You are here: Homeরাজ্যমালদা -দিনাজপুরItems filtered by date: Tuesday, 14 November 2017

ডেস্ক; দেশের মধ্যে প্রথম ‘এয়ার ডিসপেন্সারি’ হতে যাচ্ছে উত্তর-পূর্বাঞ্চলে| একটি হেলিকপ্টারের মধ্যে এই এয়ার ডিসপেন্সারি করার জন্য উত্তর-পূর্বাঞ্চল উন্নয়ন মন্ত্রক (ডোনার) ইতোমধ্যেই প্রাথমিকভাবে ২৫ কোটি টাকা দিয়েছে|

নয়া দিল্লিতে রবিবার এক বৈঠকে এই বিষয়টি জানিয়ে উত্তর-পূর্বাঞ্চল উন্নয়ন মন্ত্রকের (ডোনার) স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী তথা প্রধানমন্ত্রীর দফতর, কর্মচারী বিষয়ক, জন-অভিযোগ, পেনশন, পরমাণু শক্তি ও মহাকাশ বিষয়ক মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী ডক্টর জিতেন্দ্র সিং বলেন, কয়েক মাস ধরেই ডোনার মন্ত্রক এভাবে হেলিকপ্টারের মধ্যে ডিসপেন্সারি করার বিষয়টি নিয়ে চিন্তা ভাবনা করছে| যেসব প্রত্যন্ত ও দূরবর্তী এলাকাগুলোতে কোনো চিকিত্সা পরিষেবা নেই এবং মানুষ চিকিত্সার সুযোগ পান না, সেই অঞ্চলগুলোর কথা ভেবেই এই উদ্যোগ| বৈঠকে বিমান পরিবহন ক্ষেত্রের এবং হেলিকপ্টার পরিষেবা/পবন হনসের বিভিন্ন প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন|

ডক্টর জিতেন্দ্র সিং বলেন, ডোনার মন্ত্রক বিশেষ আগ্রহ নিয়ে এই প্রস্তাব রাখছে, যাতে ২০১৮ সালের শুরুতেই উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মানুষের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এটি একটি উপহার হতে পারে|

ডক্টর জিতেন্দ্র সিং উল্লেখ করেন যে, আজও দেশের এক-তৃতীয়াংশ জনসংখ্যার কাছে হাসপাতালের সঠিক পরিচর্যা সুলভ নয়। এবং এর ফলে প্রত্যন্ত অঞ্চলের দরিদ্র মানুষ জরুরি চিকিত্সা পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হন| উত্তর-পূর্বাঞ্চলের এই পরীক্ষামূলক উদ্যোগকে কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু-কাশ্মির, হিমাচলপ্রদেশ সহ বিভিন্ন জায়গার প্রত্যন্ত এলাকায় ব্যবহার করবে|

ডক্টর জিতেন্দ্র সিং জানান, পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রাথমিক এই দুটি হেলিকপ্টার থাকবে মনিপুরের ইম্ফলে এবং মেঘালয়ের শিলঙে| এই দুটি শহরে স্নাতকোত্তর মেডিক্যাল প্রতিষ্ঠান রয়েছে এবং সেখান থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকগণ ও প্যারা-মেডিক্যাল কর্মীরা হেলিকপ্টারে করে আটটি রাজ্যের যেকোন অংশে সহজে পৌঁছে গিয়ে সেখানে ডিসপেন্সারির কাজ করতে পারবেন| একইসঙ্গে এই হেলিকপ্টারে করে অসুস্থ রোগীকে শহরের হাসপাতালে নিয়ে আসাও সম্ভব হবে| এছাড়াও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে আরও কিছু হেলিকপ্টার পরিষেবা প্রদানের পরিকল্পনা নিয়ে তিনি খুলে বলেন| তিনি জানান, ইম্ফল, গুয়াহাটি ও ডিব্রুগরের ছয়টি রুটে প্রাথমিকভাবে ব্যবহার করার জন্য আরও তিনটি দুই-ইঞ্জিনের হেলিকপ্টার নিয়ে আসার পরিকল্পনা করা হচ্ছে|

 

ডেস্ক,ঃ  নয়া দিল্লিতে সোমবার বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে উত্তর-পূর্বাঞ্চল উন্নয়ন মন্ত্রকের (ডোনার) স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী তথা প্রধানমন্ত্রীর দফতর, কর্মচারী বিষয়ক, জন-অভিযোগ, পেনশন, পরমাণু শক্তি ও মহাকাশ বিষয়ক মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী ডক্টর জিতেন্দ্র সিং বলেছেন, আগামী বছরগুলিতে বিশ্বের জন্য, বিশেষ করে ভারতের জন্য বার্তা হচ্ছে যুব সমাজে ডায়াবেটিস রোগের প্রতিরোধ|  দেশের যুবশক্তিকে তিনি স্বাস্থ্যকর ও গঠনমূলক কর্মকাণ্ডে যুক্ত করার ওপর জোর দেন|

ডক্টর জিতেন্দ্র সিং উল্লেখ করেন যে, ডায়াবেটিস রোগাক্রান্তদের সংখ্যাগত হিসেবে ‘ভারত পৃথিবীর ডায়াবেটিস রাজধানী’| ডায়াবেটিস যে যুব অঙ্গকে নানা দিক দিয়ে প্রভাবিত করে তিনি তার ব্যাখ্যা করে বলেন, ডায়াবেটিস স্বাস্থ্যকর জীবনযাপনকে প্রভাবিত করার পাশাপাশি যুব সমাজের ভবিষ্যত জীবনেও নানাভাবে আর্থিক ক্ষতি সূচিত করে| তিনি বলেন, জাতীয় স্বার্থেই একটি স্বাস্থ্যকর যুবসমাজ তৈরি করা প্রয়োজন, যারা সংক্রামক ও অ-সংক্রামক রোগ থেকে মুক্ত থাকবে এবং তাদের সম্ভাবনার সর্বোত্তম ব্যবহার করা সম্ভব হবে|

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদির আহ্বানে উদ্বুদ্ধ হওয়ার জন্য ডক্টর জিতেন্দ্র সিং যুব সমাজকে আহ্বান জানিয়ে বলেন যে, দেশের সত্তর শতাংশ মানুষের বয়স এখন চল্লিশ বছরের কম, তাই স্বাস্থ্যকর যুব শক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর ‘নব ভারত’-এর লক্ষ্য বাস্তব রূপ পাবে| তিনি ডায়াবেটিস প্রতিরোধের জন্য একটি জন-সচেতনতা অভিযানের ওপর এবং যাদের এই রোগ রয়েছে, তারা যাতে একটি সঠিক নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতির মাধ্যমে তা নিয়ন্ত্রিত রাখতে পারেন তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন| তিনি এর জন্য সংশ্লিষ্ট সবার অংশ গ্রহণের মধ্য দিয়ে একটি পরিকাঠামো গঠনের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেন|

অনুষ্ঠানে ডক্টর জিতেন্দ্র সিং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধের লক্ষে একটি ‘মোবাইল ভ্যান’-এরও সূচনা করেন| তিনি ডায়াবেটিস সচেতন কেন্দ্রে সচেতনতার জন্য হাঁটায়ও অংশ গ্রহণ করেন| এই ডায়াবেটিস কেন্দ্রটি ডায়াবেটিস শনাক্ত করা, পরীক্ষা করা, প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির যন্ত্রপাতি নিয়ে গঠিত হয়েছে|

ডেস্ক , ১৪ নভেম্বর : গতকালের পর আজ আবার  ছাত্র বিক্ষোভে উত্তাল  গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় এবং ছাত্রদের দ্বারা ঘেরাও বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই আধিকারিক । পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বিশ্ববিদ্যালয়ে যায় পুলিশ।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায় কয়েকদিন আগে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নিযুক্ত তিনটি বেসরকারি সংস্থার বকেয়া বিল পাশ করানোর জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের এক কর্মী কলকাতায়  ছুটিতে থাকা উপাচার্যের কাছে নিয়ে যান ।  উপাচার্য সেই বিলগুলির মধ্যে একটি কনসালটেন্সি সংস্থার পাঁচটি বিল পাশ করে দেন। সেই বিলের পরিমাণ ৬৫ লাখ ৮৫ হাজার ৪৫০ টাকা। আজ এই খবর জানতে পেরে ক্ষোভে ফেটে পড়ে ছাত্রছাত্রীরা । উপাচার্যের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিকেল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেভেলপমেন্ট অফিসার তথা রেজিস্ট্রারের অস্থায়ী দায়িত্বপ্রাপ্ত রাজীব পুততুণ্ডি এবং অডিট অফিসার তথা ভারপ্রাপ্ত ফিনান্স অফিসার বিনয়কৃষ্ণ হালদারকে ঘেরাও করে রাখেন। 

 ছাত্রদেরআরও অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের গাফিলতিতে তাঁদের বছর নষ্ট হতে চলেছে। এখনও পরীক্ষার ফলপ্রকাশ হয়নি। উপাচার্য তাঁদের ভবিষ্যত অন্ধকারে রেখে কলকাতায় ছুটি কাটাচ্ছেন। পড়ুয়াদের সমস্যা সমাধানে তাঁর কোনও উদ্যোগই নেই। অথচ বেসরকারি এজেন্সির বিল পাশ করানোর বিষয়ে তিনি তৎপর। অস্থায়ী দায়িত্বপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রাজীব পুততুণ্ডি   জানান, যেহেতু উপাচার্য বিল পাস করে দিয়েছেন তাই তাঁর  কিছু করার নেই । তিনি ছাত্রছাত্রীদের  দাবি উপাচার্যের কাছে পাঠিয়ে দিতে পারেন বলে  বিক্ষোভরত ছাত্রদের  জানিয়ে দিয়েছেন। তবু পড়ুয়ারা তাঁদের ঘেরাও করে রেখেছেন। 

প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্য  গতকাল  অচলাবস্থার প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে পোস্টার লাগাচ্ছিলেন বিক্ষোভরত  সাধারন ছাত্রাছাত্রীরা। এই নিয়ে তাঁদের সঙ্গে তুমুল ঝামেলা হল তৃণমূল কংগ্রেসের  কর্মী-সমর্থকদের। ফলে ফের সরগরম হয়ে উঠল বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর। যদিও পড়ুয়াদের একাংশের উদ্যোগে এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে।
বিক্ষোভরত পড়ুয়াদের অভিযোগ, গত ৬ নভেম্বর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট বন্ধ হয়ে যাওয়ার জন্য   স্নাতক শ্রেণিতে রেজিস্ট্রেশনের কাজ ও অনলাইন কাউন্সেলিং প্রক্রিয়া বন্ধ । গত অগাস্ট মাসে স্নাতক শ্রেণির প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের ফল প্রকাশ হওয়ার কথা থাকলেও এখনও তা হয়নি। যদিও গত মে মাসে স্নাতক স্তরের তৃতীয় বর্ষের ফল প্রকাশিত হয়েছে। এই অচলাবস্থার মধ্যে গত ১ নভেম্বর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে না এসে ছুটি নিয়ে কলকাতায় বসে রয়েছেন উপাচার্য। নেই রেজিস্ট্রার ও কন্ট্রোলার অফ এগজা়মিনেশনও। তাই পড়ুয়ারা ভবিষ্যতের কথা ভেবে, আজ তাঁদের দাবি সম্বলিত পোস্টার বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে লাগানোর কর্মসূচি নেন। কিন্তু, তাঁদের এই কাজে বাধা দেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সদস্যরা।


এমনিতে একের পর এক বিতর্কে জেরবার গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। নিয়ম বহির্ভূতভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ে বেসরকারি কনফিডেন্সিয়াল সংস্থাকে নিয়োগ, সেই সংস্থাগুলিকে প্রচুর পরিমাণে অর্থ পাইয়ে দেওয়া, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে স্বজনপোষণ, রাষ্ট্রীয় উচ্চতর  শিক্ষা অভিযানের অর্থ নয়ছয় সহ একাধিক অভিযোগ উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, অর্থ নয়ছয়ের অভিযোগ পেয়েই তা নিয়ে জেলাশাসক তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন । সেই তদন্তের কাজ শুরু হয়েছে। অবশ্য সেই তদন্ত শুরু হওয়ার আগেই ছুটি নিয়ে কলকাতা চলে গেছেন উপাচার্য গোপালচন্দ্র মিশ্র। এখনও তিনি কাজে যোগ দেননি বলে জানা গেছে।
পড়ুয়াদের অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের এই রকম কাজকর্মে তাঁদের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিয়তার মধ্যে পড়েছে। সময় গড়িয়ে যাচ্ছে। অথচ ফলপ্রকাশ করা হচ্ছে না। পড়ুয়াদের একাংশ এই নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আদালতে যাওয়ারও হুমকি দিয়েছেন।

 

Published in Malda-Dinajpur-2

ডেস্ক, ১৪ই নভেম্বরঃ ক্রেতা, বিক্রেতা, সাধারণ মানুষের পর এবার খুচরো সমস্যায় পড়লো ছাত্র-ছাত্রীরাও। ভাড়া হিসাবে ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে খুচরো পয়সা নিতে অস্বীকার করছেন বাস কিংবা ম্যাক্সির কন্টাক্টররা। তাই বাধ্য হয়ে ছাত্রছাত্রীরা তিন টাকার ভাড়া, পাঁচ টাকা দিয়ে বিদ্যালয়ে আসছে। এরই প্রতিবাদ জানিয়ে মঙ্গলবার মালদহের হবিবপুরের বুলবুলচন্ডি আর,এন, রায় গার্লস হাইস্কুলের ছাত্রী এবং বয়েস হাইস্কুলের ছাত্ররা যৌথভাবে মালদা-নালাগোলা রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালো।

একটা সময় ছিলো যখন বাজারে খুচরোর অভাব ছিলো। সেই সময় ১০০ টাকার নোট দিয়ে ৯৫ টাকার খুচরো মিলতো। কিন্ত একবছরের মধ্যে পুরো অঙ্কটায় বদলে গেছে। এখন তো ১১০ টাকার খুচরো পয়সা দিলেও ১০০ টাকার নোট দিতে নারাজ ব্যবসায়ীরা। বর্তমানে বাজারে এতো খুচরো পয়সার আমদানি হয়েছে, সেখানে দাঁড়িয়ে বাজার, ঘাট, বাস, ট্রেন কোথাও খুচরো পয়সা নিতে চাইছে না কেউ-ই। ঠিক এমন সময় এবার খুচরো পয়সার বেড়াজালে পড়লো স্কুল ছাত্র-ছাত্রীরাও। বাসে কিংবা ম্যাক্সিতে খুচরো পয়সা নিচ্ছে না তাদের কাছ থেকে। ভাড়া তিনটা হলে পাঁচ টাকা দাবি করা হচ্ছে। এমন অবস্থায় কোন কুল-কিনারা খুঁজে না পেয়ে সমস্যার সমাধানে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভে নামলো ছাত্র-ছাত্রীরা। ত্রদিন বুলবুলচন্ডি আর, এন, রায় গার্লস হাই স্কুল এবং বুলবুলচন্ডি গিরিজা সুুন্দরী বিদ্যামন্দিরের হাইস্কুলের ছাত্ররা যৌথভাবে ঝিনঝিনি পুকুর ষ্ট্যান্ডে মালদা-নালাগোলা রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়। ছাত্রছাত্রীরা দাবি করেন, এতদিন তাঁরা ভাড়া হিসাবে তিন টাকা খুচরো দিয়ে আসছে, কিন্ত কিছুদিন হলো খুচরো টাকা নিতে অস্বীকার করছেন বাস কিংবা ম্যাক্সি চালকরা। এমন পরিস্থিতিতে তাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত পাঁচ টাকা ভাড়া চাওয়া হচ্ছে। তাই তাদের আজকের আন্দোলন। জানা যায় প্রায় ৩০ মিনিট এই অবরোধ চলে। পরে হবিবপুর থানার পুলিশ এসে ছাত্রছাত্রীদের সমস্যা সমাধানে আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয় ছাত্রছাত্রীরা।
                 

Published in Malda-Dinajpur-2

ডেস্ক, ১৪ই নভেম্বরঃ মালদা জেলা তথ্য সংস্কৃতি দপ্তরের উদ্যোগে মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো এক বসে আঁকো প্রতিযোগিতা। প্রায় ৫০ জন ছাত্রছাত্রী অংশ নিয়েছিলো প্রতিযোগিতায়। মালদা টুরিস্ট লজে আয়োজন করা হয়েছিলো এই প্রতিযোগিতার। উপস্থিত ছিলেন, মহকুমা শাসক পার্থ চক্রবর্তী, ভারপ্রাপ্ত ডি, আই,সি অভিজিৎ বিশ্বাস সহ অন্যান্যরা।


Published in Malda-Dinajpur-2

ডেস্ক, ১৪ নভেম্বর : ইংরেজবাজার থানার পুলিশের বিরুদ্ধে  প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের  অভিযোগ  পথ অবরোধে স্কুল ছাত্ররা। ঘটনাটি  ইংরেবাজার থানার দামোদরপুর এলাকার । স্কুল ছাত্রদের সাথে অবরোধে সামিল  স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা সহ এলাকার বাসিন্দারা। আজ বেলা ১২টা থেকে অবরোধ শুরু হয়। পরে ইংরেজবাজার থানার আই সি সাহেবের  অনুরোধে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। 
ঘটনার শুরু  গতকাল থেকে। মালদা-মানিকচক রাজ্য সড়কের  ধারে দামোদরপুর শান্তাদেব্যা হাইস্কুল। গতকাল বিকেল তিনটে নাগাদ স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনার মুখে পড়ে ক্লাস সিক্সের এক ছাত্র। গুরুতর আহত অবস্থায় ওই ছাত্রকে মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

দুর্ঘটনার পর স্কুলের সামনে ট্র্যাফিক পুলিশ মোতায়েন করার দাবিতে গতকাল বিকেলে পথ অবরোধ করেছিল  পড়ুয়ারা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থানে ছুটে যান ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। পূলিশের পক্ষ থেকে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় যে আগামীকাল সকাল থেকে স্কুলের সামনে ট্র্যাফিক পুলিশ মোতায়েন করা হবে।  পুলিশের আশ্বাসে  গতকাল পথ অবরোধ তুলে নেয় পড়ুয়ারা।
এদিকে আজ সকালে ছাত্ররা স্কুলে এসে দেখেন স্কুলের সামনে কোনও ট্র্যাফিক পুলিশ মোতায়েন করেনি  ইংরেজবাজার থানা। প্রতিশ্রতি ভঙ্গের অভিযোগে  দুপুর থেকে ফের পথ অবরোধ শুরু করে পড়ুয়া সহ স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং এলাকার বাসিন্দারা।

 ছাত্ররা জানান যে গতকাল দুর্ঘটনার পর অবরোধ শুরু করার কিছুক্ষণের মধ্যে পুলিশএসে প্রতিশ্রুতি দেয়,  আজ থেকে স্কুলের সামনে ট্র্যাফিক পুলিশ দেওয়া হবে। কিন্তু প্রতিশ্রুতিঅনুযাযী, কোনও ট্র্যাফিক পুলিশ রাখা  হয়নি। এই এলাকায় এর আগেও পথ দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে পড়ুয়ারা। প্রতিবার পুলিশের কাছে ট্রাফিক পুলিশের  দাবি করা সত্বেও  আবেদনে কর্ণপাত করেনি।” তাই বাধ্য হয়ে আমরা আজ যৌথভাবে রাস্তা অবরোধ করেছি।

Published in Malda-Dinajpur-2

ফটো গ্যালারী

Market Data

সম্পাদকের কথা

ফ্যান ছবিতে দেখা যাবে ১৭ বছরের শাহরুখকে

ফ্যান ছবিতে দেখ...

ডেস্ক: ছবির নাম যখন ফ্যান, আর অভিনয়ে যখন...

ধর্মীয় মৌলবাদীদের হামলায় খুন লেখক অভিজিৎ রায়

ধর্মীয় মৌলবাদীদ...

ঢাকা: একুশের বইমেলা থেকে ফেরার পথে ঢাকা ...

উদাসী হাওয়ায় গা ভাসিয়ে বলতেই পারেন, ""হোলি হ্যায়''!!!

উদাসী হাওয়ায় গা...

শান্তিনিকেতনে বসন্ত উত্সবের সূচনা হয় প্র...

বিবাহ বন্ধনে আবব্ধ হতে চলেছেন খ্যাতনামা অফ-স্পিনার হরভজন সিংহ

বিবাহ বন্ধনে আব...

কার্ত্তিক চন্দ্র পাল : ভারতের খ্যাতনামা ...

আপগ্রেড করুন

« November 2017 »
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
    1 2 3 4 5
6 7 8 9 10 11 12
13 14 15 16 17 18 19
20 21 22 23 24 25 26
27 28 29 30      

MC News

Contact Us

Email: This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.

Face Book: /newsbazar24 

Helpline No- 09434219594/9126173604