দেশ


  • কাশ্মীরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে জঙ্গি আইইডি বিশেষজ্ঞ সহ আর এক জঙ্গির মৃত্যু হল।

    ডেস্ক ১৩ জানুয়ারীঃ  শনিবার সন্ধ্যার দিকে দক্ষিণ কাশ্মীরে কুলগাম জেলার কাটোপরা এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে জঙ্গীদের সংঘর্ষে দুই জঙ্গির মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে একজনের নাম জিনাত-উল-ইসলাম । জানা গেছে সে একজন আইইডি বিশেষজ্ঞ ।সেখানে বেশ কিছু অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।  সূত্রে জানা যায় নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে গোপন সূত্রে খবর আসে যে কাশ্মীরে কুলগাম জেলার কাটোপরা এলাকায় কয়েকজন জঙ্গি লুকিয়ে রয়েছে। খবর পেয়ে বাহিনীর জওয়ানরা সেখানে পৌঁছে গোটা এলাকা ঘিরে ফেলেন। পালাবার পথ না পেয়ে জঙ্গিরা প্রাণ ভয়ে গুলি চালাতে শুরু করে। নিরাপত্তা বাহিনী পাল্টা জবাব দেয়। তাতেই মৃত্যু হয় দুজনের। জানা গেছে এই ঘটনায় গ্রামবাসী বা নিরাপত্তা বাহিনীর কেঊ আহত হননি। মৃত দুই জঙ্গীর মধ্যে জিনাত-উল-ইসলাম  নামে এক জঙ্গীকে সনাক্ত করা গেছে। সে আল বাবরের আগে সে ইন্ডিয়ান মুজাহিদিনের সঙ্গে যুক্ত ছিল। সে সময়ও একাধিক নাশকতার ঘটনায় তার নাম জড়িয়েছিল। ইতিমধ্যে দুই জঙ্গির কাছ  থেকে বেশ কিছু অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। সেগুলি নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে  বাহিনী।

  • দায়িত্ব নেওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ফের অপসারিত সিবিআই প্রধান অলোক বর্মা,

    নিউ দিল্লি: অপসারিত সিবিআই প্রধান অলোক বর্মা সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে তার  পদটি ফিরে পেয়েছিলেন ৪৮ ঘণ্টা আগে। কিন্তু আবার আজ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের স্থির করে দেওয়া কমিটি তাকে পদ থেকে সরিয়ে  দিল। প্রসঙ্গত উচ্চ ন্যায়ালয় অলোক বর্মাকে  তার পদ ফিরিয়ে দেওয়ার সময় বলেছিল তাঁর পরবর্তী ভাগ্য নির্ধারণের ক্ষমতা দেওয়া হল  প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে নির্বাচনী প্যানেলকে। এদিন সেই  প্যানেলের বৈঠকেই স্থির হয়েছে যে অলোক বর্মাকে সিবিআই প্রধান পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে ।  অর্থাৎ  ক্ষমতা ফিরে পাওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ফের ক্ষমতাচ্যুত হলেন অলোক বর্মা। তাঁর  জায়গায় আবার অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান হলেন   এম নাগেশ্বর রাও। এখানে উল্লেখ্য গত ২৪ ঘণ্টায় অলোক বর্মা বদলির নির্দেশ পাওয়া ১০ অফিসারকে সরিয়ে দেন। একইসঙ্গে ৫ জন অফিসারের বদলির নির্দেশ কার্যকর করেন। গত বছরের অক্টোবর মাসে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় অলোক বর্মাকে রাতারাতি সরিয়ে দেওয়া হয়। পরে সুপ্রিম কোর্ট তাঁকে দায়িত্ব ফিরিয়ে দিলেও কোনও নীতিগত সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেয়। একইসঙ্গে আগামী ৩১ জানুয়ারি অবসর নিতে চলা অলোক বর্মা সিবিআই ডিরেক্টর পদে থাকতে পারবেন কিনা সেটা নির্বাচনী কমিটির হাতে ছেড়ে দেয়। এই কমিটিতে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীস সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ও লোকসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খারগে। শেষ মুহূর্তে বিচারপতি গগৈ সরে দাঁড়ান। তাঁর জায়গায় দায়িত্ব দেন বিচারপতি একে সিকরিকে। আজ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাসভবনে সন্ধ্যার বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, অলোক বর্মাকে সরিয়ে দেওয়া হবে পদ থেকে। সূত্রের খবর, বৈঠকে উপস্থিত কংগ্রেসের মল্লিকার্জুন খারগে এই সিদ্ধান্তের তুমুল বিরোধিতা করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ২-১এ  অলোক বর্মার অপসারণে সীলমোহর পড়ে।  

  • তৃনমূলের ডাকা ব্রিগেডের মহাসভায় বামপন্থী দলগুলি উপস্থিত থাকবে না

    ডেস্ক, ৯ই জানুয়ারীঃ  আজ হায়দ্রাবাদে সংবাদসংস্থা পিটিআইকে সিপিআইয়ের সাধারণ সম্পাদক এস সুধাকর রেড্ডি  জানিয়েছেন  ১৯ জানুয়ারি  তৃনমূলের ডাকা  ব্রিগেডের মহাসভায় উপস্থিত থাকছে না বামপন্থী দলগুলি।  ১৯ জানুয়ারি  তৃণমূল কংগ্রেস বিজেপি-বিরোধীদের নিয়ে একজোট করে ফেডারেল ফ্রন্ট গঠনের উদ্দেশ্যে একটি বিরাট মহাসভার আয়োজন করা হয়েছে তৃণমূল সুপ্রিমো ম্মতা বন্ধোপাধ্যায়-র উদ্যোগে, এবং সেই  মহাসভায় উপস্থিত থাকার কথা বহু উল্লেখযোগ্য বিরোধী দলনেতা ও নেত্রীর। সুধাকর রেড্ডি বলেন, "আমাদের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ-এ  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পর্ক অত্যন্ত তিক্ত। তাই বামপন্থী দলগুলি কোনওভাবেই ওই সভায় যোগ দিতে পারে না। তবে, অন্যান্য দল যদি ওই মহাসভায় যোগ দেয়, তা নিয়ে আমাদের কিছু বলার নেই। তবে, আমরা ঠিক  করেছি, জাতীয় স্তরে বিরোধী দলগুলি একসঙ্গে মিলে একটি ফেডারেল ফ্রন্ট গড়ব। যদিও, এই রাজ্যে কী হবে, তা নিয়ে আমরা নিঃসংশয়। এই রাজ্যে আমরা এই জোটে সামিল হতে  পারব না"।   

  • বিজয়া ব্যাঙ্ক ও দেনা ব্যাঙ্ক ব্যাঙ্ক অব বরোদার সাথে সংযুক্তিকরনের সিদ্বান্ত অনুমোদিত হল

    ডেস্ক, ২রা জানুয়ারীঃ কেন্দ্রীয় সরকারের অর্থনৈতিক উপদেষ্টামণ্ডলীর বৈঠকে বুধবার বিজয়া ব্যাঙ্ক, দেনা ব্যাঙ্ক ও ব্যাঙ্ক অব বরোদাকে একত্র করার সিদ্ধান্তটি অনুমোদিত হয়ে গেল। আগামী ১ এপ্রিল ২০১৯ থেকে কার্যকর হবে এই সিদ্ধান্ত।ব্যাঙ্কগুলিকে একসঙ্গে যুক্ত করে দেওয়ার যে সিদ্ধান্তটি ঘোষণা করা হয়েছিল, তার উপর ভিত্তি করে  সরকার আজ জানিয়ে দিল, বিজয়া ব্যাঙ্ক এবং দেনা ব্যাঙ্কের ব্যবসাটি চলবে ব্যাঙ্ক অব বরোদার মাধ্যমে রবং তা  হস্তান্তর করা হবে ব্যাঙ্ক অব বরোদাকে।    বিজয়া ব্যাঙ্ক ও দেনা ব্যাঙ্কের আওতায় থাকা সম্পত্তি বা লাইসেন্সের মতো জরুরি বিষয়গুলিও তৃতীয় ব্যাঙ্কটিকে হস্তান্তর করা হবে। এর ফলে ব্যাঙ্কগুলির বর্তমান পরিস্থিতির কোনও পরিবর্তন হবে না এবং কাউকে ছাঁটাইও করা হবে না", সাংবাদিকদের এই কথা জানান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ।। বিজয়া ব্যাঙ্ক ও দেনা ব্যাঙ্কের সমস্ত স্থায়ী কর্মীকে তৃতীয় ব্যাঙ্কটিতে পাঠানো হবে।  ব্যাঙ্ক অব বরোদার বোর্ড জানিয়েছে, এর ফলে, একজন কর্মচারীর গায়েও যাগতে কোনও আঁচ না পড়ে তা নিশ্চিত করবে তারা।  ব্যাঙ্কগুলির এক হয়ে যাওয়ার ফলে তা যে একটি বিশ্বমানের অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হওয়ার দিকে আরও একধাপ এগিয়ে যাবে, সে ব্যাপারে নিশ্চিত বণিকমহল।  বিজয়া ব্যাঙ্কের ১০ টাকা দামের প্রতি ১০০০ শেয়ারের ক্ষেত্রে ব্যাঙ্ক অব বরোদা ইস্যু করবে ২ টাকা দামের ৪০২'টি শেয়ার এবং একই পরিমাণ দেনা ব্যাঙ্কের শেয়ারের ক্ষেত্রে ইস্যু করবে ২ টাকা দামের ১১০'টি শেয়ার।   প্রায় ১০ লক্ষ ব্যাঙ্ক কর্মচারীরা এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে দু'দিন ব্যাপী ধর্মঘট ডাকার পরেই সরকার সংযুক্তিকরনের সিদ্বান্তএ সীলমোহর দিল     গত বছরের সেপ্টেম্বরেরই এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিল  সরকার। এই মুহূর্তে দেশের ২১'টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের কাছে এই সেক্টরের দুই-তৃতীয়াংশ সম্পত্তি রয়েছে।

  • কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশনে মুখ্য তথ্য কমিশনার শ্রী সুধীর ভার্গব সহ ৪ জন তথ্য কমিশনার শপথ নিলেন

    ডেস্ক, ১লা জানুয়ারীঃ আজ রাষ্ট্রপতি ভবনে ভারতের মুখ্য তথ্য কমিশনার শ্রী সুধীর ভার্গবকে শপথ বাক্য পাঠ করান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। রাষ্ট্রপতি ভবনে এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, উপ রাষ্ট্রপতি শ্রী ভেঙ্কটাইয়া নাইডু, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রাজনাথ সিং ও অর্থমন্ত্রী অরুন জেটলী।    মুখ্য তথ্য কমিশনার শ্রী সুধীর ভার্গব শপথ নেওয়ার পর তিনি আজ নতুন দিল্লিতে অপর  চারজন তথ্য কমিশনারকে শপথবাক্য পাঠ করালেন কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশনে। এই চারজন তথ্য কমিশনার হলেন যথাক্রমে – শ্রী যশবর্ধন কুমার সিন্‌হা, শ্রীমতী বনজ এন সারনা, শ্রী নীরজ কুমার গুপ্তা এবং শ্রী সুরেশ চন্দ্র। তথ্য কমিশনার হিসেবে এই চারজন শপথ নেওয়ার ফলে মুখ্য তথ্য কমিশনার সহ তথ্য কমিশনারের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াল সাত-এ।      

  • "ধন্যবাদ জানিয়ে ভারতীয় সেনাকে ছোটো করব না। তাদেরকে স্যালুট। তাঁরাই রিয়েল হিরো।"

    ডেস্ক,  ২৯শে ডিসেম্বরঃ  ভারী তুষারপাতের জন্য  শুক্রবার থেকে নাথুলা ও ছাঙ্গুতে প্রচুর পর্যটক আটকে পড়েছিলেন । ওই  রাস্তায় বন্ধ হয়ে গেছিল গাড়ি চলাচল। আটকে পড়েছিল কয়েকশ গাড়ি। মহিলা,বৃদ্ব ও শিশু সহ পর্যটকদের ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা।সে সময় ত্রাতার ভূমিকায় এগিয়ে এলেন এগিয়ে এলেন ভারতীয় সেনারা। ভারতীয় সেনারা প্রায় ৩০০০ পর্যটককে উদ্ধার করে সেনা ব্যারাকে নিয়ে যান।  ১৭ মাইল ও ১৩ মাইলে সেনা ব্যারাকে রাত কাটান পর্যটকরা। শিশু, মহিলা ও বয়স্ক পর্যটকদের জন্য আলাদা ব্যাবস্থা করা  হয়। শিশুদের জন্য গরম দুধ বা বয়স্কদের জন্য গরম জল- সব প্রয়োজনই হাসিমুখে মেটান জওয়ানরা। খাবার ও গরম পোশাকেরও ব্যবস্থা করে সেনা। অসুস্থ ৯০ জন পর্যটকের চিকিৎসার বন্দোবস্ত করা হয়। তারপর বেলচা ও পরে বুলডোজ়ার দিয়ে রাস্তা পরিষ্কার করে নিজেদের গাড়ি করে  বিপুল সংখ্যক পর্যটককে গ্যাংটকে নামিয়ে আনেন জওয়ানরা। সেনাদের এই আথিতেয়তায় মুগ্ধ পর্যটকরা। তাঁরা ফেরার সময় সেনাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়ে বোর্ডে লিখে আসেন শুভেচ্ছা বার্তা। শুভেচ্ছা বার্তায় কেউ লিখেছেন, "ধন্যবাদ জানিয়ে ছোটো করব না। ভারতীয় সেনাকে স্যালুট। তাঁরাই রিয়েল হিরো।" আবার কেউ লিখেছেন, "ভগবানকে চোখে দেখিনি। কিন্তু, ভারতীয় সেনাকে দেখলাম।" আটকে পড়া পর্যটকদের  মধ্যে  কলকাতার  এক বাসিন্দা জানিয়েছেন   জওয়ানদের প্রতি আমরা  কৃতজ্ঞ । তুষারপাতের স্মৃতি মনে থাকবে। কিন্তু, বিপদে সেনা জওয়ানরা যেভাবে এগিয়ে এলেন তা কখনও ভুলব না। তাঁরাই পরিত্রাতা ও ভগবান।" একই প্রতিক্রিয়া বৃদ্ধা মাকে নিয়ে ছাঙ্গুতে ঘুরতে আসা এক  সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়র জানান , "ছাঙ্গুতে এসে দেখলাম রিয়েল হিরোদের। জওয়ানদের ছবি তুলে নিয়ে যাচ্ছি। মাইনাস টেম্পারেচারে শুধু সীমান্ত রক্ষাই নয়, আমাদের প্রতি পদে রক্ষা করেছেন তাঁরা।" ভারতীয় সেনার পক্ষ থেকে ব্রিগেডিয়ার কে এস ধাওয়াল জানান , "আচমকা তুষারপাতের জন্য রাস্তায় বরফ জমে যায়। ফলে অসংখ্য পর্যটক আটকে পড়েন।  যে পর্যটকরা ১৩০০০ ফুট উচ্চতায় আটকে ছিলেন, তাঁদের আমরা ৯০০০ ফুট উচ্চতায় নামিয়ে পর্যটকদের ট্রানজ়িট ক্যাম্পে রেখেছি । তাঁদের প্রত্যেকে যাতে চিকিৎসার সুবিধা পান, তার ব্যাবস্থা  করেছি। সকালে রাস্তা সাফ করার পর যে সব পর্যটক অসুস্থ অবস্থায় ছিলেন, তাঁদের নামিয়ে আনা হয়। মহিলা, শিশু সহ সকলেই যাতে পর্যাপ্ত খাবার পান, চিকিৎসার সুবিধা পান তা দেখেছি আমরা।" পাশাপাশি সেনা আধিকারিক জানান, শুভেচ্ছার বোর্ডে পর্যটকরা যে বার্তা লিখে গেছেন তার ছবি তুলে রাখা হবে। তাঁরা পর্যটকদের পাশে দাঁড়াতে পেরে অত্যন্ত গর্বিত। গর্বিত পর্যটকরাও তাঁদের দেশে এমন জওয়ান থাকায়। তাই আজ বিকেলে যখন গাড়িতে করে পর্যটকেরা ফিরে যাচ্ছেন তখন পর্যটকদের অভিবাদন করেছেন জওয়ানরা। পর্যটকরাও জয়হিন্দ বলে তার প্রত্যুত্তর দিয়েছেন।         

  • কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত হল খসড়া ন্যাশনাল কমিশন ফর হোমিওপ্যাথি বিল ২০১৮

    ডেস্ক, ২৮শে ডিসেম্বরঃ প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর পৌরহিত্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে খসড়া ন্যাশনাল কমিশন ফর হোমিওপ্যাথি বিল ২০১৮ অনুমোদিত হয়েছে। এই খসড়া বিলে স্বচ্ছতা সুনিশ্চিত করতে বর্তমান সেন্ট্রাল কাউন্সিল ফর হোমিওপ্যাথির পরিবর্তে নতুন একটি কর্তৃপক্ষ গঠনের প্রস্তাব রয়েছে।        এই খসড়া বিলে তিনটি স্বশাসিত পর্ষদ সহ একটি জাতীয় কমিশন গঠনের কথা বলা হয়েছে। হোমিওপ্যাথি শিক্ষাপর্ষদকে শিক্ষাপ্রদান ব্যবস্হার যাবতীয় দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। মূল্যায়ন ও রেটিং সংক্রান্ত পর্ষদ হোমিওপ্যাথি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির মূল্যায়ন করবে এবং এথিক্স পর্ষদ জাতীয় রেজিস্টার সংক্রান্ত বিষয় পরিচালনা করবে। এই খসড়া বিলে অভিন্ন প্রবেশিকা পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তাব রয়েছে। এছাড়া হোমিওপ্যাথি প্রতিষ্ঠানগুলিতে শিক্ষকদের নিয়োগ এবং পদোন্নতির পূর্বে গুণমান মূল্যায়ণের জন্য পরীক্ষার প্রস্তাব করা হয়েছে। জাতীয় মেডিক্যাল কমিশনের সঙ্গে সঙ্গতি বজায় রেখে হোমিওপ্যাথির মেডিক্যাল শিক্ষায় সংশোধনের প্রস্তাব এই বিলে রয়েছে।  

  • কাশ্মীরে নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে গুলির লড়াইতে নিহত কুখ্যাত জঙ্গি জাকির মুসা সহ ৫জন।

    ডেস্ক, ২২ ডিসেম্বরঃ আজ জম্মু ও কাশ্মীরের পুলওয়ামায়  নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে গুলির লড়াইতে  প্রাণ হারাল ছ'জন জঙ্গি। এই গুলির লড়াইতে প্রাণ হারাল কাশ্মীরের অন্যতম কুখ্যাত জঙ্গি জাকির মুসা।বাকী ৫ জঙ্গিই জ়াকির মুসার জঙ্গি সংগঠনের সদস্য বলে জানা গেছে। কাশ্মীর পুলিশের আই জি এস পি পানি জানান যে আজ সকালে জঙ্গি সংগঠন আনসার গাজ়ওয়াতুল হিন্দের গোপন আস্তানায় অভিযান চালায় যৌথ বাহিনী কাশ্মীর পুলিশ ও নিরাপত্তারক্ষীরা।নির্দিষ্ট সূত্র থেকে খবর পেয়ে চারদিক ঘিরে দিয়ে নিরাপত্তাবাহিনী জঙ্গিদের খোঁজে তল্লাশি আরম্ভ করে। ওই তল্লাশি চলাকালীনই জঙ্গিরা গুলি ছুঁড়তে শুরু করে। অবশেষে নিরাপত্তাবাহিনীর গুলিতে খতম হয় ৬ জন জঙ্গি। তিনি সাধারন মানুষদের অভিনন্দন  জানিয়েছেন এই তল্লাসী অভিযানে নিরাপত্তাবাহিনীকে সহযোগিতা করার জন্য । (ছবিতেকাশ্মীর পুলিশের আই জি এস পি পানি সংবাদ সংস্থাকে ঘটনার বিবরন দিচ্ছেন ছবিটি এ এন আইর টুইটার থেকে নেওয়া)       

  • গ্রেফতার তোলাবাজির মামলায় অভিযুক্ত ভারতী ঘোষের সহযোগী

    newsbazar24: পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুরের তোলাবাজির মামলায় অভিযুক্ত সুজিত মণ্ডলকে  দিল্লি থেকে গ্রেফতার  করে সিআইডি। গ্রেফতার সুজিত মণ্ডল ভারতী ঘোষের সহযোগী। অভিযোগ, হুমকি দিয়ে, ভয় দেখিয়ে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে তোলা তুলতেন প্রাক্তন আইপিএস ভারতী ঘোষ। তাঁকে সহযোগিতা করতেন সুজিত মণ্ডল।২০১৬-য় নোটবন্দির সময়ে ব্যাপক হারে বাজার থেকে নগদ তুলেছিলেন সুজিত মণ্ডল। স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মোটা টাকা তোলা আদায় করা হত।প্রধান অভিযুক্ত প্রাক্তন আইপিএস ভারতী ঘোষ এখনও ফেরার। এই মামলায় এর আগেও বেশ কয়েকজন পুলিস অফিসারকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি।

  • ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট বা মোবাইল সংযোগের ক্ষেত্রে আধার আর বাধ্যতামূলক নয়।

    ডেস্ক, ১৭ই ডিসেম্বরঃ  কেন্দ্রীয় সরকার লোকসভার শীতকালীন অধিবেশনে আধার সংক্রান্ত সংশোধনী আইন পাস করাতে চলেছেন। আইনে বলা হয়েছে  ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট বা মোবাইল সংযোগের ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক নয় আধার।  আর আইন সংশোধনীর জন্য  যে সমস্ত পদক্ষেপ জরুরি সেগুলি সোমবার থেকে  শুরু  করল কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভা ।এর আগে আধার আইনের ৫৭  নম্বর ধারা  যে ধারায় বলা হয়েছিল নাগরিকদের ব্যক্তিগত তথ্য কোনও বেসরকারি সংস্থা  জানতে পারবে, তা বাতিল করে সর্বোচ্চ আদালত। আর এটা আইনে পরিণত হলে  ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলা  হোক বা নতুন  সিম কেনার সময় আধার  তথ্য দিতে  বাধ্য থাকবেন না কোনও নাগরিক।   আধার কার্ড  নিয়ে বেশ  কয়েকটি মামলা  হয়  সুপ্রিম কোর্টে।  দীর্ঘ দিন ধরে শুনানি চলার পর সুপ্রিম কোর্ট জানায় আধার বৈধ। কারণ তা সমাজের প্রান্তিক মানুষদের স্বার্থ রক্ষা করে। কিন্তু কোনও বেসরকারি সংস্থা  আধার তথ্য চাইতে পারে না। একই সঙ্গে  আদালত জানায় প্যান কার্ডের সঙ্গে আধার নম্বর যুক্ত করারও কোনও প্রয়োজন নেই। এর আগে অবশ্য আধারের বৈধতা নিয়ে  তৎকালীন প্রধান বিচারপতি  দীপক মিশ্র রায় দিয়েছিলেন  ৯৭ শতাংশ  মানুষ  যখন উপকৃত হচ্ছে তাই আধারের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে পারে না।