���������������������

  • হোয়াইট ইলেভেনের টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট-র ফাইনালে হোয়াইট ইলেভেন ও সাত সকালে, মালদা।

    কার্ত্তিক পাল, মালদা, ১৫ই মার্চঃ হোয়াইট ইলেভেন ক্লাবের পরিচালনায় টি-২০  ক্রিকেট টুর্নামেন্টের  আজ ছিল সেমিফাইনাল খেলা। প্রথম সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল সাত সকালে, মালদা বনাম সব্যসাচী সংঘ মালদা সাত সকালে টসে জিতে ব্যাটিং করে নির্ধারিত ২০ ওভারে করে ৮ঊইকেটে ১৯৩ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে সব্যসাচী সংঘ মালদা ১৬৩ রানে সকলে আঊট হয়ে যান। সাত সকালে ৩০ রানে জয়লাভ করে ফাইনালে পৌছে যায়। দ্বিতীয় সেমিফাইনালে অংশগ্রহণ করে হোয়াইট ইলেভেন ও বহরমপুর সবুজ সংঘ। সবুজ সংঘ টসে জিতে হোয়াইট ইলেভেনকে ব্যাট করতে পাঠায়। তারা ২০ ওভারে ১৩০ রান করে। বহরমপুর সবুজ সংঘ ব্যাট করতে নেমে বিপর্যয়ের সন্মুখীন হয়  এবং ৬৩ রানে সকলে আউট হয়ে যায়। হোয়াইট ইলেভেন ৬৭ রানে জয়লাভ করে। অর্থাৎ এই  টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় মুখোমুখি হবে আয়োজক হোয়াইট ইলেভেন ও সাত সকালে, মালদা। ফাইনাল খেলা হবে আগামী রবিবার ১৭ তারিখ।     

  • মালদায় হোয়াইট ইলেভেনের পরিচালনায় শুরু হল টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট।

    কার্ত্তিক পাল, মালদা, ১৩ই মার্চঃ মালদা শহরে সারা বছর ধরে যে সমস্ত ক্লাব ক্রিকেটের প্রতিভাকে তুলে ধরার জন্য প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তার মধ্যে অন্যতম ঝলঝলিয়ার হোয়াইট ইলেভেন ক্লাব। বিগত কয়েক  বৎসরের ন্যায় এবারও হোয়াইট ইলেভেন ক্লাব “প্রদীপ কর  মেমোরিয়াল চ্যাম্পিয়ান ও রাম চন্দ্র ঘোষ মেমোরিয়াল রানার্স আপ” নক আউট   টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করেছে। যার শুভ উদ্বোধন হল আজ মালদা রেল কলোনির  মাঠে।উপস্থিত ছিলেন ইংরেজবাজার পৌরসভার ২২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলার শ্রী নরেন্দ্র নাথ তেওয়ারী ও পূর্ব রেলওয়ের মালদা ডিভিশানের আধিকারিকগন। ক্লাব সুত্রে  জানা যায়  মোট ৮ টি দল নিয়ে এই খেলা  অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দল গুলি হল মালদা ক্লাব,হোয়াইট ইলেভেন ক্লাব, জেনিথ এফ সি মালদা, সবুজ সংঘ বহরমপুর ,সুজয় স্মৃতি সংঘ ,মালদা সাত সকালে, সব্যসাচী সংঘ মালদা,  ও জে এস একাদশ মালদা । আজকের উদ্বোধনী  প্রথম খেলায় সব্যসাচী সংঘ সুজয় স্মৃতি সংঘকে পরাজিত করে সেমিফাইনালে উঠে। টসে জিতে সুজয় স্মৃতি সংঘ প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৬৩ রান করে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে সব্যসাচী সংঘ ৬ উইকেটে ১৬৪ রান করে। সব্যসাচী সংঘ ৪ উইকেটে জয়লাভ করে। ম্যান অফ দি ম্যাচ হন সব্যসাচী সংঘের মনোজ বড়ুয়া।  দ্বিতীয় খেলায় অংশগ্রহণ করছে মালদা ক্লাব ও সবুজ সংঘ বহরমপুর। মালদা ক্লাব প্রথমে ব্যাট করে ৮উইকেটে ১৫২রান করে। তারপর সবুজ সংঘ বহরমপুর ২উইকেটে ১৫৩ রান করে ৮ উইকেটে জয়লাভ  করে।

  • ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে টি-২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচে শেষ বলে রোমাঞ্চকর জয় অস্ট্রেলিয়ার

    ডেস্ক ২৪ ফেব্রুয়ারিঃ বিশাখাপত্তনমে  ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে  টি২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাট করে ভারত মাত্র ১২৬ রান তুলল। এত কম রানের  ম্যাচ একতরফা  হবে বলে ম্ন্যে হয়েছিল  । কিন্তু সেই ম্যাচই পৌঁছাল চুড়ান্ত রোমাঞ্চকর পর্যায়ে। একেবারে শেষ বলে ৩ উইকেটে জয় পেল অস্ট্রেলিয়া। ক্যুল্টার নাইল ৩ উইকেট এবং ম্যাক্সওয়েলের ৫৬ রান তাদের জয়ের পথ গড়ে দিল । এদিন  মাত্র ১২৬ রান নিয়েও দারুণ লড়াই করলেন ভারতীয় বোলাররা। বিশেষ করে ফিরে এসেই বুমরা ৪ ওভারে মাত্র ১৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিলেন। সবচেয়ে বড় কথা ১৯তম ওভারে বল করতে এসে বুমরা মাত্র ২ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়ে ভারতকে ম্যাচে ফিরিয়ে এনেছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ ওভারে ১৪ রান আটকাতে পারেননি উমেশ যাদব। সব মিলিয়ে ৪ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে উইকেটহীন থাকলেন তিনি। শেষের মতো শুরুতেও অজি অধিনায়ক ফিঞ্চ (০)-কে ফিরিয়ে দিয়ে অজিদের ধাক্কা দিয়েছিলেন বুমরা। আর স্টইনিস রান আউট হল ১ রানে। তবে এরপর অস্ট্রেলিয়াকে জয়ের পথে নিয়ে যাচ্ছিলেন ডার্সি শর্ট (৩৭ বলে ৩৭) ও ম্যাক্সওয়েল (৪৩ লে ৫৬)। তাঁরা দুজে অস্ট্রেলিয়াকে ১৫ ওভারে ১০১ রানে পৌঁছে দিয়েছিলেন। খেলা ডেথে পৌঁছতেই পথ হারায় অস্ট্রেলিয়া। পরের ৪ ওভারে উঠেছিল মাত্র ১৩। কিন্তু শেষ পর্যন্ত টেল এন্ডাররা অস্ট্রেলিয়াকে জয় এনে দেন। তার আগে ৩৬ বল খেলে ৬টি চার ও ১টি ছয় মেরে ৫০ রান করেন  রাহুল। রোহিত শর্মা (৫)-র এদিন বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। রাহুলের সঙ্গে ৫৫ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক বিরাট কোহলি (১৭ বলে ২৪)। কিন্তু তখনও ভারতের রান ১০ ওভারে ২ উইকেটে ৮১ থেকে ক্যুল্টার নাইলের ৩ উইকেটে ঘুরে যায় খেলা। ক্যুল্টার নাইলে এদিন তিনি ৪ ওভারে মাত্র ২৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন। একেদিকে একের পর উইকেট পড়েছে, অপরদিক ধরে রাখলেও ধোনিও এদিন ৩৭টি বল খেলে কোনওক্রমে ২৯ রান তুলতে পেরেছেন। শেষের কোনও ব্যাটসম্যানই তাকে যোগ্য সংগত দিতে পারেননি।  

  • মালদা শহরে শুরু হল গৌতম দাস মেমোরিয়াল নকআউট ক্রিকেট টুর্নামেন্ট।

    মালদা ২২ ফেব্রুয়ারি।  শুক্রবার থেকে মালদা শহরের বৃন্দাবন মাঠে শুরু হলো গৌতম দাস মেমোরিয়াল নকআউট ক্রিকেট টুর্নামেন্ট।  সুহৃদ মিত্র ক্রিকেট কোচিং ক্যাম্পের পরিচালনায় এই টুর্নামেন্ট শুরু  হয়েছে।  বিহার, পাটনা এবং প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশ সহ মোট ১৬ টি দল এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করছে।  রোজ দুটি করে খেলা অনুষ্ঠিত হবে  এই  ক্রিকেট টুর্ণামেন্টে।  তবে শুক্রবার টুর্নামেন্টের  উদ্বোধনী দিন একটি খেলা হয় মালদা এবং কাঠিয়ারের একটি ক্লাবের মধ্যে। এই  ক্রিকেট টুর্নামেন্ট কমিটির  সদস্য  এবং কোচ প্রভাত চৌধুরী  জানিয়েছেন,  গৌতম দাস মেমোরিয়াল চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেট টুর্ণামেন্টেটি তিন বছরে পড়লো। প্রতিটি খেলা নকআউট পর্যায়ে হবে। প্রতিবছরের মতো এবছরও ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছে।  জেলার বাইরে এবং প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশ থেকেও খেলোয়াড়েরা এসেছেন ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অংশগ্রহণ করার জন্য। 

  • তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজে দ্বিতীয় ম্যাচে জিতে সিরিজে সমতা ফেরাল ভারতীয় দল

    ডেস্ক, ৮ই ফেব্রুয়ারীঃ তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচে শোচনীয় হারের পর ভারতীয় ক্রিকেট দল দ্বিতীয় ম্যাচে  দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়াল । আজ  ইডেন পার্কে নিউজিল্যান্ডকে সাত উইকেটে পরাজিত করল ভারতীয় দল। টসে  জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়  নিউজিল্যান্ড। প্রথম ম্যাচের নায়ক সেই  ওপেনার টিম সেইফার্ট আজ রান করতে পারন নি  । দু'জনেই ১২ বলে ১২ রান করে ফিরে যান প্যাভেলিয়নে।এর পর কেন উইলিয়ামসন চেষ্টা করেন  কিন্তু তিনিও  ব্যর্থ হন। মাত্র ২০ রান করে তিনি আউট হয়ে যান।  পরপর তিন জন আউট হয়ে যাওয়ায় কিছুটা বে কায়দায় পড়েন।। এর পর নিউজিল্যান্ড ব্যাটিংয়ের হাল ধরেন রস টেলর ও কলিন ডে গ্র্যান্ডহোম। টেলর ৪২ ও গ্র্যান্ডহোম ৫০ রান করে আউট হন। নির্ধারিত ৫০ ওভারে  ৮ উইকেটে ১৫৮ রানে  শেষ হয় নিউজিল্যান্ডের ইনিংস। ভারতের হয়ে তিন উইকেট নেন ক্রুনাল পাণ্ড্যে, দু'টি উইকেট খলিল আহমেদের। একটি করে উইকেট ভুবনেশ্বর কুমার ও হার্দিক পাণ্ড্যের। জয়ের জন্য প্রয়োজন ১৫৯ রান। রোহিত শর্মা ও শিখৱ ধাওয়ান  ভারতীয় ইনিংসের ভিতটা শক্ত করে দিয়ে যান  । ২৯ বলে ৪০ রানের ইনিংস খেলেন রোহিত তার মধ্যে ৪টি ছয় । ৩১ বলে ৩০ রান করেন শিখর ধাওয়ান। বিজয় শঙ্কর আট বলে ১৪ রান করে আউট হয়ে যান।  এর পর বাকি কাজটি  সাঙ্গ করেন করে দেন দুই উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান ঋষভ পন্থ  ও এমএস ধোনি। তিন নম্বরে নামা ঋষভ পন্থ ২৮ বলে ৪০ রান করে। এমএস ধোনির ১৭ বলে ২০ রান করেন। দু'জনেই অপরাজিত থাকেন। ১৮.৫ ওভারে বাউন্ডারির সাহায্যে  ভারতকে জয় এনে দেন পন্থ।  ভারত ৩ উইকেটে  ১৬২ করে । সাত উইকেটে ম্যাচ জিতে সিরিজে সমতায় ফেরে ভারত। আজকের ম্যাচের সেরা হয়েছেন ক্রুনাল পাণ্ড্যে। আজকে রোহিত শর্মা আন্তর্জাতিক টি-২০ ম্যাচে সর্বোচচ রানের রেকর্ড গড়ে ফেললেন।   রবিবার শেষ টি২০ ম্যাচ এখন ফাইনাল দুই দলের জন্য।

  • টি২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচে ভারতের পুরুষ ও মহিলা দল পরাজিত।

    ডেস্ক , ৬ ফেব্রুয়ারি : ওডিআই সিরিজ়ের ব্যাপক সাফল্যের পর  প্রথম টি-২০ ম্যাচে   ভারত মুখ থুবড়ে পড়ল নিউজ়িল্যান্ড-র কাছে এবং  বিশাল ব্যবধানে  পরাজয়  স্বীকার করল। টসে জিতে ভারতীয় দল  প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন । ওয়েলিংটনে প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেট হারিয়ে ২১৯ রান করে নিউজ়িল্যান্ড। ২২০ রানের টার্গেট নিয়ে ব্যাট করতে নেমে ১৩৯ রানে শেষ হয়ে যায় ভারতীয় ইনিংস। ৮০ রানে জিতে তিন ম্যাচের সিরিজ়ে ১-০ তে এগিয়ে গেল নিউজ়িল্যান্ড। T-20-তে ভারতের এটাই সবচেয়ে বড় ব্যবধানে হার। আজ টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। কিন্তু নিউজ়িল্যান্ড-র ওপেনার টিম সেইফার্টের  ৪৩ বলের অনবদ্য ৮৪  রান করেন যদিও এর মধ্যে তিনি দুবার জীবন পেয়েছেন। ২১৯ রানে ইনিংস শেষ করে  নিউজ়িল্যান্ড। নিউজ়িল্যান্ডের হয়ে কলিন মুনরো ৩৪, কেন উইলিয়ামসন ৩৪ এবং রস টেলর ২৩ রান করেন। হার্দিক পান্ডিয়া ২টি উইকেট নেন। একটি করে উইকেট নেন ভুবনেশ্বর কুমার, খলিল আহমেদ, ক্রুনাল পান্ডিয়া ও যুজবেন্দ্র চাহল। ২২০ রানের টার্গেট নিয়ে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে শিখর ধাওয়ান ও বিজয় শংকর ছাড়া কেউ সেভাবে দাঁড়াতেই পারেননি। ধাওয়ান করেন ২৯ ও শংকর করেন ২৭। শেষ দিকে মহেন্দ্র সিং ধোনি করেন ৩৯ রান। ইনিংসে ৪ বল বাকি থাকতেই ১৩৯ রানে অল আউট হয়ে যায় ভারত। কিউয়িদের হয়ে টিম সাউদি ৩টি উইকেট নেন। ফার্গুসন, স্যান্টনার ও ইশ সোধি ২টি করে উইকেট নেন।  আজ ভারতীয় দলের বাজে ফিল্ডিং হারের অন্যত্ম প্রধান কারন বলে মনে হয়। টি-২০  ক্রিকেটে  গাদা গাদা ক্যাচ ফেলে জেতা সম্ভব নয়। ব্ল্যাক ক্যাপসদের পক্ষে সর্বোচ্চ রান করা সেইফার্টকে দুইবার জীবন দিয়েছেন ধোনি ও কার্তিক। কার্তিক এরপর আবার রস টেলরের ক্যাচও মিস করেন। পরে অবশ্য দারুণ ক্যআচ নিয়ে মিচেলকে ফিরিয়ে পাপস্খালন করেন কার্তিক।  

  • ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড, প্রথম টি২০: কখন, কোথায় দেখবেন ম্যাচের লাইভ

    ডেস্ক, ৫ই ফেব্রুয়ারীঃ যে ওয়েলিংটনেভারত বনাম নিউজিল্যান্ড, ওডিআই সিরিজ শেষ  হয়েছিল সেখান থেকেই টি২০ সিরিজ শুরু করতে চলেছে ভারত ও নিউজিল্যান্ড-র । বিরাট কোহলিকে বিশ্রাম দেওয়া শেষ দুটো ওডিআইর মত   টি২০ সিরিজেও দলকে নেতৃত্ব দেবেন রোহিত শর্মা। টি-২০ সিরিজ খেলতে ওয়েলিংটনে ভারতীয় দলে যোগ দিয়েছেন ক্রুনাল পান্ডে ও সিদ্বারথ কল। ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড প্রথম টি২০ হবে ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯।খেলা হবে ওয়েলিংটনের ওয়েস্টপ্যাক স্টেডিয়ামে। খেলা শুরু হবে ভারতীয় সময় দুপুর ১২.৩০ মিনিট থেকে। খেলা দেখা যাবে স্টার স্পোর্টস নেটওয়ার্কে। ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড প্রথম টি২০-এর লাইভ স্ট্রিমিং দেখা যাবে  

  • পুরুষ এবং মহিলাদের টি-২০ বিশ্বকাপ ২০২০-র ক্রীড়াসূচি প্রকাশিত হল।

    ডেস্ক, ৩০ জানুয়ারীঃ আইসিসি আজ আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশ করল  টি-২০ বিশ্বকাপ ২০২০-র  ক্রীড়াসূচি। পুরুষ এবং মহিলাদের টি-২০ বিশ্বকাপ হবে ওই একই বছরে মহিলা ও পুরুষদের।  উভয় বিভাগে ২০২০ সালের টি-২০ বিশ্বকাপের আসরের আয়োজক দেশও হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া।  টি-২০ বিশ্বকাপের ইতিহাসে এই প্রথম পুরুষ এবং মহিলাদের জন্য একই দেশে একই বছরে বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। পুরুষ এবং মহিলা টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালও হবে  বিশ্বের অন্যতম বড় স্টেডিয়াম মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে। ক্রীড়াসূচী থেকে দেখা যাচ্ছে  কোনও বিভাগেই গ্রুপ লীগে  ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচ নেই। বরং অস্ট্রেলিয়া পুরুষদের টি-২০ বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে। অন্যদিকে, মহিলাদের টি-২০ বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে  অস্ট্রেলিয়াই ভারতের মুখোমুখি হবে সিডনি-তে। ২০২০ সালের টি-২০ বিশ্বকাপে মহিলা ও পুরুষদের প্রতিযোগিতা একই বছরের দুটো সময়ে অস্ট্রেলিয়াতেই অনুষ্ঠিত হবে।  মহিলাদের টি-২০ বিশ্বকাপ-এর আসর ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সালে বসবে। শেষ হবে ৮ মার্চ। মোট ২৩টি দল এতে অংশ নেবে। ফাইনাল হবে  ৮ মার্চ।  মহিলাদের টি-২০ বিশ্বকাপের গ্রুপ লিগের ম্যাচঃ (২১ ফেব্রুয়ারি-৩ মার্চ) গ্রুপ এঃ অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ভারত, শ্রীলঙ্কা, কোয়ালিফায়ার ১ গ্রুপ বিঃ ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকা, পাকিস্তান, কোয়ালিফায়ার ২ সেমিফাইনালঃ ৫ মার্চ,    ফাইনালঃ ৮ মার্চ পুরুষদের টি-২০ বিশ্বকাপ ক্রিকেট শুরু হবে ১৮ অক্টোবর। প্রতিযোগিতা শেষ হবে ১৫ নভেম্বর। মূল প্রতিযোগিতা শুরুর আগে বেশকিছু যোগ্যতা নির্ণায়ক ম্যাচ আছে পুরুষদের টি-২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপে। এই ম্যাচগুলো খেলা হবে ১৮ অক্টোবর থেকে। সুপার ১২ নিয়ে মূল প্রতিযোগিতা শুরু হবে ২৪ অক্টোবর। যেখানে সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে পাকিস্তানের সঙ্গে মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়া। পুরুষদের গ্রুপ লিগের ম্যাচঃ (২৪ অক্টোবর-৮ নভেম্বর) গ্রুপ ১: পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড, দুজন কোয়ালিফায়ার গ্রুপ ২: ভারত, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, আফগানিস্তান, দুজন কোয়ালিফায়ার সেমিফাইনাল: ১১ নভেম্বর এবং ১২ নভেম্বর, ফাইনাল: ১৫ নভেম্বর    

  • ভারতের ক্রিকেটে ইতিহাস ,অস্ট্রেলিয়ায় সর্ব প্রথম টেস্ট সিরিজ জয়, বৃষ্টি ভেস্তে দিল সিডনি টেস্ট,

    ডেস্ক, ৭ জানুয়ারীঃ অবশেষে বৃষ্টি ও স্বল্প আলোর কৃপায় অমীমাংসিত থেকেই গেল সিডনি টেস্ট। ঈশ্বরের কৃপা বর্ষিত হল অস্ট্রেলিয়া দলের ঊপর। চতুর্থ দিনে চা-পানের বিরতি-র আগে যেখানে খেলা বন্ধ হয়েছিল, পষ্ণম দিনে সেখান থেকে  খেলার গতিপ্রকৃতি একটুও বদলায়নি । পঞ্চম দিনেও মধ্যাহ্নভোজ পর্যন্ত কোন খেলা করানো যায়নি। মধ্যাহ্নভোজের পর আলোর অবস্থা ও আবার  মাঠ পরিদর্শন করে আম্পায়রা।  আলোর অবস্থা পর্যালোচনা করেন ।  আবহাওয়ার উন্নতির আশায় কিছুক্ষণ অপেক্ষাও করেন আম্পায়রা। কিন্তু পর্যাপ্ত আলো না থাকায় দুই দলের অধিনায়কের সঙ্গেও কথা বলে র সিডনি টেস্ট ড্র বলে ঘোষণা করেন। চতুর্থ টেস্ট ড্র হলেও  ভারতের দখলেই থেকে যায় সিরিজ। ২-১ ফলে টেস্ট সিরিজ জয় করে বিরাট কোহলির নেতৃত্বে  ভারতীয় দল অস্ট্রেলিয়ার  নতুন ইতিহাস রচনা করেন। কারণ, এই সফরের আগে অস্ট্রেলিয়ায় কোনও টেস্ট সিরিজ জয়ের রেকর্ড ভারতের দখলে ছিল না। ম্যান অফ দি ম্যাচ এবং ম্যান অফ দি সিরিজ নির্বাচিত হয়েছেন চেতেশ্বর পূজারা। এই সফরে তিনটি  শতরান  করেছেন এই ব্যাটসম্যান। সিডনি টেস্টে  প্রথম ইনিংসে ভারতীয় ব্যাটসম্যা‌নদের ৬২২ রানের লক্ষ্যের সামনে দাড়াতেই পারেননি অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা। ৩০০ রানেই শেষ যায় তাদের প্রথম ইনিংস। ফলো-অন  করার পর চার ওভারই ব্যাট করতে পেরেছিল অস্ট্রেলিয়া। বিনা উইকেটে ৪ ওভারে তাদের সংগ্রহ ছিল ৬ রান। এরমধ্য হ্যারিস  বুমরাহের বলে আউট হতে হতে বেঁচেছিলেন। স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়ায় স্পিনাররা এই পিচে কার্যকরি হয়ে উঠতে পারতেন এবং ভারতের জয় নিশ্চিত ছিল বলেই মনে করা হচ্ছে।  তারপর বৃষ্টি এসে শেষটা ভেস্তে দিল যেভাবে তৃতীয় দিনের শেষটাও দিয়েছিল।   সিডনি টেস্টে ভারত যদি জিতত তা হলে সিরিজ  ৩-১ ফলে ভারতের দখলেই যেত।  তাই সিডনি টেস্ট ড্র হওয়ায় ভারতের একটা নিশ্চিত জয় হাতছাড়া হয়েছে একথা সত্য। অবশেষে ভারত জিতল ইন্ডিয়া- গাভাসকার ট্রফি।

  • এস আর এম বি কাপ ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ান মালদা অনীক সংঘ

    কার্ত্তিক চন্দ্র পাল,মালদা, ৬  জানুয়ারীঃ,আজ ছিল এস আর এম  বি কাপ    ক্রিকেট টুর্নামেন্টের  ফাইনাল খেলা। গত ৩০শে ডিসেম্বর থেকে মোট আটটি দল নিয়ে    এই প্রতিযীগিতা শুরু হয়েছিল মালদহের প্রানকেন্দ্র বৃন্দাবনি ময়দানে। আজ চূড়ান্ত পর্যায়ের এই খেলায় অংশগ্রহণ করেছিল মালদা অনীক সংঘ ও সবুজ সংঘ  বহরমপুর। এই খেলাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক দর্শক সমাগম হয়েছিল।  অনীক সংঘ,মালদা টসে জিতে ফিল্ডিং  করার সিদ্বান্ত নেয়। সবুজ সংঘ নির্ধারিত   ৩০ ওভারে ২৯১রান করে সকলে আউট হয়ে যান।সবুজ সংঘ-র সব্বোচ্চ রান করেন তন্ময় প্রামানিক ৪৫ বলে ৮২ রান ও পঙ্কজ সাঊ ২৮ বলে ৫২ রান  করেন। ন।  জবাবে ব্যাট করতে নেমে অনীক সংঘ রাহুল দালাল ও অরুন চাপরানার ব্যাটিংএ ভর করে ২ উইকেট বাকী থাকতেই জয়ের লক্ষ মাত্রায় পৌছে যান।   অনীক সংঘ-র রাহুল দালাল ৫১ বলে ১১১ রান এবং অরুন চাপরানা ৬৩ বলে ৯১  রান করেন। ।  মালদা অনীক সংঘ ২ উইকেটে  জয়লাভ করে। ম্যান  অফ দি ম্যাচ হন মালদা অনীক সংঘের রাহুল দালাল। ম্যান  অফ দি সিরিজ হন মালদা অনীক সংঘের অরুন চাপরানা। চ্যাম্পিয়ান দল মালদা অনীক সংঘ পান নগদ ১ লক্ষ টাকা ও ট্রফি এবং বিজিত দল পায় নগদ ৫০,০০০=০০টাকা  ও রানার্স ট্রফি।