মালদা

  • মালদার তৃনমূল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন অপসারিত নূতন সভানেত্রী মৌসম বেনজির নুর।

    মালদা, ২৫ মেঃ আজ কলকাতায় কালীঘাটে তৃনমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের বাসভবনে সাম্প্রতিক লোকসভা নির্বাচনে বিভিন্ন কেন্দ্রে  পরাজয়ের কারণ নিয়ে পর্যালোচনার জন্য দলের সাংসদ থেকে শুরু করে বিধায়ক দলীয় প্রার্থী,  এবং জেলার নেতাদের  নিয়ে এক সভা করেন সেখানে বেশ কয়েকটি জেলায় সাংগঠনিক পদে পরিবর্তন করা হয়েছে ।  তার মধ্যে মালদা জেলার বর্তমান তৃনমূল সভাপতি  মোয়াজ্জেম হোসেন কে অপসারিত করা হয়েছে। মালদা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি পদে অভিষিক্ত করা হয়েছে প্রাক্তন সাংসদ এবং মালদা উত্তর কেন্দ্রের পরাজিত দলীয় প্রার্থী  মৌসম বেনজির নুরকে।

  • মালদা শহরের সুকান্তপল্লী এলাকায় বেআইনি মদের ঠেকে ভাঙচুর স্থানীয় বাসিন্দাদের

    মালদা, ২৫ মেঃ বেআইনি মদের ঠেকে ভাঙচুর চালানোর ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়। শনিবার দুপুরে ইংরেজবাজার শহরের ২১ নম্বর ওয়ার্ডের সুকান্তপল্লী এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। ঘটনাস্থলে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, এদিন দুপুরে শহরের সুকান্তপল্লী এলাকায় চার যুবক বেআইনি ভাবে মাদক বিক্রি করতে আসে। স্থানীয় বাসিন্দারা হাতেনাতে ধরে তাদের ব্যাপক মারধোর করে। ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। অভিযুক্ত চারজনকে একটি ঘরে বন্দি করে রাখে পুলিশকে খবর দেয় বাসিন্দারা। সেই সময় চার যুবককে সেখান থেকে পালিয়ে যেতে সাহায্য করে স্থানীয় এক ব্যাক্তি। ঘটনায় উত্তেজিত জনতা ওই এলাকায় বেআইনি চারটি মদের ঠেকে ভাঙচুর চালায়। ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। তবে কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

  • তড়িদাহত হয়ে গবাদিপশুর মৃত্যু ঘিরে উত্তেজনা পুরাতন মালদা পৌরসভার মহানন্দা কলোনিতে

    মালদা, ২৫ মেঃ তড়ি দাহত হয়ে গবাদিপশুর মৃত্যু ঘিরে উত্তেজনা ছড়াল এলাকায়। ঘটনাস্থলে বিদ্যুৎ কর্মীরা পৌঁছালে তাদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয়রা বলে অভিযোগ। শনিবার সকালে ঘটনাটি ঘটে পুরাতন মালদা পৌরসভার ১৮  নম্বর ওয়ার্ডের মহানন্দা কলোনি এলাকায়। উল্লেখ্য আজ সকালে ওই এলাকায় একটি ইলেকট্রিক পোলের সামনে এক গবাদিপশুকে মৃত অবস্থায় দেখতে  পান স্থানীয়রা। খবর চাউর হতেই শয়ে শয়ে স্থানীয়রা ছুটে আসেন। এই ঘটনায় পুরাতন মালদা পৌরসভা এবং বিদ্যুৎ দপ্তর এর গাফিলতির অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন স্থানীয়রা। খবর দেওয়া হয় বিদ্যুৎ দপ্তরে। অভিযোগ  দুই ঘণ্টারও বেশি সময় পর ঘটনাস্থলে পৌঁছান বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মীরা। বিদ্যুৎ কর্মীদের ঘিরে চরম বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয়রা। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ পৌরসভা এবং বিদ্যুৎ দপ্তর এর কর্মীদের গাফিলতির কারণে আজ এই ঘটনা ঘটলো। সকাল এর পরিবর্তে একটু বেলা করে এই ঘটনা ঘটলে গবাদিপশুর জায়গায় হয়তো কোন মানুষের মৃত্যু হতে পারত বলে অভিযোগ করেছেন তারা।

  • দক্ষিণ মালদায় কোন ব্লকে কে কেমন ভোট পেলো! দেখে নিন এক নজরে

    News Bazar24:দক্ষিণ মালদা নির্বাচনী ক্ষেত্রে বিজেপি ও কংগ্রেসের ঢেকি লড়াই।শেষ পর্যন্ত কংগ্রেসের জয়। তাও আবার নাম মাত্র ভোটের ব্যাবধানে। আর সেই জন্যই সবার মধ্যে কৌতূহল কে কোথায় কেমন ভোট পেলো। আর এই কৌতূহল চেপে রাখা ভালো নয়। বিশেষ করে হার্ট রুগীদের জন্য। তাই আমরা আপনাদের পাশে আছি । দেখে নিন কে কোথায় মনে কোন ব্লকে কেমন ভোট পেলেন…..

  • গেরুয়া ঝড়ে ধূলিসাৎ হয়ে গেল মালদার ২টি লোকসভা আসনে তৃণমূলের জয়ের আশা।

    মালদা, ২৪ শে মেঃ গোটা উত্তরবঙ্গ জুড়ে ব্যাপক গেরুয়া ঝড়ে থমকে গেল তৃণমূলের মিথ।  উত্তরবঙ্গের অন্যান্য জেলার ন্যায় মালদা জেলার দুটি লোকসভা আসনের একটিতেও ঘাস ফুল ফোটাতে সক্ষম হল না তৃনমূল। মালদার দুটি লোকসভা কেন্দ্র উত্তর মালদা ও মালদা দক্ষিনএ  তৃণমূল কংগ্রেস  প্রার্থীরা হারলেন  । উত্তর মালদা লোকসভা কেন্দ্রে প্রতিপক্ষ তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মৌসম নুর কে ৮২৪৯৮ ভোটে হারিয়ে জয়ী হলেন বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু। বিজেপি প্রার্থী খগেন পেয়েছেন ৫০৯৫২৪টি ভোট , তৃণমূল প্রার্থী মৌসম নূর পেয়েছেন ৪২৫২২৬ টি ভোট এবং অপর প্রার্থী কংগ্রেসের ঈশা খান পেয়েছেন ৩০৫২৭০টি ভোট। জয়ী হবার পর বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু  জানান, গোটা ভারতবর্ষে যে মোদী হাওয়া উঠেছে তারই ফলশ্রুতি স্বরুপ উত্তর মালদায় মোদির জয়। এখানকার মানুষ কংগ্রেস  ও  তৃণমূলের উপর  বিতশ্রদ্ধ। বাংলার মানুষের উন্নয়ন  একমাত্র বিজেপি করতে পারে। তাই মালদার মানুষ আমাকে জয়ী করেছে। আগামী দিনে যাতে মালদার জ্বলন্ত সমস্যা গুলোকে সমাধান করা যায় তার জন্য আমি সংসদে লড়াই করব।  অন্যদিকে এই বিপুল ভোটে পরাজয়ের পর তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মৌসম নুর জানান, শুধু মালদা নয় গোটা  রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের খারাপ ফলাফল হয়েছে। আমাদের আশানুরূপ ফলাফল হয়নি।  এখানে ধর্মের ভিত্তিতে ভোট হয়েছে এবনফ আদিবাসীদের একটা বিরাট অংশের মানুষ আমদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে তবে মানুষের রায় কে আমরা মেনে নিচ্ছি। আগামীতে তৃণমূল কংগ্রেসের খারাপ ফলাফল নিয়ে আমরা  আরও  আলোচনা করব এবং কেন এই ফলাফল সেটা খতিয়ে দেখব। অন্যদিকে দক্ষিণ মালদা লোকসভা কেন্দ্রে  শেষ হাসি হাসলেন কংগ্রেসের  প্রার্থী এবং গনি পরিবারের প্রবীন সদস্য আবু হাসেম খান চৌধুরী। সারাদিন ধরে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরীকে হারিয়ে জয়ী হলেন কংগ্রেস প্রার্থী আবু হাসেম খান চৌধুরী। তার জয়ের ব্যবধান ৯৫৩৭ । এই নিয়ে পরপর  চার বার  এমপি হলেন আবু হাসেম খান চৌধুরী। এখানে তৃনমূল প্রার্থী মোয়াজ্জেম হোসেন ৩ নম্বরে নেমে গেলেন। এক কথায় বলা যায় সংখ্যালঘু  অধ্যুষিত এলাকায় বিজেপি যেভাবে লড়াই চালাল তা আগামী দিনে শাষক দলকে চিন্তায় রাখবে। এই কেন্দ্রে  আবু হাসেম খান চৌধুরী পেয়েছেন ৪৪৩৫৪০টি ভোট। বিজেপি প্রার্থী  শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী পেয়েছেন ৪৩৪০০৩টি ভোট  এবং তৃণমূল কংগ্রেসের মোয়াজ্জেম হোসেন পেয়েছেন ৩৫০৩৭৪টি ভোট। জেতার পর আবু হাসেম খান চৌধুরী বলেছেন “এই জয় গনি খানের জয়। গনি  খানের প্রতি মালদার মানুষের যে এখনও শ্রদ্বা আছে এই ভোটে তা আর একবার প্রমানিত হল। সন্ত্রাস অপ্রচার সত্তেও এই জয় মানুষের জয়। (বি দঃ গতকাল আমাদের খবরে দক্ষিন মালদা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থীকে জয়ী দেখানো হয়েছিল। সংবাদ সংস্থার খবরে ত্রুটির জন্য আমাদের এই খবর ভুলবশত পরিবেশন করা হয়েছিল। এজন্য আমরা আমাদের পাঠকদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী)            

  • গনির দুর্গে ফুটলো পদ্ম।সংখ্যালঘু অধ্যুষিত মালদহ দক্ষিণেই জয় হাসিল করে নিল গেরুয়া শিবির।

    News Bazar24: মালদহ দক্ষিণের মতো কংগ্রেসের গড়ে গেরুয়া ঝড়ে উল্টে দিল যাবতীয় হিসেব-নিকেশ। মালদহ দক্ষিণ লোকসভা কেন্দ্র থেকে জিতলেন বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী। মালদহ দক্ষিণে সকাল থেকে সেয়ানে-সেয়ানে টক্কর চলছিল বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী ও আবু হাসেম খান চৌধুরী ওরফে ডালুর মধ্যে। কিন্তু শেষলগ্নে ডালুকে মাত দিয়ে জয়ী হলেন শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী। মালদহ উত্তরে বিজেপির জয়ের সম্ভাবনা থাকলেও দক্ষিণের কথা কেউ কল্পনাও করেননি। সংখ্যালঘু অধ্যুষিত মালদহ দক্ষিণেই জয় হাসিল করে নিল গেরুয়া শিবির। রাজনৈতিক মহলের মতে, সংখ্যালঘু ভোট কংগ্রেস-তৃণমূলে ভাগ হওয়ার সুবিধা পেয়ে গিয়েছেন বিজেপি প্রার্থী। হিন্দু ভোট গোটাটাই পড়েছে তাঁর দিকে। এটাও একটা নতুন প্রবণতা। পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতির ইতিহাসে সম্ভবত প্রথমবার একত্রিত হিন্দু ভোট।

  • মালদার দুই কেন্দ্রে বিজেপি এগিয়ে! দেখুন ভিডিও

    News Bazar24 : ভোট গননায় এগিয়ে থাকতেই রাস্তায় নেমে পড়লো মালদার গেরুয়া শিবির। বস্তা বস্তা কেনা হচ্ছে আবির। চলছে মিষ্টি মুখ। মালদার দুই লোকসভা কেন্দ্রে এগিয়ে বিজেপি। শহর জুড়ে মিছিল বিজেপি কর্মীদের। দেখুন ভিডিও।

  • Live 01 PM. : মালদার লোক সভা ভোটের নির্বাচনী ফলাফল

    ( সকাল ১০ টা পর্যন্ত ) প্রথম রাউন্ডের গননা শেষ। গণনা শেষে উত্তর মালদা কেন্দ্রে এগিয়ে বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু। প্রথম রাউন্ড এর গণনা শেষে বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু পেয়েছেন 6377 ভোট, কংগ্রেস প্রার্থী ঈশা খান চৌধুরী পেয়েছেন 621 ভোট এবং তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মৌসম বেনজির নূর পেয়েছেন 1678 ভোট। প্রথম রাউন্ডে গননা শেষে প্রায় 4500 ভোটে এগিয়ে বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু। দুপুর ১২ টা পর্যন্ত : /05, 11:52 : দক্ষিণ মালদা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী শিরোপা মিত্র চৌধুরী 19104 ভোটে এগিয়ে। [23/05, 11:55] এখন পর্যন্ত উত্তর মালদা লোকসভা কেন্দ্রের খগেন মুর্মু বিজেপি প্রার্থী 21 হাজার 653 ভোটে তৃণমূল প্রার্থী মৌসম নুর কে পিছনে ফেলে এগিয়ে আছেl দক্ষিণ মালদা লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী 10993 ভোটে এগিয়ে আছ। পেছনে রয়েছে কংগ্রেস প্রার্থী আবু হাসেম খান চৌধুরী। অন্যদিকে হবিবপুর বিধানসভা উপ নির্বাচন কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী জুয়েল মুর্মু 3590 ভোটে এগিয়ে রয়েছে পেছনে রয়েছে তৃণমূল প্রার্থী অমল কিস্কু।     দুপুর 1 টা পর্যন্ত : [23/05, : এখনো পর্যন্ত সবাইকে পেছনে ফেলে বিপুল ভোটের ব্যবধানে এগিয়ে উত্তর মালদা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু। তিনি পেয়েছেন 91936 টি ভোট। তার পরেই রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মৌসম বেনজির নূর। তিনি পেয়েছেন 73823 টি ভোট। তারপরে রয়েছে কংগ্রেস প্রার্থী ইশা খান চৌধুরী। তিনি পেয়েছেন 42841। এই মুহূর্তে প্রায় 18 হাজার ভোটে এগিয়ে বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু। গননা বন্ধ [23/05, : প্রিসাইডিং অফিসার এর ডায়রীর সাথে ইভিএমের কিছু গন্ডগোল থাকায় দক্ষিণ মালদা কেন্দ্রের ইংরেজবাজার বিধানসভা কেন্দ্র এবং মোথাবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রের গণনা বন্ধ আছে। [23/05, 21 হাজার 478 ভোটে এগিয়ে উত্তর মালদা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মু। এই দক্ষিণ মালদা ক্ষেত্রে 12856 ভোটে এগিয়ে বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী

  • পিস একাডেমি উদ্যোগে দাওয়াতে ইফতার ও আলোচনা চক্র।

    মালদা : পিস একাডেমি ও রহমান ফাউন্ডেশন ট্রাস্টের উদ্যোগে দাওয়াতে ইফতার ও আলোচনা চক্রের আয়োজন করা হয়।১৫ রমজান উপলক্ষে দাওয়াতে ইফতার পার্টি ও আলোচনা চক্রের আয়োজন করা হয় মালদা গাজল হানার ঢাকনা পাড়া এলাকায় অবস্থিত পিস একাডেমি প্রাঙ্গণে। প্রসঙ্গত, গত তিন বছর ধরে রমজান মাসে এই ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আসছে পিস একাডেমি ও রহমান ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট। এবারও বহু বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ও অন্যান্য অনেকের উপস্থিতিতে সুন্দরভাবে এক ইফতার কর্মসূচি ও আলোচনা সভা সমপন্ন হয়েছে । এই দিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেনমিশন শিক্ষা আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃত আল আমিন মিশন বেলপুকুর শাখার সুপারেন্টেন জানব মঈনুউদ্দিন আহমেদ, পিস একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা ও রহমান ফাউন্ডেশন ট্রাস্টের সম্পাদক ব্যথার চিকিৎসক ডাক্তার এম রহমান, উত্তর পূর্ব ভারত হিউম্যান ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের ডাইরেক্টর আবদুল ওদুদ, মালদা গাজোল জামে মসজিদের ইমাম আবু হায়াত, এছাড়া উপস্থিত ছিলেন আব্দুল ওহাব, সাইফুদ্দিন, আবুবক্কার সিদ্দিক, মহসিন আলী, পিস একাডেমীর টি আই সি ও শিক্ষক ও শিক্ষা কর্মী এবং ছাত্র গান, সম্পূর্ণ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ফিরোজ করিম চৌধুরী( টুনু) ও মাইফাজলুর রহমান। এদিন মুসলিম সম্প্রদায়ের ভূমিকা শীর্ষক এক আলোচনা চক্রে সমাজকে বিভিন্ন গঠনমূলক কাজের মাধ্যমে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেন ও যাকাত সম্বন্ধে আলোচনা করা হয়।আল আমিন মিশন বেলপুকুর শাখার সুপারেন্টেন জানব মঈনুউদ্দিন আহমেদ বলেন,ইসলামের প্রকৃত আদর্শ মেনে চললে সমাজ থেকে অন্যায় ও খারাপ কাজ দূরীভূত হবে । রোজা গুরুত্বপূর্ণ মাস । রোজার মাসে নিজেকে পরিপূর্ণভাবে সংশোধন করতে পারলে এই শক্তি দিয়ে আগামী সারাবছর ভালো শক্তি অর্জিত হবে । শান্তির পথ প্রশস্ত হবে ।এ দিনের আলোচনা চক্রে অংশগ্রহণ করেন ও দোয়া পাঠ করে সকলের মঙ্গল কামনা করা হয় ।

  • মাধ্যমিক পরীক্ষায় রাজ্যের যুগ্মভাবে দশম স্থানে সায়নিকা ! কে এই ছাত্রী ?

    সুমিত ঘোষ: ২১ মে।  মালদা বার্লো গার্লস হাই স্কুলের সায়নিকা দাস এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষায় রাজ্যের যুগ্মভাবে দশম স্থান দখল করেছে। মালদা জেলায় মাধ্যমিকে  তার স্থান প্রথম।  মধ্যবিত্ত ঘরের মেয়ে সায়নিকার এই ফলাফলে খুশি পরিবার থেকে পাড়া-প্রতিবেশীরা।  তার ভালো ফলে স্বাভাবিকভাবে খুশি ওই স্কুল কর্তৃপক্ষ। এবারে মাধ্যমিকে তার প্রাপ্ত নম্বর ৬৮১। তার বিভিন্ন বিষয়ের প্রাপ্ত নম্বর যথা - বাংলায় ৯০, ইংরেজিতে ৯০, অংকে ৯০, ভৌত বিজ্ঞানে ৯০, জীবন বিজ্ঞানে ৯০, ইতিহাসে ৯০ এবং ভূগোলে ৯০। মালদা শহরের গৌড়রোড তালতলা এলাকার বাসিন্দা অভিসিত দাসের একমাত্র মেয়ে সায়নিকার মাধ্যমিকে যুগ্মভাবে রাজ্যে দশম স্থান দখলের খবর জানাজানি হতেই পাড়া-প্রতিবেশীদের ভিড় তাদের বাড়িতে উপচে পরে। শুরু হয়ে যায় মিষ্টিমুখ করার পালা। কৃতি ওই ছাত্রীর বাবা অভিসিত দাস পেশায় পুলিশ কর্মী। মা সোনালী দাস পেশায় স্কুল শিক্ষিকা। মধ্যবিত্ত ঘরের মেয়ের এমন সাফল্যে আনন্দ ধরে রাখতে পারেননি বাবা ও মা । রীতিমতো মেয়ের এই সাফল্যে তাদের চোখ থেকে আনন্দের অশ্রুধারা বইতে দেখা গিয়েছে।  বার্লো গার্লস হাইস্কুল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে,  গতবারের মতোন এবছর তাদের স্কুলের ফলাফল ভালো হয়েছে। এদিকে কৃতি ওই ছাত্রী সায়নিকা দাস বলেন,  মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রস্তুতির আগে আমার পড়ার নির্দিষ্ট কোন সময়সীমা ছিল না । যখন যেভাবে পেরেছি পড়েছি।  স্কুলের শিক্ষিকা থেকে গৃহশিক্ষকদের সহযোগিতা খুব ভালোভাবে পেয়েছি । বাবা -  মা সব সময় আমাকে শিক্ষা ক্ষেত্রে গাইড করতেন।  তবে আমি ভাবতে পারি নি এতটা ভালো ফল করতে পারব । ভবিষ্যতে জয়েন্ট এন্ট্রান্সের মাধ্যমে ডাক্তারি পড়ার ইচ্ছে রয়েছে সায়নিকার।