিন জওয়ান আহত হন। গোপন সূত্রে জঙ্গিদের লুকিয়ে থাকার খবর পেয়ে পুলওয়ামার চাটপোরা গ্রামে হানা দেয় জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশের এসওজি, সেনা ও সিআরপিএফের মিলিত বাহিনী। শুক্রবার বিকেলেই শুরু হয় অভিযান। তল্লাশি চলাকালীন জঙ্গিরা গুলি চালাতে শুরু করলে জওয়ানরাও পাল্টা গুলি চালায়। পরে জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের প্রধান এসপি বেদ জানিয়েছেন, সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই তিন জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে। এদিকে, জঙ্গিদের সঙ্গে গুলি যুদ্ধের খবর ছড়িয়ে পড়তেই স্থানীয়রা বিক্ষোভ শুরু করেন। পাল্টা ব্যবস্থা নেয় নিরাপত্তা বাহিনী। এই সময় পাম্পোরের বাসিন্দা  এক কিশোরে মৃত্যু হয় বলে জানা গিয়েছে।  

  • আজ আধারের সঙ্গে প্যান সংযুক্ত করার শেষ দিন,না করে থাকলে তাড়াতাড়ি করুন

    news bazar24: আজ আধারের সঙ্গে প্যান সংযুক্ত করার শেষ দিন,যদি না করে থাকেন তাহলে কিন্তু বিপদ আপনার ঘাড়ে দাঁড়িয়ে।এই কাজ করা না থাকলে কিন্তু পরে ব্যাপক হয়রানির মুখে পড়তে হতে পারে আপনাকে। সব থেকে বড় কথা, আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন না আপনি। পাবেন না ট্যাক্স রিটার্ন। কারণ, আধারের সঙ্গে প্যান সংযুক্তিকরণ বাধ্যতামূলক করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।অনলাইনে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন না আপনি। এমনকী বাতিল হতে পারে আপনার প্যানকার্ড। প্রথমে আয়কর বিভাগের ই-ফাইলিং ওয়েবসাইটে যান www.incometaxindiaefiling.gov.in ওয়েবসাইটের হোমপেইজে দেখতে পাবেন 'লিংক আধার' বটন।,আয়কর বিভাগের ওয়েবসাইটে আপনার অ্যাকাউন্ট না থাকলে প্রথমে অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে।তার পর লগ ইন করে প্রোফাইল সেটিংয়ের মধ্যে আধার কার্ড লিংক করার অপশনে ক্লিক করুন।এর পর আপনার আধার নম্বর দিয়ে সাবমিট প্রেস করলেই কাজ সারা। 

  • হবু বরের অস্বাভাবিক আচরণে আসরেই বিয়ে ভেঙে দিলেন কনে

    news bazar24: শোনপুর থানার চিতরসেনপুরে কনের সঙ্গে বিয়ে ঠিক হয় সরনের ওই ছেলের।শুক্রবার বিয়ের আসরে চলছিল নানা আচার অনুষ্ঠান। বাইরে অঝোরে বৃষ্টি।সেই সময় নিকটবর্তী একটি মাঠে বাজ পড়ে। ওই দৃশ্য দেখেই অদ্ভূত আচরণ করতে থাকেন যুবক। ভয়ে শিটিয়ে যেতে দেখা যায় তাঁকে।ওই দৃশ্য দেখেই অদ্ভূত আচরণ করতে থাকেন যুবক। ভয়ে শিটিয়ে যেতে দেখা যায় তাঁকে।বিহারের সরন এলাকার এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো শোরগোল পড়ে গেছে।

  • অমরনাথ যাত্রা আপাতত স্থগিত রাখা হল।

    Newsbazar24 ডেস্ক,২৯শে জুনঃ অমরনাথ যাত্রা আপাতত বন্ধ রাখা হল তবে জঙ্গী হানার জন্য নয় প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে।   অমরনাথ যাত্রার মুল আয়োজক অমরনাথ শ্রাইন বোর্ড (এসএএসবি) জানিয়েছে, আবহাওয়া পরিস্থিতির উন্নতি হলে  তারা আগামী দিনের অমরনাথ যাত্রা নিয়ে সিদ্ধান্ত জানাবে।  এদিকে প্রথম দিন মাত্র ১০০৭ জন তীর্থযাত্রী অমরনাথ দর্শন করতে পেরেছেন। তারপর থেকই প্রবল বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। অমরনাথ  যাওয়ার  দুটি পথই প্রবল বৃষ্টিপাতের জন্য বিপজ্জনক হয়ে পড়েছে। বৃহস্পতিবার বাল্টালের দিক থেকে ১৩১৬ জন ও পহলগাম থেকে মাত্র ৬০ জন অমরনাথের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিলেন। অমরনাথ শ্রাইন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে  বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত মাত্র ১০০৭ জন তীর্থযাত্রীরই বরফ নির্মিত শিবলিঙ্গটি দেখার সৌভাগ্য হয়েছে। তবে শুধু মাত্র আবহাওয়া  নয়, আছে জঙ্গি হানার ভয়ও। কড়া নিরাপত্তার মধ্যে বুধবার সন্ধ্যাতেই তীর্থযাত্রীদের প্রথম দলটিকে নিয়ে আসা হয়েছিল কাশ্মীরের বাল্টাল ও পহলহামের শিবিরে। প্রায় ৩০০০ জন তীর্থযাত্রী ছিলেন সেই দলে। যাত্রার দায়িত্বে থাকা সরকারি আধিকারিকরা জানিয়েছেন, শুক্রবার থেকে সড়করথ ব্যবহারের অনুমতি মিলেছে। তারপরেই ভগবতীনগরের শিবির থেকে ৩৪৩৪ জন তীর্থযাত্রীর দ্বিতীয় দলটিও কাশ্মীরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন। কোনও বাধা বিপত্তি না ঘটলে তাঁরা সন্ধ্যার মধ্যেই নুনবান-পহলগাম ও বাল্টালের শিবিরে পৌঁছে যাবেন। তবে এবছর সবার পক্ষে অমরনাথ দর্শন সম্ভব নাও হতে পারে  কারন  তীর্থযাত্রীদের সংখ্যা গতবারের চেয়ে অনেক বেশী। তার উপর খারাপ আবহাওয়ার জন্য যাত্রা সাময়িক ভাবে  বন্ধ রাখা হল । এই তীর্থযাত্রার জন্য সময় নির্ধারিত ৬০ দিন। আগামী ২৬ আগস্ট যাত্রার শেষ দিন। অমরনাথে যাওয়ার জন্য নাম নথিভুক্ত করেছেন ২ লক্ষেরও বেশি মানুষ। গতবারের কথা মাথায় রেখে এবার  নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও জোরদার করা হয়েছে । প্রথমবারের মতো,  যাত্রীদের যানবাহনে রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি ট্যাগ ও সিআরপিএফ-এর জওয়ানরা ক্যামেরা ও প্রাণরক্ষাকারী সরঞ্জাম নিয়ে একটি মোটরসাইকেল বাহিনী তৈরি রেখেছেন। এখন প্রশ্ন  খারাপ আবহাওয়ার মোকাবিলা কিভাবে করা হবে।  

  • ভারতের প্রথম আদিবাসী রানীর স্বীকৃতি ওড়িশার কোরাপুটের পল্লবী দুরুয়ার

    Newsbazar,ডেস্ক, ২৬ জুনঃ উড়িষ্যা সরকারের ব্যাবস্থাপনায় একটি সর্বভারতীয় স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা আয়োজিত আদিবাসী রানী প্রতিযোগিতায় ভারতের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করল ওড়িশার কোরাপুটের বাসিন্দা পল্লবী দুরুয়া ,দ্বিতীয় তিতলাগড়ের পঞ্চমী মাঝি এবংতৃতীয় স্থান দখল  করে ময়ুরভঞ্জের রশ্মিরেখা হাঁসদা। ওড়িশার ভুবনেশ্বরের উৎকল মণ্ডপে “আদি রানি ২০১৮ কোলিঙ্গ ট্রাইবাল কুইন প্রতিযোগিতার”  আয়োজন করা হয়েছিল। ভারতে এই ধরনের প্রতিযোগিতা এই প্রথম। এই প্রতিযোগিতা  দেশের বিভিন্ন রাজ্য থেকে প্রায় একশোর বেশি আদিবাসী যুবতী অংশগ্রহণ করেছিলেন। এর মধ্য থেকে ২০ জন প্রতিযোগীকে চুড়ান্ত পর্যায়ের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছিল। ২০ প্রতিযোগী উৎকল মণ্ডপের র‍্যাম্পেও হাঁটেন। এই প্রতিযোগিতা ছাড়াও সাতটি আলাদা ক্যাটাগরিতেও পুরস্কার দেওয়া হয়। সেগুলি হল আদিবাসী পোশাক, আলোকিত মুখ, সেরা ত্বক, সেরা ব্যক্তিত্ব, অলংকারের সেরা উপস্থাপন, সংস্কৃতির সেরা উপস্থাপনা আর সেরা প্রতিভা। আদি রানি কোলিঙ্গ ট্রাইবাল কুইন প্রতিযোগিতায় পুরস্কার প্রাপ্ত এই তিনজনকে এবার দেখা যাবে আদিবাসী সংস্কৃতির ওপর তৈরি একটি ছোট ছবিতে। মুম্বইয়ের এক প্রযোজক ছবিটি তৈরি করছেন। পল্লবী জানিয়েছেন, তার মতোই অনেক আদিবাসী কিশোরী-যুবতীরা পড়াশোনার  সুযোগ পান না। তবে প্রতিযোগিতায় পুরস্কার পাওয়ার পর আশা, অনেকের কাছেই তাঁর এই কৃতিত্ব দৃষ্টান্ত স্বরূপ হয়ে থাকবে। একইসঙ্গে কুসংস্কারের বিরুদ্ধেও তার লড়াই চলবে  বলে জানিয়েছেন পল্লবী। ।

  • অমরনাথ যাত্রা বানচাল করার লস্কর-এ-তৈবার ২০জন জঙ্গি ভারতে প্রবেশ করেছে।

    Newsbazar, ডেস্ক, ২৬শে জুনঃ কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা দপ্তরের রিপোর্ট থেকে জানা গেছে যে  অমরনাথ যাত্রা বানচাল করার  জন্য পাক মদতপুষ্ট ২০ জন জঙ্গি ইতিমধ্যে  ভারতে প্রবেশ করেছে । তারা  তীর্থ যাত্রীদের ওপর হামলা চালাতে একাধিক  পরিকল্পনা করেছে বলে জানা গেছে। সূত্র থেকে আরও জানা যায় , যে ২০ জন জঙ্গি ভারতে প্রবেশ করেছে ,তারা সকলেই লস্কর-এ-তৈবার জঙ্গি।পাক অধিকৃত কাশ্মীর থেকে জঙ্গিদের এই দুটি দল ভারতে ঢুকেছে। দুটি আলাদা গোষ্ঠীতে ভাগ হয়ে এরা ভারতের মাটিতে প্রবেশ করেছে।  অমরনাথের তীর্থযাত্রীদের তাক করে তাঁদের ওপর হামলা চালানোই এই জঙ্গিদের প্রধান লক্ষ্য। কাশ্মীর উপত্যকার কঙ্গন  এলাকায় আক্রমণ শানানো এই জঙ্গিদের প্রধান লক্ষ্য। গোয়েন্দা রিপোর্টে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে আসতেই অমরনাথ যাত্রায় নিরাপত্তা আরও বেশি জোরদার করা হয়েছে। উল্লেখ্য,গতবছর অমরনাথ যাত্রায় পূণ্যার্থীদের নিয়ে রওনা হওয়া বাসে রাতের অন্ধকারে হামলা চালায় জঙ্গিরা। জঙ্গি হামলার ঘটনায় ৬ জন মহিলা সহ গুজরাত ও মহারাষ্ট্রের ১০ জন পূণ্যার্থীর মৃত্যু হয়।   এর আগেও ২০০১ সাল অমরনাথ যাত্রায় জঙ্গি হামলার ঘটনায় ১৩ জনের মৃত্যু হয় ঘটেছে।    আর সাম্প্রতিক গোয়েন্দা রিপোর্টের প্রেক্ষিতে এই যাত্রা ঘিরে নিরাপত্তা আরও কড়া করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে ।

  • জম্মু ও কাশ্মীরের কুলগাঁওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে খতম ২ জঙ্গী

    Newsbazar ডেস্ক, ২৪জুনঃ জম্মু ও কাশ্মীরের কুলগাঁওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে মৃত্যু হল দুই জঙ্গির। রবিবার বিকেলের দিকে এই সংঘর্ষ হয়। তৃতীয় এক জঙ্গি আত্মসমর্পণ করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। জঙ্গিরা লস্করের সদস্য বলে জানা গিয়েছে। এই ঘটনার পর থেকে কুলগাঁও-এ ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।জম্মু ও কাশ্মীরের ডাইরেক্টর জেনারেল অফ পুলিশ সেস পল ভেদ এই ঘটনার কথা টুইট করেছেন পাশাপাশি যৌথবাহিনীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।    ২৮ জুন থেকে শুরু হওয়া অমরনাথ যাত্রাকে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সেনা-সিআরপিএফ-এর জাতীয় সড়কে পাহারা দিচ্ছিল সেই সময়  চাড্ডার এলাকায় রোড ক্লিয়ারিং পার্টির ওপর জঙ্গিরা হামলা চালায় বলে জানা গিয়েছে। সেনাবাহিনী পাল্টা আক্রমনে দুই জঙ্গির মৃত্যু হয়এবং এক জঙ্গী পালাতে না পেরে  আত্মসমর্পণ করে। এখানে উল্লেখ্য গত  ২২ জুন নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ৪ আইএসআইএস জঙ্গির মৃত্যু হয়েছিল। যার মধ্যে ছিল নিষিদ্ধ ঘোষিত আইএস-এর কাশ্মীরের প্রধান দাউদ আহমেদ সফি। গুলি যুদ্ধে এক পুলিশকর্মী এবং এক সাধারণ বাসিন্দারও মৃত্যু হয়।    

  • ভারতীয় সেনাবাহিনীর বড়সড় সাফল্য, নিহত জম্মু কাশ্মীরের আইএস প্রধান দায়ুদ আহমেদ সালাফি।

    Newsbazar,ডেস্ক ২৩ জুনঃ ভারতীয় সেনাবাহিনীর জঙ্গী দমন অভিযানে বড়সড় সাফল্য। শুক্রবার কাশ্মীর উপত্যকায় ভারতীয় সেনাবাহিনীর জঙ্গী দমন অভিযানে খতম হয়েছে জম্মু  কাশ্মীরের আইএস প্রধান দায়ুদ আহমেদ সালাফি-সহ আরও তিন জঙ্গি। দক্ষিণ কাশ্মীরের নৌশেরা গ্রামে ভারতীয় সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে  নিহত হয়েছেন তারা। তবে সেনাবাহিনীর দাবী যে কাশ্মীরে এখনও ২১ জন নামকরা জঙ্গী রয়েছে তাদেরকে  সরিয়ে দিতে পারলেই উপত্যকা তুলনামূলকভাবে শান্ত থাকবে। কাশ্মীরের আইএস প্রধান সালাফির বিরুদ্ধে সেনার থেকে অস্ত্র ছিনতাই করা, সেনাকে লক্ষ্য করে পাথর নিক্ষেপ করা-সহ যৌথবাহিনীর উপর অজস্র সন্ত্রাসবাদী হামলার  অভিযোগ ছিল । জম্মু কাশ্মীরে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির পর থেকে  সেনা-পুলিশ যৌথবাহিনীর প্রথম  বড় অভিযান ছিল এটাই । সেনাবাহিনীর সূত্র থেকে জানা গেছে যে, তারা শুক্রবার সালাফির নিহত হওয়ার ঘটনাকে সাফল্য হিসাবে দেখলেও , তারা বলছে,  এখনও ২১ জন বড় জঙ্গি-চাঁই' বাইরে রয়েছে এবং এদেরকে খতম করার লক্ষে  ইতিমধ্যেই  অভিযানের পরিকল্পনা শুরু করে দিয়েছে  যৌথবাহিনী। এই ২১ জনের মধ্যে ১১ জনই জঙ্গি গোষ্ঠী হিজবুল মুজাহিদীনের।  বাকিদের মধ্যে আছে লস্কর-ই-তৈবা-র ৭ জন, জইশ-ই-মহম্মদ'এর দুজন এবং আনসার ঘাজওয়াত উল হিন্দের একজন। সূত্রের আরও খবর, বর্তমানে এই ২১ জনকে খতম করাটাই সেনার অগ্রাধিকারে রয়েছে। তারা মনে করছে এদের সরিয়ে দিতে পারলেই উপত্যকা তুলনামূলকভাবে শান্ত থাকবে। এবং জঙ্গিগোষ্ঠীগুলো ছত্রভঙ্গ হয়ে যাবে। সূত্রটি আরও জানিয়েছে, এই ২১  জনের মধ্যে ৬ জনের নাম রয়েছে 'এ-প্লাসপ্লাস' অর্থাত অতি বিপজ্জনক জঙ্গির তালিকায়। এই ৬ 'এ-প্লাসপ্লাস' জঙ্গির ৪ জন হিজবুলের, যার মধ্যে ৩ জন পাকিস্তানি।  এদের মাথার দাম থাকে ১২ লক্ষ টাকা করে।