Newsbazar24.com / বিশ্ব

  • বেনজির ভুট্টোর হত্যার এক দশক পর সামনে এল বিস্ফোরক তথ্য।

    29-Dec-17 01:34 am


    ডেস্ক ঃ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর হত্যার এক দশক পর সামনে এল বিস্ফোরক তথ্য। ভুট্টোর হত্যার পিছনে হাত ছিল আল কায়দা জঙ্গিগোষ্ঠীর প্রধান ওসামা বিন লাদেনের। সেই কারণেই আফগানিস্তানে চলে গিয়েছিলেন লাদেন, এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য জানাচ্ছে পাক সংবাদমাধ্যমই। আরও জানা যাচ্ছে, লাদেনের মাস্টার প্ল্যানে টার্গেট হিসাবে ভুট্টোর পাশাপাশি পারভেজ মুসারফও ছিলেন। ২০০৭ সালে পাক গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার সার্ভিস ইন্টিলিজেন্স (আইএসআই) এবং পাক সেনাদের কাছে আগেই এই খবর ছিল। পাক অভ্যন্তরীণ মন্ত্রকে চিঠি দিয়ে সে কথা জানানো হয়েছিল বলেও দাবি করছে গোয়েন্দা বিভাগ।প্রসঙ্গত, ২০০৭ সালের ২৭ ডিসেম্বর, রাওয়ালপিণ্ডির লিয়াকত বাগের সামনে এক নির্বাচনী প্রচারে আত্মঘাতী বিস্ফোরণে এবং গুলি বিদ্ধ হয়ে মারা যান জুলফিকার আলি ভুট্টোর কন্যা বেনজির ভুট্টো। এই হত্যার ঠিক ১০ বছর পর এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে আসায় রীতিমত বিপাকে পড়েছে পাক প্রশাসন। পাক সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, ২০০৭-এর ডিসেম্বরে সেনা এবং আইএসআই এই হত্যার ষড়যন্ত্র সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট জমা দেয় পাক অভ্যন্তরীণ মন্ত্রককে। সেই রিপোর্টে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট মুশারফ, পাকিস্তান পিপল পার্টির (পিপিপি) প্রধান তথা প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো, জামায়াত-উলেমা-ই- ইসলাম-ফজলের প্রধান ফলুর রহমানকে হত্যা করার জন্য মাস্টার প্ল্যান তৈরি করেছে লাদেন। ভুট্টোর হত্যার সপ্তাহ খানেক আগে পাঠানো ওই চিঠির প্রথম লাইনে লেখা ছিল-'প্রেসিডেন্ট মুশারফ, বেনজির ভুট্টো, ফজলুর রহমানের হত্যা প্ল্যান'। 

    Read : 10440

Related Posts

পাক নির্বাচনের মুহূর্তে হাফিজ সইদকে বড়সড় ধাক্কা দিল ফেসবুক
জোড়া শক্তিশালী বিস্ফোরণে রক্তাক্ত পাকিস্তান : মৃত্যু কমপক্ষে ৭৫ জনের
প্যারিসের একটি জেল থেকে উধাও পুলিসের তালিকায় কুখ্যাত গ্যাংস্টার রেদোয়াইন ফায়েদ
কালিহাতী ও ঘাটাইলে পৃথক সড়ক দুর্ঘট hiনায় ছয়জন নিহত ,আহত ৩২
ফুয়েগো আগ্নেয়গিরির বিস্ফোরণে মৃত ২৫
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ৭ জুলাই গণসংবর্ধনা দেবে আওয়ামী লীগ।
সিঙ্গাপুরে কিমের সঙ্গে বৈঠক পাকাপাকিভাবে বাতিল না করে আলোচনার দরজা খোলা রাখলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প
কিমের কোরিয়া এই বৈঠক নিয়ে অনিশ্চয়তা প্রকাশ করায় চরম ক্ষুব্ধ ওয়াশিংটন
হাসপাতালে ভর্তি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফাস্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প