২৪ প্রগনা ( উঃ ও দঃ)

  • সোদপুরে দুষ্কৃতীদের ছোঁড়া গুলিতে খুন এক যুবক।

    ডেস্ক :প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে দুষ্কৃতীদের ছোঁড়া গুলিতে খুন হলেন এক যুবক। মৃতের নাম সঞ্জয় সিং। ঘটনাটি ঘটেছে সোদপুরে সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুলের সামনে। জনবহুল এলাকায় এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। কলেককল্য জানা গেছে, বাইকে করে আসে দুষ্কৃতীর দল। সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুলের সামনে সঞ্জয় সিংকে গুলি করেই ফের বাইকে চম্পট দেয় তারা। মোট ৩ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে দুষ্কৃতীদল। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় সঞ্জয় সিংয়ের। পুরনো ব্যবসায়িক শত্রুতার জেরেই এই খুন বলে প্রাথমিকভাবে মনে করছে পুলিস। খুনের ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে খড়দা থানার পুলিস।

  • ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তীতে।

    ডেস্কঃ (I.D).২৮ মার্চ ২০১৮ঃ-  বিয়েবাড়ি থেকে ফেরার পরই গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ উঠল স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তীতে।আত্মীয়ের বিয়েতে গিয়ে আমন্ত্রিতদের সঙ্গে একটু নাচ করেছিল বাড়ির বউ। তার পরিণতি হল মর্মান্তিক। বাসন্তীর চড়বিদ্যা গ্রামের বাসিন্দা সুবীর নস্করের সঙ্গে মাত্র মাস তিনেক আগেই বিয়ে হয়েছিল ১৮ বছরের স্বপ্নার। জানা গেছে, শুক্রবার রাতে স্বামী ও শাশুড়ির সঙ্গে চড়বিদ্যা গ্রামেই এক আত্মীয়ের বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠানে যান স্বপ্না। সেখানেই নাকি বিয়ের বাড়িতে উপস্থিত বাকি আমন্ত্রিতদের সঙ্গে নাচ করেন স্বপ্না।প্রত্যদর্শীদের অভিযোগ, বউকে এভাবে বিয়েবাড়িতে নাচতে দেখেই অগ্নিশর্মা হয়ে ওঠেন সুবীর। বিয়েবাড়ির মধ্যেই চিত্কার-চেঁচামেচি জুড়ে দেয় সে। তখনই মা ও বউকে নিয়ে বাড়ি ফিরে আসে সুবীর। প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, বাড়ি ফেরার পরেও স্বপ্নার সঙ্গে তুমুল অশান্তি করে তাঁর শাশুড়ি।এরপরই শনিবার ঘর থেকে স্বপ্নার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে পুলিস। এলাকাবাসীর দাবি, মারধরের পর স্বামী ও শাশুড়ি মিলেই 'খুন' করে স্বপ্নাকে। তারপর ঝুলিয়ে দেয় তাঁর দেহ।পাশাপাশি মৃতার পরিবারের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই টাকাপয়সা ও সোনাদানার জন্য স্বপ্নার উপর অত্যাচার শুরু করেছিল শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এলাকাবাসী ও মৃতার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত স্বামী ও শাশুড়িকে গ্রেফতার করেছে বাসন্তী থানার পুলিশ।

  • টিকা দিতে গিয়ে আক্রান্ত আশা কর্মীরা।

    ডেস্কঃ (I.D). ২৮ মার্চ ২০১৮ঃ- পোলিয়োর টিকা দিতে গিয়ে প্রহৃত হলেন এক আশা কর্মী। পুলিশ জানিয়েছে, সোমবার সকালে দক্ষিণ শহরতলির বিষ্ণুপুর থানার এনায়েতনগর এলাকার মিরপুর গ্রামের ওই ঘটনায় এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি।কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারের তরফে পোলিয়ো প্রতিষেধক কর্মসুচি চলে নিয়মিত। টিকারণের পাশাপাশি সচেতনতার প্রচারও চালান আশা কর্মীরা। তিন মাস অন্তর সপ্তাহে তিন দিন করে পোলিয়োর টিকা দেওয়ার কাজ করেন তাঁরা। রবিবার এনায়েতনগরের মিরপুর গ্রামে পোলিয়ো টিকা দিতে গিয়েছিলেন আশা কর্মীরা। অভিযোগ, ওই গ্রামের অধিকাংশ পরিবার পোলিও টিকার বিরোধিতা করেন। বাড়ির শিশুদের ওষুধ খাওয়াতে রাজি হন না। ফলে রবিবার ওই এলাকার বেশির ভাগ বাড়িতেই টিকাকরণ হয়নি। সোমবার সকালে ফের ওই গ্রামে যান আশা কর্মীরা। ফের কাজে বাধা পান।দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা প্রশাসন সূত্রের খবর, টিকা দিতে বাধা পাওয়ার পরে ওই এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত আশা কর্মী নাসিমা বিবি বাসিন্দাদের বলেন, ‘‘যাঁরা পোলিয়ো খাওয়াতে বাধা দিচ্ছেন, তাঁদের লিখিত ভাবে নাম জানাতে হবে। বিষয়টি ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিককে জানাব।’’অভিযোগ এর পরেই এলাকা মহিলারা নাসিমাকে ঘিরে ধরেন। তাঁর কানের দুল ধরে টানলে বাঁ কানের লতি ছিঁড়ে যায়। জখম নাসিমার সহকর্মীরা তাঁকে স্থানীয় চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যান। প্রাথমিক চিকিৎসার পরে বিষ্ণুপুর থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন নাসিমা। নাসিমার অভিযোগের তদন্ত চলছে। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, সোমবার সকালে মিরপুরের মিস্ত্রিপাড়ায় একের পর বাড়িতে গিয়ে, বাচ্চাদের পোলিয়ো খাওয়ানো হয়েছে কি না, তার খোঁজ নিচ্ছিলেন। তার পরেই গ্রামের মহিলারা হামলা চালান। অভিযোগ পাওয়ার পরে কয়েক জনকে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়েছে। দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, আশা কর্মীরা শুধু পোলিয়ো টিকা দেন না, পতঙ্গবাহিত রোগ প্রতিরোধেও নানা প্রচার ও নজরদারি চালান তাঁরা। এ ছাড়াও এলাকাভিত্তিক প্রসূতিদের দেখভাল-সহ স্বাস্থ্য দফতরের নানা কর্মসূচি আশাকর্মীদের উপরে অনেকটাই নির্ভরশীল। সোমবারের ঘটনায় তাঁরা আতঙ্কিত। দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলা স্বাস্থ্য কর্মাধ্যক্ষ তরুণ রায় বলেন, ‘‘আমরা পুলিশের সঙ্গে কথা বলেছি। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।’’

  • পুরুলিয়ার বেলডি গ্রামে বেশ কয়েকটি বাড়ি ও বাইকে ভাঙচুরের পর আগুন লাগিয়ে দেয় ক্ষিপ্ত এলাকাবাসী

    ডেস্কঃ(I.D). ২৫ মার্চ ২০১৮ঃ-পুরুলিয়ার বেলডি গ্রামে সংঘর্ষের জেরে মৃত্যু হল একজনের। ঘটনায় আহত হয়েছেন এক ডিএসপি সহ আরও ৫ পুলিসকর্মী। পাশাপাশি ৮ জন সাধারণ মানুষও আহত হয়েছেন। এই ঘটনায় ১৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।এদিন দুপুরে ওই গ্রামের মধ্যে দিয়ে একটি মিছিল যাওয়ার সময় উত্তেজনা ছড়ায়। অভিযোগ, ওই গ্রামের মধ্যে দিয়ে মিছিল যাওয়ার অনুমতি ছিল না।অশান্তি ছড়াতেই ঘটনাস্থলে আসে ডিএসপি-র নেতৃত্বে বিশাল পুলিসবাহিনী। তাদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাঁধে উত্তেজিত জনতার। বেশ কয়েকটি বাড়ি ও বাইকে ভাঙচুরের পর আগুন লাগিয়ে দেয় ক্ষিপ্ত এলাকাবাসী।

  • নিখোঁজ দশম শ্রেণির ৩ ছাত্রী

    ডেস্কঃ (I.D). ১২ মার্চ ২০১৮ঃ- স্কুলে ‌যাওয়ার পথে নিখোঁজ দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার রামনগর থানার ক্লাস টেনের ৩ ছাত্রী। অভি‌যোগ পাড়ারই দুই ‌যুবক তাদের অপরহণ করে পাচার করে দিয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে ওই দুই অভি‌যুক্তকে। তবে তিন ছাত্রীর কোনও হদিশ এখনও নেই। রামনগর থানার খরদো গ্রামপঞ্চায়েতের চাঁদ গ্রামের সরদার পাড়ার তিন ছাত্রী সুতপা সরকার, পল্লবী সরদার ও শ্রাবনী সরকার শুক্রবার স্কুল ‌যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয়ে ‌যায়। পরিবারের অভি‌যোগ স্কুলে ‌যাওয়ার পথে মাঠের মধ্যে পাঁচ ‌যুবক তাদের মুখে কাপড় বেঁধে গাড়িতে তুলে নিয়ে চলে গিয়েছে। সন্দেহ করে পাড়ারই ‌যুবক চিরঞ্জিৎ ও ভুন্ডুলেকে জেরা করে তিন জনের নাম পাওয়া ‌যায়। তাদের বাড়ি বেহালা ও পৈলান এলাকায়। তাদের বাড়িতে খোঁজ করেও তিন ছাত্রীর হদিশ করতে পারেনি বিষ্ণুপুর থানার পুলিস।

  • স্বামীকে বিষ খাইয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল স্ত্রীর বিরুদ্ধে।

    ডেস্কঃ(I.D).০৭ মার্চ ২০১৮ঃ- স্বামীর অনুপস্থিতিতে এলাকারই যুবকের সঙ্গে বন্ধুত্ব, তারপর ঘনিষ্ঠতা।তাঁকে বাড়িতে আনা, একান্তে সময় কাটানো, অন্তরঙ্গ মুহূর্ত-এইভাবেই চলছিল উত্তর ২৪ পরগনার গাইঘাটার বাসিন্দা পল্লিমা বসুর। কিন্তু মঙ্গলবার রাতেই ঘটে গেল মর্মান্তিক ঘটনা।  বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের জেরে। স্বামীকে বিষ খাইয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল স্ত্রীর বিরুদ্ধে।গাজনার বাসিন্দা পেশায় গাড়িচালক মলয় বসুর সঙ্গে পল্লিমার দাম্পত্য ১৭ বছরের। তাদের দুই সন্তানও রয়েছে। প্রতিবেশীদের অভিযোগ, পল্লিমা,  সুজয় নামে একটি ছেলের সঙ্গে ইদানীং বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। কাজের জন্য মাঝেমধ্যেই বাইরে থাকতেন মলয়। অভিযোগ, সেই সুযোগকেই সুজয়কে ফাঁকা বাড়িতে ডেকে নিতেন পল্লিমা। মঙ্গলবার রাতে কোনও খবর না দিয়েই বাড়িতে ফিরে যান মলয়। ঘরের দরজা খুলতেই নিজের স্ত্রীকে বিছানায় ঘনিষ্ঠ অবস্থায় অন্য এক পুরুষের সঙ্গে দেখতে পান তিনি। স্থানীয়দের অভিযোগ, এরপরই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি শুরু হয়। স্থানীয়দের আরও দাবি, চিত্কার-চেঁচামেচির সময়েই মলয়ের কথায় উঠে আসে স্ত্রী পল্লিমার কুকীর্তির কথা। আভাস আগেই পেয়েছিলেন, মলয়বাবুর কথাতে আরও নিশ্চিত হন প্রতিবেশীরা।স্থানীয়দের দাবি, মঙ্গলবার অনেক রাত পর্যন্ত ঝগড়া চলে বসু পরিবারে। রাতে পল্লিমার কান্নার ঘুম শুনে মলয়বাবুর বাড়িতে যান প্রতিবেশীরা। তাঁরাই বিছানায় শুয়ে থাকতে মলয়বাবুকে। পরে পুলিস গিয়ে দেহ উদ্ধার করে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, পল্লিমাই তাঁকে বিষ খাইয়েছেন। পল্লিমাকে আটক করেছে পুলিস।

  • যুবক খুনের অভিযোগ উঠল প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে।

    ডেস্কঃ(I.D).০৩ মার্চ ২০১৮ঃ- যুবক খুনের অভিযোগ উঠল প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে।জমি নিয়ে বিবাদের জেরে যুবক খুনের অভিযোগ।বয়স ২৫ বছর। ঘটনাটি দক্ষিণ ২৪ পরগনার মগরাহাটের।পরিবার সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকালে ব্যবসার জন্য মালপত্র কিনতে বন্ধুর সঙ্গে বাড়ি থেকে বেরন জহুরোল। ১০ হাজার টাকা নিয়ে কলকাতার উদ্দেশে রওনা দেন তিনি। বিকেলের মধ্যেই বাড়ি ফিরবেন বলে বাড়িতে বলেছিলেন জহুরোল। কিন্তু সন্ধ্যা পেরিয়ে রাত গড়িয়ে গেলেও জহুরোল আর বাড়ি ফেরেননি। এরপরই শনিবার সকালে জহুরোলের মৃত্যুসংবাদ পান বাড়ির লোকেরা।মগরাহাটের বাঁকীপুর গ্রামে বাড়ি থেকে কিছু দূরে রাস্তার পাশে জহুরোলের দেহ উদ্ধার করেন স্থানীয় বাসিন্দারাই। জহুরোলের মা সেরিনা বিবি জানিয়েছেন, বেশ কিছুদিন ধরেই তাঁদের কয়েকজন প্রতিবেশীর সঙ্গে জমি নিয়ে বিবাদ চলছিল। প্রতিবেশীরা যথেষ্ট প্রভাবশালী। প্রতিবেশীদের অত্যাচারের হাত থেকে বাঁচতে বিলেন্দপুরের বাড়ি থেকে পালিয়ে বাঁকীপুরে আত্মীয়ের বাড়িতে এসে উঠেছিলেন তাঁরা।কিন্তু অভিযোগ, তারপরেও তাঁদেরকে হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। জহুরোলকে খুনের পিছনে তাঁদেরই হাত রয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান জহুরোলের পরিবারের।

  • নিউ ব্যারাকপুর -দিঘা রুটে সরকারি বাসের যাত্রা শুরু করলেন চন্দ্রিমা।

    বারাসাত, 27 ফেব্রুয়ারী 2018 : নিউ ব্যারাকপুর দিঘা রুটে সরকারি বাসের যাত্রা শুরু করলেন স্বাস্থ্য প্রতী মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। সোমবার কৃষ্টি ময়দান থেকে সবুজ ঝান্ডা উড়িয়ে দিঘার উদ্দ্যেশ্যে   বাসটির রওনা করান চন্দ্রিমা দেবী। এদিন এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ঘিরে উৎসাহী মানুষের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত। সামনেই চার দিনের ছুটি ।তাই অগ্রিম টিকিট কাটার জন্য শুরু হয়ে গেছে হুরু হুরি । এদিন চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য্য তার ভাষণে জানান,  মানুষের বহু দিনের স্বপ্ন ছিল । আর মানুষের স্বপ্ন পূরণ করাই আমাদের কাজ। বর্তমানে একটি বাস চালানো হলো ,লোকের চাহিদা বাড়লে আরো বেশী বাস দেওয়া হবে । এছাড়াও খুব শীঘ্রই নিউ ব্যারাকপুর থেকে তাড়াপীঠের বাস চালানো হবে। এদিন নিউ ব্যারাকপুর এলাকার নাগরিক ঋতুপর্ণা ব্যানার্জী জানান, এলাকার মানুষ আজকের দিনটির কথা কোনো দিন ই ভুলবে না। আমরা নতুন ভোটার রা সব সময় দিদির পাশে আছি আর থাকবো। আমরা চাই দিদি আবার 21 এর নির্বাচনে আমাদের প্রাথী হন। কারণ দিদি যে আমাদের আজ ভুলেন নি তার বড় প্রমান আজকের এই উপহার ।