You are here: Homeদেশসারা দেশItems filtered by date: Saturday, 02 December 2017

ডেস্ক, ২রা ডিসেম্বরঃ আগামী কাল যুবভারতীতে আই লীগের এই মরশুমের প্রথম ডার্বি।  দুই দলই প্রস্তুত মহারনে।  

ইস্টবেঙ্গল আইজ়লের সঙ্গে প্রথম ম্যাচে ২ গোলে এগিয়ে থেকেও ড্র করতে হয়েছে কে। ময়নাতদন্তে উঠে এসেছে ডিফেন্সের ভুল। প্রথম ম্যাচে দু’টি গোল হয়েছে ডেড বল সিচুয়েশন থেকে। মরশুমের প্রথম ডার্বির  আগে আজ অনুশীলনে এই দিকটা খতিয়ে দেখলেন কোচ খালিদ জামিল। দেখে নিলেন দলের দুই গোলকিপার মিরশাদ ও লুই ব্যারেটোকে।
প্রথম ম্যাচে ডিফেন্সের ভুলে গোল খাওয়ায় কিছুটা চাপে ইস্টবেঙ্গল। তার প্রধান কারণ অবশ্যই বিপক্ষে সোনি, ক্রোমা, ডিকার মতো ফুটবলার। সূত্রের খবর, আগামীকাল ৪-১-৪-১ ছকে দলকে নামাতে পারেন খালিদ জামিল। সেক্ষেত্রে ডিফেন্সে থাকছেন এডু ও সালামরঞ্জন সিং। দুই ব্যাকে থাকছেন মেহতাব সিং ও দীপক কুমার। ব্লকার হিসেবে থাকছেন বাজো। অ্যাটাকিং মিডিও থাকছেন আমনা ও কাৎসুমি। ডানদিকে রফিক ও কিংশুক। স্ট্রাইকারে থাকছেন প্লাজ়া। অনুশীলন শেষে দলের প্রথম একাদশকে নিয়ে বৈঠক করেন খালিদ জামিল। দেখানো হয় মোহনবাগান ম্যাচের ভিডিও। ডার্বি খেলেছেন। কিন্তু লাল-হলুদ জার্সিতে প্রথমবার মাঠে নামছেন কাৎসুমি। তিনি বলেন, “এই ডার্বি আমার কাছে স্পেশাল। যে করেই হোক, এই ম্যাচ থেকে পুরো তিন পয়েন্ট তুলতে চাই।”

 এদিকে  মোহনবাগান শিবিরে আত্মবিশ্বাসের ছাপ স্পষ্ট। অনেকগুলো কারণে এই ম্যাচে নিজেদের ফেভারিট রাখছে টিম সবুজ-মেরুন। ইস্টবেঙ্গলকে সমীহ করেও সহকারী কোচ শংকরলাল চক্রবর্তী, শিল্টন পাল বা কিংসলেরা প্রত্যয়ী। দাবি, মরশুমের প্রথম ডার্বি জিতবেন তাঁরাই। টিমের কাছে ভালো খবর। ফিট হয়েছেন মোহনবাগানের দুই গুরুত্বপূর্ণ সদস্য উটা কিনোওয়াকি ও আজ়হারউদ্দিন মল্লিক। হয়তো তাঁদের প্রথম একাদশে রাখবেন কোচ সঞ্জয় সেন।গতবছর কাৎসুমির সঙ্গে খেলেছেন। এবার সেই কাৎসুমি ইস্টবেঙ্গলে। খেলবেন লাল-হলুদ জার্সিতে। কোচ খালিদ জামিলকে আগে থেকে সতর্ক করেছেন তিনি। টিমের রং বদলে দিতে পারেন সোনি নর্ডি। কাৎসুমির মতে, ওকে থামালেই অর্ধেক কাজ শেষ।

এই বড় ম্যাচে বাগান রক্ষণকে নেতৃত্ব দেবেন কিংসলে। দায়িত্ব অনেক। ডিফেন্ডার কিংসেলে বলেন, “ইস্টবেঙ্গল দারুণ টিম। ওদের প্রধান ফুটবলার আল আমনা। ওর সঙ্গে খেলেছি। জানি ও কী করতে পারে। আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।” তবে ডার্বিতে একটা ভুলই সব শেষ করে দিতে পারে। সেটা ভালো করেই জানে মোহনবাগান। টিমকে অনেক ডার্বি জিতিয়ে এবার অভিজ্ঞ সোনি নর্ডি। গাইড করবেন নতুনদের।
দীর্ঘদিন ডার্বিতে সাফল্য নেই ইস্টবেঙ্গলের। সেই খিদে ডার্বিতে মেটাতে চাইবে লাল-হলুদ ব্রিগেড। তা ভালো করেই জানেন মোহনবাগান কোচ সঞ্জয় সেন। নিজেদের ফেভারিট ধরলেও, বাড়তি ঝুঁকি নিয়ে পয়েন্ট খোয়াতে চায় না মোহনবাগান।

 

Published in Football

ডেস্ক, ২রা ডিসেম্বরঃ বিজেপির রাজ্য কমিটি  কাঁকিনাড়ায় দিলীপ ঘোষের উপর হামলার প্রতিবাদে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় পথ অবরোধ ও বিক্ষোভে সামিল হল। তারই অঙ্গ হিসাবে  শনিবার বিজেপি  লালবাজার অভিযানের ডাক  দিয়েছিল। সেই লালবাজার অভিযানকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে বিবি গাঙ্গুলি স্ট্রিট চত্বর। ব্যারিকেড করে মিছিল আটকাতেই শুরু হয় খণ্ডযুদ্ধ। বিজেপি কর্মীদের পাল্টা আঘাতে গুরুতর জখম হন পুলিশকর্মীরা। অপরদিকে আসানসোল-সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় অবরোধ ও বিক্ষোভে সামিল বিজেপি। শুক্রবার সন্ধ্যায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ কাঁকিনাড়ায় সভা সেরে ফেরার পথে হামলার মুখে পড়েন। একদল দুষ্কৃতী দিলীপবাবুর গাড়ি লক্ষ্য করে চড়াও হয় বলে অভিযোগ। ইট, বাঁশ, লাঠি নিয়ে হামলা চালানো হয়। কিল-চড় ঘুসিও মারা হয় কর্মীদের। এই পরিস্থিতিতে দিলীপবাবুর দেহরক্ষী শূন্যে গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। ওই দেহরক্ষীও ইটের আঘাতে গুরুতর জখম হন বলে অভিযোগ।

এই ঘটনায় বিজেপি দায়ী করেছে  ভাটপাড়ার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক অর্জুন সিংয়ের দলবলের দিকে। অভিযোগ তৃণমূল আশ্রিত গুণ্ডাবাহিনীই এই হামলার মূলে ছিল। দিলীপবাবু বলেন, 'আমচকাই একদল দুষ্কৃতীয় তাঁরা গাড়ির উপর চড়াও হয়। বাঁশ, লাঠি নিয়ে কর্মীদের উপর চড়াও হয়ে মারধর করতে শুরু করে।' সকালে সভাস্থলে হামলা চালিয়ে যথেচ্ছ ভাঙচুর করা হয়। ভেঙে দেওয়া হয় সভামঞ্চ। তবু বিজেপি নেতৃত্ব সভা করার ব্যাপারে এককাট্টা ছিল। সেইমতোই পুনরায় সভার আয়োজন করে বিজেপি। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও যান সেই সভায় যোগ দিতে। তারপর সভা সেরে ফেরার পথে হামলার মুখে পড়েন দিলীপবাবু। তারই প্রতিবাদে লালবাজার অভিযানের ডাক দেওয়া হয়। জেলায় জেলায় বিক্ষোভ কর্মসূচিও নেওয়া হয়। লালবাজার অভিযান আটকাতে প্রায় ২০০ মিটার দূরে এদিন ব্যারিকেড করে পুলিশ। সেই ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়। ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে বিজেপি কর্মী-সমর্থক ও পুলিশের মধ্যে। দু-পক্ষেরই বেশ কয়েকজন জখম হন।

 

Published in State

ডেস্ক, ২রা ডিসেম্বরঃ  বীরভূমের তৃনমূল  জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর  উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জ করে বলেন, ' আপনি বীরভূমে আসুন, আমি আপনাকে আন্ডারপ্যান্ট পরিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেব। আর আপনার চ্যালেঞ্জ নিয়ে আমি মু্র্শিদাবাদের মাটিতে মিটিং করব। পারলে আমার পাঞ্জাবিটা খুলে দেখাবেন।'

রীতিমত হুঙ্কার দিয়ে অনুব্রত মণ্ডল এদিন বীরভূমের এক জনসভায় বলেন, 'আপনি যেমনটি বলেছেন, আমি  একজন পুলিশ নিয়েও আপনার ওখানে যাব না, কোনও নিরাপত্তারক্ষীও আমার সঙ্গে থাকবেন না। আপনি আমার পাঞ্জাবি খুলে দেখান। না পারলে বীরভূমে এলে আপনাকে আন্ডারপ্যান্ট পরিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেব’। এর আগে  অধীরবাবুকে তোপ দেগে বীরভূমের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল বলেছিলেন, তিনি চোখ তুলে তাকালে অধীর প্রস্রাব করে ফেলবে। এবার বললেন, অধীরের প্যান্ট খুলে নেওয়ার কথা।পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে যেভাবে  কু-কথার রাজনীতির আমদানী হচ্ছে  তাতে রাজনৈতিক মহল উদ্বেগ প্রকাশ করছেন।

বিরোধীদের উদ্দেশ্যে অনুব্রত মণ্ডলের নিত্যনতুন তোপ দাগা প্রসঙ্গেই অধীর চৌধুরী অনুব্রত মণ্ডলকে উদ্দেশ্য করে বলেছিলেন, 'দিদি-র ভাইয়েরা শুনেছিলাম বড় বড় পালোয়ান। সেই পালোয়ানদের বলুন না পুলিশ ছাড়া পালোয়ানি করে দেখাতে। তাহলেই বোঝা যাবে কত ক্ষমতা।' আর তারপরই মহম্মদবাজারের জনসভা থেকে সেই চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে অনুব্রত হুঙ্কার ছাড়েন, 'অধীর যেখানেই ডাকবেন, সেখানেই আমি পালোয়ানি করতে রাজি। অধীর শুধু বলুক কোথায় পালোয়ানি করতে হবে।' সেইসঙ্গেই তিনি মন্তব্য করেন, 'আমি যদি ঠিকমতো তাকাই ও প্রস্রাব করে ফেলবে। ওসব বড় বড় কথা বেরিয়ে যাবে।'

এরপরই তাঁর কটাক্ষ, দিল্লিতে আপনার দল তৃণমূলকে ছাড়া চলতে পারব না। আমরা কিন্তু আপনাদের ছাড়াই চলতে পারি।'

Published in State

২রা ডিসেম্বরঃ দুই শিশুর খেলা নিয়ে বচসার জেরে লোহার রড় দিয়ে চতুর্থ শ্রেণীর এক ছাত্রীর মাথা ফাটানোর অভিযোগ উঠলো প্রতিবেশী এক মহিলার বিরুদ্ধে। আক্রান্ত ছাত্রী চিকিৎসাধীন মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার হবিবপুর থানার ঋষিপুর অঞ্চলের দেবীপুর গ্রামে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। অভিযুক্ত মহিলা পলাতক।

জানা গেছে, আক্রান্ত ছাত্রীর নাম সীমা চৌধুরী। সে ধুমবালু প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণীতে পড়াশোনা করে। অভিযুক্ত মহিলা নমিতা চৌধুরী পলাতক। আক্রান্ত ছাত্রীর বাবা হরিলাল চৌধুরী জানান, প্রতিবেশী এক শিশু দেবা চৌধুরীর সঙ্গে খেলা করছিলো তাদের মেয়ে সীমা। সেই সময় দেবা সীমার সাইকেলে বমি করে দেয়। অভিযোগ, এই কথা দেবার মা নমিতা চৌধুরীর কাছে নালিশ করে সীমা। এর পরে লোহার রড় নিয়ে নমিতা আঘাত করে সীমার মাথায়। এর পর ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত। পরিজনেরা জানতে পেরে রক্তাত্ত অবস্থায় ছাত্রীকে উদ্ধার করে প্রথমে বুলবুলচন্ডি গ্রামীণ হাসপাতালে ভরতি করেন। সেখানে তার শারিরীক অবস্থার অবনতি হলে শুক্রবার রাতে তাকে স্থানান্তর করা হয় মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন ওই ছাত্রী। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে স্থানীয় হবিবপুর থানার পুলিশ।


Published in Malda-Dinajpur-2

ডেস্ক, ২রা ডিসেম্বরঃ দুই শিশুর খেলা নিয়ে বচসার জেরে লোহার রড় দিয়ে চতুর্থ শ্রেণীর এক ছাত্রীর মাথা ফাটানোর অভিযোগ উঠলো প্রতিবেশী এক মহিলার বিরুদ্ধে। আক্রান্ত ছাত্রী চিকিৎসাধীন মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার হবিবপুর থানার ঋষিপুর অঞ্চলের দেবীপুর গ্রামে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। অভিযুক্ত মহিলা পলাতক।

জানা গেছে, আক্রান্ত ছাত্রীর নাম সীমা চৌধুরী। সে ধুমবালু প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণীতে পড়াশোনা করে। অভিযুক্ত মহিলা নমিতা চৌধুরী পলাতক। আক্রান্ত ছাত্রীর বাবা হরিলাল চৌধুরী জানান, প্রতিবেশী এক শিশু দেবা চৌধুরীর সঙ্গে খেলা করছিলো তাদের মেয়ে সীমা। সেই সময় দেবা সীমার সাইকেলে বমি করে দেয়। অভিযোগ, এই কথা দেবার মা নমিতা চৌধুরীর কাছে নালিশ করে সীমা। এর পরে লোহার রড় নিয়ে নমিতা আঘাত করে সীমার মাথায়। এর পর ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত। পরিজনেরা জানতে পেরে রক্তাত্ত অবস্থায় ছাত্রীকে উদ্ধার করে প্রথমে বুলবুলচন্ডি গ্রামীণ হাসপাতালে ভরতি করেন। সেখানে তার শারিরীক অবস্থার অবনতি হলে শুক্রবার রাতে তাকে স্থানান্তর করা হয় মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন ওই ছাত্রী। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে স্থানীয় হবিবপুর থানার পুলিশ।

Published in Malda-Dinajpur-2

ডেস্ক, ২রা ডিসেম্বরঃ অবৈধভাবে বালি পাচার করার অভিযোগে পাঁচটি লড়ি আটক করলো মালদার বৈষ্ণব নগর থানার পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে ৪ জনকে। শনিবার ধৃতদের মালদা জেলা আদালতে পেশ করে পুলিশ।

উল্লেখ্য, বেশ কিছুদিন ধরেই পুলিশের চোখে ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে বালি পাচার করা হচ্ছিলো। সেই মতো শনিবার ভোর রাতে বৈষ্ণব নগর থানার পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে টোল প্লাজা এলাকায় হানা দেয়। সেখানে হানা দিয়ে পুলিশ পাঁচটি বালি বোঝায় লড়ি আটক করে। বৈধ কোন কাগজ না থাকায় গ্রেফতার করা হয় ৪ জনকে। পুলিশ জানিয়েছে, দিনের পর দিন অবৈধ ভাবে এই বালি পাচার করা হচ্ছিলো। এই খবরের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে পাঁচটি লড়ি আটক করা হয়। ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে চারজনকে। মালদা এবং মুর্শিদাবাদ জেলার বিভিন্ন এলাকায় বাড়ি ধৃতদের।

Published in Malda-Dinajpur-2

    ডেস্ক, ২রা ডিসেম্বরঃ সারা রাজ্যের সাথে সাথে শনিবার মালদা জেলা জুড়েও মহাসাড়ম্বরে পালিত হল নবি দিবস। নবি দিবস উপলক্ষ্যে ত্রদিন জেলা জুড়ে পালিত হয় মুসলিম সম্প্রদায়ের নানা ধর্মীয় অনুষ্টান। বিভিন্ন জায়গায় বের হয় জৌলুসও।

শনিবার সাড়ম্বরে পালিত হল নবি দিবস। উল্লেখ্য,এই দিন জন্মগ্রহণ করেছিলেন হজরত মহম্বত। তাই এই দিনটি নবি দিবস হিসাবে পালন করেন মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষরা। নবি দিবস উপলক্ষ্যে ত্রদিন শহরের বিবিগ্রাম মসজিদ থেকে ত্রকটি বিশাল মিছিল বের হয়েছিল। গোটা শহর পরিক্রমা করে এই মিছিল গিয়ে শেষ হয় মিরচক লাঠি খেলা ময়দানে।

পাশাপাশি ইংরেজবাজারের কোতুয়ালি অঞ্চলেও ত্রদিন উদ্‌যাপন করা হয় নবি দিবদস। এই উপলক্ষ্যে স্থানীয় আরাপুর জামে মসজিদের উদ্যোগে বের হয় এক জৌলুস। গোটা আরাপুর পরিক্রমা করে এই জৌলুস।

প্রবল উৎসাহ আর উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে ত্রদিন পুরাতন মালদা ব্লকের বিভিন্ন জায়গাতেও পালিত হয় বিশ্ব নবি দিবস। ত্রদিন সকালে ধর্মীয় নিয়ম নিতি মেনেই পুরাতন মালদার ব্লকের মুসলিম সমাজে পালিত হয় হজরত মহম্বতের জন্মদিন। নবি দিবস উপলক্ষ্যে পুরাতন মালদা ব্লকের মঙ্গলবাড়ি মুসলিম সমাজের পক্ষ থেকে ত্রক বিশাল জৌলুসের আয়োজন করা হয়েছিল। প্রায় ১০ হাজার মুসলিম সম্প্রাদের মানুষ পা মেলান এই জৌলুসে। গোটা পুরাতন মালদা শহর পরিক্রমা করে এই জৌলুস।
পাশাপাশি মালদার কালিয়াচক জুড়েও অনুষ্ঠিত হয় বিশ্ব নবি দিবস। কালিয়াচকের দারিয়াপুর, সুুলতানগঞ্চ, বালিয়াডাঙা সহ বিভিন্ন জায়গায় পালিত হয় বিশ্ব নবি দিবস। এই সব এলাকা থেকে ত্রদিন জৌলুস বের হয়ে চৌড়ঙ্গী মোড়ে এসে সকলে জমায়েত হয়। এরপর সেখান থেকে এক বিশাল জৌলুস গোটা কালিয়াচক পরিক্রমা করে।
পাশাপাশি ত্রদিন মালদার রতুয়া এক নম্বর ব্লকের রতুয়া গ্রাম পঞ্চায়েত, কাহালা গ্রাম পঞ্চায়েত এবং বাহারাল গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন মসজিদের উদ্যোগে উদ্‌যাপন করা হয় বিশ্ব নবির জন্মদিবস। এই উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠিত হয় মুসলিম সম্প্রদায়ের নানা ধর্মীয় অনুষ্টান। পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হয় জৌলুসও।  


Published in Malda-Dinajpur-2

ডেস্ক, মালদা, ২রা ডিসেম্বরঃ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে  মালদা পোষ্টের RPF ও CIB যোথ অভিযান চালায়  মালদা টাউন স্টেশনর ১ নাম্বার প্লাটফর্মের আপ আনান্দ বিহার এক্সপ্রেসের ৫ নাম্বার সংরক্ষিত কামড়া থেকে ২ টি ব্যাগ ভর্তি কচ্ছপ উদ্ধার হয়।যদিও কচ্ছপ উদ্ধারের ঘটনায় কেউ গ্রেফতার হয়নি।ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রেল পুলিশ ও রেলের গোয়েন্দা দপ্তর।এদিন মালদা পোষ্টের আর.পি.এফ.সুত্রে জানা গিয়েছে এস আই জিতেন্দ্র সিং পারিহার,এস আই সূর্য কান্ত মাজি,ও এ এস আই চিন্ময় মন্ডল ও রেল গোয়েন্দা শাখার নেতৃত্বে আজ ভোরে ট্রেনটি মালদা টাউন স্টেশনে আসলে,ট্রেনে তল্লাশী শুরু করে।সেই সময় ওই ট্রেনের সংরক্ষিত এস ৫ কামরার সিটের নিচে দুটি ব্যাগ উদ্ধার হয়।তা খুলতেই সেখান থেকে ৪৮ টি কচ্ছপ উদ্ধার হয়।যদিও এই ঘটনায় কেউ গ্রেফতার হয়নি। তদন্তের স্বার্থে কামরার সিট নম্বর জানাতে চায়নি RPF। তাদের ধারণা কচ্ছপগুলিকে পাচার করা হত  দক্ষিণ দিনাজপুরের ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে ।ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রেল পুলিশ।এদিন রেল সুরক্ষা বাহিনী জাওয়েনারা উদ্ধার হওয়া কচ্ছপগুলি তুলে দেয় মালদা বন দপ্তেরের হাতে।

Published in Malda-Dinajpur-2

ফটো গ্যালারী

Market Data

সম্পাদকের কথা

ফ্যান ছবিতে দেখা যাবে ১৭ বছরের শাহরুখকে

ফ্যান ছবিতে দেখ...

ডেস্ক: ছবির নাম যখন ফ্যান, আর অভিনয়ে যখন...

ধর্মীয় মৌলবাদীদের হামলায় খুন লেখক অভিজিৎ রায়

ধর্মীয় মৌলবাদীদ...

ঢাকা: একুশের বইমেলা থেকে ফেরার পথে ঢাকা ...

উদাসী হাওয়ায় গা ভাসিয়ে বলতেই পারেন, ""হোলি হ্যায়''!!!

উদাসী হাওয়ায় গা...

শান্তিনিকেতনে বসন্ত উত্সবের সূচনা হয় প্র...

বিবাহ বন্ধনে আবব্ধ হতে চলেছেন খ্যাতনামা অফ-স্পিনার হরভজন সিংহ

বিবাহ বন্ধনে আব...

কার্ত্তিক চন্দ্র পাল : ভারতের খ্যাতনামা ...

আপগ্রেড করুন

« December 2017 »
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
        1 2 3
4 5 6 7 8 9 10
11 12 13 14 15 16 17
18 19 20 21 22 23 24
25 26 27 28 29 30 31

MC News

Contact Us

Email: This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.

Face Book: /newsbazar24 

Helpline No- 09434219594/9126173604