রাজ্য

বীরভূম -বর্ধমান

অনুব্রত মণ্ডলের খাস তালুক বীরভূমে তৃনমূলের গোষ্ঠীদন্দ্বে হামলা ও মারধরের অভিযোগ।

উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর

তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিজেপির প্রার্থীর স্বামীকে মারধর, অভিযোগ ঘরছাড়া প্রার্থীর

মালদা

আবার মালদহ শহরে উন্নতমানের জালনোট উদ্ধার।

মালদা

মালদার নদী থেকে উদ্ধার কুমীর, এলাকায় আতঙ্ক

মালদা

মহদিপুর সীমান্তে ফের আক্রান্ত এক লরিচালক

মালদা

মালদায় আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন পঞ্চায়েত প্রাথী

কলকাতা

ইকোপার্কের দায়িত্বজ্ঞান হীনতা : বাড়ি ফিরলো রায়েন

মালদা

মালদার মোথাবাড়ি এলাকায় মোমবাতি মিছিল

মালদা

রাতে টহল দেবার সময় দুর্ঘটনায় মৃত মালদার পুলিশ কর্মি

২৪ প্রগনা ( উঃ ও দঃ)

সোদপুরে দুষ্কৃতীদের ছোঁড়া গুলিতে খুন এক যুবক।

কলকাতা

কোলকাতার অনেক হোটেল রেস্তোরাঁয় বিক্রি হত ভাগারের মাংস: ধৃত 2G

কলকাতা

ওসির বিরুদ্ধে নালিশ জানালেন শোভন

খেলা

  • খেলা

    মোহনবাগানের সুপার কাপ অভিযান শেষ

    ডেস্ক, ১৭ই এপ্রিলঃ বেঙ্গালুরু এফসির বিরুদ্ধে ৪-২ গোলে হেরে সুপার কাপ থেকে বিদায় নিল মোহনবাগান। আজকের সেমিফাইনালে প্রথমার্ধে ১ গোলে এগিয়ে থেকেও জয় ধরে রাখতে পারল না । বেঙ্গালুরু এফসি ১০ জনে খেলে জয় ছিনিয়ে নিয়ে গেল। মঙ্গলবার সুপার কাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে পুরনো প্রতিপক্ষ বেঙ্গালুরু এফসির বিরুদ্ধে মাঠে নামে মোহনবাগান। আমরা দেখেছি অতীতে যখনই এই দু'টি দল মুখোমুখি হয়েছে তখনই উত্তেজনাপূর্ণ  ম্যাচ হয়েছে। এদিনও দেখা যায় একই ছবি। কিন্তু চেনা পরিচত মোহন ফুটবলারদের মেজাজটারই আজ বড় অভাব ছিল ম্যাচের শুরু থেকে। শেষ পর্যন্ত হারতে হলেও ম্যাচের শুরুটা কিন্তু ভালই করেছিল সবুজ মেরুন ব্রিগেডের। আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতেই ম্যাচটি শুরু করেছিল শঙ্করলাল চক্রবর্তীর ছেলেরা। প্রথমার্ধে দাপটও ছিল মোহনবাগানের। ম্যাচের ৪১ মিনিটে আক্রম মোগরাভির পাস থেকে গোল করে বাগানকে ১-০ গোলে এগিয়ে দেন ক্যামরুনের স্ট্রাইকার ডিপান্ডা ডিকা। এক গোলের লিড নিয়ে প্রথমার্ধে মাঠ ছাড়ে সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। আশা করা হয়েছিল প্রথমার্ধের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল তুলে নিয়ে জয় নিশ্চিত করতে ঝাঁপাবে মোহনবাগান। সুবিধাও পেয়ে গিয়েছিল বাগান ব্রিগেড। দ্বিতীয়ার্ধ শুরুর পাঁচ মিনিটের মধ্যেই লাল-কার্ড দেখেন বেঙ্গালুরুর নিশু কুমার। মনে করা হয়েছিল ১০ জনের বেঙ্গালুরু আর হয়তো ঘুরে দাঁড়াতে পারবে না বেঙ্গালুরু বিরুদ্ধে। বাগান সমর্থকরা যখন ধরে নিয়েছেন ম্যাচ হাসতে হাসতে জিতবে তাঁদের প্রিয় দল, তখনই বেঙ্গালুরুর ত্রাতা হয়ে অবতীর্ণ হন মিকু। ৬১ মিনিটে উদান্ত সিংহের পাস ধরে গোল করে বেঙ্গালুরুকে খেলায় ফিরিয়ে আনেন ভেনিজুয়েলার এই স্ট্রাইকার। প্রথম গোলের রেশা কাটতে না কাটেই ফের মিকু ম্যাজিক। টনির বাড়ানো পাস থেকে গোল করে যান তিনি। ম্যাচের ৮৮ মিনিটে বক্সের নিজেদের বক্সের মধ্যে উদান্ত সিংহকে মোহন ডিফেন্ডার রানা ঘড়ামি ফাউল করলে পেনাল্টি পায় অ্যালবার্তো রোকার দল। পেনাল্টি থেকে গোল করতে ভুল করেননি মিকু। পাশাপাশি করে যান নিজের হ্যাট্রিকও। ৮৯ মিনিটি মোহনবাগানের কফিনে শেষ পেরেকটি পোঁতেন সুনীল ছেত্রী। প্রিয় দলের হার নিশ্চিত জেনে যখন মোহন সমর্থকেরা ধীরে ধীরে মাঠ ছাড়তে শুরু করেছেন সেই সময় দ্বিতীয় গোল করে ব্যবধান কমান ডিকা।   read more...

  • খেলা

    মালদা জেলা মহিলা কাবাডি প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন দোহিল হাই স্কুল

    ডেস্ক, ১৬ই এপ্রিলঃ মালদা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার পরিচালনায় ও মালদা স্পোর্টস ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশনের সহযোগিতায় মালদা অনীক সংঘের ময়দানে মালদা জেলা মহিলা কাবাডি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।চ্যাম্পিয়ন হয় দোহিল হাই স্কুল,রানার্স হয় গাজোল ব্লক ক্রীড়া সংস্থা।ফাইনালে খেলার ফল 24-12 পয়েন্ট।চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স দল গুলিকে ট্রফি ও নগদ আর্থিক পুরস্কার এবং প্রত্যেক খেলোয়াড় কে পুরস্কৃত করা হয়।অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর সুমালা আগরওয়ালা,গায়ত্রী ঘোষ,শিপ্রা রায়,অণ্জ্ঞু তেওয়ারি, এবং  নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি ও গোবিন্দ বসাক মহাশয়। read more...

  • খেলা

    কমনওয়েলথ গেমসের শেষ দিনেও পদক,তৃতীয় স্থানে ভারত।

    ডেস্ক ১৫ই এপ্রিল: রবিবার গোল্ড কোস্টে শেষ হল ২১তম কমনওয়েলথ  গেমস। ২৬ টি সোনা, ২০টি রুপো এবং ২০টি ব্রোঞ্জ পদক নিয়ে পদক তালিকায় তৃতীয় স্থানে  ভারত।  মোট পদক এসেছে ৬৬টি। শেষদিন এল সাতটি পদক। মহিলাদের ব্যাডমিন্টনের সিঙ্গলসের ফাইনালে পিভি সিন্ধুকে হারিয়ে সোনা পেলেন সাইনা নেহওয়াল। ২০১০ সালে নয়াদিল্লি কমনওয়েলথ গেমসের পর  আবার এই প্রতিযোগিতায় সোনা পেলেন সাইনা।  আজ এই একটিই সোনা পেল ভারত। রুপো অবশ্য এসেছে চারটি এবং দু’টি ব্রোঞ্জ। ২০১৪ সালে গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসে মোট ৬৪টি পদক জিতেছিল ভারত। যার মধ্যে ১৫টি সোনা, ৩০টি রুপো এবং ১৯টি ব্রোঞ্জ জিতেছিল ভারত। পদক তালিকায় ভারত ছিল ৫ নম্বর স্থানে। ২০১৮ সালে গোল্ড কোস্টে সেখানে ভারতের মোট পদক সংখ্যা ৬৬, যেখানে ২৬টি সোনা জিতেছেন ভারতীয় অ্যাথলিটরা। পদক তালিকায় তিন নম্বর স্থানে শেষ করেছে ভারত। গ্লাসগোতে বক্সিংয়ে ৪টি রুপো ও একটি ব্রোঞ্জ নিয়ে মোট ৫টি পদক জিতেছিল ভারত। এবার গোল্ড কোস্টে বক্সিংয়ে মোট ৯টি পদক জিতেছে ভারত, ৩টি করে সোনা,রুপো এবং ব্রোঞ্জ।  সবমিলিয়ে পারফরম্যান্সের নিরিখে এবং পদকের নিরিখেও গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসকে টেক্কা দিল গোল্ড কোস্ট। read more...

ব্যবসা

detail

রঙের তুলনায় আবিরের বিক্রি বেশি, জানাচ্ছেন বিক্রেতারাই

ডেস্কঃ (I.D). ০১ মার্চ ২০১৮ঃ- রঙের তুলনায় আবিরের বিক্রি বেশি, জানাচ্ছেন বিক্রেতারাই।তাঁদের মতে, আগের তুলনায় সচেতনতা বেড়েছে মানুষের। তাই রাসায়নিক উপাদান থেকে তৈরি রঙের তুলনায় আবির কিনতেই বেশি উৎসাহ দেখাচ্ছেন মানুষ।রঙের তুলনায় আবিরে ক্ষতিকর রাসায়নিকের মাত্রা কম থাকে বলেই এই প্রবণতা, মনে করছেন তাঁরা। তবে ভেষজ আবির বা ভেষজ রঙের যা চাহিদা, সেই তুলনায় জোগান একেবারে নেই বললেই চলে। গত কয়েক বছরে দোলকে কেন্দ্র করে ভেষজ আবির বা রং ব্যবহারের সুফল নিয়ে সংবাদমাধ্যম থেকে শুরু করে নানা মহলে আলোচনা হচ্ছে। কিন্তু বাজারে গিয়ে ভেষজ আবির খুঁজে খুঁজে হয়রান হওয়া মানুষের সংখ্যা প্রচুর। কোথাও পাওয়া গেলেও চড়া দামের জন্য অনেকেই দূরে সরে যাচ্ছেন। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই শুরু হয়ে যাবে রঙের উৎসব। তার আগে বুধবার দুপুর, বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত রঙের বাজার থাকল জমজমাট।বড়বাজারের পুরনো চীনাবাজার বা মধ্য কলকাতার জানবাজার—সর্বত্রই ছিল থিকথিকে ভিড়। হাতিবাগান, শ্যামবাজারের ফুটপাত বা দক্ষিণে গড়িয়াহাট এসব জায়গাতেও এদিন বিকিকিনির প্রধান উপাদান ছিল আবির ও রং।রঙের বিক্রি তুলনায় কম। ভেষজ আবির বা রং নিয়ে প্রশ্ন করায় তাঁর উক্তি, ও জিনিস বাজারে খুঁজে পাবেন না।পুরনো চীনাবাজারে দোলকেন্দ্রিক রঙের পাইকারি কেনাবেচা চলে। সেখানেও এদিন খুচরো বিক্রি হয়েছে বেশি। বাঙালিরা সাধারণত একদিনের জন্য রঙের উৎসবে মাতলেও শহরের অবাঙালি জনগোষ্ঠীর বেশিরভাগই চার-পাঁচদিন ধরে রং খেলে। তাঁদের ভিড় বেশি ছিল বড়বাজারের রংয়ের দোকানে। এখানে অবশ্য ভেষজ রঙের চাহিদা কম।    ... read more

Video Gallery

image