ক�রিকেট

  • প্রথম টেস্টে ৩১ রানে জিতে টেস্ট সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ইংল্যান্ড

    Newsbazar 24 ডেস্ক, ৪ আগস্টঃ  ভারত শেষ পর্যন্ত লড়াই করে পরাজিত হল। ভারত ও ইংল্যান্ডের  প্রথম টেস্টে ৩১ রানে জিতে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ইংল্যান্ড।  ১৯৪ রান তাড়া করতে নেমে ১৬২ রানে শেষ হল ভারতের ইনিংস। এদিন জিততে হলে ভারতকে করতে হল ৮৪ রান। হাতে ছিল ৫ উইকেট। ক্রিজে ছিলেনঅপরাজিত  বিরাট কোহলি ৪৩ রানে।  সঙ্গে ছিলেন ১৮ রানে দীনেশ কার্তিক। তবে এদিন খেলার শুরুতেই কার্তিক ২০ রানে ফিরে যান। হার্দিক পান্ডিয়াকে সঙ্গে নিয়ে কোহলি ইনিংসের হাল ধরার চেষ্টা করেন। তবে অর্ধশতরান করার পরই বেন স্টোকসের বলে আড়াআড়ি খেলতে গিয়ে ৫১ রানে ফিরে যান। ব্যস, ওখানেই ভারতের জয়ের আশা শেষ হয়ে গিয়েছিল। শেষদিকে হার্দিক ৩১ রান করে কিছুটা ইনিংস লম্বা করেন। টেল এন্ডারদের মধ্যে মহম্মদ শামি (০), ইশান্ত শর্মারা (১১) ফিরে যান। শেষ অবধি পান্ডিয়া আউট হলেও উমেশ যাদব অপরাজিত থাকেন। ইংল্যান্ডের হয়ে বেন স্টোকস ৪টি, জেমস অ্যান্ডারসন ২টি, স্টুয়ার্ট ব্রড ২টি, স্যাম কারান ১টি ও আদিল রশিদ ১টি উইকেট পেয়েছেন। প্রথম টেস্টে জয়ের সামনে এসেও হারতে হল ভারতকে।    

  • তৃতীয় টি-২০ ম্যাচে ইংল্যান্ডকে ৭ উইকেটে হারিয়ে সিরিজ ভারতের।

    Newsbazar24, ৮জুনঃ  রোহিত শর্মার দুরন্ত অপরাজিত ব্যাটিংএর উপর  ভর করে রবিবার ব্রিস্টলে তৃতীয় তথা শেষ টি-২০ ম্যাচে ইংল্যান্ডকে ৭ উইকেটে হারিয়ে তিনম্যাচের সিরিজ ২-১ জিতল ভারত। এখনও পর্যন্ত ৮টি তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ খেলে ৮টিতেই জয়ী হল বিরাট-বাহিনী। এই প্রথম ইংল্যান্ডে  কোনও টি-২০ সিরিজ জিতল টিম ভারতিয় দল।  রবিবার ব্রিস্টলে টসে জিতে ইংল্যান্ডকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠান বিরাট কোহলি। দুই ওপেনার জেসন রয় ও জোস বটলার  ইংল্যান্ডকে শক্ত ভিতের ওপর দাঁড়ক্রিয়ে দিয়ে যান। ৭.৫ ওভারে যখন বটলার আউট হন ততক্ষণে স্কোরবোর্ডে ৯৪ রান যোগ করে ফেলেছে জুটি। ঝোড়ো ইনিংস খেলেন জেসন রয়ও। ৩১ বলে ৬৭ রান করেন তিনি। এর পর ইনিংসের হাল ধরেন হেলস। ২৪ বলে ৩০ রান করেন তিনি। ১৪ বলে ২৫ রানের ঝোড়ো ইনিংস  খেলে নজর কাড়েন বেয়ারস্ট্রো। ২০ ওভারের শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৯৮ রান করে ইংল্যান্ড। ভারতের হয়ে ৪ ওভারে ৪ উইকেট তোলেন হার্দিক পান্ডিয়া। ১৯৯ রানের  টার্গেট তাড়া করতে নেমে যে ধরনের শুরু দরকার ছিল, এদিন তেমনটা হয়নি। মাত্র ৫ রান করেই ফিরে যান ওপেনার শিখর ধবন। তিন নম্বরে নামেন প্রথম ম্যাচে সেঞ্চুরি করা কে এল রাহুল। কিন্তু, এদিন তিনি শুরুটা ভাল করেও, বেশি রান করতে ব্যর্থ হন। ১০ বলে ১৯ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান তিনি। এরপর অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে সঙ্গে নিয়ে ভারতীয় ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন রোহিত। দুজনই একটি বিষয়ের ওপর নজর রাখেন। তা হল, রান তোলার গতি যাতে কোনওভাবে স্লথ না হয়ে পড়ে। ২৯ বলে ৪৩ রানের ঝকঝকে ইনিংস উপহার দেন কোহলি। তিনি আউট হতে পাঁচ নম্বরে নেমে ঝোড়ো ইনিংস (১৪ বলে ৩৩) খেলেন হার্দিক পাণ্ড্য। দুজনে মিলে ভারতের জয় নিশ্চিত করেন রোহিত শর্মা। এদিন দুর্ধর্ষ মেজাজে ছিলেন রোহিত। মাত্র ৫৬ বলে নিজের শতরান সম্পন্ন করেন তিনি। তাঁর ইনিংস সাজানো ছিল ১১টি চার ও ৫টি ছক্কায়। প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ  ও প্লেয়ার অফ দ্য সিরিজ  রোহিত শর্মা।    

  • সিরিজের দ্বিতীয় টি২০ ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে জিতে সিরিজ পকেটস্থ করল।

    Newsbazar24,ডেস্ক, ২৯ জুন :সিরিজের দ্বিতীয় টি২০ ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে নামার আগে টসে হেরে যায় ভারত। এদিন টসে হেরে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন আয়ারল্যান্ডের অধিনায়ক গ্যারি উইলসন। কিন্তু অধিনায়কের সিদ্ধান্তের উপর ভরসা জোগাতে ব্যর্থ হন আয়ারল্যান্ডের বোলাররা ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের উপর কন প্রভাব ফেলতে ব্যর্থ । প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২১৩ রান তোলে ভারত। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৭০ রান করেন আয়ারল্যান্ড সফরে প্রথম সুযোগ পাওয়া লোকেশ রাহুল। তিনি যে আইপিএলের ফর্ম এখনও ধরে রেখেছেন তা দেখিয়ে দিলেন রাহুল। মাত্র ৩৬ বলে ৭০ রান করেন লোকেশ রাহুল। রাহুলের ইনিংসটি সাজানো ছিল তিনটি চার এবং ছয়টি ছয় দিয়ে। রাহুল ছাড়াও রান পান সুরেশ রায়না। ৪৫ বলে ৬৯ রান করেন সুরেশ রায়না। পাঁচটি চার এবং তিনটি ছয়ের সৌজন্যে সাজানো ছিল রায়নার ইনিংস। এই দুই ব্যাটসম্যান ছাড়া কিছুটা রান পান মনীশ পান্ডে এবং হার্দিক পান্ডিয়া। ২০ বলে ২১ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন মনীশ এবং কার্যকরী ন'বলে ৩২ রানের ইনিংস খেলেন হার্দিক পান্ডিয়া। ৪টি ছয় এবং ১টি চার দিয়ে সাজানো ছিল হার্দিকের ইনিংস।আয়ারল্যান্ডের হয়ে তিনটি উইকেট নেন কেভিন ও ব্রায়ান। ৪ ওভারে ৪০ রান খরচ করে ৩ উইকেট নেন তিনি। একটি শিকার পিটার চেসের।  জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১২.৩ ওভারে মাত্র ৭০ রানে গুটিয়ে যায় আয়ারল্যান্ডের ইনিংস। কোনও আইরিশ ক্রিকেটারই এদিন রুখে দাঁড়াতে পারেননি কুলদীপ যাদব, উমেশ যাদবদের সামনে। কোনও আইরিশ ক্রিকেটারই এদিন ২০ রানের গণ্ডি পেরতে পারেনি। আয়ারল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ, মাত্র ১৫ রান করেন তাদের অধিনায়ক। ১৪ রান করেন উইলিয়াম পোলারফিল্ড, ১৩ রান করেন স্টুয়ার্ট থমসন। ১০ রান করে আউট হন বয়েড রাংকিন। এই চার ব্যাটসম্যান ছাড়া কেউ দশ রানের গণ্ডিই টপকাতে পারেনি। ভারতের হয়ে তিনটি করে উইকেট নেন কুলদীপ যাদব এবং যুজবেন্দ্র চহাল। দু'টি উইকেট নেন উমেশ যাদব। একটি করে শিকার সিদ্ধার্থ কল এবং হার্দিক পান্ডিয়ার। ম্যাচের সেরা নির্বাচিত হয়েছেন কেএল রাহুল। টুর্নামেন্টের সেরা নির্বাচিত হয়েছে যুজবেন্দ্র চহাল।  

  • পেরুর এবারের মত বিশ্বকাপ অভিযান শেষ ফ্রান্সের কাছে ১-০ তে হেরে।

    Newsbazar,ডেস্ক, ২১শে জুনঃ বিশ্বকাপে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আজ একাটেরিনবার্গ এরিনায় মুখোমুখি হয়েছিল  ফ্রান্স এবং পেরু। প্রথম ম্যাচে হারের ফলে বিশ্বকাপ অভিযানে নিজেদের টিকিয়ে  রাখতে হলে এই ম্যাচে যে কোনও মূল্যে জয় প্রয়োজন ছিল  পেরুর। কিন্তু পারল না পেরু।এবারের মত বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিতে হল পেরুকে ১-০ তে হেরে । অন্য দিকে, গত ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর ফলে এই ম্যাচে জিতে  পরবর্তী রাউন্ড পাকা করে নিল  ফ্রান্স। ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণ তুলে আনার চেষ্টায় পেরু। সহজ সুযোগ মিস করলেন  ফ্রান্সের এমবাপে। আজ শততম ম্যাচটি খেলছেন ফ্রান্সের  গোলরক্ষক। ফ্রি কিক পেয়েও কাজে লাগাতে পারল না পেরু।হলুদ কার্ড দেখলেন পেরুর অধিনায়ক পাওলো গেরেরো।আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে জমে উঠেছে ম্যাচ। সহজ সুযোগ হারাল পেরু। নিশ্চিত গোল মিস করলেন পেরুর অধিনায়ক। আবার সহজ সুযোগ মিস করলেন  ফ্রান্সের এমবাপে।গোল করে ফ্রান্সকে এগিয়ে দিলেন এমবাপে।গোল শোধের চেষ্টায় একের পর এক আক্রমণ তুলে আনছে পেরু। অসাধারণ আক্রমণ! প্রেসিং ফুটবল খেলছে ফ্রান্স। ফ্রান্সের আক্রমণে দিশেহারা পেরু।প্রথমার্ধ শেষে খেলার ফল ফ্রান্স-১ পেরু-০। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে চোট পেয়েছেন উমতিতি। চোট গুরুতর।দুর্ভাগ্য পেরুর। পোস্টে লাগল আকুইনোর শট। আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে জমে ওঠেছিল  খেলা। দুর্দান্ত ফুটবল খেলল পেরু। ভাল খেললেও  কাঙ্খিত গোল পেতে ব্যর্থ পেরু। খেলার অন্তিম পর্বে  সুবিধাজনক জায়গা থেকে ফ্রি কিক পেল পেরু।পাওলো গেরেরোর শট সোজাসুজি আশ্রয় নিল ফ্রান্সের গোলরক্ষকের হাতে।খেলা শেষ। এমবাপের গোলে পেরুকে ১-০ গোলে হারিয়ে দিল ফ্রান্স। (উপরের ছবিটিতে ফ্রান্সের এমবাপে একমাত্র গোলটি করছেন)     

  • বিরাট কোহলির মুকুটে আর এক নয়া পালক,বর্ষসেরা ক্রিকেটারের সন্মান

    Newsbazar ডেস্ক,২৯শে মেঃ  : ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির মুকুটে আর এক নয়া পালক যুক্ত হল । সিয়েট ক্রিকেট রেটিং অ্যাওয়ার্ডে বিচারে বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন বিরাট কোহলি। বিরাট কোহলি। বিরাট গত মরশুমে ধারাবাহিকভাবে দুরন্ত ব্যাটিং করেছেন। বিরাট কোহলি উপস্থিত না থাকতে পারায় তারই হয়ে  পুরস্কার গ্রহণ করেন ভারতীয় দলের ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা। বর্ষসেরা ব্যাটসম্যান নির্বাচিত হয়েছেন ভারতীয় ওপেনার শিখর ধাওয়ান। বর্ষসেরা বোলারের পুরস্কার পেয়েছেন  নিউ জিল্যান্ডের পেসার ট্রেন্ট বোল্ট  টি-টোয়েন্টির বর্ষসেরা বোলারের পুরস্কার পেলেন  আফগান স্পিনার  রশিদ খান। টি-টোয়েন্টির সেরা ব্যাটসম্যানের পুরস্কার পেলেন কলিন মুনরো (নিউ জিল্যান্ড)। মহিলাদের বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে হরমনপ্রীত কৌরের করা অপরাজিত ১৭১ রানের সেই ইনিংসটি CEAT-র বিচারে বর্ষসেরা ইনিংস বিবেচিত হয়েছে। ঘরোয়া ক্রিকেটে বর্ষসেরা হলেন মায়াঙ্ক আগরওয়াল। শুভমান গিল হয়েছেন বর্ষসেরা অনূর্দ্ধ ১৯ ক্রিকেটার। পপুলার চয়েস অ্যাওয়ার্ড জিতে নিয়েছেন ক্যারিবিয়ান তারকা ক্রিস গেইল। লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন ফারুক ইঞ্জিনিয়ার।

  • চেন্নাই সুপার কিংস তৃতীয়বার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে হারিয়ে.

    Newsbazar,ডেস্ক। ২৭ মে: বেটিং কেলেঙ্কারিতে নির্বাসিত হবার দুই বৎসর  পর ফিরেই আইপিএল চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস।  এবার সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে হারিয়ে । আবারও আইপিএল  জয়ের কান্ডারী মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। এই নিয়ে তিনবার চ্যাম্পিয়ান তারা।  আজ ফাইনালে টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় চেন্নাই সুপার কিংস। এই ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংসএ হরভজন সিংহের বদলে দলে আসেন কর্ণ শর্মা। অন্যদিকে, হায়দরাবাদ দলে  খলিল আহমেদের বদলে দলে আসেন সন্দীপ শর্মা এবং চোট পাওয়া ঋদ্ধিমান সাহার বদলে খেলেন বাংলারই অপর এক উইকেটকিপার শ্রীবৎস গোস্বামী। রবিবারসিয়  ফাইনালে চেন্নাইয়ের  বিরুদ্ধে প্রথম ব্যাট করতে নেমে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৭৮ রান করে । দলের পক্ষে ভাল রান করেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন (৩৬ বলে ৪৭)। শিখর ধাওয়ান ২৬(২৫),সাকিব আল হাসান ২৩(১৫)রানে এবং পরের দিকে ইউসুফ পাঠান (২৫ বলে ৪৫) এবং কার্লোস ব্রেথওয়েট (১১ বলে ২১) রানের ঝোড়ো ইনিংসের ফলে হায়দরাবাদ  ১৭৮ রান করতে সক্ষম হয়। চেন্নাইয়ের  বোলাররা একটি করে উইকেট দখল করেছে। জবাবে ১৭৯ রানের টার্গেট নিয়ে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে ডু প্লেসিকে হারালেও আজ ওয়াংখেড়েতে চেন্নাইকে চ্যাম্পিয়ন করার  মুখ্য  ভূমিকায় অবতীর্ণ হন  ওপেনার শেন ওয়াটসন। মূলত তার বিস্ফোরক ব্যাটিং–র জন্য চেন্নাইর আজকের এই জয়। তবে তার সাথে যোগ্য সংগত দেন রায়না।ওয়াটসন-রায়না জুটির ১১৭ রানের পার্টনারশিপ চেন্নাইয়ের জয়ের ভিত গড়ে দেয়। রায়না ৩২ রানে প্যাভিলিয়নে ফিরে গেলেও ওয়াটসন কিন্তু ৫৭ বলে অপরাজিত ১১৭ রান করে চেন্নাইকে তৃতীয় আইপিএল এনে দিলেন। তাঁর ইনিংস সাজানো ছিল ১১টি চার ও ৮টি বিশাল ছক্কায়। সুরেশ রায়নার (২৪ বলে ৩২) । ১৭ রানে অপরাজিত থাকেন রায়ড়ু। আগের ম্যাচে নায়ক হলেও ফাইনালে কোনও উইকেট পেলেন না আফগান স্পিনার রশিদ খান। ১৮.৩ ওভারে  ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের প্রয়োজনীয় রান তুলে নেন ওয়াটসন-রায়াডুরা।

  • আইপিএল ২০১৮-র ফাইনালে চেন্নাই সুপার কিংস সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে ২ উইকেটে হারিয়ে।

    Newsbazar, ডেস্ক,২২শে মেঃ  আজ আইপিএলের প্রথম কোয়ালিফায়ারে মুখোমুখি হয়েছিল  সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ও চেন্নাই সুপার কিংস মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ের মাঠে।উত্তেজনাপূর্ণ এই  ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে ২ উইকেটে হারিয়ে ২০১৮ আইপিএলের ফাইনালে চলে গেল চেন্নাই সুপার কিংস। এদিন সানরাইজার্সের ১৩৯ রান তাড়া করতে নেমে ৫ বল বাকি থাকতেই জয়ের লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছে যায় ধোনিবাহিনী। এদিন  টসে জিতে প্রথমে বিপক্ষকে ব্যাট করতে পাঠালেন চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। শুরুতেই ধাক্কা খায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ । প্রথম ওভারের প্রথম বলেই চাহরের বলে আউট হন শিখর ধবন। তিন নম্বরে নেমে কেন উইলিয়ামসন শুরুটা ভাল করলেও, তাকে বড় রানে পরিণত করতে ব্যর্থ হন। ১৫ বলে ২৪ রান করে আউট হন হায়দরাবাদ অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন  । এদিন চেন্নাই বোলারদের অসাধারন  বোলিং হায়দরাবাদ ব্যাটসম্যানদের আটকে দেয়। নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট হারাতে থাকে হাদরাবাদ দল। শেষের দিকে কার্লোস ব্রেথওয়েট (২৯ বলে ৪৩) না করলে ১০০ রানের গণ্ডিও টপকাতে পারত না সানরাইজার্স। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ রান করেন ব্রেথওয়েটই। এছাড়া ২৪ রান করেন ইউসুফ পাঠান। অন্যদিকে, এদিন চেন্নাইয়ের ডোয়েন ব্রাভো নেন ২টি উইকেট। চাহর, এনগিডি, শার্দুল ও জাডেজা নেন একটি করে উইকেট। চেন্নাই দলে একটি পরিবর্তন করা হয়। স্যাম বিলিংসের জায়গায় প্রথম এগারোয় ফেরেন শেন ওয়াটসন। দ্বিতীয় ইনিংস-র শুরুতে  মনে হয়েছিল  সহজেই এই ম্যাচ জিতে যাবেন  ধোনিরা। কিন্তু,  বাস্তবে হল তার উল্টোটা। এত অল্প রানে নিয়েও  যে  লড়াই চালানো যায় , তা দেখাল সানরাইজার্স।  আর এর ফলে  দর্শকরা  একটি রোমাঞ্চকর ম্যাচ এদিন উপভোগ করলেন। হায়দ্রাবাদের ১৪০ রান  তাড়া করতে নেমে বিপক্ষের মতো শুরুতেই ধাক্কা খায় চেন্নাই। প্রথম ওভারে ০  রানে ফেরেন ওয়াটসন। তিন নম্বরে নামা সুরেশ রায়না শুরুটা ঝড়ের গতিতে করেন। পরপর তিনটি বাউন্ডারি মারেন। তবে, বেশিক্ষণ টেকেননি। ১৩ বলে ২২ রান করে আউট হন। চেন্নাইয়ের মিডল-অর্ডারে প্রায় ধস নামে। এক এক করে ফিরে যান অম্বাতি রায়াডু (০), অধিনায়ক ধোনি (৯)। ব্যর্থ হন ডোয়েন ব্রাভো (৭) , রবীন্দ্র জাডেজা (৩)।  চেন্নাই শিবির যখন প্রায় হারের মুখে তখন অন্যপ্রান্তে থেকে দলের সতীর্থদের আউট হওয়া দেখছেন ওপেনার ফাফ ডুপ্লেসি। একপ্রান্ত তিনি কার্যত আগলে রাখেন। তখনও চেন্নাইয়ের লোয়ার মিডল অর্ডারে ধস চলছে। ফিরে যাচ্ছেন চাহর (১০) ও হরভজন সিংহ (২)।   কিন্তু, হাল ছাড়তে নারাজ ছিলেন ডুপ্লেসি। শার্দুল ঠাকুরকে নিয়ে বৈতরণী পার করেন এই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৬৭ রান (৪২ বলে) করে। শেষ দিকে, শার্দুল  ৫ বলে ১৫রান করেন।  ২০তম ওভারের প্রথম বলে ভুবনেশ্বর কুমারের বলে ছক্কা হাঁকিয়ে চেন্নাইকে ফাইনালে পৌঁছে দিলেন ফ্যাফ ডু প্লেসি।   এই নিয়ে সপ্তমবার আইপিএল ফাইনালে পৌঁছল  চেন্নাই সুপার কিংস। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ: কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), শিখর ধবন, মণীষ পাণ্ডে, কার্লোস ব্রেথওয়েট, ইউসুফ পাঠান, শাকিব আস হাসান, শ্রীবৎস গোস্বামী, রশিদ খান, সিদ্ধার্থ কৌল, ভূবনেশ্বর কুমার ও সন্দীপ শর্মা। চেন্নাই সুপার কিংস: মহেন্দ্র সিংহ ধোনি (অধিনায়ক), ফাফ ডুপ্লেসি, অম্বাতি রায়াডু, সুরেশ রায়না, শেন ওয়াটসন, ডোয়েন ব্রাভো, রবীন্দ্র জাডেজা, লুঙ্গি এনগিডি, হরভজন সিংহ, দীপক চহর ও শার্দুল ঠাকুর

  • আইপিএল-২০১৮ (IPL 2018) প্লে-অফ কবে কে কার মুখোমুখি ?

    Newsbazar ডেস্ক, ২১ মেঃ ২০১৮-র আইপিএল প্রায় শেষ পর্বে ।  লিগে আটটি দলের মধ্যে অবশেষে প্রথম চারটি দল কারা প্লে-অফ খেলবে তাও ঠিক হয়ে গিয়েছে।  আসুন আমরা দেখে নেই  প্লে-অফে কবে কে কার মুখোমুখি হচ্ছে । প্রথম কোয়ালিফায়ার:  আগামীকাল ২২মে ২০১৮, আইপিএলের প্রথম কোয়ালিফায়ারে মঙ্গলবার মুখোমুখি  হচ্ছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ এবং চেন্নাই সুপার কিংস, খেলা হবে  মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে । এই ম্যাচের বিজয়ী দল সরাসরি পৌছে যাবে ফাইনালে। ম্যাচ শুরু হবে সন্ধ্যা ৭টা থেকে। এলিমিনেটর: ২৩মে ২০১৮, আইপিএলের এলিমিনেটরে রাজস্থান রয়্যালসের মুখোমুখি হবে কলকাতা নাইট রাইডার্স বুধবার ইডেন গার্ডেন্সে ।  এই ম্যাচে যে হারবে, সে ছিটকে যাবে টুর্নামেন্ট থেকে। খেলা শুরু সন্ধ্যা ৭টা থেকে। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার: ২৫মে ২০১৮, প্রথম কোয়ালিফায়ারের পরাজিত দল মুখোমুখি হবে, এলিমিনেটরের বিজয়ী দলের। শুক্রবার এই ম্যাচে যে দল জিতবে সেই দলই জায়গা নিশ্চিত করে নেবে ২০১৮ আইপিএলের ফাইনালে। সন্ধ্যা ৭টা থেকে ইডেন গার্ডেন্সে শুরু এই ম্যাচ। ফাইনাল: ২৭মে ২০১৮, দু'টি কোয়ালিফায়ারে বিজয়ী দলের মধ্যে রবিবার মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়েতে খেলা হবে ফাইনাল ম্যাচ। এই ম্যাচও শুরু হবে সন্ধ্যা ৭টা থেকে।  

  • এবারের মত আইপিএল অভিযান শেষ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের।

    Newsbazar ডেস্ক,২০মেঃ আজ  টসে জিতে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন দিল্লি ডেয়ারডেভিলস অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার। এবং  নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৭৪ রান তোলে দিল্লি। দিল্লির ঋষভ পন্থ ৪টি  চার এবং  ৪টি ছয় মেরে সর্বোচ্চ ৬৪ রান করেন  ঋষভ ছাড়া দিল্লির হয়ে ঝোড়ো ব্যাটিং করেন অলরাউন্ডার বিজয় শঙ্কর। ৩০ বলে ৪৩ রান করে  অপরাজিত  থাকেন বিজয়।  ৪৩ রানের মধ্যে ছিল ৩টি চার এবং ২টি ছয় । এই দুই জন ছাড়া কোনও কোনও দিল্লি ব্যাটসম্যানই এদিন বড় রান পাননি। ১২ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন পৃথ্বীশ। ২২ রান করেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ৬ রানে আউট হন অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার। মুম্বইয়ের হয়ে একটি করে উইকেট নেন ক্রুণাল পান্ডিয়া, যশপ্রীত বুমরা এবং ময়াঙ্ক মারকান্ডে। জবাবে মুম্বাই  ১৭৫ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ১৯.৩ ওভারেই  সকলেই আউট হয়ে যান।শুরুটা ভাল করলেও  পরের পর উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে পড়ে যায় মুম্বই। এদিন মুম্বইয়ের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেন এভিন লুইস। লুইস ছাড়া ম্যাচের শেষের দিকে মুম্বইকে জয়ের আশা দেখানো বেন কার্টিং ২০ বলে করেন ৩৭ রান। কিছুটা চেষ্টা করেন হার্দিক পান্ডিয়া(২৭)। এছাড়া মুম্বইয়ের কোনও ব্যাটসম্যানই এদিন ভাল রান পাননি। ১২ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন সূর্যকুমার যাদব, ৫ রানে ফেরেন ঈশান কিষান, ৭ রান করেন কিরন পোলার্ড। ৪ রান করে আউট হন ক্রুণাল পান্ডিয়া, ৩ রানে আউচ হল ময়াঙ্ক মারকান্ড। কোন রান না করেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান  যশপ্রীত বুমরা। তবে এই  ম্যাচে চরম ব্যর্থ মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। ১৩ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন রোহিত। দিল্লির হয়ে ব্যাট হাতে সেই ভাবে বড় রান না করতে পারলেও দারুণ ফিল্ডিং করেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। গ্লেন ম্যাক্স ওয়েল এবং ট্রেন্ট বোল্ট যুগলবন্দিতে দুই উইকেট পায় দিল্লি। দিল্লির হয়ে তিনটি করে উইকেট নেন নেপালের সন্দীপ লামিচানে, অমিত মিশ্র এবং হর্ষল পটেল। একটি উইকেট পান  ট্রেন্ট বোল্টের।  

  • আইপিএলে প্রচুর সুযোগ পেয়েও সব থেকে খারাপ পারফর্ম করেছেন তিনজন

    news bazar24:আইপিএলে প্রতিটি দলে  চারজন করে বিদেশি রাখার নিয়ম। এই চারজন বিদেশির পারফরম্যান্সের উপর অনেক ক্ষেত্রেই নির্ভর করে টিমের জেতা-হারা।  নিলামে যাঁদের নেওয়ার জন্য ওত পেতে রেখেছিলেন ফ্রাঞ্চাইজি কর্তারা,প্রচুর পরিমাণ অর্থ নেওয়ার পরও চলতি আইপিএলে চরম ব্যর্থ হন সেই তিনজন ক্রিকেটার। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, অ্যারন ফিঞ্চ, বেন লাফলিন,- গ্লেন ম্যাক্সওয়েল- ভারতে তাঁর পারফরম্যান্স একেবারে খারাপ। এদেশে সর্বসাকুল্যে তাঁর ব্যাটিং গড় ১৯.৫৭। এবার প্রথম পাঁচটি ইনিংসে ম্যাক্সওয়েলের গড় ছিল মাত্র ১৯। এবং ছ'ওভার বল করে পেয়েছিলেন মাত্র একটা উইকেট। টানা পাঁচ ম্যাচে খারাপ পারফর্ম করেও তিনি দলে ছিলেন। এদিকে, কলিন মুনরো মাত্র দু'টো ম্যাচে খারাপ খেলেই দলের বাইরে চলে যান। মুনরোর ব্যাটিং গড় ছিল ৩৭। যেখানে ম্যাক্সওয়েলের গড় শেষ পর্যন্ত ছিল মাত্র ২৫। বেন লাফলিন- বাংলাদেশ প্রিমিয়র লিগে বোলার হিসাবে দারুন পারফর্ম করেছিলেন। রাজস্থান ম্যানেজমেন্ট তাঁকে ব্যাক-আপ বোলার হিসাবে রেখেছিল। কিন্তু জোফরা আর্চার চোট পাওয়ার পরই লাফলিনের শিঁকে ছেড়ে। প্রথম তিন ম্যাচে তাঁর ইকোনমি রেট ছিল ১০.৮৫। পেয়েছিলেন তিন উইকেট। এর পর জোফরা চোট সারিয়ে ফিরে আসার পরও দলে সুযোগ পেতে থাকেন লাফলিন। তাঁর বোলিং গড় ছিল ৯.৩৩। তার পর দল থেকে বাদ পড়েন তিনি। অ্যারন ফিঞ্চ- টি-২০ ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান (১৫৬) করার রেকর্ড তাঁর পকেটে। এবার আইপিএল নিলামে পাঞ্জাব তাঁকে নিয়েছিল ৬.২ কোটি টাকার বিনিময়ে। মিডল অর্ডারে নেমে প্রথম ছ'ম্যাচে ফিঞ্চের গড় মাত্র ছয়। মাঝে তাঁকে বসিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পাঞ্জাব ম্যানেজমেন্ট।